(44 فَأَلْقَوْا حِبَالَهُمْ وَعِصِيَّهُمْ وَقَالُوا بِعِزَّةِ فِرْعَوْنَ إِنَّا لَنَحْنُ الْغَالِبُونَ

অতঃপর তারা তাদের রশি ও লাঠি নিক্ষেপ করল এবং বলল, ফেরাউনের ইযযতের কসম, আমরাই বিজয়ী হব।

So they threw their ropes and their rods, and said: “By the might of Pharaoh, it is we who will certainly win!”

(45 فَأَلْقَى مُوسَى عَصَاهُ فَإِذَا هِيَ تَلْقَفُ مَا يَأْفِكُونَ

অতঃপর মূসা তাঁর লাঠি নিক্ষেপ করল, হঠাৎ তা তাদের অলীক কীর্তিগুলোকে গ্রাস করতে লাগল।

Then Moses threw his rod, when, behold, it straightway swallows up all the falsehoods which they fake!

(46 فَأُلْقِيَ السَّحَرَةُ سَاجِدِينَ

তখন জাদুকররা সেজদায় নত হয়ে গেল।

Then did the sorcerers fall down, prostrate in adoration,

(47 قَالُوا آمَنَّا بِرَبِّ الْعَالَمِينَ

তারা বলল, আমরা রাব্বুল আলামীনের প্রতি বিশ্বাস স্থাপন করলাম।

Saying: “We believe in the Lord of the Worlds,

(48 رَبِّ مُوسَى وَهَارُونَ

যিনি মূসা ও হারুনের রব।

“The Lord of Moses and Aaron.”

(49 قَالَ آمَنتُمْ لَهُ قَبْلَ أَنْ آذَنَ لَكُمْ إِنَّهُ لَكَبِيرُكُمُ الَّذِي عَلَّمَكُمُ السِّحْرَ فَلَسَوْفَ تَعْلَمُونَ لَأُقَطِّعَنَّ أَيْدِيَكُمْ وَأَرْجُلَكُم مِّنْ خِلَافٍ وَلَأُصَلِّبَنَّكُمْ أَجْمَعِينَ

ফেরাউন বলল, আমার অনুমতি দানের পূর্বেই তোমরা কি তাকে মেনে নিলে? নিশ্চয় সে তোমাদের প্রধান, যে তোমাদেরকে জাদু শিক্ষা দিয়েছে। শীঘ্রই তোমরা পরিণাম জানতে পারবে। আমি অবশ্যই তোমাদের হাত ও পা বিপরীত দিক থেকে কর্তন করব। এবং তোমাদের সবাইকে শূলে চড়াব।

Said (Pharaoh): “Believe ye in Him before I give you permission? surely he is your leader, who has taught you sorcery! but soon shall ye know!

(50 قَالُوا لَا ضَيْرَ إِنَّا إِلَى رَبِّنَا مُنقَلِبُونَ

তারা বলল, কোন ক্ষতি নেই। আমরা আমাদের পালনকর্তার কাছে প্রত্যাবর্তন করব।

“Be sure I will cut off your hands and your feet on opposite sides, and I will cause you all to die on the cross!”

(51 إِنَّا نَطْمَعُ أَن يَغْفِرَ لَنَا رَبُّنَا خَطَايَانَا أَن كُنَّا أَوَّلَ الْمُؤْمِنِينَ

আমরা আশা করি, আমাদের পালনকর্তা আমাদের ক্রটি-বিচ্যুতি মার্জনা করবেন। কারণ, আমরা বিশ্বাস স্থাপনকারীদের মধ্যে অগ্রণী। They said: “No matter! for us, we shall but return to our Lord!

(52 وَأَوْحَيْنَا إِلَى مُوسَى أَنْ أَسْرِ بِعِبَادِي إِنَّكُم مُّتَّبَعُونَ

আমি মূসাকে আদেশ করলাম যে, আমার বান্দাদেরকে নিয়ে রাত্রিযোগে বের হয়ে যাও, নিশ্চয় তোমাদের পশ্চাদ্ধাবন করা হবে। “Only, our desire is that our Lord will forgive us our faults, that we may become foremost among the believers!”

(53 فَأَرْسَلَ فِرْعَوْنُ فِي الْمَدَائِنِ حَاشِرِينَ

অতঃপর ফেরাউন শহরে শহরে সংগ্রাহকদেরকে প্রেরণ করল,

By inspiration we told Moses: “Travel by night with my servants; for surely ye shall be pursued.”

(54 إِنَّ هَؤُلَاء لَشِرْذِمَةٌ قَلِيلُونَ

নিশ্চয় এরা (বনী-ইসরাঈলরা) ক্ষুদ্র একটি দল।

Then Pharaoh sent heralds to (all) the Cities,

(55 وَإِنَّهُمْ لَنَا لَغَائِظُونَ এবং তারা আমাদের ক্রোধের উদ্রেক করেছে। (Saying):

“These (Israelites) are but a small band, (56 وَإِنَّا لَجَمِيعٌ حَاذِرُونَ

এবং আমরা সবাই সদা শংকিত।

“And they are raging furiously against us;

(57 فَأَخْرَجْنَاهُم مِّن جَنَّاتٍ وَعُيُونٍ

অতঃপর আমি ফেরআউনের দলকে তাদের বাগ-বাগিচা ও ঝর্ণাসমূহ থেকে বহিষ্কার করলাম।

“But we are a multitude amply fore-warned.”

(58 وَكُنُوزٍ وَمَقَامٍ كَرِيمٍ এবং ধন-ভান্ডার ও মনোরম স্থানসমূহ থেকে।

So We expelled them from gardens, springs,

(59 كَذَلِكَ وَأَوْرَثْنَاهَا بَنِي إِسْرَائِيلَ

এরূপই হয়েছিল এবং বনী-ইসলাঈলকে করে দিলাম এসবের মালিক।

Treasures, and every kind of honourable position;

(60 فَأَتْبَعُوهُم مُّشْرِقِينَ

অতঃপর সুর্যোদয়ের সময় তারা তাদের পশ্চাদ্ধাবন করল।

Thus it was, but We made the Children of Israel inheritors of such things.

(61 فَلَمَّا تَرَاءى الْجَمْعَانِ قَالَ أَصْحَابُ مُوسَى إِنَّا لَمُدْرَكُونَ

যখন উভয় দল পরস্পরকে দেখল, তখন মূসার সঙ্গীরা বলল, আমরা যে ধরা পড়ে গেলাম।

So they pursued them at sunrise.

(62 قَالَ كَلَّا إِنَّ مَعِيَ رَبِّي سَيَهْدِينِ

মূসা বলল, কখনই নয়, আমার সাথে আছেন আমার পালনকর্তা। তিনি আমাকে পথ বলে দেবেন।

And when the two bodies saw each other, the people of Moses said: “We are sure to be overtaken.”

(63 فَأَوْحَيْنَا إِلَى مُوسَى أَنِ اضْرِب بِّعَصَاكَ الْبَحْرَ فَانفَلَقَ فَكَانَ كُلُّ فِرْقٍ كَالطَّوْدِ الْعَظِيمِ

অতঃপর আমি মূসাকে আদেশ করলাম, তোমার লাঠি দ্বারা সমূদ্রকে আঘাত কর। ফলে, তা বিদীর্ণ হয়ে গেল এবং প্রত্যেক ভাগ বিশাল পর্বতসদৃশ হয়ে গেল।

(Moses) said: “By no means! my Lord is with me! Soon will He guide me!”

(64 وَأَزْلَفْنَا ثَمَّ الْآخَرِينَ

আমি সেথায় অপর দলকে পৌঁছিয়ে দিলাম।

Then We told Moses by inspiration: “Strike the sea with thy rod.” So it divided, and each separate part became like the huge, firm mass of a mountain.

(65 وَأَنجَيْنَا مُوسَى وَمَن مَّعَهُ أَجْمَعِينَ

এবং মূসা ও তাঁর সংগীদের সবাইকে বাঁচিয়ে দিলাম।

And We made the other party approach thither.

(66 ثُمَّ أَغْرَقْنَا الْآخَرِينَ

অতঃপর অপর দলটিকে নিমজ্জত কললাম।

We delivered Moses and all who were with him;

(67 إِنَّ فِي ذَلِكَ لَآيَةً وَمَا كَانَ أَكْثَرُهُم مُّؤْمِنِينَ

নিশ্চয় এতে একটি নিদর্শন আছে এবং তাদের অধিকাংশই বিশ্বাসী ছিল না।

But We drowned the others. (68 وَإِنَّ رَبَّكَ لَهُوَ الْعَزِيزُ الرَّحِيمُ

আপনার পালনকর্তা অবশ্যই পরাক্রমশালী, পরম দয়ালু।

Verily in this is a Sign: but most of them do not believe.

(69 وَاتْلُ عَلَيْهِمْ نَبَأَ إِبْرَاهِيمَ

আর তাদেরকে ইব্রাহীমের বৃত্তান্ত শুনিয়ে দিন।

And verily thy Lord is He, the Exalted in Might, Most Merciful.

(70 إِذْ قَالَ لِأَبِيهِ وَقَوْمِهِ مَا تَعْبُدُونَ

যখন তাঁর পিতাকে এবং তাঁর সম্প্রদায়কে বললেন, তোমরা কিসের এবাদত কর?

And rehearse to them (something of) Abraham’s story.

(71 قَالُوا نَعْبُدُ أَصْنَامًا فَنَظَلُّ لَهَا عَاكِفِينَ

তারা বলল, আমরা প্রতিমার পূজা করি এবং সারাদিন এদেরকেই নিষ্ঠার সাথে আঁকড়ে থাকি।

Behold, he said to his father and his people: “What worship ye?”

(72 قَالَ هَلْ يَسْمَعُونَكُمْ إِذْ تَدْعُونَ

ইব্রাহীম (আঃ) বললেন, তোমরা যখন আহবান কর, তখন তারা শোনে কি?

They said: “We worship idols, and we remain constantly in attendance on them.”

(73 أَوْ يَنفَعُونَكُمْ أَوْ يَضُرُّونَ

অথবা তারা কি তোমাদের উপকার কিংবা ক্ষতি করতে পারে?

He said: “Do they listen to you when ye call (on them), or do you good or harm?”

(74 قَالُوا بَلْ وَجَدْنَا آبَاءنَا كَذَلِكَ يَفْعَلُونَ

তারা বললঃ না, তবে আমরা আমাদের পিতৃপুরুষদেরকে পেয়েছি, তারা এরূপই করত।

They said: “Nay, but we found our fathers doing thus (what we do).”

(75 قَالَ أَفَرَأَيْتُم مَّا كُنتُمْ تَعْبُدُونَ

ইব্রাহীম বললেন, তোমরা কি তাদের সম্পর্কে ভেবে দেখেছ, যাদের পূজা করে আসছ।

He said: “Do ye then see whom ye have been worshipping,-

(76 أَنتُمْ وَآبَاؤُكُمُ الْأَقْدَمُونَ

তোমরা এবং তোমাদের পূর্ববর্তী পিতৃপুরুষেরা ?

“Ye and your fathers before you?-

(77 فَإِنَّهُمْ عَدُوٌّ لِّي إِلَّا رَبَّ الْعَالَمِينَ

বিশ্বপালনকর্তা ব্যতীত তারা সবাই আমার শত্রু।

“For they are enemies to me; not so the Lord and Cherisher of the Worlds;

(78 الَّذِي خَلَقَنِي فَهُوَ يَهْدِينِ

যিনি আমাকে সৃষ্টি করেছেন, অতঃপর তিনিই আমাকে পথপ্রদর্শন করেন,

“Who created me, and it is He Who guides me;

(79 وَالَّذِي هُوَ يُطْعِمُنِي وَيَسْقِينِ

যিনি আমাকে আহার এবং পানীয় দান করেন,

“Who gives me food and drink,

(80 وَإِذَا مَرِضْتُ فَهُوَ يَشْفِينِ

যখন আমি রোগাক্রান্ত হই, তখন তিনিই আরোগ্য দান করেন।

“And when I am ill, it is He Who cures me;

(81 وَالَّذِي يُمِيتُنِي ثُمَّ يُحْيِينِ

যিনি আমার মৃত্যু ঘটাবেন, অতঃপর পুনর্জীবন দান করবেন।

“Who will cause me to die, and then to life (again);

(82 وَالَّذِي أَطْمَعُ أَن يَغْفِرَ لِي خَطِيئَتِي يَوْمَ الدِّينِ

আমি আশা করি তিনিই বিচারের দিনে আমার ক্রটি-বিচ্যুতি মাফ করবেন।

“And who, I hope, will forgive me my faults on the day of Judgment.

(83 رَبِّ هَبْ لِي حُكْمًا وَأَلْحِقْنِي بِالصَّالِحِينَ

হে আমার পালনকর্তা, আমাকে প্রজ্ঞা দান কর এবং আমাকে সৎকর্মশীলদের অন্তর্ভুক্ত কর

“O my Lord! bestow wisdom on me, and join me with the righteous;

(84 وَاجْعَل لِّي لِسَانَ صِدْقٍ فِي الْآخِرِينَ

এবং আমাকে পরবর্তীদের মধ্যে সত্যভাষী কর।

“Grant me honourable mention on the tongue of truth among the latest (generations);

(85 وَاجْعَلْنِي مِن وَرَثَةِ جَنَّةِ النَّعِيمِ

এবং আমাকে নেয়ামত উদ্যানের অধিকারীদের অন্তর্ভূক্ত কর।

“Make me one of the inheritors of the Garden of Bliss;

(86 وَاغْفِرْ لِأَبِي إِنَّهُ كَانَ مِنَ الضَّالِّينَ

এবং আমার পিতাকে ক্ষমা কর। সে তো পথভ্রষ্টদের অন্যতম।

“Forgive my father, for that he is among those astray;

(87 وَلَا تُخْزِنِي يَوْمَ يُبْعَثُونَ

এবং পূনরুত্থান দিবসে আমাকে লাঞ্ছিত করো না,

“And let me not be in disgrace on the Day when (men) will be raised up;-

(88 يَوْمَ لَا يَنفَعُ مَالٌ وَلَا بَنُونَ

যে দিবসে ধন-সম্পদ ও সন্তান সন্ততি কোন উপকারে আসবে না;

“The Day whereon neither wealth nor sons will avail,

(89 إِلَّا مَنْ أَتَى اللَّهَ بِقَلْبٍ سَلِيمٍ

কিন্তু যে সুস্থ অন্তর নিয়ে আল্লাহর কাছে আসবে।

“But only he (will prosper) that brings to Allah a sound heart;

(90 وَأُزْلِفَتِ الْجَنَّةُ لِلْمُتَّقِينَ

জান্নাত আল্লাহভীরুদের নিকটবর্তী করা হবে।

“To the righteous, the Garden will be brought near,