(216 فَإِنْ عَصَوْكَ فَقُلْ إِنِّي بَرِيءٌ مِّمَّا تَعْمَلُونَ

যদি তারা আপনার অবাধ্য করে, তবে বলে দিন, তোমরা যা কর, তা থেকে আমি মুক্ত।

Then if they disobey thee, say: “I am free (of responsibility) for what ye do!”

(217 وَتَوَكَّلْ عَلَى الْعَزِيزِ الرَّحِيمِ

আপনি ভরসা করুন পরাক্রমশালী, পরম দয়ালুর উপর,

And put thy trust on the Exalted in Might, the Merciful,-

(218 الَّذِي يَرَاكَ حِينَ تَقُومُ

যিনি আপনাকে দেখেন যখন আপনি নামাযে দন্ডায়মান হন,

Who seeth thee standing forth (in prayer),

(219 وَتَقَلُّبَكَ فِي السَّاجِدِينَ

এবং নামাযীদের সাথে উঠাবসা করেন।

And thy movements among those who prostrate themselves,

(220 إِنَّهُ هُوَ السَّمِيعُ الْعَلِيمُ

নিশ্চয় তিনি সর্বশ্রোতা, সর্বজ্ঞানী।

For it is He Who heareth and knoweth all things.

(221 هَلْ أُنَبِّئُكُمْ عَلَى مَن تَنَزَّلُ الشَّيَاطِينُ

আমি আপনাকে বলব কি কার নিকট শয়তানরা অবতরণ করে?

Shall I inform you, (O people!), on whom it is that the evil ones descend?

(222 تَنَزَّلُ عَلَى كُلِّ أَفَّاكٍ أَثِيمٍ

তারা অবতীর্ণ হয় প্রত্যেক মিথ্যাবাদী, গোনাহগারের উপর।

They descend on every lying, wicked person,

(223 يُلْقُونَ السَّمْعَ وَأَكْثَرُهُمْ كَاذِبُونَ

তারা শ্রুত কথা এনে দেয় এবং তাদের অধিকাংশই মিথ্যাবাদী।

(Into whose ears) they pour hearsay vanities, and most of them are liars.

(224 وَالشُّعَرَاء يَتَّبِعُهُمُ الْغَاوُونَ বিভ্রান্ত লোকেরাই কবিদের অনুসরণ করে।

And the Poets,- It is those straying in Evil, who follow them:

(225 أَلَمْ تَرَ أَنَّهُمْ فِي كُلِّ وَادٍ يَهِيمُونَ

তুমি কি দেখ না যে, তারা প্রতি ময়দানেই উদভ্রান্ত হয়ে ফিরে?

Seest thou not that they wander distracted in every valley?-

(226 وَأَنَّهُمْ يَقُولُونَ مَا لَا يَفْعَلُونَ এবং এমন কথা বলে, যা তারা করে না।

And that they say what they practise not?-

(227 إِلَّا الَّذِينَ آمَنُوا وَعَمِلُوا الصَّالِحَاتِ وَذَكَرُوا اللَّهَ كَثِيرًا وَانتَصَرُوا مِن بَعْدِ مَا ظُلِمُوا وَسَيَعْلَمُ الَّذِينَ ظَلَمُوا أَيَّ مُنقَلَبٍ يَنقَلِبُونَ

তবে তাদের কথা ভিন্ন, যারা বিশ্বাস স্থাপন করে ও সৎকর্ম করে এবং আল্লাহ কে খুব স্মরণ করে এবং নিপীড়িত হওয়ার পর প্রতিশোধ গ্রহণ করে। নিপীড়নকারীরা শীঘ্রই জানতে পারবে তাদের গন্তব্যস্থল কিরূপ।

Except those who believe, work righteousness, engage much in the remembrance of Allah, and defend themselves only after they are unjustly attacked. And soon will the unjust assailants know what vicissitudes their affairs will take!

 

27) সূরা নমল – Surah An-Naml (মক্কায় অবতীর্ণ – Ayah 93)

بِسْمِ اللّهِ الرَّحْمـَنِ الرَّحِيمِ শুরু করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম করুণাময়, অতি দয়ালু।

(1 طس تِلْكَ آيَاتُ الْقُرْآنِ وَكِتَابٍ مُّبِينٍ

ত্বা-সীন; এগুলো আল-কোরআনের আয়াত এবং আয়াত সুস্পষ্ট কিতাবের।

These are verses of the Qur’an,-a book that makes (things) clear;

(2 هُدًى وَبُشْرَى لِلْمُؤْمِنِينَ

মুমিনদের জন্যে পথ নির্দেশ ও সুসংবাদ।

A guide: and glad tidings for the believers,-

(3 الَّذِينَ يُقِيمُونَ الصَّلَاةَ وَيُؤْتُونَ الزَّكَاةَ وَهُم بِالْآخِرَةِ هُمْ يُوقِنُونَ

যারা নামায কায়েম করে, যাকাত প্রদান করে এবং পরকালে নিশ্চিত বিশ্বাস করে।

Those who establish regular prayers and give in regular charity, and also have (full) assurance of the hereafter.

(4 إِنَّ الَّذِينَ لَا يُؤْمِنُونَ بِالْآخِرَةِ زَيَّنَّا لَهُمْ أَعْمَالَهُمْ فَهُمْ يَعْمَهُونَ

যারা পরকালে বিশ্বাস করে না, আমি তাদের দৃষ্টিতে তাদের কর্মকান্ডকে সুশোভিত করে দিয়েছি।

অতএব, তারা উদভ্রান্ত হয়ে ঘুরে বেড়ায়।

As to those who believe not in the Hereafter, We have made their deeds pleasing in their eyes; and so they wander about in distraction.

(5 أُوْلَئِكَ الَّذِينَ لَهُمْ سُوءُ الْعَذَابِ وَهُمْ فِي الْآخِرَةِ هُمُ الْأَخْسَرُونَ

তাদের জন্যেই রয়েছে মন্দ শাস্তি এবং তারাই পরকালে অধিক ক্ষতিগ্রস্ত।

Such are they for whom a grievous Penalty is (waiting); and in the

Hereafter theirs will be the greatest loss.