02 Para / ০২ পারা – সূরা বাকারার ১৪২ থেকে ২৫২ আয়াত পর্যন্ত

 

(142) سَيَقُولُ السُّفَهَاء مِنَ النَّاسِ مَا وَلاَّهُمْ عَن قِبْلَتِهِمُ الَّتِي كَانُواْ عَلَيْهَا قُل لِّلّهِ الْمَشْرِقُ وَالْمَغْرِبُ يَهْدِي مَن يَشَاء إِلَى صِرَاطٍ مُّسْتَقِيمٍ এখন নির্বোধেরা বলবে, কিসে মুসলমানদের ফিরিয়ে দিল তাদের ঐ কেবলা থেকে, যার উপর তারা ছিল? আপনি বলুনঃ পূর্ব ও পশ্চিম আল্লাহরই। তিনি যাকে ইচ্ছা সরল পথে চালান। The fools among the people will say: “What hath turned them from the Qibla to which they were used?” Say: To Allah belong both east and West: He guideth whom He will to a Way that is straight.

( سَيَقُولُ বলবে অচিরেই Will say, ٱلسُّفَهَآءُ নির্বোধরা the foolish ones, مِنَ মধ্য হতে from, ٱلنَّاسِ মানুষদের the people, مَا ‘কিসে “What, وَلَّىٰهُمْ তাদের মুখ ফিরাল (has) turned them, عَن হতে from, قِبْلَتِهِمُ তাদের কিবলা their direction of prayer, ٱلَّتِى সেই (কিবলা হতে) which, كَانُوا۟ তারা ছিল they were used to, عَلَيْهَا যার দিকে (মুখ করত)” [on it]”, قُل বলো Say, لِّلَّهِ ‘আল্লাহরই “For Allah, ٱلْمَشْرِقُ পূর্ব (is) the east, وَٱلْمَغْرِبُ ও পশ্চিম and the west, يَهْدِى তিনি পথ দেখান He guides, مَن যাকে whom, يَشَآءُ তিনি চান He wills, إِلَىٰ দিকে to, صِرَٰطٍ পথের a path, مُّسْتَقِيمٍ সরলসোজা” straight” )

 

(143) وَكَذَلِكَ جَعَلْنَاكُمْ أُمَّةً وَسَطًا لِّتَكُونُواْ شُهَدَاء عَلَى النَّاسِ وَيَكُونَ الرَّسُولُ عَلَيْكُمْ شَهِيدًا وَمَا جَعَلْنَا الْقِبْلَةَ الَّتِي كُنتَ عَلَيْهَا إِلاَّ لِنَعْلَمَ مَن يَتَّبِعُ الرَّسُولَ مِمَّن يَنقَلِبُ عَلَى عَقِبَيْهِ وَإِن كَانَتْ لَكَبِيرَةً إِلاَّ عَلَى الَّذِينَ هَدَى اللّهُ وَمَا كَانَ اللّهُ لِيُضِيعَ إِيمَانَكُمْ إِنَّ اللّهَ بِالنَّاسِ لَرَؤُوفٌ رَّحِيمٌ এমনিভাবে আমি তোমাদেরকে মধ্যপন্থী সম্প্রদায় করেছি যাতে করে তোমরা সাক্ষ্যদাতা হও মানবমন্ডলীর জন্যে এবং যাতে রসূল সাক্ষ্যদাতা হন তোমাদের জন্য। আপনি যে কেবলার উপর ছিলেন, তাকে আমি এজন্যই কেবলা করেছিলাম, যাতে একথা প্রতীয়মান হয় যে, কে রসূলের অনুসারী থাকে আর কে পিঠটান দেয়। নিশ্চিতই এটা কঠোরতর বিষয়, কিন্তু তাদের জন্যে নয়, যাদেরকে আল্লাহ পথপ্রদর্শন করেছেন। আল্লাহ এমন নন যে, তোমাদের ঈমান নষ্ট করে দেবেন। নিশ্চয়ই আল্লাহ, মানুষের প্রতি অত্যন্ত স্নেহশীল, করুনাময়। Thus, have We made of you an Ummat justly balanced, that ye might be witnesses over the nations, and the Messenger a witness over yourselves; and We appointed the Qibla to which thou wast used, only to test those who followed the Messenger from those who would turn on their heels (From the Faith). Indeed it was (A change) momentous, except to those guided by Allah. And never would Allah Make your faith of no effect. For Allah is to all people Most surely full of kindness, Most Merciful.

( وَكَذَٰلِكَ এবং এভাবে And thus, جَعَلْنَٰكُمْ তোমাদের আমরা বানিয়েছি We made you, أُمَّةً একটি জাতি a community, وَسَطًا মধ্যমপন্থী (of the) middle way, لِّتَكُونُوا۟ তোমরা হও যেন so that you will be, شُهَدَآءَ সাক্ষী witnesses, عَلَى উপর(জন্য) over, ٱلنَّاسِ (পৃথিবীর) মানুষের the mankind, وَيَكُونَ ও হয় and will be, ٱلرَّسُولُ রাসূল the Messenger, عَلَيْكُمْ তোমাদের উপর(জন্য) on you, شَهِيدًا সাক্ষী a witness, وَمَا এবং না And not, جَعَلْنَا আমরা বানিয়েছিলাম We made, ٱلْقِبْلَةَ কিবলা the direction of prayer, ٱلَّتِى সেটাকে which, كُنتَ তুমি ছিলে you were used to, عَلَيْهَآ যার উপর [on it], إِلَّا এ ছাড়া except, لِنَعْلَمَ আমরা যেন জানতে পারি that We make evident, مَن কে (he) who, يَتَّبِعُ অনুসরণ করে follows, ٱلرَّسُولَ রাসূলকে (আর) the Messenger, مِمَّن কে তাদের মধ্য হতে from (he) who, يَنقَلِبُ ফিরে যায় turns back, عَلَىٰ উপর on, عَقِبَيْهِ তার দুই গোড়ালির (অর্থাৎ উল্টোদিকে) his heels, وَإِن এবং যদিও And indeed, كَانَتْ তা ছিল (মেনে চলা) it was, لَكَبِيرَةً অবশ্যই কঠিন certainly a great (test), إِلَّا তবে (নয় কঠিন) except, عَلَى (তাদের) উপর for, ٱلَّذِينَ যাদেরকে those whom, هَدَى পথ দেখিয়েছেন guided, ٱللَّهُ আল্লাহ্‌ (by) Allah, وَمَا এবং নন And not, كَانَ (ছিল) will, ٱللَّهُ আল্লাহ্‌ (এরূপ যে) Allah, لِيُضِيعَ নষ্ট করবেন let go waste, إِيمَٰنَكُمْ তোমাদের ঈমান your faith, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ্‌ Allah, بِٱلنَّاسِ মানুষের উপর (is) to [the] mankind, لَرَءُوفٌ বড়ই দয়ালু Full of Kindness, رَّحِيمٌ পরম দয়ালু Most Merciful )

 

(144) قَدْ نَرَى تَقَلُّبَ وَجْهِكَ فِي السَّمَاء فَلَنُوَلِّيَنَّكَ قِبْلَةً تَرْضَاهَا فَوَلِّ وَجْهَكَ شَطْرَ الْمَسْجِدِ الْحَرَامِ وَحَيْثُ مَا كُنتُمْ فَوَلُّواْ وُجُوِهَكُمْ شَطْرَهُ وَإِنَّ الَّذِينَ أُوْتُواْ الْكِتَابَ لَيَعْلَمُونَ أَنَّهُ الْحَقُّ مِن رَّبِّهِمْ وَمَا اللّهُ بِغَافِلٍ عَمَّا يَعْمَلُونَ নিশ্চয়ই আমি আপনাকে বার বার আকাশের দিকে তাকাতে দেখি। অতএব, অবশ্যই আমি আপনাকে সে কেবলার দিকেই ঘুরিয়ে দেব যাকে আপনি পছন্দ করেন। এখন আপনি মসজিদুল-হারামের দিকে মুখ করুন এবং তোমরা যেখানেই থাক, সেদিকে মুখ কর। যারা আহলে-কিতাব, তারা অবশ্যই জানে যে, এটাই ঠিক পালনকর্তার পক্ষ থেকে। আল্লাহ বেখবর নন, সে সমস্ত কর্ম সম্পর্কে যা তারা করে। We see the turning of thy face (for guidance to the heavens: now Shall We turn thee to a Qibla that shall please thee. Turn then Thy face in the direction of the sacred Mosque: Wherever ye are, turn your faces in that direction. The people of the Book know well that that is the truth from their Lord. Nor is Allah unmindful of what they do.

( قَدْ অবশ্যই Indeed, نَرَىٰ দেখেছি আমরা We see, تَقَلُّبَ বার বার ফিরাতে (the) turning, وَجْهِكَ তোমার মুখ (of) your face, فِى দিকে towards, ٱلسَّمَآءِ আকাশের the heaven, فَلَنُوَلِّيَنَّكَ তাই তোমাকে আমরা ঘুরিয়ে দিচ্ছি So We will surely turn you, قِبْلَةً কিবলার (দিকে) (to the) direction of prayer, تَرْضَىٰهَا যা পছন্দ কর তুমি you will be pleased with, فَوَلِّ ফিরাও তাই So turn, وَجْهَكَ তোমার মুখ your face, شَطْرَ দিকে towards the direction, ٱلْمَسْجِدِ মাসজিদে (of) Al-Masjid, ٱلْحَرَامِ হারামের Al-Haraam, وَحَيْثُ এবং যেখানেই and wherever, مَا (কি) that, كُنتُمْ তোমরা থাক you are, فَوَلُّوا۟ ফিরাও তখন তোমরা [so] turn, وُجُوهَكُمْ তোমাদের মুখ your faces, شَطْرَهُۥ তার দিকে (in) its direction, وَإِنَّ এবং নিশ্চয়ই And indeed, ٱلَّذِينَ যাদের those who, أُوتُوا۟ দেয়া হয়েছ were given, ٱلْكِتَٰبَ কিতাব the Book, لَيَعْلَمُونَ তারা জানে অবশ্যই surely know, أَنَّهُ তা যে that it, ٱلْحَقُّ সত্য (is) the truth, مِن পক্ষ হতে from, رَّبِّهِمْ তার রবের their Lord, وَمَا এবং নন And not, ٱللَّهُ আল্লাহ্‌ (is) Allah, بِغَٰفِلٍ উদাসীন unaware, عَمَّا সে সমন্ধে যা of what, يَعْمَلُونَ তারা করছে they do )

 

(145) وَلَئِنْ أَتَيْتَ الَّذِينَ أُوْتُواْ الْكِتَابَ بِكُلِّ آيَةٍ مَّا تَبِعُواْ قِبْلَتَكَ وَمَا أَنتَ بِتَابِعٍ قِبْلَتَهُمْ وَمَا بَعْضُهُم بِتَابِعٍ قِبْلَةَ بَعْضٍ وَلَئِنِ اتَّبَعْتَ أَهْوَاءهُم مِّن بَعْدِ مَا جَاءكَ مِنَ الْعِلْمِ إِنَّكَ إِذَاً لَّمِنَ الظَّالِمِينَ যদি আপনি আহলে কিতাবদের কাছে সমুদয় নিদর্শন উপস্থাপন করেন, তবুও তারা আপনার কেবলা মেনে নেবে না এবং আপনিও তাদের কেবলা মানেন না। তারাও একে অন্যের কেবলা মানে না। যদি আপনি তাদের বাসনার অনুসরণ করেন, সে জ্ঞানলাভের পর, যা আপনার কাছে পৌঁছেছে, তবে নিশ্চয় আপনি অবিচারকারীদের অন্তর্ভুক্ত হবেন। Even if thou wert to bring to the people of the Book all the Signs (together), they would not follow Thy Qibla; nor art thou going to follow their Qibla; nor indeed will they follow each other’s Qibla. If thou after the knowledge hath reached thee, Wert to follow their (vain) desires,-then wert thou Indeed (clearly) in the wrong.

( وَلَئِنْ এবং অবশ্যই যদি And even if, أَتَيْتَ তুমি আস you come, ٱلَّذِينَ (তাদেরকে) যাদের (to) those who, أُوتُوا۟ দেয়া হয়েছে were given, ٱلْكِتَٰبَ কিতাব the Book, بِكُلِّ সব নিয়ে with all, ءَايَةٍ নিদর্শন (the) signs, مَّا (তবুও) না not, تَبِعُوا۟ অনুসরণ করবে তারা they would follow, قِبْلَتَكَ তোমার কিবলার your direction of prayer, وَمَآ এবং নও and not, أَنتَ তুমি (will) you (be), بِتَابِعٍ অনুসারী a follower, قِبْلَتَهُمْ তাদের কিবলার (of) their direction of prayer, وَمَا এবং নয় And not, بَعْضُهُم তাদের কেউ some of them, بِتَابِعٍ অনুসারী (are) followers, قِبْلَةَ কিবলার (of the) direction of prayer, بَعْضٍ কারোর (of each) other, وَلَئِنِ এবং অবশ্যই যদি And if, ٱتَّبَعْتَ তুমি অনুসরণ কর you followed, أَهْوَآءَهُم তাদের খেয়াল খুশির their desires, مِّنۢ থেকে from, بَعْدِ এর পরও after, مَا যা [what], جَآءَكَ তোমার কাছে এসেছে came to you, مِنَ থেকে of, ٱلْعِلْمِ (সঠিক) জ্ঞান the knowledge, إِنَّكَ নিশ্চয়ই তুমি indeed, you, إِذًا তাহলে (would) then, لَّمِنَ অবশ্যই অন্তর্ভুক্ত (be) surely among, ٱلظَّٰلِمِينَ সীমালঙ্ঘনকারীদের the wrongdoers )

 

(146)  الَّذِينَ آتَيْنَاهُمُ الْكِتَابَ يَعْرِفُونَهُ كَمَا يَعْرِفُونَ أَبْنَاءهُمْ وَإِنَّ فَرِيقاً مِّنْهُمْ لَيَكْتُمُونَ الْحَقَّ وَهُمْ يَعْلَمُونَ আমি যাদেরকে কিতাব দান করেছি, তারা তাকে চেনে, যেমন করে চেনে নিজেদের পুত্রদেরকে। আর নিশ্চয়ই তাদের একটি সম্প্রদায় জেনে শুনে সত্যকে গোপন করে। The people of the Book know this as they know their own sons; but some of them conceal the truth which they themselves know.

( ٱلَّذِينَ যারা (To) those whom, ءَاتَيْنَٰهُمُ তাদেরকে আমরা দিয়েছি We gave [them], ٱلْكِتَٰبَ কিতাব the Book, يَعْرِفُونَهُۥ তা তারা চিনে they recognize it, كَمَا যেমন like, يَعْرِفُونَ তারা চিনে they recognize, أَبْنَآءَهُمْ তাদের সন্তানদেরকে their sons, وَإِنَّ এবং নিশ্চয়ই And indeed, فَرِيقًا একদল a group, مِّنْهُمْ তাদের মধ্য হতে of them, لَيَكْتُمُونَ অবশ্যই গোপন করে surely they conceal, ٱلْحَقَّ সত্যকে the Truth, وَهُمْ এমতাবস্থায় যে তারা while they, يَعْلَمُونَ জানেও know )

 

(147) الْحَقُّ مِن رَّبِّكَ فَلاَ تَكُونَنَّ مِنَ الْمُمْتَرِينَ বাস্তব সত্য সেটাই যা তোমার পালনকর্তা বলেন। কাজেই তুমি সন্দিহান হয়ো না। The Truth is from thy Lord; so be not at all in doubt.

( ٱلْحَقُّ প্রকৃত সত্য The Truth, مِن পক্ষ হতে (is) from, رَّبِّكَ তোমার রবের your Lord,  فَلَا না তাই so (do) not, تَكُونَنَّ তোমরা হবে be, مِنَ অন্তর্ভুক্ত among, ٱلْمُمْتَرِينَ সন্দেহ পোষণকারীর the doubters )

 

(148) وَلِكُلٍّ وِجْهَةٌ هُوَ مُوَلِّيهَا فَاسْتَبِقُواْ الْخَيْرَاتِ أَيْنَ مَا تَكُونُواْ يَأْتِ بِكُمُ اللّهُ جَمِيعًا إِنَّ اللّهَ عَلَى كُلِّ شَيْءٍ قَدِيرٌ আর সবার জন্যই রয়েছে কেবলা একেক দিকে, যে দিকে সে মুখ করে (এবাদত করবে)। কাজেই সৎকাজে প্রতিযোগিতামূলকভাবে এগিয়ে যাও। যেখানেই তোমরা থাকবে, আল্লাহ অবশ্যই তোমাদেরকে সমবেত করবেন। নিশ্চয়ই আল্লাহ সর্ব বিষয়ে ক্ষমতাশীল। To each is a goal to which Allah turns him; then strive together (as in a race) Towards all that is good. Wheresoever ye are, Allah will bring you Together. For Allah Hath power over all things.

( وَلِكُلٍّ এবং প্রত্যেকের জন্য And for everyone, وِجْهَةٌ একটি দিক (আছে) (is) a direction, هُوَ সে he, مُوَلِّيهَا মুখ ফিরায় তার দিকে turns towards it, فَٱسْتَبِقُوا۟ তোমরা তাই প্রতিযোগিতা করো so race, ٱلْخَيْرَٰتِ কল্যাণের (to) the good, أَيْنَ যেখানেই Wherever, مَا (কি) that, تَكُونُوا۟ তোমরা থাক you will be, يَأْتِ আসবেন will bring, بِكُمُ তোমাদেরকে you, ٱللَّهُ আল্লাহ্‌ (by) Allah, جَمِيعًا সকলকেই (একসাথে) together, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ্‌ Allah, عَلَىٰ উপর (is) on, كُلِّ সব every, شَىْءٍ কিছুর thing, قَدِيرٌ সর্বশক্তিমান All-Powerful )

 

(149) وَمِنْ حَيْثُ خَرَجْتَ فَوَلِّ وَجْهَكَ شَطْرَ الْمَسْجِدِ الْحَرَامِ وَإِنَّهُ لَلْحَقُّ مِن رَّبِّكَ وَمَا اللّهُ بِغَافِلٍ عَمَّا تَعْمَلُونَ আর যে স্থান থেকে তুমি বের হও, নিজের মুখ মসজিদে হারামের দিকে ফেরাও-নিঃসন্দেহে এটাই হলো তোমার পালনকর্তার পক্ষ থেকে নির্ধারিত বাস্তব সত্য। বস্তুতঃ তোমার পালনকর্তা তোমাদের কার্যকলাপ সম্পর্কে অনবহিত নন। From whencesoever Thou startest forth, turn Thy face in the direction of the sacred Mosque; that is indeed the truth from the Lord. And Allah is not unmindful of what ye do.

( وَمِنْ এবং থেকেই And from, حَيْثُ যেখান wherever, خَرَجْتَ তুমি বের হও you start forth, فَوَلِّ তখন ফিরাও [so] turn, وَجْهَكَ তোমার মুখ your face, شَطْرَ দিকে (in the) direction, ٱلْمَسْجِدِ মাসজিদে (of) Al-Masjid, ٱلْحَرَامِ হারামের Al-Haraam, وَإِنَّهُۥ এবং তা নিশ্চয়ই And indeed, it, لَلْحَقُّ অবশ্যই সত্য (is) surely the truth, مِن পক্ষ হতে from, رَّبِّكَ তোমার রবের your Lord, وَمَا এবং নন And not, ٱللَّهُ আল্লাহ্‌ (is) Allah, بِغَٰفِلٍ উদাসীন unaware, عَمَّا তা হতে যা of what, تَعْمَلُونَ তোমরা করেছ you do )

 

(150) وَمِنْ حَيْثُ خَرَجْتَ فَوَلِّ وَجْهَكَ شَطْرَ الْمَسْجِدِ الْحَرَامِ وَحَيْثُ مَا كُنتُمْ فَوَلُّواْ وُجُوهَكُمْ شَطْرَهُ لِئَلاَّ يَكُونَ لِلنَّاسِ عَلَيْكُمْ حُجَّةٌ إِلاَّ الَّذِينَ ظَلَمُواْ مِنْهُمْ فَلاَ تَخْشَوْهُمْ وَاخْشَوْنِي وَلأُتِمَّ نِعْمَتِي عَلَيْكُمْ وَلَعَلَّكُمْ تَهْتَدُونَ আর তোমরা যেখান থেকেই বেরিয়ে আস এবং যেখানেই অবস্থান কর, সেদিকেই মুখ ফেরাও, যাতে করে মানুষের জন্য তোমাদের সাথে ঝগড়া করার অবকাশ না থাকে। অবশ্য যারা অবিবেচক, তাদের কথা আলাদা। কাজেই তাদের আপত্তিতে ভীত হয়ো না। আমাকেই ভয় কর। যাতে আমি তোমাদের জন্যে আমার অনুগ্রহ সমূহ পূর্ণ করে দেই এবং তাতে যেন তোমরা সরলপথ প্রাপ্ত হও। So from whencesoever Thou startest forth, turn Thy face in the direction of the sacred Mosque; and wheresoever ye are, Turn your face thither: that there be no ground of dispute against you among the people, except those of them that are bent on wickedness; so fear them not, but fear Me; and that I may complete My favours on you, and ye May (consent to) be guided;

( وَمِنْ এবং হতেই And from, حَيْثُ যেখান wherever, خَرَجْتَ তুমি বের হও you start forth, فَوَلِّ তুমি তখন ফিরাও [so] turn, وَجْهَكَ তোমার মুখ your face, شَطْرَ দিকে (in the) direction, ٱلْمَسْجِدِ মসজিদে (of) Al-Masjid, ٱلْحَرَامِ হারামের Al-Haraam, وَحَيْثُ এবং যেখানেই And wherever, مَا (কি) that, كُنتُمْ তোমরা থাক you (all) are, فَوَلُّوا۟ তোমরা তখন ফিরাবে [so] turn, وُجُوهَكُمْ তোমাদের মুখ your faces, شَطْرَهُۥ তার দিকে (in) its direction, لِئَلَّا না যেন so that not, يَكُونَ হয় will be, لِلنَّاسِ মানুষের জন্য for the people, عَلَيْكُمْ তোমাদের বিরুদ্ধে against you, حُجَّةٌ কোন প্রমাণ any argument, إِلَّا তবে except, ٱلَّذِينَ যারা those who, ظَلَمُوا۟ সীমালঙ্ঘন করেছে wronged, مِنْهُمْ তাদের মধ্যে থেকে (তাদের কথা ভিন্ন) among them, فَلَا না তাই so (do) not, تَخْشَوْهُمْ ভয় কর তাদেরকে fear them, وَٱخْشَوْنِى বরং তোমরা আমাকেই ভয় করো but fear Me, وَلِأُتِمَّ এবং আমি পূর্ণ করি যেন And that I complete, نِعْمَتِى আমার অনুগ্রহ My favor, عَلَيْكُمْ তোমাদের উপর upon you, وَلَعَلَّكُمْ ও আশা করা যায় তোমরা [and] so that you may, تَهْتَدُونَ সঠিক পথে চলবে (be) guided )

 

(151) كَمَا أَرْسَلْنَا فِيكُمْ رَسُولاً مِّنكُمْ يَتْلُو عَلَيْكُمْ آيَاتِنَا وَيُزَكِّيكُمْ وَيُعَلِّمُكُمُ الْكِتَابَ وَالْحِكْمَةَ وَيُعَلِّمُكُم مَّا لَمْ تَكُونُواْ تَعْلَمُونَ যেমন, আমি পাঠিয়েছি তোমাদেরই মধ্য থেকে তোমাদের জন্যে একজন রসূল, যিনি তোমাদের নিকট আমার বাণীসমুহ পাঠ করবেন এবং তোমাদের পবিত্র করবেন; আর তোমাদের শিক্ষা দেবেন কিতাব ও তাঁর তত্ত্বজ্ঞান এবং শিক্ষা দেবেন এমন বিষয় যা কখনো তোমরা জানতে না। A similar (favour have ye already received) in that We have sent among you an Messenger of your own, rehearsing to you Our Signs, and sanctifying you, and instructing you in Scripture and Wisdom, and in new knowledge.

( كَمَآ যেমন As, أَرْسَلْنَا আমরা প্রেরণ করেছি We sent, فِيكُمْ তোমাদের মধ্যে among you, رَسُولًا একজন রাসূল a Messenger, مِّنكُمْ তোমাদের মধ্য হতে from you, يَتْلُوا۟ সে তিলাওয়াত করে (who) recites, عَلَيْكُمْ তোমাদের কাছে to you, ءَايَٰتِنَا আমাদের আয়াত সমূহ Our verses, وَيُزَكِّيكُمْ ও তোমাদেরকে পরিশুদ্ধ করে and purifies you, وَيُعَلِّمُكُمُ এবং তোমাদেরকে শিক্ষা দেয় and teaches you, ٱلْكِتَٰبَ কিতাব the Book, وَٱلْحِكْمَةَ ও প্রজ্ঞা and the wisdom, وَيُعَلِّمُكُم আর তোমাদেরকে শিক্ষা দেয় and teaches you, مَّا যা what, لَمْ না not, تَكُونُوا۟ তোমরা থাক you were, تَعْلَمُونَ জানতে knowing )

 

(152) فَاذْكُرُونِي أَذْكُرْكُمْ وَاشْكُرُواْ لِي وَلاَ تَكْفُرُونِ সুতরাং তোমরা আমাকে স্মরণ কর, আমিও তোমাদের স্মরণ রাখবো এবং আমার কৃতজ্ঞতা প্রকাশ কর; অকৃতজ্ঞ হয়ো না। Then do ye remember Me; I will remember you. Be grateful to Me, and reject not Faith.

( فَٱذْكُرُونِىٓ সুতরাং স্মরণ করো তোমরা আমাকে So remember Me, أَذْكُرْكُمْ আমি স্মরণ করব তোমাদেরকে I will remember you, وَٱشْكُرُوا۟ এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করো and be grateful, لِى আমার প্রতি to Me, وَلَا এবং না and (do) not, تَكْفُرُونِ তোমরা অকৃতজ্ঞ হয়ো (be) ungrateful to Me )

 

(153) يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُواْ اسْتَعِينُواْ بِالصَّبْرِ وَالصَّلاَةِ إِنَّ اللّهَ مَعَ الصَّابِرِينَ হে মুমিন গন! তোমরা ধৈর্য্য ও নামাযের মাধ্যমে সাহায্য প্রার্থনা কর। নিশ্চিতই আল্লাহ ধৈর্য্যশীলদের সাথে রয়েছেন। O ye who believe! seek help with patient perseverance and prayer; for Allah is with those who patiently persevere.

( يَٰٓأَيُّهَا হে O you, ٱلَّذِينَ যারা who, ءَامَنُوا۟ ঈমান এনেছ believe[d]!, ٱسْتَعِينُوا۟ তোমরা সাহায্য চাও Seek help, بِٱلصَّبْرِ ধৈর্য্য দ্বারা through patience, وَٱلصَّلَوٰةِ ও সলাতের (মাধ্যমে) and the prayer, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ (আছেন) Allah, مَعَ সাথে (is) with, ٱلصَّٰبِرِينَ ধৈর্যশীলদের the patient ones )

 

(154)  وَلاَ تَقُولُواْ لِمَنْ يُقْتَلُ فِي سَبيلِ اللّهِ أَمْوَاتٌ بَلْ أَحْيَاء وَلَكِن لاَّ تَشْعُرُونَ আর যারা আল্লাহর রাস্তায় নিহত হয়, তাদের মৃত বলো না। বরং তারা জীবিত, কিন্তু তোমরা তা বুঝ না। And say not of those who are slain in the way of Allah. “They are dead.” Nay, they are living, though ye perceive (it) not.

( وَلَا এবং না And (do) not, تَقُولُوا۟ তোমরা বলো say, لِمَن (তাদের) যারা for (the ones) who, يُقْتَلُ নিহত হয় are slain, فِى মধ্যে in, سَبِيلِ পথে (the) way, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, أَمْوَٰتٌۢ ‘মৃত “(They are) dead, بَلْ বরং Nay, أَحْيَآءٌ তারা জীবিত (they are) alive, وَلَٰكِن কিন্তু [and] but, لَّا না you (do) not, تَشْعُرُونَ তোমরা অনুভব কর perceive )

 

(155) وَلَنَبْلُوَنَّكُمْ بِشَيْءٍ مِّنَ الْخَوفْ وَالْجُوعِ وَنَقْصٍ مِّنَ الأَمَوَالِ وَالأنفُسِ وَالثَّمَرَاتِ وَبَشِّرِ الصَّابِرِينَ এবং অবশ্যই আমি তোমাদিগকে পরীক্ষা করব কিছুটা ভয়, ক্ষুধা, মাল ও জানের ক্ষতি ও ফল-ফসল বিনষ্টের মাধ্যমে। তবে সুসংবাদ দাও সবরকারীদের। Be sure we shall test you with something of fear and hunger, some loss in goods or lives or the fruits (of your toil), but give glad tidings to those who patiently persevere,

( وَلَنَبْلُوَنَّكُم এবং তোমাদের অবশ্যই পরীক্ষা করব আমরা And surely We will test you, بِشَىْءٍ কিছু জিনিস দিয়ে with something, مِّنَ যেমন of, ٱلْخَوْفِ ভয় [the] fear, وَٱلْجُوعِ ও ক্ষুধা and [the] hunger, وَنَقْصٍ ও ক্ষয়ক্ষতি and loss, مِّنَ কিছু of, ٱلْأَمْوَٰلِ ধনসম্পদের [the] wealth, وَٱلْأَنفُسِ ও জীবনের and [the] lives, وَٱلثَّمَرَٰتِ ও ফল ফসলাদির and [the] fruits, وَبَشِّرِ এবং সুসংবাদ দাও but give good news, ٱلصَّٰبِرِينَ (ঐসব) ধৈর্যশীলদের (to) the patient ones )

 

(156) الَّذِينَ إِذَا أَصَابَتْهُم مُّصِيبَةٌ قَالُواْ إِنَّا لِلّهِ وَإِنَّـا إِلَيْهِ رَاجِعونَ যখন তারা বিপদে পতিত হয়, তখন বলে, নিশ্চয় আমরা সবাই আল্লাহর জন্য এবং আমরা সবাই তাঁরই সান্নিধ্যে ফিরে যাবো। Who say, when afflicted with calamity: “To Allah We belong, and to Him is our return”:-

( ٱلَّذِينَ যারা Those who, إِذَآ যখন when, أَصَٰبَتْهُم তাদের উপর এসে পড়ে strikes them, مُّصِيبَةٌ কোনো বিপদ a misfortune, قَالُوٓا۟ (তখন) তারা বলে they say, إِنَّا ‘নিশ্চয়ই আমরা “Indeed, we, لِلَّهِ আল্লাহরই জন্যে belong to Allah, وَإِنَّآ ও নিশ্চয়ই আমরা and indeed we, إِلَيْهِ তাঁরই দিকে towards Him, رَٰجِعُونَ প্রত্যাবর্তনকারী” will return” )

 

(157) أُولَـئِكَ عَلَيْهِمْ صَلَوَاتٌ مِّن رَّبِّهِمْ وَرَحْمَةٌ وَأُولَـئِكَ هُمُ الْمُهْتَدُونَ তারা সে সমস্ত লোক, যাদের প্রতি আল্লাহর অফুরন্ত অনুগ্রহ ও রহমত রয়েছে এবং এসব লোকই হেদায়েত প্রাপ্ত। They are those on whom (Descend) blessings from Allah, and Mercy, and they are the ones that receive guidance.

( أُو۟لَٰٓئِكَ ঐসব লোক Those, عَلَيْهِمْ তাদের উপর (রয়েছে) on them, صَلَوَٰتٌ বিপুল অনুগ্রহ (are) blessings, مِّن পক্ষ হতে from, رَّبِّهِمْ তাদের রবের their Lord, وَرَحْمَةٌ এবং দয়া and Mercy, وَأُو۟لَٰٓئِكَ ঐসব লোক And those, هُمُ তারাই [they], ٱلْمُهْتَدُونَ সঠিক পথপ্রাপ্ত (are) the guided ones )

 

(158) إِنَّ الصَّفَا وَالْمَرْوَةَ مِن شَعَآئِرِ اللّهِ فَمَنْ حَجَّ الْبَيْتَ أَوِ اعْتَمَرَ فَلاَ جُنَاحَ عَلَيْهِ أَن يَطَّوَّفَ بِهِمَا وَمَن تَطَوَّعَ خَيْرًا فَإِنَّ اللّهَ شَاكِرٌ عَلِيمٌ নিঃসন্দেহে সাফা ও মারওয়া আল্লাহ তা’আলার নিদর্শন গুলোর অন্যতম। সুতরাং যারা কা’বা ঘরে হজ্ব বা ওমরাহ পালন করে, তাদের পক্ষে এ দুটিতে প্রদক্ষিণ করাতে কোন দোষ নেই। বরং কেউ যদি স্বেচ্ছায় কিছু নেকীর কাজ করে, তবে আল্লাহ তা’আলার অবশ্যই তা অবগত হবেন এবং তার সে আমলের সঠিক মুল্য দেবেন। Behold! Safa and Marwa are among the Symbols of Allah. So if those who visit the House in the Season or at other times, should compass them round, it is no sin in them. And if any one obeyeth his own impulse to good,- be sure that Allah is He Who recogniseth and knoweth.

( إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱلصَّفَا সাফা the Safa, وَٱلْمَرْوَةَ ও মারওয়া and the Marwah, مِن অন্তর্ভুক্ত (are) from, شَعَآئِرِ নিদর্শনসমূহের (the) symbols, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, فَمَنْ সুতরাং যে So whoever, حَجَّ হজ্জ করবে performs Hajj, ٱلْبَيْتَ (কাবা) ঘরের (of) the House, أَوِ বা or, ٱعْتَمَرَ ওমরা করবে performs Umrah, فَلَا সেক্ষেত্রে নেই so no, جُنَاحَ কোনো পাপ blame, عَلَيْهِ তার জন্য on him, أَن যে that, يَطَّوَّفَ সে প্রদক্ষিণ করবে he walks, بِهِمَا তার দুইয়ের (মাঝে) between [both of] them, وَمَن আর যে কেউ And whoever, تَطَوَّعَ স্বেচ্ছায় করে voluntarily does, خَيْرًا কোনো কল্যাণ good, فَإِنَّ নিশ্চয়ই তবে then indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, شَاكِرٌ (তার) মূল্যদানকারী (is) All-Appreciative, عَلِيمٌ খুব অবহিত All-Knowing)

 

(159) إِنَّ الَّذِينَ يَكْتُمُونَ مَا أَنزَلْنَا مِنَ الْبَيِّنَاتِ وَالْهُدَى مِن بَعْدِ مَا بَيَّنَّاهُ لِلنَّاسِ فِي الْكِتَابِ أُولَـئِكَ يَلعَنُهُمُ اللّهُ وَيَلْعَنُهُمُ اللَّاعِنُونَ নিশ্চয় যারা গোপন করে, আমি যেসব বিস্তারিত তথ্য এবং হেদায়েতের কথা নাযিল করেছি মানুষের জন্য কিতাবের মধ্যে বিস্তারিত বর্ণনা করার পরও; সে সমস্ত লোকের প্রতিই আল্লাহর অভিসম্পাত এবং অন্যান্য অভিসম্পাতকারীগণের ও। Those who conceal the clear (Signs) We have sent down, and the Guidance, after We have made it clear for the people in the Book,-on them shall be Allah.s curse, and the curse of those entitled to curse,-

( إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱلَّذِينَ যারা those who, يَكْتُمُونَ গোপন করে conceal, مَآ যা what, أَنزَلْنَا আমরা অবতীর্ণ করেছি We revealed, مِنَ থেকে of, ٱلْبَيِّنَٰتِ স্পষ্ট নিদর্শনাদি the clear proofs, وَٱلْهُدَىٰ ও পথনির্দেশ and the Guidance, مِنۢ থেকে from, بَعْدِ এর পরও after, مَا যা [what], بَيَّنَّٰهُ তা স্পষ্ট বর্ণনা করেছি আমরা We made clear, لِلنَّاسِ মানুষের জন্যে to the people, فِى মধ্যে in, ٱلْكِتَٰبِ কিতাবের the Book, أُو۟لَٰٓئِكَ ঐসব লোক those, يَلْعَنُهُمُ তাদেরকে অভিশাপ দেন curses them, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, وَيَلْعَنُهُمُ ও তাদেরকে অভিশাপ দেয় and curse them, ٱللَّٰعِنُونَ অভিশাপকারীরা the ones who curse )

 

(160) إِلاَّ الَّذِينَ تَابُواْ وَأَصْلَحُواْ وَبَيَّنُواْ فَأُوْلَـئِكَ أَتُوبُ عَلَيْهِمْ وَأَنَا التَّوَّابُ الرَّحِيمُ তবে যারা তওবা করে এবং বর্ণিত তথ্যাদির সংশোধন করে মানুষের কাছে তা বর্ণনা করে দেয়, সে সমস্ত লোকের তওবা আমি কবুল করি এবং আমি তওবা কবুলকারী পরম দয়ালু। Except those who repent and make amends and openly declare (the Truth): To them I turn; for I am Oft-returning, Most Merciful.

( إِلَّا ছাড়া Except, ٱلَّذِينَ (তাদের) যারা those, تَابُوا۟ তওবা করেছে who repent[ed],  وَأَصْلَحُوا۟ ও সংশোধিত হয়েছে and reform[ed], وَبَيَّنُوا۟ এবং (স্পষ্টভাবে সত্য) বর্ণনা করেছে and openly declar[ed], فَأُو۟لَٰٓئِكَ অতঃপর ঐসবলোক Then those, أَتُوبُ আমি ক্ষমা করব I will accept repentance, عَلَيْهِمْ তাদের উপর from them, وَأَنَا এবং আমি and I (am), ٱلتَّوَّابُ বড় ক্ষমাশীল the Acceptor of Repentance, ٱلرَّحِيمُ পরমদয়ালু the Most Merciful )

 

(161)  إِنَّ الَّذِينَ كَفَرُوا وَمَاتُوا وَهُمْ كُفَّارٌ أُولَئِكَ عَلَيْهِمْ لَعْنَةُ اللّهِ وَالْمَلآئِكَةِ وَالنَّاسِ أَجْمَعِينَ নিশ্চয় যারা কুফরী করে এবং কাফের অবস্থায়ই মৃত্যুবরণ করে, সে সমস্ত লোকের প্রতি আল্লাহর ফেরেশতাগনের এবং সমগ্র মানুষের লা’নত। Those who reject Faith, and die rejecting,- on them is Allah.s curse, and the curse of angels, and of all mankind;

( إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱلَّذِينَ যারা those who, كَفَرُوا۟ অবিশ্বাস করেছে disbelieve[d], وَمَاتُوا۟ ও মরে গেছে and die[d], وَهُمْ এ অবস্থায় যে তারা while they, كُفَّارٌ কাফির (ছিল) (were) disbelievers, أُو۟لَٰٓئِكَ ঐসব লোক those, عَلَيْهِمْ তাদের উপর on them, لَعْنَةُ অভিশাপ (is the) curse, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, وَٱلْمَلَٰٓئِكَةِ ও ফেরেশতাদের and the Angels, وَٱلنَّاسِ ও মানুষের and the mankind, أَجْمَعِينَ সকলেরই all together )

 

(162) خَالِدِينَ فِيهَا لاَ يُخَفَّفُ عَنْهُمُ الْعَذَابُ وَلاَ هُمْ يُنظَرُونَ এরা চিরকাল এ লা’নতের মাঝেই থাকবে। তাদের উপর থেকে আযাব কখনও হালকা করা হবে না বরং এরা বিরাম ও পাবে না। They will abide therein: Their penalty will not be lightened, nor will respite be their (lot).

( خَٰلِدِينَ তারা চিরস্থায়ী হবে (Will) abide forever, فِيهَا তার মধ্যে in it, لَا না Not, يُخَفَّفُ কমানো হবে will be lightened, عَنْهُمُ তাদের থেকে for them, ٱلْعَذَابُ শাস্তি the punishment, وَلَا আর না and not, هُمْ তাদের they, يُنظَرُونَ অবকাশ দেয়া হবে will be reprieved )

 

(163) وَإِلَـهُكُمْ إِلَهٌ وَاحِدٌ لاَّ إِلَهَ إِلاَّ هُوَ الرَّحْمَنُ الرَّحِيمُ আর তোমাদের উপাস্য একইমাত্র উপাস্য। তিনি ছাড়া মহা করুণাময় দয়ালু কেউ নেই। And your Allah is One Allah. There is no god but He, Most Gracious, Most Merciful.

( وَإِلَٰهُكُمْ এবং তোমাদের ইলাহ And your God, إِلَٰهٌ ইলাহ (is) God, وَٰحِدٌ একই one (only), لَّآ নেই (there is) no, إِلَٰهَ কোনো ইলাহ god, إِلَّا ছাড়া except, هُوَ তিনি Him, ٱلرَّحْمَٰنُ করুণাময় the Most Gracious, ٱلرَّحِيمُ পরমদয়ালু the Most Merciful )

 

(164) إِنَّ فِي خَلْقِ السَّمَاوَاتِ وَالأَرْضِ وَاخْتِلاَفِ اللَّيْلِ وَالنَّهَارِ وَالْفُلْكِ الَّتِي تَجْرِي فِي الْبَحْرِ بِمَا يَنفَعُ النَّاسَ وَمَا أَنزَلَ اللّهُ مِنَ السَّمَاء مِن مَّاء فَأَحْيَا بِهِ الأرْضَ بَعْدَ مَوْتِهَا وَبَثَّ فِيهَا مِن كُلِّ دَآبَّةٍ وَتَصْرِيفِ الرِّيَاحِ وَالسَّحَابِ الْمُسَخِّرِ بَيْنَ السَّمَاء وَالأَرْضِ لآيَاتٍ لِّقَوْمٍ يَعْقِلُونَ নিশ্চয়ই আসমান ও যমীনের সৃষ্টিতে, রাত ও দিনের বিবর্তনে এবং নদীতে নৌকাসমূহের চলাচলে মানুষের জন্য কল্যাণ রয়েছে। আর আল্লাহ তা’ আলা আকাশ থেকে যে পানি নাযিল করেছেন, তদ্দ্বারা মৃত যমীনকে সজীব করে তুলেছেন এবং তাতে ছড়িয়ে দিয়েছেন সবরকম জীব-জন্তু। আর আবহাওয়া পরিবর্তনে এবং মেঘমালার যা তাঁরই হুকুমের অধীনে আসমান ও যমীনের মাঝে বিচরণ করে, নিশ্চয়ই সে সমস্ত বিষয়ের মাঝে নিদর্শন রয়েছে বুদ্ধিমান সম্প্রদায়ের জন্যে। Behold! in the creation of the heavens and the earth; in the alternation of the night and the day; in the sailing of the ships through the ocean for the profit of mankind; in the rain which Allah Sends down from the skies, and the life which He gives therewith to an earth that is dead; in the beasts of all kinds that He scatters through the earth; in the change of the winds, and the clouds which they Trail like their slaves between the sky and the earth;- (Here) indeed are Signs for a people that are wise.

( إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, فِى মধ্যে (আছে) in, خَلْقِ সৃষ্টির (the) creation, ٱلسَّمَٰوَٰتِ আকাশ মন্ডলীর (of) the heavens, وَٱلْأَرْضِ ও পৃথিবীর and the earth, وَٱخْتِلَٰفِ ও পরিবর্তনের and alternation, ٱلَّيْلِ রাতের of the night, وَٱلنَّهَارِ ও দিনের and the day, وَٱلْفُلْكِ ও নৌযানসমূহে and the ships, ٱلَّتِى যা which, تَجْرِى চলে sail, فِى মধ্যে in, ٱلْبَحْرِ সাগরের the sea, بِمَا তা নিয়ে with what, يَنفَعُ উপকার দেয় benefits, ٱلنَّاسَ মানুষের [the] people, وَمَآ এবং যা কিছু and what, أَنزَلَ বর্ষণ করে (has) sent down, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, مِنَ থেকে from, ٱلسَّمَآءِ আকাশ the sky, مِن থেকে [of], مَّآءٍ পানি water, فَأَحْيَا অতপর জীবিত করেন giving life, بِهِ তা দিয়ে thereby, ٱلْأَرْضَ জমিনকে (to) the earth, بَعْدَ পর after, مَوْتِهَا তার মৃত্যুর its death, وَبَثَّ ও বিস্তার ঘটান and dispersing, فِيهَا তার মধ্যে therein, مِن থেকে [of], كُلِّ সব (রকমের) every, دَآبَّةٍ প্রাণী moving creature, وَتَصْرِيفِ ও প্রবাহে and directing, ٱلرِّيَٰحِ বাতাসের (of) the winds, وَٱلسَّحَابِ ও মেঘমালার and the clouds, ٱلْمُسَخَّرِ (যা) নিয়ন্ত্রিত [the] controlled, بَيْنَ মাঝে between, ٱلسَّمَآءِ আকাশের the sky, وَٱلْأَرْضِ ও পৃথিবীর and the earth, لَءَايَٰتٍ অবশ্যই নিদর্শনাদি surely (are) Signs, لِّقَوْمٍ সম্প্রদায়ের জন্যে(রয়েছে) for a people, يَعْقِلُونَ (যারা) জ্ঞান রাখে who use their intellect )

 

(165) وَمِنَ النَّاسِ مَن يَتَّخِذُ مِن دُونِ اللّهِ أَندَاداً يُحِبُّونَهُمْ كَحُبِّ اللّهِ وَالَّذِينَ آمَنُواْ أَشَدُّ حُبًّا لِّلّهِ وَلَوْ يَرَى الَّذِينَ ظَلَمُواْ إِذْ يَرَوْنَ الْعَذَابَ أَنَّ الْقُوَّةَ لِلّهِ جَمِيعاً وَأَنَّ اللّهَ شَدِيدُ الْعَذَابِ আর কোন লোক এমনও রয়েছে যারা অন্যান্যকে আল্লাহর সমকক্ষ সাব্যস্ত করে এবং তাদের প্রতি তেমনি ভালবাসা পোষণ করে, যেমন আল্লাহর প্রতি ভালবাসা হয়ে থাকে। কিন্তু যারা আল্লাহর প্রতি ঈমানদার তাদের ভালবাসা ওদের তুলনায় বহুগুণ বেশী। আর কতইনা উত্তম হ’ত যদি এ জালেমরা পার্থিব কোন কোন আযাব প্রত্যক্ষ করেই উপলব্ধি করে নিত যে, যাবতীয় ক্ষমতা শুধুমাত্র আল্লাহরই জন্য এবং আল্লাহর আযাবই সবচেয়ে কঠিনতর। Yet there are men who take (for worship) others besides Allah, as equal (with Allah.: They love them as they should love Allah. But those of Faith are overflowing in their love for Allah. If only the unrighteous could see, behold, they would see the penalty: that to Allah belongs all power, and Allah will strongly enforce the penalty.

( وَمِنَ কিন্তু মধ্যে And among, ٱلنَّاسِ মানুষের (এমনও আছে) the mankind, مَن যারা who, يَتَّخِذُ গ্রহণ করে takes, مِن থেকে(দিয়ে) from, دُونِ বাদ besides, ٱللَّهِ আল্লাহকে Allah, أَندَادًا (অন্যকে) সমতুল্যরূপে equals, يُحِبُّونَهُمْ তাদেরকে তারা ভালবাসে They love them, كَحُبِّ মতো ভালবাসার as (they should) love, ٱللَّهِ আল্লাহর (প্রতি হওয়া উচিৎ) Allah, وَٱلَّذِينَ অথচ যারা And those who, ءَامَنُوٓا۟ ঈমান আনে (তাদের রয়েছে) believe[d], أَشَدُّ সবচেয়ে দৃঢ় (are) stronger, حُبًّا ভালবাসা (in) love, لِّلَّهِ আল্লাহর জন্যে for Allah, وَلَوْ এবং যদি (আজ) And if, يَرَى (ভেবে) দেখত would see, ٱلَّذِينَ যারা those who, ظَلَمُوٓا۟ অবিচার করেছে wronged, إِذْ যখন when, يَرَوْنَ তারা দেখবে they will see, ٱلْعَذَابَ শাস্তি (এবং অনুভব করবে) the punishment, أَنَّ যে that, ٱلْقُوَّةَ শক্তি the power, لِلَّهِ আল্লাহরই জন্য (belongs) to Allah, جَمِيعًا সবটুকুই all, وَأَنَّ এবং এও যে and [that], ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, شَدِيدُ কঠোর (is) severe, ٱلْعَذَابِ শাস্তিদানে (in) [the] punishment )

 

(166) إِذْ تَبَرَّأَ الَّذِينَ اتُّبِعُواْ مِنَ الَّذِينَ اتَّبَعُواْ وَرَأَوُاْ الْعَذَابَ وَتَقَطَّعَتْ بِهِمُ الأَسْبَابُ অনুসৃতরা যখন অনুসরণকারীদের প্রতি অসন্তুষ্ট হয়ে যাবে এবং যখন আযাব প্রত্যক্ষ করবে আর বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবে তাদের পারস্পরিক সমস্ত সম্পর্ক। Then would those who are followed clear themselves of those who follow (them) : They would see the penalty, and all relations between them would be cut off.

( إِذْ যখন When, تَبَرَّأَ সম্পর্ক ছিন্ন করবে will disown, ٱلَّذِينَ (তারা) যাদের those who, ٱتُّبِعُوا۟ অনুসরণ করা হয়েছিল (অর্থাৎ নেতারা) were followed, مِنَ হতে [from], ٱلَّذِينَ (তাদের) যারা those who, ٱتَّبَعُوا۟ অনুসরণ করত (অর্থাৎ অনুসারীদের) followed, وَرَأَوُا۟ ও দেখবে and they will see, ٱلْعَذَابَ শাস্তি  the punishment, وَتَقَطَّعَتْ বিচ্ছিন্ন হবে [and] will be cut off, بِهِمُ তাদের সাথে for them, ٱلْأَسْبَابُ সকল উপায় উপকরণ(সম্পর্ক) the relations )

 

(167) وَقَالَ الَّذِينَ اتَّبَعُواْ لَوْ أَنَّ لَنَا كَرَّةً فَنَتَبَرَّأَ مِنْهُمْ كَمَا تَبَرَّؤُواْ مِنَّا كَذَلِكَ يُرِيهِمُ اللّهُ أَعْمَالَهُمْ حَسَرَاتٍ عَلَيْهِمْ وَمَا هُم بِخَارِجِينَ مِنَ النَّارِ এবং অনুসারীরা বলবে, কতইনা ভাল হত, যদি আমাদিগকে পৃথিবীতে ফিরে যাবার সুযোগ দেয়া হত। তাহলে আমরাও তাদের প্রতি তেমনি অসন্তুষ্ট হয়ে যেতাম, যেমন তারা অসন্তুষ্ট হয়েছে আমাদের প্রতি। এভাবেই আল্লাহ তা’আলা তাদেরকে দেখাবেন তাদের কৃতকর্ম তাদেরকে অনুতপ্ত করার জন্যে। অথচ, তারা কস্মিনকালেও আগুন থেকে বের হতে পারবে না। And those who followed would say: “If only We had one more chance, We would clear ourselves of them, as they have cleared themselves of us.” Thus will Allah show them (The fruits of) their deeds as (nothing but) regrets. Nor will there be a way for them out of the Fire.

( وَقَالَ এবং বলবে And said, ٱلَّذِينَ যারা those who, ٱتَّبَعُوا۟ অনুসরণ করেছিল followed, لَوْ ‘যদি “(Only) if, أَنَّ নিশ্চিত (এমন হত) [that], لَنَا আমাদের জন্যে for us, كَرَّةً একবার (ফিরার সুযোগ) a return, فَنَتَبَرَّأَ আমরাও তবে সম্পর্ক ছিন্ন করতাম then we will disown, مِنْهُمْ তাদের থেকে [from] them, كَمَا যেমন (আজ) as, تَبَرَّءُوا۟ সম্পর্ক ছিন্ন করেছে তারা they disown, مِنَّا আমাদের থেকে” [from] us”, كَذَٰلِكَ এভাবে Thus, يُرِيهِمُ তাদের দেখাবেন will show them, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, أَعْمَٰلَهُمْ তাদের কাজকর্মগুলোকে their deeds, حَسَرَٰتٍ পরিতাপরূপে (as) regrets, عَلَيْهِمْ তাদের কাছে for them, وَمَا এবং না And not, هُم তারা they, بِخَٰرِجِينَ বহির্গমনকারী will come out, مِنَ হতে from, ٱلنَّارِ (দোযখের) আগুন the Fire )

 

(168) يَا أَيُّهَا النَّاسُ كُلُواْ مِمَّا فِي الأَرْضِ حَلاَلاً طَيِّباً وَلاَ تَتَّبِعُواْ خُطُوَاتِ الشَّيْطَانِ إِنَّهُ لَكُمْ عَدُوٌّ مُّبِينٌ হে মানব মন্ডলী, পৃথিবীর হালাল ও পবিত্র বস্তু-সামগ্রী ভক্ষন কর। আর শয়তানের পদাঙ্ক অনুসরণ করো না। সে নিঃসন্দেহে তোমাদের প্রকাশ্য শত্রু। O ye people! Eat of what is on earth, Lawful and good; and do not follow the footsteps of the evil one, for he is to you an avowed enemy.

( يَٰٓأَيُّهَا হে O, ٱلنَّاسُ মানবজাতি mankind!, كُلُوا۟ তোমরা খাও Eat, مِمَّا তা হতে যা of what, فِى মধ্যে (আছে) (is) in, ٱلْأَرْضِ পৃথিবীর the earth, حَلَٰلًا হালাল lawful, طَيِّبًا পবিত্র (and) good, وَلَا এবং না And (do) not, تَتَّبِعُوا۟ তোমরা অনুসরণ করো follow, خُطُوَٰتِ পদাঙ্কগুলোর (the) footsteps (of), ٱلشَّيْطَٰنِ শয়তানের the Shaitaan, إِنَّهُۥ সে নিশ্চয়ই Indeed, he, لَكُمْ তোমাদের জন্যে (is) to you, عَدُوٌّ শত্রু an enemy, مُّبِينٌ প্রকাশ্য clear )

 

(169) إِنَّمَا يَأْمُرُكُمْ بِالسُّوءِ وَالْفَحْشَاء وَأَن تَقُولُواْ عَلَى اللّهِ مَا لاَ تَعْلَمُونَ সে তো এ নির্দেশই তোমাদিগকে দেবে যে, তোমরা অন্যায় ও অশ্লীল কাজ করতে থাক এবং আল্লাহর প্রতি এমন সব বিষয়ে মিথ্যারোপ কর যা তোমরা জান না। For he commands you what is evil and shameful, and that ye should say of Allah that of which ye have no knowledge.

( إِنَّمَا মূলতঃ Only, يَأْمُرُكُم তোমাদেরকে নির্দেশ দেয় সে he commands you, بِٱلسُّوٓءِ পাপকাজের প্রতি to (do) the evil, وَٱلْفَحْشَآءِ ও অশ্লীল and the shameful, وَأَن এবং যেন and that, تَقُولُوا۟ তোমরা বল (এমন কথা) you say, عَلَى সম্বন্ধে about, ٱللَّهِ আল্লাহর Allah, مَا যা what, لَا না not, تَعْلَمُونَ তোমরা জান you know )

 

(170)  وَإِذَا قِيلَ لَهُمُ اتَّبِعُوا مَا أَنزَلَ اللّهُ قَالُواْ بَلْ نَتَّبِعُ مَا أَلْفَيْنَا عَلَيْهِ آبَاءنَا أَوَلَوْ كَانَ آبَاؤُهُمْ لاَ يَعْقِلُونَ شَيْئاً وَلاَ يَهْتَدُونَ আর যখন তাদেরকে কেউ বলে যে, সে হুকুমেরই আনুগত্য কর যা আল্লাহ তা’আলা নাযিল করেছেন, তখন তারা বলে কখনো না, আমরা তো সে বিষয়েরই অনুসরণ করব। যাতে আমরা আমাদের বাপ-দাদাদেরকে দেখেছি। যদি ও তাদের বাপ দাদারা কিছুই জানতো না, জানতো না সরল পথও। When it is said to them: “Follow what Allah hath revealed:” They say: “Nay! we shall follow the ways of our fathers.” What! even though their fathers Were void of wisdom and guidance?

( وَإِذَا এবং যখন And when, قِيلَ বলা হয় it is said, لَهُمُ তাদের to them, ٱتَّبِعُوا۟ ‘তোমরা অনুসরণ করো “Follow, مَآ যা what, أَنزَلَ অবতীর্ণ করেছেন has revealed, ٱللَّهُ আল্লাহ” Allah”, قَالُوا۟ তারা বলে they said, بَلْ ‘বরং “Nay, نَتَّبِعُ আমরা অনুসরণ করব we follow, مَآ তা what, أَلْفَيْنَا আমরা পেয়েছি we found, عَلَيْهِ যার উপর [on it], ءَابَآءَنَآ আমাদের বাপ-দাদাদেরকে our forefathers (following), أَوَلَوْ যদিও কি Even though, كَانَ ছিল [were], ءَابَآؤُهُمْ বাপ দাদারা তাদের (এমন যে) their forefathers, لَا না (did) not, يَعْقِلُونَ তারা বুঝতো understand, شَيْـًٔا কিছুই anything, وَلَا এবং না and not, يَهْتَدُونَ তারা সৎ পথে চলত were they guided? )

 

(171) وَمَثَلُ الَّذِينَ كَفَرُواْ كَمَثَلِ الَّذِي يَنْعِقُ بِمَا لاَ يَسْمَعُ إِلاَّ دُعَاء وَنِدَاء صُمٌّ بُكْمٌ عُمْيٌ فَهُمْ لاَ يَعْقِلُونَ বস্তুতঃ এহেন কাফেরদের উদাহরণ এমন, যেন কেউ এমন কোন জীবকে আহবান করছে যা কোন কিছুই শোনে না, হাঁক-ডাক আর চিৎকার ছাড়া বধির মুক, এবং অন্ধ। সুতরাং তারা কিছুই বোঝে না। The parable of those who reject Faith is as if one were to shout Like a goat-herd, to things that listen to nothing but calls and cries: Deaf, dumb, and blind, they are void of wisdom.

( وَمَثَلُ এবং উপমা And (the) example, ٱلَّذِينَ (তাদের) যারা (of) those who, كَفَرُوا۟ অস্বীকার করেছে disbelieve[d], كَمَثَلِ এরূপ (is) like (the) example, ٱلَّذِى (এক রাখাল) যে (of) the one who, يَنْعِقُ (চিৎকার করে)ডাকে shouts, بِمَا ঐ বিষয় যা at what, لَا না not, يَسْمَعُ শুনে (তার পশু) (does) hear, إِلَّا এ ছাড়া except, دُعَآءً হাঁকডাক calls, وَنِدَآءً ও আওয়াজ and cries, صُمٌّۢ বধির deaf, بُكْمٌ বোবা dumb, عُمْىٌ অন্ধ (and) blind, فَهُمْ তারা তাই (কোনো কথাই) [so] they, لَا না (do) not, يَعْقِلُونَ বুঝতে পারে understand )

 

(172) يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُواْ كُلُواْ مِن طَيِّبَاتِ مَا رَزَقْنَاكُمْ وَاشْكُرُواْ لِلّهِ إِن كُنتُمْ إِيَّاهُ تَعْبُدُونَ হে ঈমানদারগণ, তোমরা পবিত্র বস্তু সামগ্রী আহার কর, যেগুলো আমি তোমাদেরকে রুযী হিসাবে দান করেছি এবং শুকরিয়া আদায় কর আল্লাহর, যদি তোমরা তাঁরই বন্দেগী কর। O ye who believe! Eat of the good things that We have provided for you, and be grateful to Allah, if it is Him ye worship.

( يَٰٓأَيُّهَا হে O you, ٱلَّذِينَ যারা who, ءَامَنُوا۟ ঈমান এনেছ believe[d]!, كُلُوا۟ তোমরা খাও Eat, مِن হতে from, طَيِّبَٰتِ পবিত্র জিনিসগুলো (the) good, مَا যা what, رَزَقْنَٰكُمْ তোমাদের জীবিকা দিয়েছি আমরা We have provided you, وَٱشْكُرُوا۟ ও তোমরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করো and be grateful, لِلَّهِ আল্লাহর কাছে to Allah, إِن যদি if, كُنتُمْ তোমরা হও (এমন যে) you, إِيَّاهُ শুধু তাকেই alone, تَعْبُدُونَ তোমরা ইবাদাত কর worship Him )

 

(173) إِنَّمَا حَرَّمَ عَلَيْكُمُ الْمَيْتَةَ وَالدَّمَ وَلَحْمَ الْخِنزِيرِ وَمَا أُهِلَّ بِهِ لِغَيْرِ اللّهِ فَمَنِ اضْطُرَّ غَيْرَ بَاغٍ وَلاَ عَادٍ فَلا إِثْمَ عَلَيْهِ إِنَّ اللّهَ غَفُورٌ رَّحِيمٌ তিনি তোমাদের উপর হারাম করেছেন, মৃত জীব, রক্ত, শুকর মাংস এবং সেসব জীব-জন্তু যা আল্লাহ ব্যাতীত অপর কারো নামে উৎসর্গ করা হয়। অবশ্য যে লোক অনন্যোপায় হয়ে পড়ে এবং নাফরমানী ও সীমালঙ্ঘনকারী না হয়, তার জন্য কোন পাপ নেই। নিঃসন্দেহে আল্লাহ মহান ক্ষমাশীল, অত্যন্ত দয়ালু। He hath only forbidden you dead meat, and blood, and the flesh of swine, and that on which any other name hath been invoked besides that of Allah. But if one is forced by necessity, without wilful disobedience, nor transgressing due limits,- then is he guiltless. For Allah is Oft-forgiving Most Merciful.

( إِنَّمَا মূলতঃ Only, حَرَّمَ (হারাম) করেছেন He has forbidden, عَلَيْكُمُ তোমাদের উপর to you, ٱلْمَيْتَةَ মৃত (জন্তু) the dead animals, وَٱلدَّمَ ও (প্রবাহিত) রক্ত and [the] blood, وَلَحْمَ মাংস and flesh, ٱلْخِنزِيرِ শুকরের (of) swine, وَمَآ এবং তা and what, أُهِلَّ নাম নেয়া হয়েছে has been dedicated, بِهِۦ যার উপর [with it], لِغَيْرِ ছাড়া to other than, ٱللَّهِ আল্লাহ (অন্য কারো) Allah, فَمَنِ যে তবে So whoever, ٱضْطُرَّ নিরুপায় হয়ে যায় (is) forced by necessity, غَيْرَ না without, بَاغٍ বিদ্রোহী (হয়ে) (being) disobedient, وَلَا আর না and not, عَادٍ সীমালংঘনকারী transgressor, فَلَآ নেই তবে then no, إِثْمَ কোনো পাপ sin, عَلَيْهِ তার উপর on him, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, غَفُورٌ বড় ক্ষমাশীল (is) Oft-Forgiving, رَّحِيمٌ পরম দয়ালু Most Merciful )

 

(174)  إِنَّ الَّذِينَ يَكْتُمُونَ مَا أَنزَلَ اللّهُ مِنَ الْكِتَابِ وَيَشْتَرُونَ بِهِ ثَمَنًا قَلِيلاً أُولَـئِكَ مَا يَأْكُلُونَ فِي بُطُونِهِمْ إِلاَّ النَّارَ وَلاَ يُكَلِّمُهُمُ اللّهُ يَوْمَ الْقِيَامَةِ وَلاَ يُزَكِّيهِمْ وَلَهُمْ عَذَابٌ أَلِيمٌ নিশ্চয় যারা সেসব বিষয় গোপন করে, যা আল্লাহ কিতাবে নাযিল করেছেন এবং সেজন্য অল্প মূল্য গ্রহণ করে, তারা আগুন ছাড়া নিজের পেটে আর কিছুই ঢুকায় না। আর আল্লাহ কেয়ামতের দিন তাদের সাথে না কথা বলবেন, না তাদের পবিত্র করা হবে, বস্তুতঃ তাদের জন্যে রয়েছে বেদনাদায়ক আযাব। Those who conceal Allah.s revelations in the Book, and purchase for them a miserable profit,- they swallow into themselves naught but Fire; Allah will not address them on the Day of Resurrection. Nor purify them: Grievous will be their penalty.

( إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱلَّذِينَ যারা those who, يَكْتُمُونَ গোপন করে conceal, مَآ যা what, أَنزَلَ অবতীর্ণ করেছেন (has) revealed, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah (has), مِنَ হতে of, ٱلْكِتَٰبِ কিতাব the Book, وَيَشْتَرُونَ ও তারা কিনে(ক্রয়করে) and they purchase, بِهۦ বিনিময়ে there with, ثَمَنًا মূল্য (অর্থাৎ স্বার্থ) a gain, قَلِيلًا অতি নগণ্য little, أُو۟لَٰٓئِكَ ঐসব লোক Those, مَا না not, يَأْكُلُونَ তারা খায় they eat, فِى মধ্যে in, بُطُونِهِمْ তাদের পেটের their bellies, إِلَّا এছাড়া except, ٱلنَّارَ আগুন the Fire, وَلَا এবং না And not, يُكَلِّمُهُمُ তাদের সাথে কথা বলবেন will speak to them, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, يَوْمَ দিনে (on the) Day, ٱلْقِيَٰمَةِ কিয়ামাতের (of) [the] Judgment, وَلَا এবং না and not, يُزَكِّيهِمْ তাদেরকে পরিশুদ্ধ করবেন will He purify them, وَلَهُمْ ও তাদের জন্যে(রয়েছে) and for them, عَذَابٌ শাস্তি (is) a punishment, أَلِيمٌ নিদারুণ painful )

 

(175)  أُولَـئِكَ الَّذِينَ اشْتَرَوُاْ الضَّلاَلَةَ بِالْهُدَى وَالْعَذَابَ بِالْمَغْفِرَةِ فَمَآ أَصْبَرَهُمْ عَلَى النَّارِ এরাই হল সে সমস্ত লোক, যারা হেদায়েতের বিনিময়ে গোমরাহী খরিদ করেছে এবং (খরিদ করেছে) ক্ষমা ও অনুগ্রহের বিনিময়ে আযাব। অতএব, তারা দোযখের উপর কেমন ধৈর্য্য ধারণকারী। They are the ones who buy Error in place of Guidance and Torment in place of Forgiveness. Ah! what boldness (They show) for the Fire!

( أُو۟لَٰٓئِكَ ঐসব লোক Those, ٱلَّذِينَ (তারাই) যারা (are) they who, ٱشْتَرَوُا۟ কিনেছে purchase[d], ٱلضَّلَٰلَةَ ভ্রান্তপথ [the] astraying, بِٱلْهُدَىٰ সঠিকপথের পরিবর্তে for [the] Guidance, وَٱلْعَذَابَ এবং শাস্তি and [the] punishment, بِٱلْمَغْفِرَةِ ক্ষমার পরিবর্তে for [the] forgiveness, فَمَآ অতঃপর কতই না So what (is), أَصْبَرَهُمْ ধৈর্যশীল their endurance, عَلَى উপর on, ٱلنَّارِ আগুনের the Fire! )

 

(176)  ذَلِكَ بِأَنَّ اللّهَ نَزَّلَ الْكِتَابَ بِالْحَقِّ وَإِنَّ الَّذِينَ اخْتَلَفُواْ فِي الْكِتَابِ لَفِي شِقَاقٍ بَعِيدٍ আর এটা এজন্যে যে, আল্লাহ নাযিল করেছেন সত্যপূর্ণ কিতাব। আর যারা কেতাবের মাঝে মতবিরোধ সৃষ্টি করেছে নিশ্চয়ই তারা জেদের বশবর্তী হয়ে অনেক দূরে চলে গেছে। (Their doom is) because Allah sent down the Book in truth but those who seek causes of dispute in the Book are in a schism Far (from the purpose).

( ذَٰلِكَ এটা That, بِأَنَّ এজন্য যে (is) because, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, نَزَّلَ অবতীর্ণ করেছেন revealed, ٱلْكِتَٰبَ কিতাব the Book, بِٱلْحَقِّ সত্য সহকারে with [the] Truth, وَإِنَّ এবং নিশ্চয়ই And indeed, ٱلَّذِينَ যারা those, ٱخْتَلَفُوا۟ মতভেদ করেছে who differed, فِى মধ্যে in, ٱلْكِتَٰبِ কিতাবের the Book, لَفِى অবশ্যই মধ্যে(আছে) (are) surely in, شِقَاقٍۭ বিশুদ্ধতার schism, بَعِيدٍ (প্রকৃত সত্য হতে) বহুদূরে far )

 

(177) لَّيْسَ الْبِرَّ أَن تُوَلُّواْ وُجُوهَكُمْ قِبَلَ الْمَشْرِقِ وَالْمَغْرِبِ وَلَـكِنَّ الْبِرَّ مَنْ آمَنَ بِاللّهِ وَالْيَوْمِ الآخِرِ وَالْمَلآئِكَةِ وَالْكِتَابِ وَالنَّبِيِّينَ وَآتَى الْمَالَ عَلَى حُبِّهِ ذَوِي الْقُرْبَى وَالْيَتَامَى وَالْمَسَاكِينَ وَابْنَ السَّبِيلِ وَالسَّآئِلِينَ وَفِي الرِّقَابِ وَأَقَامَ الصَّلاةَ وَآتَى الزَّكَاةَ وَالْمُوفُونَ بِعَهْدِهِمْ إِذَا عَاهَدُواْ وَالصَّابِرِينَ فِي الْبَأْسَاء والضَّرَّاء وَحِينَ الْبَأْسِ أُولَـئِكَ الَّذِينَ صَدَقُوا وَأُولَـئِكَ هُمُ الْمُتَّقُونَ সৎকর্ম শুধু এই নয় যে, পূর্ব কিংবা পশ্চিমদিকে মুখ করবে, বরং বড় সৎকাজ হল এই যে, ঈমান আনবে আল্লাহর উপর কিয়ামত দিবসের উপর, ফেরেশতাদের উপর এবং সমস্ত নবী-রসূলগণের উপর, আর সম্পদ ব্যয় করবে তাঁরই মহব্বতে আত্নীয়-স্বজন, এতীম-মিসকীন, মুসাফির-ভিক্ষুক ও মুক্তিকামী ক্রীতদাসদের জন্যে। আর যারা নামায প্রতিষ্ঠা করে, যাকাত দান করে এবং যারা কৃত প্রতিজ্ঞা সম্পাদনকারী এবং অভাবে, রোগে-শোকে ও যুদ্ধের সময় ধৈর্য্য ধারণকারী তারাই হল সত্যাশ্রয়ী, আর তারাই পরহেযগার। It is not righteousness that ye turn your faces Towards east or West; but it is righteousness- to believe in Allah and the Last Day, and the Angels, and the Book, and the Messengers; to spend of your substance, out of love for Him, for your kin, for orphans, for the needy, for the wayfarer, for those who ask, and for the ransom of slaves; to be steadfast in prayer, and practice regular charity; to fulfil the contracts which ye have made; and to be firm and patient, in pain (or suffering) and adversity, and throughout all periods of panic. Such are the people of truth, the Allah.fearing.

( لَّيْسَ নেই It is not, ٱلْبِرَّ পূণ্য [the] righteousness, أَن যে that, تُوَلُّوا۟ তোমরাও ফেরাবে you turn, وُجُوهَكُمْ তোমাদের মুখ your faces, قِبَلَ দিকে towards, ٱلْمَشْرِقِ পূর্ব the east, وَٱلْمَغْرِبِ অথবা পশ্চিমে and the west, وَلَٰكِنَّ কিন্তু [and] but, ٱلْبِرَّ পূণ্য (হল) the righteous[ness], مَنْ যে কেউ (is he) who, ءَامَنَ ঈমান আনল believes, بِٱللَّهِ আল্লাহর প্রতি in Allah, وَٱلْيَوْمِ ও দিনের and the Day, ٱلْءَاخِرِ আখিরাতের [the] Last, وَٱلْمَلَٰٓئِكَةِ ও ফেরেশতাদের and the Angels, وَٱلْكِتَٰبِ ও কিতাবের and the Book, وَٱلنَّبِيِّۦنَ ও নবীদের (প্রতি) and the Prophets, وَءَاتَى এবং দান করল and gives, ٱلْمَالَ সম্পদ the wealth, عَلَىٰ কারণে in, حُبِّهۦ তাঁরই ভালবাসার spite of his love (for it), ذَوِى সম্পন্ন (to) those, ٱلْقُرْبَىٰ নিকট আত্নীয়স্বজনদেরকে (of) the near relatives, وَٱلْيَتَٰمَىٰ ও ইয়াতিমদেরকে and the orphans, وَٱلْمَسَٰكِينَ ও অভাবগ্রস্ত and the needy, وَٱبْنَ (এবং পুত্র) and (of), ٱلسَّبِيلِ ও পথিকদেরকে the wayfarer, وَٱلسَّآئِلِينَ ও সাহায্যপ্রার্থীদেরকে and those who ask, وَفِى এবং জন্যে and in, ٱلرِّقَابِ দাসমুক্তির freeing the necks (slaves), وَأَقَامَ এবং প্রতিষ্ঠা করে and (who) establish, ٱلصَّلَوٰةَ সলাত the prayer, وَءَاتَى ও প্রদান করে and give, ٱلزَّكَوٰةَ যাকাত the zakah, وَٱلْمُوفُونَ এবং পূর্ণকারী and those who fulfill, بِعَهْدِهِمْ তাদের প্রতিশ্রুতি their covenant, إِذَا যখন when, عَٰهَدُوا۟ প্রতিশ্রুতিকরে তারা they make it, وَٱلصَّٰبِرِينَ এবং ধৈর্যধারণকারী and those who are patient, فِى মধ্যে in, ٱلْبَأْسَآءِ অর্থসংকটের [the] suffering, وَٱلضَّرَّآءِ ও রোগব্যাধিতে and [the] hardship, وَحِينَ ও সময়ে at (the) time, ٱلْبَأْسِ সংগ্রাম সংকটে (of) [the] stress, أُو۟لَٰٓئِكَ তারা ঐসব লোক Those, ٱلَّذِينَ যারা (are) the ones who, صَدَقُوا۟ সত্যঅবলম্বন করেছে (ঈমানের দাবীতে) are true, وَأُو۟لَٰٓئِكَ এবং ঐসব লোক and those, هُمُ তারাই [they], ٱلْمُتَّقُونَ মুত্তাকী (are) the righteous )

 

(178)  يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُواْ كُتِبَ عَلَيْكُمُ الْقِصَاصُ فِي الْقَتْلَى الْحُرُّ بِالْحُرِّ وَالْعَبْدُ بِالْعَبْدِ وَالأُنثَى بِالأُنثَى فَمَنْ عُفِيَ لَهُ مِنْ أَخِيهِ شَيْءٌ فَاتِّبَاعٌ بِالْمَعْرُوفِ وَأَدَاء إِلَيْهِ بِإِحْسَانٍ ذَلِكَ تَخْفِيفٌ مِّن رَّبِّكُمْ وَرَحْمَةٌ فَمَنِ اعْتَدَى بَعْدَ ذَلِكَ فَلَهُ عَذَابٌ أَلِيمٌ হে ঈমানদারগন! তোমাদের প্রতি নিহতদের ব্যাপারে কেসাস গ্রহণ করা বিধিবদ্ধ করা হয়েছে। স্বাধীন ব্যক্তি স্বাধীন ব্যক্তির বদলায়, দাস দাসের বদলায় এবং নারী নারীর বদলায়। অতঃপর তার ভাইয়ের তরফ থেকে যদি কাউকে কিছুটা মাফ করে দেয়া হয়, তবে প্রচলিত নিয়মের অনুসরণ করবে এবং ভালভাবে তাকে তা প্রদান করতে হবে। এটা তোমাদের পালনকর্তার তরফ থেকে সহজ এবং বিশেষ অনুগ্রহ। এরপরও যে ব্যাক্তি বাড়াবাড়ি করে, তার জন্য রয়েছে বেদনাদায়ক আযাব। O ye who believe! the law of equality is prescribed to you in cases of murder: the free for the free, the slave for the slave, the woman for the woman. But if any remission is made by the brother of the slain, then grant any reasonable demand, and compensate him with handsome gratitude, this is a concession and a Mercy from your Lord. After this whoever exceeds the limits shall be in grave penalty.

( يَٰٓأَيُّهَا হে O you, ٱلَّذِينَ যারা who, ءَامَنُوا۟ ঈমান এনেছ believe[d]!, كُتِبَ ফরজ করা হয়েছে Prescribed, عَلَيْكُمُ তোমাদের উপর for you, ٱلْقِصَاصُ কিসাস(বদলা) (is) the legal retribution, فِى ব্যাপারে in, ٱلْقَتْلَى (অন্যায়) হত্যার (the matter of) the murdered, ٱلْحُرُّ স্বাধীন ব্যাক্তি the freeman, بِٱلْحُرِّ স্বাধীন ব্যাক্তির পরিবর্তে for the freeman, وَٱلْعَبْدُ ও ক্রীতদাস and the slave, بِٱلْعَبْدِ ক্রীতদাসের পরিবর্তে for the slave, وَٱلْأُنثَىٰ এবং মহিলা and the female, بِٱلْأُنثَىٰ মহিলার পরিবর্তে for the female, فَمَنْ অতঃপর তার (ক্ষেত্রে) But whoever, عُفِىَ ক্ষমা করে দেয়া হয় is pardoned, لَهُۥ তার জন্য [for it], مِنْ পক্ষ হতে from, أَخِيهِ তার ভাইয়ের his brother, شَىْءٌ কোনো কিছু anything, فَٱتِّبَاعٌۢ তবে অনুসরণ করা then follows up, بِٱلْمَعْرُوفِ সদয়ভাবে with suitable, وَأَدَآءٌ এবং (রক্তপণ) আদায় করা [and] payment, إِلَيْهِ তার কাছে to him, بِإِحْسَٰنٍ নিষ্ঠার সাথে (অপরিহার্য হবে) with kindness, ذَٰلِكَ এটা That (is), تَخْفِيفٌ লাঘব a concession, مِّن পক্ষ থেকে from, رَّبِّكُمْ তোমাদের রবের your Lord, وَرَحْمَةٌ এবং রহমত(দয়া) and mercy, فَمَنِ যে অতঃপর Then whoever, ٱعْتَدَىٰ সীমালংঘন করবে transgresses, بَعْدَ পর after, ذَٰلِكَ এর that, فَلَهُۥ তার জন্যে(আছে) then for him, عَذَابٌ শাস্তি (is) a punishment, أَلِيمٌ অতি কষ্টদায়ক painful )

 

(179)  وَلَكُمْ فِي الْقِصَاصِ حَيَاةٌ يَاْ أُولِيْ الأَلْبَابِ لَعَلَّكُمْ تَتَّقُونَ হে বুদ্ধিমানগণ! কেসাসের মধ্যে তোমাদের জন্যে জীবন রয়েছে, যাতে তোমরা সাবধান হতে পার। In the Law of Equality there is (saving of) Life to you, o ye men of understanding; that ye may restrain yourselves.

 ( وَلَكُمْ এবং তোমাদের জন্যে(রয়েছে) And for you, فِى মধ্যে in, ٱلْقِصَاصِ কিসাসের(বদলার) the legal retribution, حَيَوٰةٌ জীবন (is) life, يَٰٓأُو۟لِى হে লোকেরা O men, ٱلْأَلْبَٰبِ বোধ(সম্পন্ন) (of) understanding!, لَعَلَّكُمْ আশা করা যায় So that you may, تَتَّقُونَ তোমরা সাবধান হয়ে চলবে (become) righteous )

 

(180)  كُتِبَ عَلَيْكُمْ إِذَا حَضَرَ أَحَدَكُمُ الْمَوْتُ إِن تَرَكَ خَيْرًا الْوَصِيَّةُ لِلْوَالِدَيْنِ وَالأقْرَبِينَ بِالْمَعْرُوفِ حَقًّا عَلَى الْمُتَّقِينَ তোমাদের কারো যখন মৃত্যুর সময় উপস্থিত হয়, সে যদি কিছু ধন-সম্পদ ত্যাগ করে যায়, তবে তার জন্য ওসীয়ত করা বিধিবদ্ধ করা হলো, পিতা-মাতা ও নিকটাত্নীয়দের জন্য ইনসাফের সাথে পরহেযগারদের জন্য এ নির্দেশ জরুরী। নিশ্চয় আল্লাহ তা’আলা সবকিছু শোনেন ও জানেন। It is prescribed, when death approaches any of you, if he leave any goods that he make a bequest to parents and next of kin, according to reasonable usage; this is due from the Allah.fearing.

( كُتِبَ ফরজ করা হয়েছে Prescribed, عَلَيْكُمْ তোমাদের উপর for you, إِذَا যখন when, حَضَرَ উপস্থিত হয় approaches, أَحَدَكُمُ তোমাদের কারও any of you, ٱلْمَوْتُ মৃত্যু [the] death, إِن যদি if, تَرَكَ সে ছেড়ে যায় he leaves, خَيْرًا ধনসম্পত্তি good, ٱلْوَصِيَّةُ ওসীয়ত করা(জোর নির্দেশ) (making) the will, لِلْوَٰلِدَيْنِ পিতা-মাতার জন্য for the parents, وَٱلْأَقْرَبِينَ ও আত্নীয়-স্বজনদের (জন্যে) and the near relatives, بِٱلْمَعْرُوفِ ন্যায় অনুযায়ী with due fairness, حَقًّا একটি অধিকার a duty, عَلَى উপর on, ٱلْمُتَّقِينَ মুত্তাকীদের the righteous ones )

 

 

(181)  فَمَن بَدَّلَهُ بَعْدَمَا سَمِعَهُ فَإِنَّمَا إِثْمُهُ عَلَى الَّذِينَ يُبَدِّلُونَهُ إِنَّ اللّهَ سَمِيعٌ عَلِيمٌ যদি কেউ ওসীয়ত শোনার পর তাতে কোন রকম পরিবর্তন সাধন করে, তবে যারা পরিবর্তন করে তাদের উপর এর পাপ পতিত হবে। If anyone changes the bequest after hearing it, the guilt shall be on those who make the change. For Allah hears and knows (All things).

( فَمَنۢ যে অতঃপর Then whoever, بَدَّلَهُۥ তা পরিবর্তন করে changes it, بَعْدَمَا এরপরেও যা after what, سَمِعَهُۥ তা শুনেছে he (has) heard [it], فَإِنَّمَآ মূলতঃ তবে so only, إِثْمُهُۥ তার গুনাহ its sin, عَلَى উপর (would be) on, ٱلَّذِينَ (তাদের) যারা those who, يُبَدِّلُونَهُۥٓ তা পরিবর্তন করেছে alter it, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, سَمِيعٌ সবকিছু শুনেন (is) All-Hearing, عَلِيمٌ সবকিছু জানেন All-Knowing )

 

(182)  فَمَنْ خَافَ مِن مُّوصٍ جَنَفًا أَوْ إِثْمًا فَأَصْلَحَ بَيْنَهُمْ فَلاَ إِثْمَ عَلَيْهِ إِنَّ اللّهَ غَفُورٌ رَّحِيمٌ যদি কেউ ওসীয়তকারীর পক্ষ থেকে আশংকা করে পক্ষপাতিত্বের অথবা কোন অপরাধমূলক সিদ্ধান্তের এবং তাদের মধ্যে মীমাংসা করে দেয়, তবে তার কোন গোনাহ হবে না। নিশ্চয় আল্লাহ তা’আলা ক্ষমাশীল, অতি দয়ালু। But if anyone fears partiality or wrong-doing on the part of the testator, and makes peace between (The parties concerned), there is no wrong in him: For Allah is Oft-forgiving, Most Merciful.

( فَمَنۢ যে অতঃপর Then whoever, بَدَّلَهُۥ তা পরিবর্তন করে changes it, بَعْدَمَا এরপরেও যা after what, سَمِعَهُۥ তা শুনেছে he (has) heard [it], فَإِنَّمَآ মূলতঃ তবে so only, إِثْمُهُۥ তার গুনাহ its sin, عَلَى উপর (would be) on, ٱلَّذِينَ (তাদের) যারা those who, يُبَدِّلُونَهُۥٓ তা পরিবর্তন করেছে alter it, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, سَمِيعٌ সবকিছু শুনেন (is) All-Hearing, عَلِيمٌ সবকিছু জানেন All-Knowing )

(183)  يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُواْ كُتِبَ عَلَيْكُمُ الصِّيَامُ كَمَا كُتِبَ عَلَى الَّذِينَ مِن قَبْلِكُمْ لَعَلَّكُمْ تَتَّقُونَ হে ঈমানদারগণ! তোমাদের উপর রোজা ফরয করা হয়েছে, যেরূপ ফরজ করা হয়েছিল তোমাদের পূর্ববর্তী লোকদের উপর, যেন তোমরা পরহেযগারী অর্জন করতে পার। O ye who believe! Fasting is prescribed to you as it was prescribed to those before you, that ye may (learn) self-restraint,-

( يَٰٓأَيُّهَا হে O you, ٱلَّذِينَ যারা who, ءَامَنُوا۟ ঈমান এনেছে believe[d]!, كُتِبَ ফরজ করা হয়েছে Is prescribed, عَلَيْكُمُতোমাদের উপর for you, ٱلصِّيَامُ রোযা(সাওম) [the] fasting, كَمَا যেমন as, كُتِبَ ফরজ করা হয়েছিল was prescribed, عَلَى উপর to, ٱلَّذِينَ (তাদের) যারা those, مِن থেকে from, قَبْلِكُمْ তোমাদের পূর্বে (ছিলো) before you, لَعَلَّكُمْ আশা করা যায় so that you may, تَتَّقُونَ তোমরা তাকওয়া অবলম্বন করবে (become) righteous )

 

(184) أَيَّامًا مَّعْدُودَاتٍ فَمَن كَانَ مِنكُم مَّرِيضًا أَوْ عَلَى سَفَرٍ فَعِدَّةٌ مِّنْ أَيَّامٍ أُخَرَ وَعَلَى الَّذِينَ يُطِيقُونَهُ فِدْيَةٌ طَعَامُ مِسْكِينٍ فَمَن تَطَوَّعَ خَيْرًا فَهُوَ خَيْرٌ لَّهُ وَأَن تَصُومُواْ خَيْرٌ لَّكُمْ إِن كُنتُمْ تَعْلَمُونَ গণনার কয়েকটি দিনের জন্য অতঃপর তোমাদের মধ্যে যে, অসুখ থাকবে অথবা সফরে থাকবে, তার পক্ষে অন্য সময়ে সে রোজা পূরণ করে নিতে হবে। আর এটি যাদের জন্য অত্যন্ত কষ্ট দায়ক হয়, তারা এর পরিবর্তে একজন মিসকীনকে খাদ্যদান করবে। যে ব্যক্তি খুশীর সাথে সৎকর্ম করে, তা তার জন্য কল্যাণ কর হয়। আর যদি রোজা রাখ, তবে তোমাদের জন্যে বিশেষ কল্যাণকর, যদি তোমরা তা বুঝতে পার। (Fasting) for a fixed number of days; but if any of you is ill, or on a journey, the prescribed number (Should be made up) from days later. For those who can do it (With hardship), is a ransom, the feeding of one that is indigent. But he that will give more, of his own free will,- it is better for him. And it is better for you that ye fast, if ye only knew.

( أَيَّامًا দিনগুলোতে (Fasting for) days, مَّعْدُودَٰتٍ নির্দিষ্ট সংখ্যক numbered, فَمَن যে অতঃপর So whoever, كَانَ হবে is, مِنكُم তোমাদের মধ্যে among you, مَّرِيضًا অসুস্থ sick, أَوْ অথবা or, عَلَىٰ মধ্যে on, سَفَرٍ সফরের a journey, فَعِدَّةٌ সংখ্যা (পূরণ করবে) then a prescribed number, مِّنْ থেকে of, أَيَّامٍ দিনগুলো days, أُخَرَ অন্যান্য other, وَعَلَى এবং উপর And on, ٱلَّذِينَ (তাদের) যারা those who, يُطِيقُونَهُۥ তার সামর্থ্য রাখে (কিন্তু রাখবে না) can afford it, فِدْيَةٌ বিনিময় দিবে a ransom, طَعَامُ খাদ্য দান করে (of) feeding, مِسْكِينٍ এক অভাবগ্রস্তকে a poor, فَمَن যে অতঃপর And whoever, تَطَوَّعَ স্বেচ্ছায় করে (অতিরিক্ত) volunteers, خَيْرًا কোনো কল্যাণ good, فَهُوَ তাহলে তা then it, خَيْرٌ উত্তম (is) better, لَّهُۥ তার জন্যে for him, وَأَن কিন্তু যে And to, تَصُومُوا۟ তোমাদের রোজা(সাওম) রাখবে fast, خَيْرٌ উত্তম (is) better, لَّكُمْ তোমাদের জন্যে for you, إِن যদি if, كُنتُمْ তোমরা you, تَعْلَمُونَ জানতে know )

 

(185) شَهْرُ رَمَضَانَ الَّذِيَ أُنزِلَ فِيهِ الْقُرْآنُ هُدًى لِّلنَّاسِ وَبَيِّنَاتٍ مِّنَ الْهُدَى وَالْفُرْقَانِ فَمَن شَهِدَ مِنكُمُ الشَّهْرَ فَلْيَصُمْهُ وَمَن كَانَ مَرِيضًا أَوْ عَلَى سَفَرٍ فَعِدَّةٌ مِّنْ أَيَّامٍ أُخَرَ يُرِيدُ اللّهُ بِكُمُ الْيُسْرَ وَلاَ يُرِيدُ بِكُمُ الْعُسْرَ وَلِتُكْمِلُواْ الْعِدَّةَ وَلِتُكَبِّرُواْ اللّهَ عَلَى مَا هَدَاكُمْ وَلَعَلَّكُمْ تَشْكُرُونَ রমযান মাসই হল সে মাস, যাতে নাযিল করা হয়েছে কোরআন, যা মানুষের জন্য হেদায়েত এবং সত্যপথ যাত্রীদের জন্য সুষ্পষ্ট পথ নির্দেশ আর ন্যায় ও অন্যায়ের মাঝে পার্থক্য বিধানকারী। কাজেই তোমাদের মধ্যে যে লোক এ মাসটি পাবে, সে এ মাসের রোযা রাখবে। আর যে লোক অসুস্থ কিংবা মুসাফির অবস্থায় থাকবে সে অন্য দিনে গণনা পূরণ করবে। আল্লাহ তোমাদের জন্য সহজ করতে চান; তোমাদের জন্য জটিলতা কামনা করেন না যাতে তোমরা গণনা পূরণ কর এবং তোমাদের হেদায়েত দান করার দরুন আল্লাহ তা’আলার মহত্ত্ব বর্ণনা কর, যাতে তোমরা কৃতজ্ঞতা স্বীকার কর। Ramadhan is the (month) in which was sent down the Qur’an, as a guide to mankind, also clear (Signs) for guidance and judgment (Between right and wrong). So every one of you who is present (at his home) during that month should spend it in fasting, but if any one is ill, or on a journey, the prescribed period (Should be made up) by days later. Allah intends every facility for you; He does not want to put to difficulties. (He wants you) to complete the prescribed period, and to glorify Him in that He has guided you; and perchance ye shall be grateful.

( شَهْرُ মাস Month, رَمَضَانَ রমাদান (of) Ramadhaan, ٱلَّذِىٓ যা (is) that, أُنزِلَ অবতীর্ণ করা হয়েছে was revealed, فِيهِ তার মধ্যে therein, ٱلْقُرْءَانُ কুরআন (যা) the Quran, هُدًى সঠিক পথ নির্দেশনা a Guidance, لِّلنَّاسِ মানুষের জন্য for mankind, وَبَيِّنَٰتٍ এবং সুস্পষ্ট নিদর্শন and clear proofs, مِّنَ থেকে of, ٱلْهُدَىٰ সঠিক পথের [the] Guidance, وَٱلْفُرْقَانِ এবং ন্যায় ও বাতিলের পার্থক্যকারী and the Criterion, فَمَن সুতরাং যে কেউ So whoever, شَهِدَ পাবে witnesses, مِنكُمُ তোমাদের মধ্যে among you, ٱلشَّهْرَ এ মাস the month, فَلْيَصُمْهُ তাতে সে রোজা(সাওম) রাখে যেন then he should fast in it, وَمَن এবং যে and whoever, كَانَ হবে is, مَرِيضًا অসুস্থ sick, أَوْ অথবা or, عَلَىٰ মধ্যে on, سَفَرٍ সফরের (থাকবে) a journey, فَعِدَّةٌ তবে সংখ্যা (পূর্ণ করবে) then prescribed number (should be made up), مِّنْ থেকে from, أَيَّامٍ দিনগুলো days, أُخَرَ অন্যান্য other, يُرِيدُ চান Intends, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, بِكُمُ তোমাদের জন্য for you, ٱلْيُسْرَ সহজতা [the] ease, وَلَا এবং না and not, يُرِيدُ তিনি চান intends, بِكُمُ তোমাদের জন্য for you, ٱلْعُسْرَ কঠোরতা [the] hardship, وَلِتُكْمِلُوا۟ এবং তোমরা পূর্ণ কর যেন so that you complete, ٱلْعِدَّةَ সংখ্যা the prescribed period, وَلِتُكَبِّرُوا۟ এবং তোমরা যেন মহিমা প্রকাশ কর and that you magnify, ٱللَّهَ আল্লাহর Allah, عَلَىٰ জন্য for, مَا যে [what], هَدَىٰكُمْ তিনি তোমাদের পথ দেখিয়েছেন He guided you, وَلَعَلَّكُمْ এবং আশা করা যায় so that you may, تَشْكُرُونَ তোমরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করবে (be) grateful )

 

(186)  وَإِذَا سَأَلَكَ عِبَادِي عَنِّي فَإِنِّي قَرِيبٌ أُجِيبُ دَعْوَةَ الدَّاعِ إِذَا دَعَانِ فَلْيَسْتَجِيبُواْ لِي وَلْيُؤْمِنُواْ بِي لَعَلَّهُمْ يَرْشُدُونَ আর আমার বান্দারা যখন তোমার কাছে জিজ্ঞেস করে আমার ব্যাপারে বস্তুতঃ আমি রয়েছি সন্নিকটে। যারা প্রার্থনা করে, তাদের প্রার্থনা কবুল করে নেই, যখন আমার কাছে প্রার্থনা করে। কাজেই আমার হুকুম মান্য করা এবং আমার প্রতি নিঃসংশয়ে বিশ্বাস করা তাদের একান্ত কর্তব্য। যাতে তারা সৎপথে আসতে পারে। When My servants ask thee concerning Me, I am indeed close (to them): I listen to the prayer of every suppliant when he calleth on Me: Let them also, with a will, Listen to My call, and believe in Me: That they may walk in the right way.

( وَإِذَا এবং যখন And when, سَأَلَكَ তোমাকে প্রশ্ন করে ask you, عِبَادِى আমার বান্দারা My servants, عَنِّى আমার সম্পর্কে about Me, فَإِنِّى তখন (বল) আমি নিশ্চয়ই then indeed I am, قَرِيبٌ নিকটেই near, أُجِيبُ আমি সাড়া দিই I respond, دَعْوَةَ ডাকে (to the) invocation, ٱلدَّاعِ প্রার্থনাকারীর (of) the supplicant, إِذَا যখন when, دَعَانِ আমাকে ডাকে he calls Me, فَلْيَسْتَجِيبُوا۟ অতএব তারাও সাড়া দিক So let them respond, لِى আমার to Me, وَلْيُؤْمِنُوا۟ এবং তারা ঈমান আনুক and let them believe, بِى আমার উপর in Me, لَعَلَّهُمْ হয়ত তারা so that they may, يَرْشُدُونَ সত্যের সন্ধান পাবে (be) led aright )

 

(187) أُحِلَّ لَكُمْ لَيْلَةَ الصِّيَامِ الرَّفَثُ إِلَى نِسَآئِكُمْ هُنَّ لِبَاسٌ لَّكُمْ وَأَنتُمْ لِبَاسٌ لَّهُنَّ عَلِمَ اللّهُ أَنَّكُمْ كُنتُمْ تَخْتانُونَ أَنفُسَكُمْ فَتَابَ عَلَيْكُمْ وَعَفَا عَنكُمْ فَالآنَ بَاشِرُوهُنَّ وَابْتَغُواْ مَا كَتَبَ اللّهُ لَكُمْ وَكُلُواْ وَاشْرَبُواْ حَتَّى يَتَبَيَّنَ لَكُمُ الْخَيْطُ الأَبْيَضُ مِنَ الْخَيْطِ الأَسْوَدِ مِنَ الْفَجْرِ ثُمَّ أَتِمُّواْ الصِّيَامَ إِلَى الَّليْلِ وَلاَ تُبَاشِرُوهُنَّ وَأَنتُمْ عَاكِفُونَ فِي الْمَسَاجِدِ تِلْكَ حُدُودُ اللّهِ فَلاَ تَقْرَبُوهَا كَذَلِكَ يُبَيِّنُ اللّهُ آيَاتِهِ لِلنَّاسِ لَعَلَّهُمْ يَتَّقُونَ রোযার রাতে তোমাদের স্ত্রীদের সাথে সহবাস করা তোমাদের জন্য হালাল করা হয়েছে। তারা তোমাদের পরিচ্ছদ এবং তোমরা তাদের পরিচ্ছদ। আল্লাহ অবগত রয়েছেন যে, তোমরা আত্নপ্রতারণা করছিলে, সুতরাং তিনি তোমাদেরকে ক্ষমা করেছেন এবং তোমাদের অব্যাহতি দিয়েছেন। অতঃপর তোমরা নিজেদের স্ত্রীদের সাথে সহবাস কর এবং যা কিছু তোমাদের জন্য আল্লাহ দান করেছেন, তা আহরন কর। আর পানাহার কর যতক্ষণ না কাল রেখা থেকে ভোরের শুভ্র রেখা পরিষ্কার দেখা যায়। অতঃপর রোযা পূর্ণ কর রাত পর্যন্ত। আর যতক্ষণ তোমরা এতেকাফ অবস্থায় মসজিদে অবস্থান কর, ততক্ষণ পর্যন্ত স্ত্রীদের সাথে মিশো না। এই হলো আল্লাহ কর্তৃক বেঁধে দেয়া সীমানা। অতএব, এর কাছেও যেও না। এমনিভাবে বর্ণনা করেন আল্লাহ নিজের আয়াত সমূহ মানুষের জন্য, যাতে তারা বাঁচতে পারে। Permitted to you, on the night of the fasts, is the approach to your wives. They are your garments and ye are their garments. Allah knoweth what ye used to do secretly among yourselves; but He turned to you and forgave you; so now associate with them, and seek what Allah Hath ordained for you, and eat and drink, until the white thread of dawn appear to you distinct from its black thread; then complete your fast Till the night appears; but do not associate with your wives while ye are in retreat in the mosques. Those are Limits (set by) Allah. Approach not nigh thereto. Thus doth Allah make clear His Signs to men: that they may learn self-restraint.

( أُحِلَّ (হালাল) করা হয়েছে Permitted لَكُمْ তোমাদের জন্যে for you, لَيْلَةَ রাতে (in the) nights, ٱلصِّيَامِ সাওমের (of) fasting, ٱلرَّفَثُ স্ত্রী সহবাস (is) the approach, إِلَىٰ সাথে to,  نِسَآئِكُمْ তোমাদের স্ত্রীদের your wives, هُنَّ তারা They, لِبَاسٌ পোশাক (are) garments, لَّكُمْ তোমাদের জন্যে for you, وَأَنتُمْ ও তোমরা and you, لِبَاسٌ পোশাক (are) garments, لَّهُنَّ তাদের জন্যে for them, عَلِمَ জেনেছেন Knows, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, أَنَّكُمْ তোমরা যে that you, كُنتُمْ তোমরা ছিলে used to, تَخْتَانُونَ প্রতারণা করতে deceive, أَنفُسَكُمْ তোমাদের নিজেদের (সাথে) yourselves, فَتَابَ তওবা গ্রহণ করলেন so He turned, عَلَيْكُمْ তোমাদের উপর towards you, وَعَفَا এবং ক্ষমা করলেন and He forgave, عَنكُمْ তোমাদের [on] you, فَٱلْـَٰٔنَ অতএব এখন So now, بَٰشِرُوهُنَّ তাদের সাথে তোমরা সহবাস করো have relations with them, وَٱبْتَغُوا۟ এবং তোমরা সন্ধান করো and seek, مَا যা what, كَتَبَ লিখে দিয়েছেন has ordained, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, لَكُمْ তোমাদের জন্য for you, وَكُلُوا۟ ও তোমরা খাও And eat, وَٱشْرَبُوا۟ ও তোমরা পান করো and drink, حَتَّىٰ যতক্ষণ না until, يَتَبَيَّنَ স্পষ্ট হয়ে যায় becomes distinct, لَكُمُ তোমাদের কাছে to you,  ٱلْخَيْطُ রেখা the thread, ٱلْأَبْيَضُ সাদা (অর্থাৎ সুবেহ সাদেক) [the] white, مِنَ হতে from, ٱلْخَيْطِ রেখা the thread, ٱلْأَسْوَدِ কাল (অর্থাৎ রাতের অন্ধকার) [the] black, مِنَ থেকে of, ٱلْفَجْرِ ফজরে [the] dawn, ثُمَّ এরপর Then, أَتِمُّوا۟ তোমরা পূর্ণ করো complete, ٱلصِّيَامَ সাওম the fast, إِلَى পর্যন্ত till, ٱلَّيْلِ রাত্র (অর্থাৎ সূর্যাস্ত) the night, وَلَا এবং না And (do) not, تُبَٰشِرُوهُنَّ তাদের সাথে তোমরা সহবাস কর have relations with them, وَأَنتُمْ এমতাবস্থায় তোমরা while you, عَٰكِفُونَ এতিকাফরত (are) secluded, فِى মধ্যে in, ٱلْمَسَٰجِدِ মসজিদের the masajid, تِلْكَ এই These, حُدُودُ সীমাসমূহ (are the) limits, ٱللَّهِ আল্লাহর (set by) Allah, فَلَا না তাই so (do) not, تَقْرَبُوهَا তার নিকটে যাবে তোমরা approach them, كَذَٰلِكَ এভাবে Thus, يُبَيِّنُ স্পষ্ট বর্ণনা করেন makes clear, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, ءَايَٰتِهِۦ তার নিদর্শনগুলো His verses, لِلنَّاسِ মানুষের জন্যে for [the] people, لَعَلَّهُمْ আশা করা যায় তারা so that they may, يَتَّقُونَ তাকওয়া অবলম্বন করবে (become) righteous )

 

(188) وَلاَ تَأْكُلُواْ أَمْوَالَكُم بَيْنَكُم بِالْبَاطِلِ وَتُدْلُواْ بِهَا إِلَى الْحُكَّامِ لِتَأْكُلُواْ فَرِيقًا مِّنْ أَمْوَالِ النَّاسِ بِالإِثْمِ وَأَنتُمْ تَعْلَمُونَ তোমরা অন্যায়ভাবে একে অপরের সম্পদ ভোগ করো না। এবং জনগণের সম্পদের কিয়দংশ জেনে-শুনে পাপ পন্থায় আত্নসাৎ করার উদ্দেশে শাসন কতৃপক্ষের হাতেও তুলে দিও না। And do not eat up your property among yourselves for vanities, nor use it as bait for the judges, with intent that ye may eat up wrongfully and knowingly a little of (other) people’s property.

( وَلَا এবং না And (do) not, تَأْكُلُوٓا۟ তোমরা খেয়ো eat, أَمْوَٰلَكُم ধন-সম্পদসমূহকে your properties, بَيْنَكُم তোমাদের পরস্পরের among yourselves, بِٱلْبَٰطِلِ অন্যায়ভাবে wrongfully, وَتُدْلُوا۟ তোমরা (না) পেশ কর and present, بِهَآ তা নিয়ে [with] it, إِلَى কাছে to, ٱلْحُكَّامِ বিচারকদের the authorities, لِتَأْكُلُوا۟ তোমরা খেতে পার যেন so that you may eat, فَرِيقًا কিয়দংশ a portion, مِّنْ হতে from, أَمْوَٰلِ ধন-সম্পদের (the) wealth, ٱلنَّاسِ মানুষের (of) the people, بِٱلْإِثْمِ অন্যায়ভাবে sinfully, وَأَنتُمْ এমতাবস্থায় তোমরা while you, تَعْلَمُونَ জান know )

 

(189)  يَسْأَلُونَكَ عَنِ الأهِلَّةِ قُلْ هِيَ مَوَاقِيتُ لِلنَّاسِ وَالْحَجِّ وَلَيْسَ الْبِرُّ بِأَنْ تَأْتُوْاْ الْبُيُوتَ مِن ظُهُورِهَا وَلَـكِنَّ الْبِرَّ مَنِ اتَّقَى وَأْتُواْ الْبُيُوتَ مِنْ أَبْوَابِهَا وَاتَّقُواْ اللّهَ لَعَلَّكُمْ تُفْلِحُونَ তোমার নিকট তারা জিজ্ঞেস করে নতুন চাঁদের বিষয়ে। বলে দাও যে এটি মানুষের জন্য সময় নির্ধারণ এবং হজ্বের সময় ঠিক করার মাধ্যম। আর পেছনের দিক দিয়ে ঘরে প্রবেশ করার মধ্যে কোন নেকী বা কল্যাণ নেই। অবশ্য নেকী হল আল্লাহকে ভয় করার মধ্যে। আর তোমরা ঘরে প্রবেশ কর দরজা দিয়ে এবং আল্লাহকে ভয় করতে থাক যাতে তোমরা নিজেদের বাসনায় কৃতকার্য হতে পার। They ask thee concerning the New Moons. Say: They are but signs to mark fixed periods of time in (the affairs of) men, and for Pilgrimage. It is no virtue if ye enter your houses from the back: It is virtue if ye fear Allah. Enter houses through the proper doors: And fear Allah. That ye may prosper.

( يَسْـَٔلُونَكَ তোমাকে তারা জিজ্ঞেস করে They ask you, عَنِ সম্বন্ধে about, ٱلْأَهِلَّةِ নতুন চাঁদ the new moons, قُلْ তুমি বলো Say, هِىَ ‘তা “They, مَوَٰقِيتُ সময় (তারিখ) নির্দেশক (are) indicators of periods, لِلنَّاسِ মানুষের জন্য for the people, وَٱلْحَجِّ ও হজ্জের and (for) the Hajj, وَلَيْسَ এবং নেই And it is not, ٱلْبِرُّ পূণ্য [the] righteousness, بِأَن যে এতে that, تَأْتُوا۟ তোমরা আস you come, ٱلْبُيُوتَ ঘরগুলোতে (to) the houses, مِن হতে from, ظُهُورِهَا তার পিছন দিক their backs, وَلَٰكِنَّ কিন্তু [and] but, ٱلْبِرَّ পূণ্য [the] righteous, مَنِ যে কেউ (is one) who, ٱتَّقَىٰ তাকওয়া অবলম্বন করবে fears (Allah), وَأْتُوا۟ এবং তোমরা আসো And come, ٱلْبُيُوتَ ঘরগুলোতে (to) the houses, مِنْ দিয়ে from, أَبْوَٰبِهَا তার সম্মুখ দরজাগুলো their doors, وَٱتَّقُوا۟ এবং তোমরা ভয় করো And fear, ٱللَّهَ আল্লাহকে Allah, لَعَلَّكُمْ আশা করা যায় so that you may, تُفْلِحُونَ তোমরা সফল হবে (be) successful )

(190) وَقَاتِلُواْ فِي سَبِيلِ اللّهِ الَّذِينَ يُقَاتِلُونَكُمْ وَلاَ تَعْتَدُواْ إِنَّ اللّهَ لاَ يُحِبِّ الْمُعْتَدِينَ আর লড়াই কর আল্লাহর ওয়াস্তে তাদের সাথে, যারা লড়াই করে তোমাদের সাথে। অবশ্য কারো প্রতি বাড়াবাড়ি করো না। নিশ্চয়ই আল্লাহ সীমালঙ্ঘনকারীদেরকে পছন্দ করেন না। Fight in the cause of Allah those who fight you, but do not transgress limits; for Allah loveth not transgressors.

( وَقَٰتِلُوا۟ এবং তোমরা যুদ্ধ করো And fight, فِى মধ্যে in, سَبِيلِ পথের (the) way, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, ٱلَّذِينَ (তাদের সাথে) যারা those who, يُقَٰتِلُونَكُمْ তোমাদের সাথে যুদ্ধ করে fight you, وَلَا কিন্তু না and (do) not, تَعْتَدُوٓا۟ তোমরা সীমালংঘন করো transgress, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, لَا না (does) not, يُحِبُّ ভালবাসেন like, ٱلْمُعْتَدِينَ সীমালংঘনকারীদেরকে the transgressors )

 

(191) وَاقْتُلُوهُمْ حَيْثُ ثَقِفْتُمُوهُمْ وَأَخْرِجُوهُم مِّنْ حَيْثُ أَخْرَجُوكُمْ وَالْفِتْنَةُ أَشَدُّ مِنَ الْقَتْلِ وَلاَ تُقَاتِلُوهُمْ عِندَ الْمَسْجِدِ الْحَرَامِ حَتَّى يُقَاتِلُوكُمْ فِيهِ فَإِن قَاتَلُوكُمْ فَاقْتُلُوهُمْ كَذَلِكَ جَزَاء الْكَافِرِينَ আর তাদেরকে হত্যাকর যেখানে পাও সেখানেই এবং তাদেরকে বের করে দাও সেখান থেকে যেখান থেকে তারা বের করেছে তোমাদেরকে। বস্তুতঃ ফেতনা ফ্যাসাদ বা দাঙ্গা-হাঙ্গামা সৃষ্টি করা হত্যার চেয়েও কঠিন অপরাধ। আর তাদের সাথে লড়াই করো না মসজিদুল হারামের নিকটে যতক্ষণ না তারা তোমাদের সাথে সেখানে লড়াই করে। অবশ্য যদি তারা নিজেরাই তোমাদের সাথে লড়াই করে। তাহলে তাদেরকে হত্যা কর। এই হল কাফেরদের শাস্তি। And slay them wherever ye catch them, and turn them out from where they have Turned you out; for tumult and oppression are worse than slaughter; but fight them not at the Sacred Mosque, unless they (first) fight you there; but if they fight you, slay them. Such is the reward of those who suppress faith.

( وَٱقْتُلُوهُمْ এবং তাদেরকে হত্যা করো And kill them, حَيْثُ যেখানেই wherever, ثَقِفْتُمُوهُمْ তাদেরকে তোমরা পাও you find them, وَأَخْرِجُوهُم ও তাদেরকে বের করে দাও and drive them out, مِّنْ থেকে from, حَيْثُ যেখান wherever, أَخْرَجُوكُمْ তোমাদের বের করেছে তারা they drove you out, وَٱلْفِتْنَةُ এবং বিপর্যয় and [the] oppression, أَشَدُّ গুরুতর (is) worse, مِنَ চেয়ে than, ٱلْقَتْلِ হত্যার [the] killing, وَلَا এবং না And (do) not, تُقَٰتِلُوهُمْ তাদের সাথে যুদ্ধ কর fight them, عِندَ কাছে near, ٱلْمَسْجِدِ মসজিদে Al-Masjid, ٱلْحَرَامِ হারামের Al-Haraam, حَتَّىٰ যতক্ষণ না until, يُقَٰتِلُوكُمْ তোমাদের সাথে যুদ্ধ করে তারা they fight you, فِيهِ তার মধ্যে in it, فَإِن তবে যদি Then if, قَٰتَلُوكُمْ তোমাদের সাথে যুদ্ধ করে তারা they fight you, فَٱقْتُلُوهُمْ তাহলে তোমরা হত্যা করো then kill them, كَذَٰلِكَ এরূপই Such, جَزَآءُ শাস্তি (is the) reward, ٱلْكَٰفِرِينَ কাফেরদের (of) the disbelievers )

 

(192) فَإِنِ انتَهَوْاْ فَإِنَّ اللّهَ غَفُورٌ رَّحِيمٌ আর তারা যদি বিরত থাকে, তাহলে আল্লাহ অত্যন্ত দয়ালু। But if they cease, Allah is Oft-forgiving, Most Merciful.

( فَإِنِ অতঃপর যদি Then if, ٱنتَهَوْا۟ তারা বিরত হয় they cease, فَإِنَّ তবে নিশ্চয়ই then indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, غَفُورٌ ক্ষমাশীল (is) Oft-Forgiving, رَّحِيمٌ পরম দয়ালু Most Merciful )

 

(193) وَقَاتِلُوهُمْ حَتَّى لاَ تَكُونَ فِتْنَةٌ وَيَكُونَ الدِّينُ لِلّهِ فَإِنِ انتَهَواْ فَلاَ عُدْوَانَ إِلاَّ عَلَى الظَّالِمِينَ আর তোমরা তাদের সাথে লড়াই কর, যে পর্যন্ত না ফেতনার অবসান হয় এবং আল্লাহর দ্বীন প্রতিষ্ঠিত হয়। অতঃপর যদি তারা নিবৃত হয়ে যায় তাহলে কারো প্রতি কোন জবরদস্তি নেই, কিন্তু যারা যালেম (তাদের ব্যাপারে আলাদা)। And fight them on until there is no more Tumult or oppression, and there prevail justice and faith in Allah. but if they cease, Let there be no hostility except to those who practise oppression.

( وَقَٰتِلُوهُمْ এবং তোমরা যুদ্ধ করতে থাকো তাদেরকে And fight (against) them, حَتَّىٰ যতক্ষণ until, لَا না not, تَكُونَ থাকে (there) is, فِتْنَةٌ বিপর্যয় oppression, وَيَكُونَ ও হয় and becomes, ٱلدِّينُ দ্বীন the religion, لِلَّهِ আল্লাহর জন্যে (নির্দিষ্ট) for Allah, فَإِنِ যদি অতঃপর Then if, ٱنتَهَوْا۟ তারা বিরত হয় they cease, فَلَا নেই তবে then (let there be) no, عُدْوَٰنَ আক্রমণের (সুযোগ) hostility, إِلَّا ছাড়া except, عَلَى উপর against, ٱلظَّٰلِمِينَ সীমালঙ্ঘনকারীদের the oppressors )

 

(194) الشَّهْرُ الْحَرَامُ بِالشَّهْرِ الْحَرَامِ وَالْحُرُمَاتُ قِصَاصٌ فَمَنِ اعْتَدَى عَلَيْكُمْ فَاعْتَدُواْ عَلَيْهِ بِمِثْلِ مَا اعْتَدَى عَلَيْكُمْ وَاتَّقُواْ اللّهَ وَاعْلَمُواْ أَنَّ اللّهَ مَعَ الْمُتَّقِينَ সম্মানিত মাসই সম্মানিত মাসের বদলা। আর সম্মান রক্ষা করারও বদলা রয়েছে। বস্তুতঃ যারা তোমাদের উপর জবর দস্তি করেছে, তোমরা তাদের উপর জবরদস্তি কর, যেমন জবরদস্তি তারা করেছে তোমাদের উপর। আর তোমরা আল্লাহকে ভয় কর এবং জেনে রাখ, যারা পরহেযগার, আল্লাহ তাদের সাথে রয়েছেন। The prohibited month for the prohibited month,- and so for all things prohibited,- there is the law of equality. If then any one transgresses the prohibition against you, Transgress ye likewise against him. But fear Allah, and know that Allah is with those who restrain themselves.

( ٱلشَّهْرُ মাস The month, ٱلْحَرَامُ পবিত্র [the] sacred, بِٱلشَّهْرِ মাস বিনিময়ে (is) for the month, ٱلْحَرَامِ পবিত্র [the] sacred, وَٱلْحُرُمَٰتُ এবং সমস্ত পবিত্র বিষয় (লংঘনের) and for all the violations, قِصَاصٌ বদলা (রয়েছে) (is) legal retribution, فَمَنِ যে তাই Then whoever, ٱعْتَدَىٰ বাড়াবাড়ি করবে transgressed, عَلَيْكُمْ তোমাদের উপর upon you, فَٱعْتَدُوا۟ তোমরাও তখন বাড়াবাড়ির বদলা নাও then you transgress, عَلَيْهِ তার উপর on him, بِمِثْلِ অনুরূপ in (the) same manner, مَا যেমন (as), ٱعْتَدَىٰ বাড়াবাড়ি করেছে he transgressed, عَلَيْكُمْ তোমাদের উপর upon you, وَٱتَّقُوا۟ এবং তোমরা ভয় করো And fear, ٱللَّهَ আল্লাহকে Allah, وَٱعْلَمُوٓا۟ এবং তোমরা জেনে রাখো and know, أَنَّ যে that, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, مَعَ সাথে (আছেন) (is) with, ٱلْمُتَّقِينَ মুত্তাকীদের those who fear (Him) )

 

(195)  وَأَنفِقُواْ فِي سَبِيلِ اللّهِ وَلاَ تُلْقُواْ بِأَيْدِيكُمْ إِلَى التَّهْلُكَةِ وَأَحْسِنُوَاْ إِنَّ اللّهَ يُحِبُّ الْمُحْسِنِينَ আর ব্যয় কর আল্লাহর পথে, তবে নিজের জীবনকে ধ্বংসের সম্মুখীন করো না। আর মানুষের প্রতি অনুগ্রহ কর। আল্লাহ অনুগ্রহকারীদেরকে ভালবাসেন। And spend of your substance in the cause of Allah, and make not your own hands contribute to (your) destruction; but do good; for Allah loveth those who do good.

( وَأَنفِقُوا۟ এবং তোমরা ব্যয় করো And spend, فِى মধ্যে in, سَبِيلِ পথের (the) way, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, وَلَا এবং না and (do) not, تُلْقُوا۟ তোমরা নিক্ষেপ করো throw (yourselves), بِأَيْدِيكُمْ তোমাদের হাতে (নিজেদেরকে) [with your hands], إِلَى দিকে into, ٱلتَّهْلُكَةِ ধ্বংসের [the] destruction, وَأَحْسِنُوٓا۟ এবং তোমরা অনুগ্রহ করো And do good;, إِنَّ নিশ্চয়ই indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, يُحِبُّ ভালবাসেন loves, ٱلْمُحْسِنِينَ অনুগ্রহকারীদেরকে the good-doers )

 

(196) وَأَتِمُّواْ الْحَجَّ وَالْعُمْرَةَ لِلّهِ فَإِنْ أُحْصِرْتُمْ فَمَا اسْتَيْسَرَ مِنَ الْهَدْيِ وَلاَ تَحْلِقُواْ رُؤُوسَكُمْ حَتَّى يَبْلُغَ الْهَدْيُ مَحِلَّهُ فَمَن كَانَ مِنكُم مَّرِيضاً أَوْ بِهِ أَذًى مِّن رَّأْسِهِ فَفِدْيَةٌ مِّن صِيَامٍ أَوْ صَدَقَةٍ أَوْ نُسُكٍ فَإِذَا أَمِنتُمْ فَمَن تَمَتَّعَ بِالْعُمْرَةِ إِلَى الْحَجِّ فَمَا اسْتَيْسَرَ مِنَ الْهَدْيِ فَمَن لَّمْ يَجِدْ فَصِيَامُ ثَلاثَةِ أَيَّامٍ فِي الْحَجِّ وَسَبْعَةٍ إِذَا رَجَعْتُمْ تِلْكَ عَشَرَةٌ كَامِلَةٌ ذَلِكَ لِمَن لَّمْ يَكُنْ أَهْلُهُ حَاضِرِي الْمَسْجِدِ الْحَرَامِ وَاتَّقُواْ اللّهَ وَاعْلَمُواْ أَنَّ اللّهَ شَدِيدُ الْعِقَابِ আর তোমরা আল্লাহর উদ্দেশ্যে হজ্জ্ব ওমরাহ পরিপূর্ণ ভাবে পালন কর। যদি তোমরা বাধা প্রাপ্ত হও, তাহলে কোরবানীর জন্য যাকিছু সহজলভ্য, তাই তোমাদের উপর ধার্য। আর তোমরা ততক্ষণ পর্যন্ত মাথা মুন্ডন করবে না, যতক্ষণ না কোরবাণী যথাস্থানে পৌছে যাবে। যারা তোমাদের মধ্যে অসুস্থ হয়ে পড়বে কিংবা মাথায় যদি কোন কষ্ট থাকে, তাহলে তার পরিবর্তে রোজা করবে কিংবা খয়রাত দেবে অথবা কুরবানী করবে। আর তোমাদের মধ্যে যারা হজ্জ্ব ওমরাহ একত্রে একই সাথে পালন করতে চাও, তবে যাকিছু সহজলভ্য, তা দিয়ে কুরবানী করাই তার উপর কর্তব্য। বস্তুতঃ যারা কোরবানীর পশু পাবে না, তারা হজ্জ্বের দিনগুলোর মধ্যে রোজা রাখবে তিনটি আর সাতটি রোযা রাখবে ফিরে যাবার পর। এভাবে দশটি রোযা পূর্ণ হয়ে যাবে। এ নির্দেশটি তাদের জন্য, যাদের পরিবার পরিজন মসজিদুল হারামের আশে-পাশে বসবাস করে না। আর আল্লাহকে ভয় করতে থাক। সন্দেহাতীতভাবে জেনো যে, আল্লাহর আযাব বড়ই কঠিন। And complete the Hajj or ‘umra in the service of Allah. But if ye are prevented (From completing it), send an offering for sacrifice, such as ye may find, and do not shave your heads until the offering reaches the place of sacrifice. And if any of you is ill, or has an ailment in his scalp, (Necessitating shaving), (He should) in compensation either fast, or feed the poor, or offer sacrifice; and when ye are in peaceful conditions (again), if any one wishes to continue the ‘umra on to the hajj, He must make an offering, such as he can afford, but if he cannot afford it, He should fast three days during the hajj and seven days on his return, Making ten days in all. This is for those whose household is not in (the precincts of) the Sacred Mosque. And fear Allah, and know that Allah Is strict in punishment.

( وَأَتِمُّوا۟ এবং তোমরা পূর্ণ করো And complete, ٱلْحَجَّ হজ্জ the Hajj, وَٱلْعُمْرَةَ ও ওমরাহ and the Umrah, لِلَّهِ আল্লাহরই জন্যে for Allah, فَإِنْ অতঃপর যদি And if, أُحْصِرْتُمْ তোমরা বাধাপ্রাপ্ত হও you are held back, فَمَا যা তবে then (offer) whatever, ٱسْتَيْسَرَ সহজলভ্য হয় (can be) obtained with ease, مِنَ থেকে of, ٱلْهَدْىِ কুরবানি (তাই পেশ কর) the sacrificial animal, وَلَا এবং না And (do) not, تَحْلِقُوا۟ তোমরা মুণ্ডন করো shave, رُءُوسَكُمْ তোমাদের মাথা your heads, حَتَّىٰ যতক্ষণ না until, يَبْلُغَ পৌঁছে reaches, ٱلْهَدْىُ কুরবানি (তাই পেশ কর) the sacrificial animal, مَحِلَّهُۥ তার স্থানে (to) its destination, فَمَن যে অতঃপর Then whoever, كَانَ হয় is, مِنكُم তোমাদের মধ্যে among you, مَّرِيضًا পীড়িত ill, أَوْ বা or, بِهِۦٓ তার আছে he (has), أَذًى কষ্টদায়ক an ailment, مِّن মধ্যে of, رَّأْسِهِۦ তার মাথার his head, فَفِدْيَةٌ তবে বিনিময় (দিবে) then a ransom, مِّن দ্বারা of, صِيَامٍ একটি সাওমের fasting, أَوْ বা or, صَدَقَةٍ সদকা charity, أَوْ বা or, نُسُكٍ কুরবানি (দ্বারা) sacrifice, فَإِذَآ অতঃপর যখন Then when, أَمِنتُمْ তোমরা নিরাপদ হও you are secure, فَمَن যে তখন then whoever, تَمَتَّعَ লাভবান হতে চায় took advantage, بِٱلْعُمْرَةِ ওমরাহর of the Umrah, إِلَى পর্যন্ত followed, ٱلْحَجِّ হজ্জ (by) the Hajj, فَمَا যা তবে then (offer) whatever, ٱسْتَيْسَرَ সহজলভ্য হবে (can be) obtained with ease, مِنَ থেকে of, ٱلْهَدْىِ কুরবানি (দেবে) the sacrificial animal, فَمَن কিন্তু যে But whoever, لَّمْ না (can) not, يَجِدْ পায় find, فَصِيَامُ তাহলে সাওম রাখবে then a fast, ثَلَٰثَةِ তিন (of) three, أَيَّامٍ দিনের days, فِى মধ্যে during, ٱلْحَجِّ হজ্জের the Hajj, وَسَبْعَةٍ ও সাত (দিন) and seven (days), إِذَا যখন when, رَجَعْتُمْ তোমরা ফিরবে you return, تِلْكَ এই This, عَشَرَةٌ দশ (দিন) (is) ten (days), كَامِلَةٌ পূর্ণ (রোযা রাখবে) in all, ذَٰلِكَ এটা That, لِمَن তার জন্যে যার (is) for (the one) whose, لَّمْ না not, يَكُنْ হয় is, أَهْلُهُۥ তার পরিজনবর্গ his family, حَاضِرِى বাসিন্দা present, ٱلْمَسْجِدِ মসজিদে (near) Al-Masjid, ٱلْحَرَامِ হারামের Al-Haraam, وَٱتَّقُوا۟ এবং তোমরা ভয় করো And fear, ٱللَّهَ আল্লাহকে Allah, وَٱعْلَمُوٓا۟ এবং তোমরা জেনে রাখো and know, أَنَّ যে that, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, شَدِيدُ কঠোর (is) severe, ٱلْعِقَابِ (মন্দ কাজের) শাস্তিদানে (in) retribution )

 

(197) الْحَجُّ أَشْهُرٌ مَّعْلُومَاتٌ فَمَن فَرَضَ فِيهِنَّ الْحَجَّ فَلاَ رَفَثَ وَلاَ فُسُوقَ وَلاَ جِدَالَ فِي الْحَجِّ وَمَا تَفْعَلُواْ مِنْ خَيْرٍ يَعْلَمْهُ اللّهُ وَتَزَوَّدُواْ فَإِنَّ خَيْرَ الزَّادِ التَّقْوَى وَاتَّقُونِ يَا أُوْلِي الأَلْبَابِ হজ্জ্বে কয়েকটি মাস আছে সুবিদিত। এসব মাসে যে লোক হজ্জ্বের পরিপূর্ণ নিয়ত করবে, তার পক্ষে স্ত্রীও সাথে নিরাভরণ হওয়া জায়েজ নয়। না অশোভন কোন কাজ করা, না ঝাগড়া-বিবাদ করা হজ্জ্বের সেই সময় জায়েজ নয়। আর তোমরা যাকিছু সৎকাজ কর, আল্লাহ তো জানেন। আর তোমরা পাথেয় সাথে নিয়ে নাও। নিঃসন্দেহে সর্বোত্তম পাথেয় হচ্ছে আল্লাহর ভয়। আর আমাকে ভয় করতে থাক, হে বুদ্ধিমানগন! তোমাদের উপর তোমাদের পালনকর্তার অনুগ্রহ অন্বেষণ করায় কোন পাপ নেই। For Hajj are the months well known. If any one undertakes that duty therein, Let there be no obscenity, nor wickedness, nor wrangling in the Hajj. And whatever good ye do, (be sure) Allah knoweth it. And take a provision (With you) for the journey, but the best of provisions is right conduct. So fear Me, o ye that are wise.

( ٱلْحَجُّ হজ্জের (For) the Hajj, أَشْهُرٌ মাসগুলো (are) months, مَّعْلُومَٰتٌ সুবিদিত well known, فَمَن তাই যে কেউ then whoever, فَرَضَ স্থির করল undertakes, فِيهِنَّ তার মধ্যে therein, ٱلْحَجَّ হজ্জ করার the Hajj, فَلَا না তখন then no, رَفَثَ যৌন সম্ভোগ করবে (হজ্জের সময়) sexual relations, وَلَا এবং না and no, فُسُوقَ অন্যায় আচরণ করবে wickedness, وَلَا এবং না and no, جِدَالَ কলহ-বিবাদ করবে quarrelling, فِى মধ্যে during, ٱلْحَجِّ হজ্জের the Hajj, وَمَا এবং যা And whatever, تَفْعَلُوا۟ তোমরা কর you do, مِنْ কোনো of, خَيْرٍ কল্যাণ good, يَعْلَمْهُ তা জানেন knows it, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, وَتَزَوَّدُوا۟ এবং তোমরা পাথেয় সাথে নাও And take provision, فَإِنَّ নিশ্চয়ই তবে (but) indeed, خَيْرَ উত্তম (the) best, ٱلزَّادِ পাথেয় (হল) provision, ٱلتَّقْوَىٰ তাকওয়া (is) righteousness, وَٱتَّقُونِ এবং আমাকে তোমরা ভয় করো And fear Me, يَٰٓأُو۟لِى হে O men, ٱلْأَلْبَٰبِ বুদ্ধিমান লোকেরা (of) understanding! )

 

(198) لَيْسَ عَلَيْكُمْ جُنَاحٌ أَن تَبْتَغُواْ فَضْلاً مِّن رَّبِّكُمْ فَإِذَا أَفَضْتُم مِّنْ عَرَفَاتٍ فَاذْكُرُواْ اللّهَ عِندَ الْمَشْعَرِ الْحَرَامِ وَاذْكُرُوهُ كَمَا هَدَاكُمْ وَإِن كُنتُم مِّن قَبْلِهِ لَمِنَ الضَّآلِّينَ তোমাদের উপর তোমাদের পালনকর্তার অনুগ্রহ অন্বেষন করায় কোন পাপ নেই। অতঃপর যখন তওয়াফের জন্য ফিরে আসবে আরাফাত থেকে, তখন মাশ‘ আরে-হারামের নিকটে আল্লাহকে স্মরণ কর। আর তাঁকে স্মরণ কর তেমনি করে, যেমন তোমাদিগকে হেদায়েত করা হয়েছে। আর নিশ্চয়ই ইতিপূর্বে তোমরা ছিলে অজ্ঞ। It is no crime in you if ye seek of the bounty of your Lord (during pilgrimage). Then when ye pour down from (Mount) Arafat, celebrate the praises of Allah at the Sacred Monument, and celebrate His praises as He has directed you, even though, before this, ye went astray.

( لَيْسَ নেই Not is, عَلَيْكُمْ তোমাদের উপর on you, جُنَاحٌ কোন পাপ any sin, أَن যে that, تَبْتَغُوا۟ তোমরা সন্ধান করবে you seek, فَضْلًا অনুগ্রহ bounty, مِّن কাছ থেকে from, رَّبِّكُمْ তোমাদের রবের your Lord, فَإِذَآ অতঃপর যখন And when, أَفَضْتُم তোমরা প্রত্যাবর্তন কর you depart, مِّنْ থেকে from, عَرَفَٰتٍ আরাফাত (Mount) Arafat, فَٱذْكُرُوا۟ তোমরা স্মরণ করো then remember, ٱللَّهَ আল্লাহকে Allah, عِندَ কাছে near, ٱلْمَشْعَرِ মাশআরিল the Monument, ٱلْحَرَامِ হারামের (মুজাদালেফায়) [the] Sacred, وَٱذْكُرُوهُ এবং তাকে স্মরণ করো And remember Him, كَمَا যেমন as, هَدَىٰكُمْ তোমাদের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি He (has) guided you, وَإِن এবং যদিও [and] though, كُنتُم তোমরা ছিলে you were, مِّن থেকে [from], قَبْلِهِۦ এর পূর্বেই before [it], لَمِنَ অবশ্যই অন্তর্ভুক্ত surely among, ٱلضَّآلِّينَ পথভ্রষ্টদের those who went astray )

 

(199) ثُمَّ أَفِيضُواْ مِنْ حَيْثُ أَفَاضَ النَّاسُ وَاسْتَغْفِرُواْ اللّهَ إِنَّ اللّهَ غَفُورٌ رَّحِيمٌ অতঃপর তওয়াফের জন্যে দ্রুতগতিতে সেখান থেকে ফিরে আস, যেখান থেকে সবাই ফিরে। আর আল্লাহর কাছেই মাগফেরাত কামনা কর। নিশ্চয়ই আল্লাহ ক্ষমাকারী, করুনাময়। Then pass on at a quick pace from the place whence it is usual for the multitude so to do, and ask for Allah.s forgiveness. For Allah is Oft-forgiving, Most Merciful.

( ثُمَّ এরপর Then, أَفِيضُوا۟ তোমরা প্রত্যাবর্তন করো depart, مِنْ থেকে from, حَيْثُ যেখান wherever, أَفَاضَ প্রত্যাবর্তন করে depart, ٱلنَّاسُ মানুষ the people, وَٱسْتَغْفِرُوا۟ এবং তোমরা ক্ষমা চাও and ask forgiveness, ٱللَّهَ আল্লাহর (কাছে) (of) Allah, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, غَفُورٌ ক্ষমাশীল (is) Oft-Forgiving, رَّحِيمٌ পরম দয়ালু All-Merciful )

 

(200) فَإِذَا قَضَيْتُم مَّنَاسِكَكُمْ فَاذْكُرُواْ اللّهَ كَذِكْرِكُمْ آبَاءكُمْ أَوْ أَشَدَّ ذِكْرًا فَمِنَ النَّاسِ مَن يَقُولُ رَبَّنَا آتِنَا فِي الدُّنْيَا وَمَا لَهُ فِي الآخِرَةِ مِنْ خَلاَقٍ আর অতঃপর যখন হজ্জ্বের যাবতীয় অনুষ্ঠানক্রিয়াদি সমাপ্ত করে সারবে, তখন স্মরণ করবে আল্লাহকে, যেমন করে তোমরা স্মরণ করতে নিজেদের বাপ-দাদাদেরকে; বরং তার চেয়েও বেশী স্মরণ করবে। তারপর অনেকে তো বলে যে পরওয়াদেগার! আমাদিগকে দুনিয়াতে দান কর। অথচ তার জন্যে পরকালে কোন অংশ নেই। So when ye have accomplished your holy rites, celebrate the praises of Allah, as ye used to celebrate the praises of your fathers,- yea, with far more Heart and soul. There are men who say: “Our Lord! Give us (Thy bounties) in this world!” but they will have no portion in the Hereafter.

( فَإِذَا অতঃপর যখন Then when, قَضَيْتُم তোমরা সম্পন্ন করবে you complete[d], مَّنَٰسِكَكُمْ তোমাদের হজ্জের অনুষ্ঠানাদি your acts of worship, فَٱذْكُرُوا۟ তখন তোমরা স্মরণ করবে then remember, ٱللَّهَ আল্লাহকে Allah, كَذِكْرِكُمْ তোমরা স্মরণ করতে যেমন as you remember, ءَابَآءَكُمْ তোমাদের বাপ-দাদাদেরকে your forefathers, أَوْ বরং (এখন) or, أَشَدَّ অধিকতর (with) greater, ذِكْرًا স্মরণ কর (আল্লাহকে) remembrance, فَمِنَ অতঃপর কিছু And from, ٱلنَّاسِ মানুষ (এমন আছে) the people, مَن যারা who, يَقُولُ বলে say, رَبَّنَآ হে আমাদের রব “Our Lord!, ءَاتِنَا আমাদের দাও Grant us, فِى মধ্যে in, ٱلدُّنْيَا (এই) পৃথিবীর the world”, وَمَا আর নেই And not, لَهُۥ তার জন্যে for him, فِى মধ্যে in, ٱلْءَاخِرَةِ আখেরাতের the Hereafter, مِنْ কোনো [of], خَلَٰقٍ অংশ any share )

 

(201) وِمِنْهُم مَّن يَقُولُ رَبَّنَا آتِنَا فِي الدُّنْيَا حَسَنَةً وَفِي الآخِرَةِ حَسَنَةً وَقِنَا عَذَابَ النَّارِ আর তাদের মধ্যে কেউ কেউ বলে-হে পরওয়ারদেগার! আমাদিগকে দুনয়াতেও কল্যাণ দান কর এবং আখেরাতেও কল্যাণ দান কর এবং আমাদিগকে দোযখের আযাব থেকে রক্ষা কর। And there are men who say: “Our Lord! Give us good in this world and good in the Hereafter, and defend us from the torment of the Fire!”

( وَمِنْهُم এবং তাদের মধ্যে (এমনও আছে) And from those, مَّن যারা who, يَقُولُ বলে say, رَبَّنَآ হে আমাদের রব “Our Lord!, ءَاتِنَا আমাদের দাও Grant us, فِى মধ্যে in, ٱلدُّنْيَا (এই) পৃথিবীর the world, حَسَنَةً কল্যাণ good, وَفِى ও and in, ٱلْءَاخِرَةِ আখেরাতের মধ্যে the Hereafter, حَسَنَةً কল্যাণ good, وَقِنَا এবং আমাদের বাঁচাও and save us, عَذَابَ শাস্তি (হতে) (from the) punishment, ٱلنَّارِ দোজখের আগুনের (of) the Fire” )

 

(202)  أُولَـئِكَ لَهُمْ نَصِيبٌ مِّمَّا كَسَبُواْ وَاللّهُ سَرِيعُ الْحِسَابِ এদেরই জন্য অংশ রয়েছে নিজেদের উপার্জিত সম্পদের। আর আল্লাহ দ্রুত হিসাব গ্রহণকারী। To these will be allotted what they have earned; and Allah is quick in account.

( أُو۟لَٰٓئِكَ ঐসব লোক Those -, لَهُمْ তাদের জন্য (রয়েছে) for them, نَصِيبٌ অংশ (উভয় স্থানে) (is) a share, مِّمَّا তা থেকে যা of what, كَسَبُوا۟ তারা অর্জন করেছে they earned, وَٱللَّهُ আর আল্লাহ and Allah, سَرِيعُ দ্রুত (is) swift, ٱلْحِسَابِ হিসাব নিতে (in taking) account )

 

(203)  وَاذْكُرُواْ اللّهَ فِي أَيَّامٍ مَّعْدُودَاتٍ فَمَن تَعَجَّلَ فِي يَوْمَيْنِ فَلاَ إِثْمَ عَلَيْهِ وَمَن تَأَخَّرَ فَلا إِثْمَ عَلَيْهِ لِمَنِ اتَّقَى وَاتَّقُواْ اللّهَ وَاعْلَمُوا أَنَّكُمْ إِلَيْهِ تُحْشَرُونَ আর স্মরণ কর আল্লাহকে নির্দিষ্ট সংখ্যক কয়েকটি দিনে। অতঃপর যে লোক তাড়াহুড়া করে চলে যাবে শুধু দু, দিনের মধ্যে, তার জন্যে কোন পাপ নেই। আর যে লোক থেকে যাবে তাঁর উপর কোন পাপ নেই, অবশ্য যারা ভয় করে। আর তোমরা আল্লাহকে ভয় করতে থাক এবং নিশ্চিত জেনে রাখ, তোমরা সবাই তার সামনে সমবেত হবে। Celebrate the praises of Allah during the Appointed Days. But if any one hastens to leave in two days, there is no blame on him, and if any one stays on, there is no blame on him, if his aim is to do right. Then fear Allah, and know that ye will surely be gathered unto Him.

( وَٱذْكُرُوا۟ এবং তোমরা স্মরণ করো And remember, ٱللَّهَ আল্লাহকে Allah, فِىٓ মধ্যে during, أَيَّامٍ দিনগুলোর days, مَّعْدُودَٰتٍ নির্দিষ্ট সংখ্যক numbered, فَمَن যে অতঃপর Then (he) who, تَعَجَّلَ তাড়াতাড়ি করে hurries, فِى মধ্যে in, يَوْمَيْنِ দুইদিনের (চলে আসে) two days, فَلَآ নেই তবে then no, إِثْمَ কোন পাপ sin, عَلَيْهِ তার উপর upon him, وَمَن আর যে and whoever, تَأَخَّرَ বিলম্ব করে (ফিরে) delays, فَلَآ তাতেও নাই then no, إِثْمَ কোন পাপ sin, عَلَيْهِ তার উপর upon him, لِمَنِ তার জন্য যে for (the one) who, ٱتَّقَىٰ তাকওয়া অবলম্বন করে fears, وَٱتَّقُوا۟ এবং তোমরা ভয় করো And fear, ٱللَّهَ আল্লাহকে Allah, وَٱعْلَمُوٓا۟ এবং তোমরা জেনে রাখো and know, أَنَّكُمْ যে তোমাদেরকে that you, إِلَيْهِ তারই দিকে unto Him, تُحْشَرُونَ একত্র করা হবে will be gathered )

(204) وَمِنَ النَّاسِ مَن يُعْجِبُكَ قَوْلُهُ فِي الْحَيَاةِ الدُّنْيَا وَيُشْهِدُ اللّهَ عَلَى مَا فِي قَلْبِهِ وَهُوَ أَلَدُّ الْخِصَامِ আর এমন কিছু লোক রযেছে যাদের পার্থিব জীবনের কথাবার্তা তোমাকে চমৎকৃত করবে। আর তারা সাক্ষ্য স্থাপন করে আল্লাহকে নিজের মনের কথার ব্যাপারে। প্রকৃতপক্ষে তারা কঠিন ঝগড়াটে লোক। There is the type of man whose speech about this world’s life May dazzle thee, and he calls Allah to witness about what is in his heart; yet is he the most contentious of enemies.

( وَمِنَ এবং মধ্যে(কেউ কেউ) And of, ٱلنَّاسِ লোকদের (এমনও আছে) the people, مَن যে (is the one) who, يُعْجِبُكَ তোমাকে মুগ্ধ করে pleases you, قَوْلُهُۥ তার কথাবার্তা (with) his speech, فِى মধ্যে in, ٱلْحَيَوٰةِ জীবনের the life, ٱلدُّنْيَا পার্থিব (of) the world, وَيُشْهِدُ ও সে সাক্ষী রাখে and he calls to witness, ٱللَّهَ আল্লাহকে Allah, عَلَىٰ (এর) উপর on, مَا যা what, فِى মধ্যে(আছে) (is) in, قَلْبِهِۦ তার অন্তরের his heart, وَهُوَ এবং সে and he, أَلَدُّ সাংঘাতিক (is) the most quarrelsome, ٱلْخِصَامِ ঝগড়াটে (of) opponents )

 

(205)  وَإِذَا تَوَلَّى سَعَى فِي الأَرْضِ لِيُفْسِدَ فِيِهَا وَيُهْلِكَ الْحَرْثَ وَالنَّسْلَ وَاللّهُ لاَ يُحِبُّ الفَسَادَ যখন ফিরে যায় তখন চেষ্টা করে যাতে সেখানে অকল্যাণ সৃষ্টি করতে পারে এবং শস্যক্ষেত্র ও প্রাণনাশ করতে পারে। আল্লাহ ফাসাদ ও দাঙ্গা-হাঙ্গামা পছন্দ করেন না। When he turns his back, His aim everywhere is to spread mischief through the earth and destroy crops and cattle. But Allah loveth not mischief.

( وَإِذَا এবং যখন And when, تَوَلَّىٰ সে কর্তৃত্ব পায় he turns away, سَعَىٰ সে চেষ্টা করে he strives, فِى মধ্যে in, ٱلْأَرْضِ পৃথিবীর the earth, لِيُفْسِدَ বিপর্যয় সৃষ্টির জন্যে to spread corruption, فِيهَا তার মধ্যে [in it], وَيُهْلِكَ ও ধ্বংস করতে and destroys, ٱلْحَرْثَ শস্যক্ষেত the crops, وَٱلنَّسْلَ ও জীব-জন্তুর বংশ and progeny, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, لَا না (does) not, يُحِبُّ পছন্দ করনে love, ٱلْفَسَادَ বিপর্যয় [the] corruption )

 

(206)  وَإِذَا قِيلَ لَهُ اتَّقِ اللّهَ أَخَذَتْهُ الْعِزَّةُ بِالإِثْمِ فَحَسْبُهُ جَهَنَّمُ وَلَبِئْسَ الْمِهَادُ আর যখন তাকে বলা হয় যে, আল্লাহকে ভয় কর, তখন তার পাপ তাকে অহঙ্কারে উদ্বুদ্ধ করে। সুতরাং তার জন্যে দোযখই যথেষ্ট। আর নিঃসন্দেহে তা হলো নিকৃষ্টতর ঠিকানা। When it is said to him, “Fear Allah., He is led by arrogance to (more) crime. Enough for him is Hell;-An evil bed indeed (To lie on)!

( وَإِذَا এবং যখন And when, قِيلَ বলা হয় it is said, لَهُ তার উদ্দেশে to him, ٱتَّقِ  ভয় করো “Fear, ٱللَّهَ আল্লাহকে Allah”, أَخَذَتْهُ তাকে ধরে takes him, ٱلْعِزَّةُ (তার) মর্যাদা সম্মান (his) pride, بِٱلْإِثْمِ পাপের (পথে) to [the] sins, فَحَسْبُهُۥ তার জন্যে তাই যথেষ্ট Then enough for him, جَهَنَّمُ জাহান্নাম (is) Hell -, وَلَبِئْسَ এবং (তা) অবশ্যই অতি নিকৃষ্ট [and] surely an evil, ٱلْمِهَادُ আবাস [the] resting-place )

 

(207)  وَمِنَ النَّاسِ مَن يَشْرِي نَفْسَهُ ابْتِغَاء مَرْضَاتِ اللّهِ وَاللّهُ رَؤُوفٌ بِالْعِبَادِ আর মানুষের মাঝে এক শ্রেণীর লোক রয়েছে যারা আল্লাহর সন্তুষ্টিকল্পে নিজেদের জানের বাজি রাখে। আল্লাহ হলেন তাঁর বান্দাদের প্রতি অত্যন্ত মেহেরবান। And there is the type of man who gives his life to earn the pleasure of Allah. And Allah is full of kindness to (His) devotees.

( وَمِنَ এবং মধ্য হতে And of, ٱلنَّاسِ লোকদের (এমনও আছে) the people, مَن যে (is the one) who, يَشْرِى বিক্রি করে sells, نَفْسَهُ তার প্রাণ his own self, ٱبْتِغَآءَ উদ্দেশ্যে seeking, مَرْضَاتِ সন্তুষ্টির pleasure, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, رَءُوفٌۢ খুব দয়ালু (is) full of Kindness, بِٱلْعِبَادِ এ ধরনের দাসদের সাথে to His servants )

 

(208)  يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُواْ ادْخُلُواْ فِي السِّلْمِ كَآفَّةً وَلاَ تَتَّبِعُواْ خُطُوَاتِ الشَّيْطَانِ إِنَّهُ لَكُمْ عَدُوٌّ مُّبِينٌ হে ঈমানদার গন! তোমরা পরিপূর্ণভাবে ইসলামের অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাও এবং শয়তানের পদাংক অনুসরণ কর না। নিশ্চিত রূপে সে তোমাদের প্রকাশ্য শত্রু। O ye who believe! Enter into Islam whole-heartedly; and follow not the footsteps of the evil one; for he is to you an avowed enemy.

( يَٰٓأَيُّهَا ওহে O you, ٱلَّذِينَ যারা who, ءَامَنُوا۟ ঈমান এনেছো believe[d]!, ٱدْخُلُوا۟ তোমরা প্রবেশ করো Enter, فِى মধ্যে in, ٱلسِّلْمِ ইসলামের Islam, كَآفَّةً সম্পূর্ণভাবে completely, وَلَا এবং না and (do) not, تَتَّبِعُوا۟ তোমরা অনুসরণ করো follow, خُطُوَٰتِ পদাঙ্কগুলোর footsteps, ٱلشَّيْطَٰنِ শয়তানের (of) the Shaitaan, إِنَّهُۥ সে নিশ্চয়ই Indeed  he, لَكُمْ তোমাদের জন্যে (is) for you, عَدُوٌّ শত্রু an enemy, مُّبِينٌ প্রকাশ্য open )

 

(209)  فَإِن زَلَلْتُمْ مِّن بَعْدِ مَا جَاءتْكُمُ الْبَيِّنَاتُ فَاعْلَمُواْ أَنَّ اللّهَ عَزِيزٌ حَكِيمٌ অতঃপর তোমাদের মাঝে পরিস্কার নির্দেশ এসে গেছে বলে জানার পরেও যদি তোমরা পদস্খলিত হও, তাহলে নিশ্চিত জেনে রেখো, আল্লাহ, পরাক্রমশালী, বিজ্ঞ। If ye backslide after the clear (Signs) have come to you, then know that Allah is Exalted in Power, Wise.

( فَإِن অতঃপর যদি Then if, زَلَلْتُم তোমরা পদস্খলন কর you slip, مِّنۢ (এর) from, بَعْدِ পর থেকে after, مَا যা [what], جَآءَتْكُمُ তোমাদের কাছে এসেছে came to you, ٱلْبَيِّنَٰتُ সুস্পষ্ট নিদর্শন (from) the clear proofs, فَٱعْلَمُوٓا۟ তোমরা তবে জেনে রাখো then know, أَنَّ যে that, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, عَزِيزٌ মহাপরাক্রমশালী (is) All-Mighty, حَكِيمٌ মহাবিজ্ঞ All-Wise )

 

(210) هَلْ يَنظُرُونَ إِلاَّ أَن يَأْتِيَهُمُ اللّهُ فِي ظُلَلٍ مِّنَ الْغَمَامِ وَالْمَلآئِكَةُ وَقُضِيَ الأَمْرُ وَإِلَى اللّهِ تُرْجَعُ الأمُورُ তারা কি সে দিকেই তাকিয়ে রয়েছে যে, মেঘের আড়ালে তাদের সামনে আসবেন আল্লাহ ও ফেরেশতাগণ ? আর তাতেই সব মীমাংসা হয়ে যাবে। বস্তুতঃ সবকার্যকলাপই আল্লাহর নিকট গিয়ে পৌঁছবে। Will they wait until Allah comes to them in canopies of clouds, with angels (in His train) and the question is (thus) settled? but to Allah do all questions go back (for decision).

( هَلْ কি Are, يَنظُرُونَ তারা অপেক্ষা করছে they waiting, إِلَّآ এছাড়া [except], أَن যে that, يَأْتِيَهُمُ তাদের কাছে আসবেন comes to them, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, فِى মধ্যে in, ظُلَلٍ ছায়ার (the) shadows, مِّنَ হতে of, ٱلْغَمَامِ মেঘমালা [the] clouds, وَٱلْمَلَٰٓئِكَةُ এবং ফেরেশতারাও and the Angels, وَقُضِىَ আর মীমাংসা হয়ে যাবে and is decreed, ٱلْأَمْرُ সব কাজের the matter?, وَإِلَى এবং দিকে And to, ٱللَّهِ আল্লাহর Allah, تُرْجَعُ প্রত্যাবর্তিত হবে return, ٱلْأُمُورُ সব ব্যাপার (all) the matters )

 

(211)  سَلْ بَنِي إِسْرَائِيلَ كَمْ آتَيْنَاهُم مِّنْ آيَةٍ بَيِّنَةٍ وَمَن يُبَدِّلْ نِعْمَةَ اللّهِ مِن بَعْدِ مَا جَاءتْهُ فَإِنَّ اللّهَ شَدِيدُ الْعِقَابِ বনী ইসরাঈলদিগকে জিজ্ঞেস কর, তাদেরকে আমি কত স্পষ্ট নির্দশনাবলী দান করেছি। আর আল্লাহর নেয়ামত পৌছে যাওয়ার পর যদি কেউ সে নেয়ামতকে পরিবর্তিত করে দেয়, তবে আল্লাহর আযাব অতি কঠিন। Ask the Children of Israel how many clear (Signs) We have sent them. But if any one, after Allah.s favour has come to him, substitutes (something else), Allah is strict in punishment.

( سَلْ জিজ্ঞাসা করো Ask, بَنِىٓ বনী (the) Children, إِسْرَٰٓءِيلَ ইসরাঈলদেরকে (of) Israel, كَمْ কত how many, ءَاتَيْنَٰهُم তাদেরকে দিয়েছি আমরা We gave them, مِّنْ থেকে of, ءَايَةٍۭ নিদর্শন (the) Sign(s), بَيِّنَةٍ সুস্পষ্ট clear, وَمَن এবং যে And whoever, يُبَدِّلْ পরিবর্তন করে changes, نِعْمَةَ অনুগ্রহ Favor, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, مِنۢ (এর) from, بَعْدِ পর থেকে after, مَا যা [what], جَآءَتْهُ তার কাছে এসেছে it (has) come to him, فَإِنَّ তাহলে নিশ্চয়ই then indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, شَدِيدُ কঠোর (is) severe, ٱلْعِقَابِ (অন্যায়ের) শাস্তিদানে in [the] chastising )

 

(212) زُيِّنَ لِلَّذِينَ كَفَرُواْ الْحَيَاةُ الدُّنْيَا وَيَسْخَرُونَ مِنَ الَّذِينَ آمَنُواْ وَالَّذِينَ اتَّقَواْ فَوْقَهُمْ يَوْمَ الْقِيَامَةِ وَاللّهُ يَرْزُقُ مَن يَشَاء بِغَيْرِ حِسَابٍ পার্থিব জীবনের উপর কাফেরদিগকে উম্মত্ত করে দেয়া হয়েছে। আর তারা ঈমানদারদের প্রতি লক্ষ্য করে হাসাহাসি করে। পক্ষান্তরে যারা পরহেযগার তারা সেই কাফেরদের তুলনায় কেয়ামতের দিন অত্যন্ত উচ্চমর্যাদায় থাকবে। আর আল্লাহ যাকে ইচ্ছা সীমাহীন রুযী দান করেন। The life of this world is alluring to those who reject faith, and they scoff at those who believe. But the righteous will be above them on the Day of Resurrection; for Allah bestows His abundance without measure on whom He will.

( زُيِّنَ সুশোভিত করা হয়েছে Beautified, لِلَّذِينَ তাদের জন্যে for those who, كَفَرُوا۟ অবিশ্বাস করেছে (যারা) disbelieve[d], ٱلْحَيَوٰةُ জীবনকে (is) the life, ٱلدُّنْيَا পার্থিব (of) the world, وَيَسْخَرُونَ ও তারা বিদ্রূপ করে and they ridicule, مِنَ মধ্য হতে [of], ٱلَّذِينَ (তাদেরকে) যারা those who, ءَامَنُوا۟ ঈমান এনেছে believe[d], وَٱلَّذِينَ অথচ যারা And those who, ٱتَّقَوْا۟ তাকওয়া অবলম্বন করে fear (Allah), فَوْقَهُمْ তাদের উপর (মর্যাদা সম্পন্ন হবে) (they will be) above them, يَوْمَ দিনে (on the) Day, ٱلْقِيَٰمَةِ কিয়ামতের (of) Resurrection, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, يَرْزُقُ জীবিকা দেন provides, مَن যাকে whom, يَشَآءُ তিনি চান He wills, بِغَيْرِ ছাড়া without, حِسَابٍ কোনো হিসাব measure )

 

(213) كَانَ النَّاسُ أُمَّةً وَاحِدَةً فَبَعَثَ اللّهُ النَّبِيِّينَ مُبَشِّرِينَ وَمُنذِرِينَ وَأَنزَلَ مَعَهُمُ الْكِتَابَ بِالْحَقِّ لِيَحْكُمَ بَيْنَ النَّاسِ فِيمَا اخْتَلَفُواْ فِيهِ وَمَا اخْتَلَفَ فِيهِ إِلاَّ الَّذِينَ أُوتُوهُ مِن بَعْدِ مَا جَاءتْهُمُ الْبَيِّنَاتُ بَغْيًا بَيْنَهُمْ فَهَدَى اللّهُ الَّذِينَ آمَنُواْ لِمَا اخْتَلَفُواْ فِيهِ مِنَ الْحَقِّ بِإِذْنِهِ وَاللّهُ يَهْدِي مَن يَشَاء إِلَى صِرَاطٍ مُّسْتَقِيمٍ সকল মানুষ একই জাতি সত্তার অন্তর্ভুক্ত ছিল। অতঃপর আল্লাহ তা’আলা পয়গম্বর পাঠালেন সুসংবাদদাতা ও ভীতি প্রদর্শনকরী হিসাবে। আর তাঁদের সাথে অবর্তীণ করলেন সত্য কিতাব, যাতে মানুষের মাঝে বিতর্কমূলক বিষয়ে মীমাংসা করতে পারেন। বস্তুতঃ কিতাবের ব্যাপারে অন্য কেউ মতভেদ করেনি; কিন্তু পরিষ্কার নির্দেশ এসে যাবার পর নিজেদের পারস্পরিক জেদবশতঃ তারাই করেছে, যারা কিতাব প্রাপ্ত হয়েছিল। অতঃপর আল্লাহ ঈমানদারদেরকে হেদায়েত করেছেন সেই সত্য বিষয়ে, যে ব্যাপারে তারা মতভেদ লিপ্ত হয়েছিল। আল্লাহ যাকে ইচ্ছা, সরল পথ বাতলে দেন। Mankind was one single nation, and Allah sent Messengers with glad tidings and warnings; and with them He sent the Book in truth, to judge between people in matters wherein they differed; but the People of the Book, after the clear Signs came to them, did not differ among themselves, except through selfish contumacy. Allah by His Grace Guided the believers to the Truth, concerning that wherein they differed. For Allah guided whom He will to a path that is straight.

( كَانَ ছিল Was, ٱلنَّاسُ সব মানুষ mankind, أُمَّةً জাতি a community, وَٰحِدَةً একই single, فَبَعَثَ (তাদের পথভ্রষ্টতার) পাঠালেন then raised up, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, ٱلنَّبِيِّۦنَ নবীদেরকে [the] Prophets, مُبَشِّرِينَ সুসংবাদদাতা (as) bearers of glad tidings, وَمُنذِرِينَ ও সতর্ককারী (হিসেবে) and (as) warners, وَأَنزَلَ এবং অবতীর্ণ করলেন and sent down, مَعَهُمُ তাদের সাথে with them, ٱلْكِتَٰبَ কিতাব the Book, بِٱلْحَقِّ সত্য সহ in [the] truth, لِيَحْكُمَ তিনি মীমাংসা করতে পারেন যাতে to judge, بَيْنَ মাঝে between, ٱلنَّاسِ মানুষের [the] people, فِيمَا সে বিষয়ে যা in what, ٱخْتَلَفُوا۟ তারা মতভেদ করেছিলো they differed, فِيهِ তার মধ্যে [in it], وَمَا এবং নি And (did) not, ٱخْتَلَفَ মতভেদ করে differ[ed], فِيهِ তার মধ্যে in it, إِلَّا এছাড়া except, ٱلَّذِينَ যাদের those who, أُوتُوهُ তা দেয়া হয়েছিল were given it, مِنۢ থেকে from, بَعْدِ পর after, مَا যা [what], جَآءَتْهُمُ তাদের কাছে এসেছে came to them, ٱلْبَيِّنَٰتُ স্পষ্ট নিদর্শনগুলো the clear proofs, بَغْيًۢا বাড়াবাড়ির (কারণে) (out of) jealousy, بَيْنَهُمْ তাদের মাঝে among themselves, فَهَدَى অতঃপর পথ দেখালেন’ And guided, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, ٱلَّذِينَ (তাদেরকে) যারা those who, ءَامَنُوا۟ ঈমান এনেছে believe[d], لِمَا যে বিষয়ে regarding what, ٱخْتَلَفُوا۟ তারা মতভেদ করেছিলো they differed, فِيهِ তার মধ্যে [in it], مِنَ সম্পর্কে of, ٱلْحَقِّ সত্য the Truth, بِإِذْنِهِۦ তার অনুমতির মাধ্যমে (ও অনুগ্রহে) with His permission, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, يَهْدِى পথ দেখান guides, مَن যাকে whom, يَشَآءُ তিনি চান He wills, إِلَىٰ দিকে to, صِرَٰطٍ পথের a path, مُّسْتَقِيمٍ সহজ-সরল straight )

 

(214) أَمْ حَسِبْتُمْ أَن تَدْخُلُواْ الْجَنَّةَ وَلَمَّا يَأْتِكُم مَّثَلُ الَّذِينَ خَلَوْاْ مِن قَبْلِكُم مَّسَّتْهُمُ الْبَأْسَاء وَالضَّرَّاء وَزُلْزِلُواْ حَتَّى يَقُولَ الرَّسُولُ وَالَّذِينَ آمَنُواْ مَعَهُ مَتَى نَصْرُ اللّهِ أَلا إِنَّ نَصْرَ اللّهِ قَرِيبٌ তোমাদের কি এই ধারণা যে, তোমরা জান্নাতে চলে যাবে, অথচ সে লোকদের অবস্থা অতিক্রম করনি যারা তোমাদের পূর্বে অতীত হয়েছে। তাদের উপর এসেছে বিপদ ও কষ্ট। আর এমনি ভাবে শিহরিত হতে হয়েছে যাতে নবী ও তাঁর প্রতি যারা ঈমান এনেছিল তাদেরকে পর্যন্ত একথা বলতে হয়েছে যে, কখন আসবে আল্লাহর সাহায্যে! তোমরা শোনে নাও, আল্লাহর সাহায্যে একান্তই নিকটবর্তী। Or do ye think that ye shall enter the Garden (of bliss) without such (trials) as came to those who passed away before you? they encountered suffering and adversity, and were so shaken in spirit that even the Messenger and those of faith who were with him cried: “When (will come) the help of Allah.” Ah! Verily, the help of Allah is (always) near!

( أَمْ কি Or, حَسِبْتُمْ তোমরা মনে করেছ (do) you think, أَن যে that, تَدْخُلُوا۟ তোমরা প্রবেশ করবে you will enter, ٱلْجَنَّةَ জান্নাতে Paradise, وَلَمَّا অথচ এখনও while not, يَأْتِكُم তোমাদের আসে নি (has) come to you, مَّثَلُ (তাদের) অবস্থা like (came to), ٱلَّذِينَ যারা those who, خَلَوْا۟ গত হয়েছে passed away, مِن (থেকে) from, قَبْلِكُم তোমাদের পূর্বে থেকে before you?, مَّسَّتْهُمُ তাদের স্পর্শ করেছিল Touched them, ٱلْبَأْسَآءُ অভাব-অনটন [the] adversity, وَٱلضَّرَّآءُ ও দুঃখদারিদ্র and [the] hardship, وَزُلْزِلُوا۟ এবং তাদের কম্পিত করা হয়েছিল and they were shaken, حَتَّىٰ এমনকি until, يَقُولَ বলল said, ٱلرَّسُولُ রাসূল the Messenger, وَٱلَّذِينَ এবং যারা and those who, ءَامَنُوا۟ ঈমান এনেছিল believed, مَعَهُۥ তার সাথে with him, مَتَىٰ কখন (আসবে) “When, نَصْرُ সাহায্য [will] (the) help, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah (come), أَلَآ জেনে রেখো Unquestionably, إِنَّ নিশ্চয়ই [Indeed], نَصْرَ সাহায্য help, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, قَرِيبٌ নিকটে (is) near )

 

(215)  يَسْأَلُونَكَ مَاذَا يُنفِقُونَ قُلْ مَا أَنفَقْتُم مِّنْ خَيْرٍ فَلِلْوَالِدَيْنِ وَالأَقْرَبِينَ وَالْيَتَامَى وَالْمَسَاكِينِ وَابْنِ السَّبِيلِ وَمَا تَفْعَلُواْ مِنْ خَيْرٍ فَإِنَّ اللّهَ بِهِ عَلِيمٌ তোমার কাছে জিজ্ঞেস করে, কি তারা ব্যয় করবে? বলে দাও-যে বস্তুই তোমরা ব্যয় কর, তা হবে পিতা-মাতার জন্যে, আত্নীয়-আপনজনের জন্যে, এতীম-অনাথদের জন্যে, অসহায়দের জন্যে এবং মুসাফিরদের জন্যে। আর তোমরা যে কোন সৎকাজ করবে, নিঃসন্দেহে তা অত্যন্ত ভালভাবেই আল্লাহর জানা রয়েছে। They ask thee what they should spend (In charity). Say: Whatever ye spend that is good, is for parents and kindred and orphans and those in want and for wayfarers. And whatever ye do that is good, -(Allah) knoweth it well.

( يَسْـَٔلُونَكَ তোমাকে তারা প্রশ্ন করে They ask you, مَاذَا কি what, يُنفِقُونَ ব্যয় করবে তারা they (should) spend, قُلْ তুমি বলো Say, مَآ যা “Whatever, أَنفَقْتُم তোমরা ব্যয় কর you spend, مِّنْ হতে of, خَيْرٍ ধন-সম্পদ good, فَلِلْوَٰلِدَيْنِ তা পিতা-মাতার জন্যে(তবে) (is) for parents, وَٱلْأَقْرَبِينَ এবং আত্মীয়-স্বজনদের and the relatives, وَٱلْيَتَٰمَىٰ ও ইয়াতীমদের and the orphans, وَٱلْمَسَٰكِينِ ও অভাবগ্রস্তদের and the needy, وَٱبْنِ ও and (of), ٱلسَّبِيلِ মুসাফিরদের (পথের জন্য ব্যয় করবে) the wayfarer, وَمَا এবং যা কিছু And whatever, تَفْعَلُوا۟ তোমরা কর you do, مِنْ থেকে of, خَيْرٍ কল্যাণ good, فَإِنَّ নিশ্চয়ই তবেই So indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, بِهِۦ তা সম্পর্কে of it, عَلِيمٌ খুব অবহিত (is) All-Aware )

 

(216)  كُتِبَ عَلَيْكُمُ الْقِتَالُ وَهُوَ كُرْهٌ لَّكُمْ وَعَسَى أَن تَكْرَهُواْ شَيْئًا وَهُوَ خَيْرٌ لَّكُمْ وَعَسَى أَن تُحِبُّواْ شَيْئًا وَهُوَ شَرٌّ لَّكُمْ وَاللّهُ يَعْلَمُ وَأَنتُمْ لاَ تَعْلَمُونَ তোমাদের উপর যুদ্ধ ফরয করা হয়েছে, অথচ তা তোমাদের কাছে অপছন্দনীয়। পক্ষান্তরে তোমাদের কাছে হয়তো কোন একটা বিষয় পছন্দসই নয়, অথচ তা তোমাদের জন্য কল্যাণকর। আর হয়তোবা কোন একটি বিষয় তোমাদের কাছে পছন্দনীয় অথচ তোমাদের জন্যে অকল্যাণকর। বস্তুতঃ আল্লাহই জানেন, তোমরা জান না। Fighting is prescribed for you, and ye dislike it. But it is possible that ye dislike a thing which is good for you, and that ye love a thing which is bad for you. But Allah knoweth, and ye know not.

( كُتِبَ ফরজ করা হল Is prescribed, عَلَيْكُمُ তোমাদের ওপর upon you, ٱلْقِتَالُ যুদ্ধ [the] fighting, وَهُوَ অথচ তা while it, كُرْهٌ অপ্রিয় (is) hateful, لَّكُمْ তোমাদের কাছে to you, وَعَسَىٰٓ কিন্তু হতে পারে But perhaps, أَن যে [that], تَكْرَهُوا۟ তোমরা অপছন্দ কর you dislike, شَيْـًٔا কোনো জিনিস a thing, وَهُوَ অথচ তা and it, خَيْرٌ কল্যাণকর (is) good, لَّكُمْ তোমাদের জন্যে for you, وَعَسَىٰٓ আবার হতে পারে and perhaps, أَن যে [that], تُحِبُّوا۟ তোমরা পছন্দ কর  you love, شَيْـًٔا কোনো জিনিস a thing, وَهُوَ অথচ তা and it, شَرٌّ অকল্যাণকর (is) bad, لَّكُمْ তোমাদের জন্যে for you, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, يَعْلَمُ জানেন knows, وَأَنتُمْ কিন্তু তোমরা while you, لَا না (do) not, تَعْلَمُونَ জান know )

 

(217)  يَسْأَلُونَكَ عَنِ الشَّهْرِ الْحَرَامِ قِتَالٍ فِيهِ قُلْ قِتَالٌ فِيهِ كَبِيرٌ وَصَدٌّ عَن سَبِيلِ اللّهِ وَكُفْرٌ بِهِ وَالْمَسْجِدِ الْحَرَامِ وَإِخْرَاجُ أَهْلِهِ مِنْهُ أَكْبَرُ عِندَ اللّهِ وَالْفِتْنَةُ أَكْبَرُ مِنَ الْقَتْلِ وَلاَ يَزَالُونَ يُقَاتِلُونَكُمْ حَتَّىَ يَرُدُّوكُمْ عَن دِينِكُمْ إِنِ اسْتَطَاعُواْ وَمَن يَرْتَدِدْ مِنكُمْ عَن دِينِهِ فَيَمُتْ وَهُوَ كَافِرٌ فَأُوْلَـئِكَ حَبِطَتْ أَعْمَالُهُمْ فِي الدُّنْيَا وَالآخِرَةِ وَأُوْلَـئِكَ أَصْحَابُ النَّارِ هُمْ فِيهَا خَالِدُونَ সম্মানিত মাস সম্পর্কে তোমার কাছে জিজ্ঞেস করে যে, তাতে যুদ্ধ করা কেমন? বলে দাও এতে যুদ্ধ করা ভীষণ বড় পাপ। আর আল্লাহর পথে প্রতিবন্দ্বকতা সৃষ্টি করা এবং কুফরী করা, মসজিদে-হারামের পথে বাধা দেয়া এবং সেখানকার অধিবাসীদেরকে বহিস্কার করা, আল্লাহর নিকট তার চেয়েও বড় পাপ। আর ধর্মের ব্যাপারে ফেতনা সৃষ্টি করা নরহত্যা অপেক্ষাও মহা পাপ। বস্তুতঃ তারা তো সর্বদাই তোমাদের সাথে যুদ্ধ করতে থাকবে, যাতে করে তোমাদিগকে দ্বীন থেকে ফিরিয়ে দিতে পারে যদি সম্ভব হয়। তোমাদের মধ্যে যারা নিজের দ্বীন থেকে ফিরে দাঁড়াবে এবং কাফের অবস্থায় মৃত্যুবরণ করবে, দুনিয়া ও আখেরাতে তাদের যাবতীয় আমল বিনষ্ট হয়ে যাবে। আর তারাই হলো দোযখবাসী। তাতে তারা চিরকাল বাস করবে। They ask thee concerning fighting in the Prohibited Month. Say: “Fighting therein is a grave (offence); but graver is it in the sight of Allah to prevent access to the path of Allah, to deny Him, to prevent access to the Sacred Mosque, and drive out its members.” Tumult and oppression are worse than slaughter. Nor will they cease fighting you until they turn you back from your faith if they can. And if any of you Turn back from their faith and die in unbelief, their works will bear no fruit in this life and in the Hereafter; they will be companions of the Fire and will abide therein.

( إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱلَّذِينَ যারা those who, ءَامَنُوا۟ ঈমান এনেছে believed, وَٱلَّذِينَ ও যারা and those who, هَاجَرُوا۟ হিজরত করেছে emigrated, وَجَٰهَدُوا۟ ও জিহাদ করেছে and strove, فِى মধ্যে in, سَبِيلِ পথের (the) way, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah -, أُو۟لَٰٓئِكَ ঐসব লোকেরা those, يَرْجُونَ আশা করে they hope, رَحْمَتَ দয়ার (for) Mercy, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, غَفُورٌ বড় ক্ষমাশীল (is) Oft-Forgiving, رَّحِيمٌ পরম দয়াল All-Merciful )

 

(218)  إِنَّ الَّذِينَ آمَنُواْ وَالَّذِينَ هَاجَرُواْ وَجَاهَدُواْ فِي سَبِيلِ اللّهِ أُوْلَـئِكَ يَرْجُونَ رَحْمَتَ اللّهِ وَاللّهُ غَفُورٌ رَّحِيمٌ আর এতে কোন সন্দেহের অবকাশ নেই যে, যারা ঈমান এনেছে এবং যারা হিজরত করেছে আর আল্লাহর পথে লড়াই (জেহাদ) করেছে, তারা আল্লাহর রহমতের প্রত্যাশী। আর আল্লাহ হচ্ছেন ক্ষমাকারী করুনাময়। Those who believed and those who suffered exile and fought (and strove and struggled) in the path of Allah,- they have the hope of the Mercy of Allah. And Allah is Oft-forgiving, Most Merciful.

( إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱلَّذِينَ যারা those who, ءَامَنُوا۟ ঈমান এনেছে believed, وَٱلَّذِينَ ও যারা and those who, هَاجَرُوا۟ হিজরত করেছে emigrated, وَجَٰهَدُوا۟ ও জিহাদ করেছে and strove, فِى মধ্যে in, سَبِيلِ পথের (the) way, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah -, أُو۟لَٰٓئِكَ ঐসব লোকেরা those, يَرْجُونَ আশা করে they hope, رَحْمَتَ দয়ার (for) Mercy, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, غَفُورٌ বড় ক্ষমাশীল (is) Oft-Forgiving, رَّحِيمٌ পরম দয়ালু All-Merciful )

 

(219)  يَسْأَلُونَكَ عَنِ الْخَمْرِ وَالْمَيْسِرِ قُلْ فِيهِمَا إِثْمٌ كَبِيرٌ وَمَنَافِعُ لِلنَّاسِ وَإِثْمُهُمَآ أَكْبَرُ مِن نَّفْعِهِمَا وَيَسْأَلُونَكَ مَاذَا يُنفِقُونَ قُلِ الْعَفْوَ كَذَلِكَ يُبيِّنُ اللّهُ لَكُمُ الآيَاتِ لَعَلَّكُمْ تَتَفَكَّرُونَ তারা তোমাকে মদ ও জুয়া সম্পর্কে জিজ্ঞেস করে। বলে দাও, এতদুভয়ের মধ্যে রয়েছে মহাপাপ। আর মানুষের জন্যে উপকারিতাও রয়েছে, তবে এগুলোর পাপ উপকারিতা অপেক্ষা অনেক বড়। আর তোমার কাছে জিজ্ঞেস করে, কি তারা ব্যয় করবে? বলে দাও, নিজেদের প্রয়োজনীয় ব্যয়ের পর যা বাঁচে তাই খরচ করবে। এভাবেই আল্লাহ তোমাদের জন্যে নির্দেশ সুস্পষ্টরূপে বর্ণনা করেন, যাতে তোমরা চিন্তা করতে পার। They ask thee concerning wine and gambling. Say: “In them is great sin, and some profit, for men; but the sin is greater than the profit.” They ask thee how much they are to spend; Say: “What is beyond your needs.” Thus doth Allah Make clear to you His Signs: In order that ye may consider-

( يَسْـَٔلُونَكَ তোমাকে তারা জিজ্ঞাসা করে They ask you, عَنِ সম্পর্কে about, ٱلْخَمْرِ মদ (পান) [the] intoxicants, وَٱلْمَيْسِرِ ও জুয়া (খেলা) and [the] games of chance, قُلْ তুমি বলো Say, فِيهِمَآ দু’টির মধ্যে (রয়েছে) “In both of them, إِثْمٌ পাপ (ক্ষতি)  (is) a sin, كَبِيرٌ বড় great, وَمَنَٰفِعُ ও উপকারও (কিছু) and (some) benefits, لِلنَّاسِ মানুষের জন্য for [the] people, وَإِثْمُهُمَآ কিন্তু সে দু’টির পাপ (ক্ষতি) But sin of both of them, أَكْبَرُ অধিকতর (ক্ষতিকর) (is) greater, مِن চেয়েও than, نَّفْعِهِمَا দু’টির উপকারের (the) benefit of (the) two”, وَيَسْـَٔلُونَكَ এবং তোমাকে তারা প্রশ্ন করে And they ask you, مَاذَا কী what, يُنفِقُونَ তারা ব্যয় করবে they (should) spend, قُلِ তুমি বলো Say, ٱلْعَفْوَ (যা) উদ্বৃত্ত “The surplus”, كَذَٰلِكَ এভাবে Thus, يُبَيِّنُ বর্ণনা করেন makes clear, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, لَكُمُ তোমাদের জন্যে to you, ٱلْءَايَٰتِ নিদর্শনবলী [the] Verses, لَعَلَّكُمْ আশা করা যায় তোমরা so that you may, تَتَفَكَّرُونَ চিন্তা-ভাবনা করবে ponder )

 

(220) فِي الدُّنْيَا وَالآخِرَةِ وَيَسْأَلُونَكَ عَنِ الْيَتَامَى قُلْ إِصْلاَحٌ لَّهُمْ خَيْرٌ وَإِنْ تُخَالِطُوهُمْ فَإِخْوَانُكُمْ وَاللّهُ يَعْلَمُ الْمُفْسِدَ مِنَ الْمُصْلِحِ وَلَوْ شَاء اللّهُ لأعْنَتَكُمْ إِنَّ اللّهَ عَزِيزٌ حَكِيمٌ দুনিয়া ও আখেরাতের বিষয়ে। আর তোমার কাছে জিজ্ঞেস করে, এতীম সংক্রান্ত হুকুম। বলে দাও, তাদের কাজ-কর্ম সঠিকভাবে গুছিয়ে দেয়া উত্তম আর যদি তাদের ব্যয়ভার নিজের সাথে মিশিয়ে নাও, তাহলে মনে করবে তারা তোমাদের ভাই । বস্তুতঃ অমঙ্গলকামী ও মঙ্গলকামীদেরকে আল্লাহ জানেন। আল্লাহ যদি ইচ্ছা করতেন, তাহলে তোমাদের উপর জটিলতা আরোপ করতে পারতেন। নিশ্চয়ই তিনি পরাক্রমশালী, মহাপ্রজ্ঞ। (Their bearings) on this life and the Hereafter. They ask thee concerning orphans. Say: “The best thing to do is what is for their good; if ye mix their affairs with yours, they are your brethren; but Allah knows the man who means mischief from the man who means good. And if Allah had wished, He could have put you into difficulties: He is indeed Exalted in Power, Wise.”

( فِى সম্পর্কে Concerning, ٱلدُّنْيَا ইহকাল the world, وَٱلْءَاخِرَةِ ও পরকাল and the Hereafter, وَيَسْـَٔلُونَكَ এবং তোমাকে তারা প্রশ্ন করে They ask you, عَنِ (আচরণ) সম্পর্কে about, ٱلْيَتَٰمَىٰ ইয়াতীমদের (সাথে) the orphans, قُلْ তুমি বলো Say, إِصْلَاحٌ সুব্যবস্থা করা “Setting right (their affairs), لَّهُمْ তাদের জন্যে for them, خَيْرٌ উত্তম (is) best, وَإِن এবং যদি And if, تُخَالِطُوهُمْ তাদের সাথে (খরচ পত্রে) সংমিশ্রণ কর (দোষ নেই) you associate with them, فَإِخْوَٰنُكُمْ তারা তাহলে তোমাদের ভাই then they (are) your brothers, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, يَعْلَمُ জানেন knows, ٱلْمُفْسِدَ অনিষ্টকারীকে (পৃথক করতে) the corrupter, مِنَ হতে from, ٱلْمُصْلِحِ হিতকারী the amender, وَلَوْ এবং যদি And if, شَآءَ চাইতেন (had) willed, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, لَأَعْنَتَكُمْ তোমাদেরকে অবশ্যই কষ্টে ফেলতে পারতেন surely He (could have) put you in difficulties, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, عَزِيزٌ পরাক্রমশালী (is) All-Mighty, حَكِيمٌ মহাবিজ্ঞ All-Wise” )

 

(221)  وَلاَ تَنكِحُواْ الْمُشْرِكَاتِ حَتَّى يُؤْمِنَّ وَلأَمَةٌ مُّؤْمِنَةٌ خَيْرٌ مِّن مُّشْرِكَةٍ وَلَوْ أَعْجَبَتْكُمْ وَلاَ تُنكِحُواْ الْمُشِرِكِينَ حَتَّى يُؤْمِنُواْ وَلَعَبْدٌ مُّؤْمِنٌ خَيْرٌ مِّن مُّشْرِكٍ وَلَوْ أَعْجَبَكُمْ أُوْلَـئِكَ يَدْعُونَ إِلَى النَّارِ وَاللّهُ يَدْعُوَ إِلَى الْجَنَّةِ وَالْمَغْفِرَةِ بِإِذْنِهِ وَيُبَيِّنُ آيَاتِهِ لِلنَّاسِ لَعَلَّهُمْ يَتَذَكَّرُونَ আর তোমরা মুশরেক নারীদেরকে বিয়ে করোনা, যতক্ষণ না তারা ঈমান গ্রহণ করে। অবশ্য মুসলমান ক্রীতদাসী মুশরেক নারী অপেক্ষা উত্তম, যদিও তাদেরকে তোমাদের কাছে ভালো লাগে। এবং তোমরা (নারীরা) কোন মুশরেকের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ো না, যে পর্যন্ত সে ঈমান না আনে। একজন মুসলমান ক্রীতদাসও একজন মুশরেকের তুলনায় অনেক ভাল, যদিও তোমরা তাদের দেখে মোহিত হও। তারা দোযখের দিকে আহ্বান করে, আর আল্লাহ নিজের হুকুমের মাধ্যমে আহ্বান করেন জান্নাত ও ক্ষমার দিকে। আর তিনি মানুষকে নিজের নির্দেশ বাতলে দেন যাতে তারা উপদেশ গ্রহণ করে। Do not marry unbelieving women (idolaters), until they believe: A slave woman who believes is better than an unbelieving woman, even though she allures you. Nor marry (your girls) to unbelievers until they believe: A man slave who believes is better than an unbeliever, even though he allures you. Unbelievers do (but) beckon you to the Fire. But Allah beckons by His Grace to the Garden (of bliss) and forgiveness, and makes His Signs clear to mankind: That they may celebrate His praise.

( وَلَا এবং না And (do) not, تَنكِحُوا۟ তোমরা বিয়ে করো [you] marry, ٱلْمُشْرِكَٰتِ মুশরিক নারীদেরকে [the] polytheistic women, حَتَّىٰ যতক্ষণ না until, يُؤْمِنَّ ঈমান আনে they believe, وَلَأَمَةٌ এবং অবশ্যই ক্রীতদাসী And a bondwoman, مُّؤْمِنَةٌ মুমিন নারী (who is) believing, خَيْرٌ উত্তম (is) better, مِّن থেকে than, مُّشْرِكَةٍ মুশরিক নারী a polytheistic woman, وَلَوْ এবং যদিও [and] even if, أَعْجَبَتْكُمْ তোমাদের মুগ্ধ করে সে she pleases you, وَلَا এবং না And (do) not, تُنكِحُوا۟ তোমরা বিয়ে দিও (মুসলিম নারীকে) give in marriage (your women),  ٱلْمُشْرِكِينَ মুশরিক পুরুষদের (সাথে) (to) [the] polytheistic men, حَتَّىٰ যতক্ষণ না until, يُؤْمِنُوا۟ তারা ঈমান আনে they believe, وَلَعَبْدٌ এবং অবশ্যই ক্রীতদাস and a bondman, مُّؤْمِنٌ মু’মিন (who is) believing, خَيْرٌ উত্তম (is) better, مِّن অপেক্ষা than, مُّشْرِكٍ মুশরিক পুরুষ a polytheistic man, وَلَوْ এবং যদিও [and] even if, أَعْجَبَكُمْ তোমাদের মুগ্ধ করে সে he pleases you, أُو۟لَٰٓئِكَ ঐসব লোক [Those], يَدْعُونَ ডাকে (তোমাদেরকে) they invite, إِلَى দিকে to, ٱلنَّارِ (আগুনের) the Fire, وَٱللَّهُ আর আল্লাহ and Allah, يَدْعُوٓا۟ ডাকেন invites, إِلَى দিকে to, ٱلْجَنَّةِ জান্নাতের Paradise,  وَٱلْمَغْفِرَةِ ও ক্ষমার and [the] forgiveness, بِإِذْنِهِۦ তাঁর অনুমতিমাধ্যমে (ও অনুগ্রহে) by His permission, وَيُبَيِّنُ এবং স্পষ্ট বর্ণনা করেন And He makes clear, ءَايَٰتِهِۦ তাঁর নিদর্শনাবলী His Verses, لِلنَّاسِ মানুষের জন্য for the people, لَعَلَّهُمْ আশা করা যায় তারা so that they may, يَتَذَكَّرُونَ শিক্ষা গ্রহণ করবে take heed )

 

(222)  وَيَسْأَلُونَكَ عَنِ الْمَحِيضِ قُلْ هُوَ أَذًى فَاعْتَزِلُواْ النِّسَاء فِي الْمَحِيضِ وَلاَ تَقْرَبُوهُنَّ حَتَّىَ يَطْهُرْنَ فَإِذَا تَطَهَّرْنَ فَأْتُوهُنَّ مِنْ حَيْثُ أَمَرَكُمُ اللّهُ إِنَّ اللّهَ يُحِبُّ التَّوَّابِينَ وَيُحِبُّ الْمُتَطَهِّرِينَ আর তোমার কাছে জিজ্ঞেস করে হায়েয (ঋতু) সম্পর্কে। বলে দাও, এটা অশুচি। কাজেই তোমরা হায়েয অবস্থায় স্ত্রীগমন থেকে বিরত থাক। তখন পর্যন্ত তাদের নিকটবর্তী হবে না, যতক্ষণ না তারা পবিত্র হয়ে যায়। যখন উত্তম রূপে পরিশুদ্ধ হয়ে যাবে, তখন গমন কর তাদের কাছে, যেভাবে আল্লাহ তোমাদেরকে হুকুম দিয়েছেন। নিশ্চয়ই আল্লাহ তওবাকারী এবং অপবিত্রতা থেকে যারা বেঁচে থাকে তাদেরকে পছন্দ করেন। They ask thee concerning women’s courses. Say: They are a hurt and a pollution: So keep away from women in their courses, and do not approach them until they are clean. But when they have purified themselves, ye may approach them in any manner, time, or place ordained for you by Allah. For Allah loves those who turn to Him constantly and He loves those who keep themselves pure and clean.

( وَيَسْـَٔلُونَكَ এবং তোমাকে তারা প্রশ্ন করে And they ask you, عَنِ সম্পর্কে about, ٱلْمَحِيضِ (রজঃস্রাব) [the] menstruation, قُلْ তুমি বলো Say, هُوَ তা “It, أَذًى অশুচি/কষ্ট (is) a hurt, فَٱعْتَزِلُوا۟ তাই তোমরা দূরে থাক so keep away (from), ٱلنِّسَآءَ স্ত্রীদের (থেকে) [the] women, فِى (মধ্যে) during, ٱلْمَحِيضِ (রজঃস্রাব)কালে (their) [the] menstruation, وَلَا এবং না And (do) not, تَقْرَبُوهُنَّ তাদের নিকটে যেয়ো (স্ত্রী মিলনে) approach them, حَتَّىٰ যতক্ষণ না until, يَطْهُرْنَ তারা পবিত্র হয়(রজঃস্রাব বন্ধ হয়) they are cleansed, فَإِذَا অতঃপর যখন Then when, تَطَهَّرْنَ তারা পবিত্র হয়(উত্তমরূপে গোসল করে) they are purified, فَأْتُوهُنَّ তখন তাদের কাছে আসো then come to them, مِنْ (থেকে) from, حَيْثُ যেমন ভাবে where, أَمَرَكُمُ তোমাদেরকে নির্দেশ দিয়েছেন has ordered you, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah” إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, يُحِبُّ ভালবাসেন loves, ٱلتَّوَّٰبِينَ তওবাকারীদেরকে those who turn in repentance, وَيُحِبُّ ও ভালবাসেন and loves, ٱلْمُتَطَهِّرِينَ পবিত্রতা অবলম্বনকারীদের those who purify themselves )

 

(223) نِسَآؤُكُمْ حَرْثٌ لَّكُمْ فَأْتُواْ حَرْثَكُمْ أَنَّى شِئْتُمْ وَقَدِّمُواْ لأَنفُسِكُمْ وَاتَّقُواْ اللّهَ وَاعْلَمُواْ أَنَّكُم مُّلاَقُوهُ وَبَشِّرِ الْمُؤْمِنِينَ তোমাদের স্ত্রীরা হলো তোমাদের জন্য শস্য ক্ষেত্র। তোমরা যেভাবে ইচ্ছা তাদেরকে ব্যবহার কর। আর নিজেদের জন্য আগামী দিনের ব্যবস্থা কর এবং আল্লাহকে ভয় করতে থাক। আর নিশ্চিতভাবে জেনে রাখ যে, আল্লাহর সাথে তোমাদেরকে সাক্ষাত করতেই হবে। আর যারা ঈমান এনেছে তাদেরকে সুসংবাদ জানিয়ে দাও। Your wives are as a tilth unto you; so approach your tilth when or how ye will; but do some good act for your souls beforehand; and fear Allah. And know that ye are to meet Him (in the Hereafter), and give (these) good tidings to those who believe.

( نِسَآؤُكُمْ তোমাদের স্ত্রীরা Your wives, حَرْثٌ শস্যক্ষেত্র (are) a tilth, لَّكُمْ তোমাদের জন্য for you, فَأْتُوا۟ অতএব তোমরা যাও so come, حَرْثَكُمْ তোমাদের শস্যক্ষেত্রে (to) your tilth, أَنَّىٰ যেভাবে when, شِئْتُمْ তোমরা চাও you wish, وَقَدِّمُوا۟ এবং তোমরা আগে পাঠাও and send forth (good deeds), لِأَنفُسِكُمْ তোমাদের নিজেদের জন্যে for yourselves, وَٱتَّقُوا۟ এবং তোমরা ভয় করো And be conscious, ٱللَّهَ আল্লাহকে (of) Allah, وَٱعْلَمُوٓا۟ এবং জেনে রাখো তোমরা and know, أَنَّكُم তোমরা যে that you, مُّلَٰقُوهُ তাঁর সাক্ষাৎকারী (হবে) (will) meet Him, وَبَشِّرِ এবং সুসংবাদ দাও And give glad tidings, ٱلْمُؤْمِنِينَ মু’মিনদেরকে (to) the believers )

 

(224)  وَلاَ تَجْعَلُواْ اللّهَ عُرْضَةً لِّأَيْمَانِكُمْ أَن تَبَرُّواْ وَتَتَّقُواْ وَتُصْلِحُواْ بَيْنَ النَّاسِ وَاللّهُ سَمِيعٌ عَلِيمٌ আর নিজেদের শপথের জন্য আল্লাহর নামকে লক্ষ্যবস্তু বানিও না মানুষের সাথে কোন আচার আচরণ থেকে পরহেযগারী থেকে এবং মানুষের মাঝে মীমাংসা করে দেয়া থেকে বেঁচে থাকার উদ্দেশ্যে। আল্লাহ সবকিছুই শুনেন ও জানেন। And make not Allah.s (name) an excuse in your oaths against doing good, or acting rightly, or making peace between persons; for Allah is One Who heareth and knoweth all things.

( وَلَا এবং না And (do) not, تَجْعَلُوا۟ তোমরা ব্যবহার করো make, ٱللَّهَ আল্লাহর (নামকে) Allah.s (name), عُرْضَةً লক্ষ্যবস্তু হিসেবে an excuse, لِّأَيْمَٰنِكُمْ তোমাদের শপথের জন্য in your oaths, أَن যে (না) that, تَبَرُّوا۟ তোমরা সৎকাজ করবে you do good, وَتَتَّقُوا۟ ও (না) তোমরা আত্মসংযম করবে and be righteous, وَتُصْلِحُوا۟ ও (না) তোমরা শান্তি স্থাপন করবে and make peace, بَيْنَ মাঝে between, ٱلنَّاسِ মানুষের [the] people, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, سَمِيعٌ সবকিছু শুনেন (is) All-Hearing, عَلِيمٌ সবকিছু জানেন All-Knowing )

 

(225)  لاَّ يُؤَاخِذُكُمُ اللّهُ بِاللَّغْوِ فِيَ أَيْمَانِكُمْ وَلَكِن يُؤَاخِذُكُم بِمَا كَسَبَتْ قُلُوبُكُمْ وَاللّهُ غَفُورٌ حَلِيمٌ তোমাদের নিরর্থক শপথের জন্য আল্লাহ তোমাদেরকে ধরবেন না, কিন্তু সেসব কসমের ব্যাপারে ধরবেন, তোমাদের মন যার প্রতিজ্ঞা করেছে। আর আল্লাহ হচ্ছেন ক্ষমাকারী ধৈর্য্যশীল। Allah will not call you to account for thoughtlessness in your oaths, but for the intention in your hearts; and He is Oft-forgiving, Most Forbearing.

( لَّا না Not, يُؤَاخِذُكُمُ তোমাদেরকে ধরবেন will take you to task, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, بِٱللَّغْوِ অর্থহীন (শপথের) জন্য for (what is) unintentional, فِىٓ মধ্যে in, أَيْمَٰنِكُمْ তোমাদের শপথগুলোর your oaths, وَلَٰكِن কিন্তু [and] but, يُؤَاخِذُكُم তোমাদেরকে তিনি ধরবেন He takes you to task, بِمَا এ কারণে যা for what, كَسَبَتْ (অর্জন করেছে) (have) earned, قُلُوبُكُمْ তোমাদের অন্তরগুলো your hearts, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, غَفُورٌ বড় ক্ষমাশীল (is) Oft-Forgiving, حَلِيمٌ বড় সহনশীল Most Forbearing )

 

(226) لِّلَّذِينَ يُؤْلُونَ مِن نِّسَآئِهِمْ تَرَبُّصُ أَرْبَعَةِ أَشْهُرٍ فَإِنْ فَآؤُوا فَإِنَّ اللّهَ غَفُورٌ رَّحِيمٌ যারা নিজেদের স্ত্রীদের নিকট গমন করবেনা বলে কসম খেয়ে বসে তাদের জন্য চার মাসের অবকাশ রয়েছে অতঃপর যদি পারস্পরিক মিল-মিশ করে নেয়, তবে আল্লাহ ক্ষামাকারী দয়ালু। For those who take an oath for abstention from their wives, a waiting for four months is ordained; if then they return, Allah is Oft-forgiving, Most Merciful.

( لِّلَّذِينَ (তাদের) জন্য যারা For those who, يُؤْلُونَ (সম্পর্ক না রাখার)শপথ করে swear (off), مِن হতে from, نِّسَآئِهِمْ তাদের স্ত্রীদের their wives, تَرَبُّصُ অপেক্ষা করবে (is a) waiting (of), أَرْبَعَةِ চার four, أَشْهُرٍ মাস months, فَإِن অতঃপর যদি then if, فَآءُو তারা ফিরে আসে they return -, فَإِنَّ নিশ্চয়ই তবে then indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, غَفُورٌ ক্ষমাশীল (is) Oft- Forgiving, رَّحِيمٌ পরম দয়ালু Most Merciful )

 

(227)  وَإِنْ عَزَمُواْ الطَّلاَقَ فَإِنَّ اللّهَ سَمِيعٌ عَلِيمٌ আর যদি বর্জন করার সংকল্প করে নেয়, তাহলে নিশ্চয়ই আল্লাহ শ্রবণকারী ও জ্ঞানী। But if their intention is firm for divorce, Allah heareth and knoweth all things.

( وَإِنْ এবং যদি And if, عَزَمُوا۟ তারা সংকল্প করে they resolve, ٱلطَّلَٰقَ তালাকের (on) [the] divorce -, فَإِنَّ তবে নিশ্চয়ই then indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, سَمِيعٌ সবকিছু শুনেন (is) All-Hearing, عَلِيمٌ সবকিছু জানেন All-Knowing )

 

(228)  وَالْمُطَلَّقَاتُ يَتَرَبَّصْنَ بِأَنفُسِهِنَّ ثَلاَثَةَ قُرُوَءٍ وَلاَ يَحِلُّ لَهُنَّ أَن يَكْتُمْنَ مَا خَلَقَ اللّهُ فِي أَرْحَامِهِنَّ إِن كُنَّ يُؤْمِنَّ بِاللّهِ وَالْيَوْمِ الآخِرِ وَبُعُولَتُهُنَّ أَحَقُّ بِرَدِّهِنَّ فِي ذَلِكَ إِنْ أَرَادُواْ إِصْلاَحًا وَلَهُنَّ مِثْلُ الَّذِي عَلَيْهِنَّ بِالْمَعْرُوفِ وَلِلرِّجَالِ عَلَيْهِنَّ دَرَجَةٌ وَاللّهُ عَزِيزٌ حَكُيمٌ আর তালাকপ্রাপ্তা নারী নিজেকে অপেক্ষায় রাখবে তিন হায়েয পর্যন্ত। আর যদি সে আল্লাহর প্রতি এবং আখেরাত দিবসের উপর ঈমানদার হয়ে থাকে, তাহলে আল্লাহ যা তার জরায়ুতে সৃষ্টি করেছেন তা লুকিয়ে রাখা জায়েজ নয়। আর যদি সদ্ভাব রেখে চলতে চায়, তাহলে তাদেরকে ফিরিয়ে নেবার অধিকার তাদের স্বামীরা সংরক্ষণ করে। আর পুরুষদের যেমন স্ত্রীদের উপর অধিকার রয়েছে, তেমনি ভাবে স্ত্রীদেরও অধিকার রয়েছে পুরুষদের উপর নিয়ম অনুযায়ী। আর নারীরদের ওপর পুরুষদের শ্রেষ্ঠত্ব রয়েছে। আর আল্লাহ হচ্ছে পরাক্রমশালী, বিজ্ঞ। Divorced women shall wait concerning themselves for three monthly periods. Nor is it lawful for them to hide what Allah Hath created in their wombs if they have faith in Allah and the Last Day. And their husbands have the better right to take them back in that period if they wish for reconciliation. And women shall have rights similar to the rights against them, according to what is equitable; but men have a degree (of advantage) over them. And Allah is Exalted in Power, Wise.

( وَٱلْمُطَلَّقَٰتُ এবং তালাকপ্রাপ্তা স্ত্রীরা And the women who are divorced, يَتَرَبَّصْنَ অপেক্ষা করবে shall wait, بِأَنفُسِهِنَّ তাদের নিজেদের জন্যে concerning themselves, ثَلَٰثَةَ তিন (for) three, قُرُوٓءٍ রজঃস্রাবকাল (পর্যন্ত) monthly periods, وَلَا এবং না And (it is) not, يَحِلُّ বৈধ হবে lawful, لَهُنَّ তাদের জন্যে for them, أَن যে that, يَكْتُمْنَ তারা গোপন করবে they conceal, مَا যা what, خَلَقَ সৃষ্টি করেছেন (has been) created, ٱللَّهُ আল্লাহ (by) Allah, فِىٓ মধ্যে in, أَرْحَامِهِنَّ তাদের গর্ভাশয়ে their wombs, إِن যদি if, كُنَّ থাকে তারা they, يُؤْمِنَّ ঈমান এনে believe, بِٱللَّهِ আল্লাহর উপর in Allah, وَٱلْيَوْمِ ও দিনে and the Day, ٱلْءَاخِرِ আখেরাতের (উপর) [the] Last, وَبُعُولَتُهُنَّ এবং তাদের স্বামীরা And their husbands, أَحَقُّ বেশি অধিকারী (have) better right, بِرَدِّهِنَّ তাদেরকে ফিরিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে to take them back, فِى ক্ষেত্রে in, ذَٰلِكَ এই that (period), إِنْ যদি if, أَرَادُوٓا۟ তারা চায় they wish, إِصْلَٰحًا আপোষ নিষ্পত্তি (করতে) (for) reconciliation, وَلَهُنَّ এবং তাদের (অর্থাৎ স্ত্রীদের অধিকার আছে) And for them (wives), مِثْلُ যেমন (is the) like, ٱلَّذِى তার (অর্থাৎ স্বামীর) (of) that which, عَلَيْهِنَّ তাদের উপর (অধিকার আছে) (is) on them, بِٱلْمَعْرُوفِ ন্যায়সংগতভাবে in a reasonable manner, وَلِلرِّجَالِ এবং পুরুষদের জন্যে(আছে) and for the men, عَلَيْهِنَّ তাদের উপর over them (wives), دَرَجَةٌ একটি মর্যাদা আছে (is) a degree, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, عَزِيزٌ মহাপরাক্রমশালী (is) All-Mighty, حَكِيمٌ মহাবিজ্ঞ All-Wise )

 

(229) الطَّلاَقُ مَرَّتَانِ فَإِمْسَاكٌ بِمَعْرُوفٍ أَوْ تَسْرِيحٌ بِإِحْسَانٍ وَلاَ يَحِلُّ لَكُمْ أَن تَأْخُذُواْ مِمَّا آتَيْتُمُوهُنَّ شَيْئًا إِلاَّ أَن يَخَافَا أَلاَّ يُقِيمَا حُدُودَ اللّهِ فَإِنْ خِفْتُمْ أَلاَّ يُقِيمَا حُدُودَ اللّهِ فَلاَ جُنَاحَ عَلَيْهِمَا فِيمَا افْتَدَتْ بِهِ تِلْكَ حُدُودُ اللّهِ فَلاَ تَعْتَدُوهَا وَمَن يَتَعَدَّ حُدُودَ اللّهِ فَأُوْلَـئِكَ هُمُ الظَّالِمُونَ তালাকে-‘রাজঈ’ হ’ল দুবার পর্যন্ত তারপর হয় নিয়মানুযায়ী রাখবে, না হয় সহৃদয়তার সঙ্গে বর্জন করবে। আর নিজের দেয়া সম্পদ থেকে কিছু ফিরিয়ে নেয়া তোমাদের জন্য জায়েয নয় তাদের কাছ থেকে। কিন্তু যে ক্ষেত্রে স্বামী ও স্ত্রী উভয়েই এ ব্যাপারে ভয় করে যে, তারা আল্লাহর নির্দেশ বজায় রাখতে পারবে না, অতঃপর যদি তোমাদের ভয় হয় যে, তারা উভয়েই আল্লাহর নির্দেশ বজায় রাখতে পারবে না, তাহলে সেক্ষেত্রে স্ত্রী যদি বিনিময় দিয়ে অব্যাহতি নিয়ে নেয়, তবে উভয়ের মধ্যে কারোরই কোন পাপ নেই। এই হলো আল্লাহ কর্তৃক নির্ধারিত সীমা। কাজেই একে অতিক্রম করো না। বস্তুতঃ যারা আল্লাহ কর্তৃক নির্ধারিত সীমা লঙ্ঘন করবে, তারাই জালেম। A divorce is only permissible twice: after that, the parties should either hold Together on equitable terms, or separate with kindness. It is not lawful for you, (Men), to take back any of your gifts (from your wives), except when both parties fear that they would be unable to keep the limits ordained by Allah. If ye (judges) do indeed fear that they would be unable to keep the limits ordained by Allah, there is no blame on either of them if she give something for her freedom. These are the limits ordained by Allah. so do not transgress them if any do transgress the limits ordained by Allah, such persons wrong (Themselves as well as others).

( ٱلطَّلَٰقُ তালাক The divorce, مَرَّتَانِ দুইবার (is) twice, فَإِمْسَاكٌۢ অতঃপর রেখে দেওয়া Then to retain, بِمَعْرُوفٍ ন্যায়সংগত ভাবে in a reasonable manner, أَوْ অথবা or, تَسْرِيحٌۢ মুক্ত করে দেয়া to release (her), بِإِحْسَٰنٍ সদয়ভাবে (উত্তম) with kindness, وَلَا এবং না And (it is) not, يَحِلُّ বৈধ হবে lawful, لَكُمْ তোমাদের জন্যে for you, أَن যে that, تَأْخُذُوا۟ তোমরা গ্রহণ করবে you take (back), مِمَّآ তা থেকে যা whatever, ءَاتَيْتُمُوهُنَّ তোমরা দিয়েছ তাদেরকে you have given them (wives), شَيْـًٔا কোনো কিছুই anything, إِلَّآ এছাড়া except, أَن যদি if, يَخَافَآ দু’জনে ভয় করে both fear, أَلَّا না যে that not, يُقِيمَا দু’জনে রক্ষা করতে পারবে they both (can) keep, حُدُودَ সীমারেখাগুলো (the) limits, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, فَإِنْ যদি তাই But if, خِفْتُمْ তোমরা ভয় করো, you fear, أَلَّا যে না that not, يُقِيمَا দুজনে রক্ষা করতে পারবে they both (can) keep, حُدُودَ সীমারেখা গুলোকে (the) limits, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, فَلَا নেই তবে then (there is) no, جُنَاحَ কোনো পাপ sin, عَلَيْهِمَا তাদের দুজনের উপর on both of them, فِيمَا এরমধ্যে যা in what, ٱفْتَدَتْ সে নিষ্কৃতি চাইলে (স্ত্রী বিচ্ছেদ ঘটায়) she ransoms, بِهِۦ তার বিনিময়ে concerning it, تِلْكَ এটা These, حُدُودُ সীমারেখা (are the) limits, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, فَلَا অতএব না so (do) not, تَعْتَدُوهَا তা তোমরা লংঘন করো transgress them, وَمَن এবং যে And whoever, يَتَعَدَّ লংঘন করবে transgresses, حُدُودَ সীমারেখাগুলোকে (the) limits, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, فَأُو۟لَٰٓئِكَ ঐসব লোক তাহলে then those, هُمُ তারাই they, ٱلظَّٰلِمُونَ অত্যাচারী (হবে) (are) the wrongdoers )

 

(230) فَإِن طَلَّقَهَا فَلاَ تَحِلُّ لَهُ مِن بَعْدُ حَتَّىَ تَنكِحَ زَوْجًا غَيْرَهُ فَإِن طَلَّقَهَا فَلاَ جُنَاحَ عَلَيْهِمَا أَن يَتَرَاجَعَا إِن ظَنَّا أَن يُقِيمَا حُدُودَ اللّهِ وَتِلْكَ حُدُودُ اللّهِ يُبَيِّنُهَا لِقَوْمٍ يَعْلَمُونَ তারপর যদি সে স্ত্রীকে (তৃতীয়বার) তালাক দেয়া হয়, তবে সে স্ত্রী যে পর্যন্ত তাকে ছাড়া অপর কোন স্বামীর সাথে বিয়ে করে না নেবে, তার জন্য হালাল নয়। অতঃপর যদি দ্বিতীয় স্বামী তালাক দিয়ে দেয়, তাহলে তাদের উভয়ের জন্যই পরস্পরকে পুনরায় বিয়ে করাতে কোন পাপ নেই। যদি আল্লাহর হুকুম বজায় রাখার ইচ্ছা থাকে। আর এই হলো আল্লাহ কতৃêক নির্ধারিত সীমা; যারা উপলব্ধি করে তাদের জন্য এসব বর্ণনা করা হয়। So if a husband divorces his wife (irrevocably), He cannot, after that, re-marry her until after she has married another husband and He has divorced her. In that case there is no blame on either of them if they re-unite, provided they feel that they can keep the limits ordained by Allah. Such are the limits ordained by Allah, which He makes plain to those who understand.

( فَإِن অতঃপর যদি Then if, طَلَّقَهَا তাকে সে তালাক দেয় he divorces her (finally), فَلَا না তবে then (she is) not, تَحِلُّ (বৈধ) হবে lawful, لَهُۥ তার জন্য for him, مِنۢ থেকে from, بَعْدُ পরে (তালাকের) after (that), حَتَّىٰ যতক্ষণ না until, تَنكِحَ সে বিয়ে করবে she marries, زَوْجًا (অন্য) স্বামীকে a spouse, غَيْرَهُۥ সে ছাড়া other than him, فَإِن অতঃপর যদি Then if, طَلَّقَهَا সে তাকে তালাক দেয় he divorces her, فَلَا নেই তবে then no, جُنَاحَ পাপ sin, عَلَيْهِمَآ তাদের দুজনের উপর on them, أَن যে if, يَتَرَاجَعَآ পরস্পরে ফিরে আসবে they return to each other, إِن যদি if, ظَنَّآ দুজনেই মনে করে they believe, أَن যে that, يُقِيمَا তারা দুজনে রক্ষা করতে পারবে they (will be able to) keep, حُدُودَ সীমারেখা (the) limits, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, وَتِلْكَ এবং এটা And these, حُدُودُ সীমারেখা (are the) limits, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, يُبَيِّنُهَا তা স্পষ্ট বর্ণনা করেন তিনি He makes them clear, لِقَوْمٍ সম্প্রদায়ের জন্যে to a people, يَعْلَمُونَ (যারা) জানে who know )

 

(231) وَإِذَا طَلَّقْتُمُ النَّسَاء فَبَلَغْنَ أَجَلَهُنَّ فَأَمْسِكُوهُنَّ بِمَعْرُوفٍ أَوْ سَرِّحُوهُنَّ بِمَعْرُوفٍ وَلاَ تُمْسِكُوهُنَّ ضِرَارًا لَّتَعْتَدُواْ وَمَن يَفْعَلْ ذَلِكَ فَقَدْ ظَلَمَ نَفْسَهُ وَلاَ تَتَّخِذُوَاْ آيَاتِ اللّهِ هُزُوًا وَاذْكُرُواْ نِعْمَتَ اللّهِ عَلَيْكُمْ وَمَا أَنزَلَ عَلَيْكُمْ مِّنَ الْكِتَابِ وَالْحِكْمَةِ يَعِظُكُم بِهِ وَاتَّقُواْ اللّهَ وَاعْلَمُواْ أَنَّ اللّهَ بِكُلِّ شَيْءٍ عَلِيمٌ আর যখন তোমরা স্ত্রীদেরকে তালাক দিয়ে দাও, অতঃপর তারা নির্ধারিত ইদ্দত সমাপ্ত করে নেয়, তখন তোমরা নিয়ম অনুযায়ী তাদেরকে রেখে দাও অথবা সহানুভুতির সাথে তাদেরকে মুক্ত করে দাও। আর তোমরা তাদেরকে জ্বালাতন ও বাড়াবাড়ি করার উদ্দেশ্যে আটকে রেখো না। আর যারা এমন করবে, নিশ্চয়ই তারা নিজেদেরই ক্ষতি করবে। আর আল্লাহর নির্দেশকে হাস্যকর বিষয়ে পরিণত করো না। আল্লাহর সে অনুগ্রহের কথা স্মরণ কর, যা তোমাদের উপর রয়েছে এবং তাও স্মরণ কর, যে কিতাব ও জ্ঞানের কথা তোমাদের উপর নাযিল করা হয়েছে যার দ্বারা তোমাদেরকে উপদেশ দান করা হয়। আল্লাহকে ভয় কর এবং জেনে রাখ যে, আল্লাহ সর্ববিষয়েই জ্ঞানময়। When ye divorce women, and they fulfil the term of their (‘Iddat), either take them back on equitable terms or set them free on equitable terms; but do not take them back to injure them, (or) to take undue advantage; if any one does that; He wrongs his own soul. Do not treat Allah.s Signs as a jest, but solemnly rehearse Allah.s favours on you, and the fact that He sent down to you the Book and Wisdom, for your instruction. And fear Allah, and know that Allah is well acquainted with all things.

( وَإِذَا এবং যখন And when, طَلَّقْتُمُ তোমরা তালাক দাও you divorce, ٱلنِّسَآءَ স্ত্রীদেরকে the women, فَبَلَغْنَ তারা অতঃপর পৌঁছে and they reach, أَجَلَهُنَّ তাদের মেয়াদে their (waiting) term, فَأَمْسِكُوهُنَّ তাদেরকে রেখে দাও তখন then retain them, بِمَعْرُوفٍ ন্যায়সঙ্গতভাবে in a fair manner, أَوْ অথবা or, سَرِّحُوهُنَّ তাদের মুক্ত করে দাও release them, بِمَعْرُوفٍ ন্যায় সংগতভাবে in a fair manner, وَلَا এবং না And (do) not, تُمْسِكُوهُنَّ তাদেরকে তোমরা আটকে রেখো retain them, ضِرَارًا ক্ষতির (উদ্দেশ্যে) (to) hurt, لِّتَعْتَدُوا۟ বাড়াবাড়ি করার জন্যে so that you transgress, وَمَن এবং যে কেউ And whoever, يَفْعَلْ করবে does, ذَٰلِكَ এটা that, فَقَدْ তাহলে নিশ্চয়ই then indeed, ظَلَمَ অবিচার করবে he wronged, نَفْسَهُۥ তারা নিজের (উপর) himself, وَلَا এবং না And (do) not, تَتَّخِذُوٓا۟ তোমরা গ্রহণ করো take, ءَايَٰتِ নিদর্শনাবলীকে (the) Verses, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, هُزُوًا ঠাট্টাতামাশার বস্তু হিসেবে হিসেবে (in) jest, وَٱذْكُرُوا۟ এবং তোমরা স্মরণ করো and remember, نِعْمَتَ অনুগ্রহকে (the) Favors, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, عَلَيْكُمْ তোমাদের উপর upon you, وَمَآ এবং যা and what, أَنزَلَ অবতীর্ণ করেছেন (is) revealed, عَلَيْكُم তোমাদের উপর to you, مِّنَ থেকে of, ٱلْكِتَٰبِ কিতাব the Book, وَٱلْحِكْمَةِ ও প্রজ্ঞা and the wisdom, يَعِظُكُم তোমাদেরকে তিনি উপদেশ দিচ্ছেন He instructs you, بِهِۦ তা দিয়ে with it, وَٱتَّقُوا۟ এবং তোমরা ভয় করো And fear, ٱللَّهَ আল্লাহকে Allah, وَٱعْلَمُوٓا۟ এবং তোমরা জেনে রাখো and know, أَنَّ যে that, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah (is), بِكُلِّ সব সম্পর্কে of every, شَىْءٍ কিছুর thing, عَلِيمٌ খুব অবহিত All-Knower )

 

(232) وَإِذَا طَلَّقْتُمُ النِّسَاء فَبَلَغْنَ أَجَلَهُنَّ فَلاَ تَعْضُلُوهُنَّ أَن يَنكِحْنَ أَزْوَاجَهُنَّ إِذَا تَرَاضَوْاْ بَيْنَهُم بِالْمَعْرُوفِ ذَلِكَ يُوعَظُ بِهِ مَن كَانَ مِنكُمْ يُؤْمِنُ بِاللّهِ وَالْيَوْمِ الآخِرِ ذَلِكُمْ أَزْكَى لَكُمْ وَأَطْهَرُ وَاللّهُ يَعْلَمُ وَأَنتُمْ لاَ تَعْلَمُونَ আর যখন তোমরা স্ত্রীদেরকে তালাক দিয়ে দাও এবং তারপর তারাও নির্ধারিত ইদ্দত পূর্ন করতে থাকে, তখন তাদেরকে পূর্ব স্বামীদের সাথে পারস্পরিক সম্মতির ভিত্তিতে নিয়মানুযায়ী বিয়ে করতে বাধাদান করো না। এ উপদেশ তাকেই দেয়া হচ্ছে, যে আল্লাহ ও কেয়ামত দিনের উপর বিশ্বাস স্থাপন করেছে। এর মধ্যে তোমাদের জন্য রয়েছে একান্ত পরিশুদ্ধতা ও অনেক পবিত্রতা। আর আল্লাহ জানেন, তোমরা জান না। When ye divorce women, and they fulfil the term of their (‘Iddat), do not prevent them from marrying their (former) husbands, if they mutually agree on equitable terms. This instruction is for all amongst you, who believe in Allah and the Last Day. That is (the course Making for) most virtue and purity amongst you and Allah knows, and ye know not.

( وَإِذَا এবং যখন And when, طَلَّقْتُمُ তালাক দাও তোমরা you divorce, ٱلنِّسَآءَ স্ত্রীদেরকে [the] women, فَبَلَغْنَ অতঃপর তারা পৌঁছে যায় and they reached, أَجَلَهُنَّ তাদের মেয়াদে their (waiting) term, فَلَا না তখন then (do) not, تَعْضُلُوهُنَّ তাদেরকে বাধা দিয়ো hinder them, أَن যে [that], يَنكِحْنَ তারা বিয়ে করতে চায় (from) marrying, أَزْوَٰجَهُنَّ তাদের (পূর্বের) স্বামীকে their husbands, إِذَا যখন when, تَرَٰضَوْا۟ তারা পরস্পর সম্মত হয় they agree, بَيْنَهُم তাদের মাঝে between themselves, بِٱلْمَعْرُوفِ ন্যায় সংগত উপায়ে in a fair manner, ذَٰلِكَ এটা That, يُوعَظُ উপদেশ দেয়া হচ্ছে is admonished, بِهِۦ তার প্রতি with it, مَن (তার জন্যে) যে কেউ whoever, كَانَ হয় [is], مِنكُمْ তোমাদের মধ্যথেকে among you, يُؤْمِنُ ঈমান এনে থাকে believes, بِٱللَّهِ আল্লাহর উপর in Allah, وَٱلْيَوْمِ ও দিনের and the Day, ٱلْءَاخِرِ আখেরাতের [the] Last, ذَٰلِكُمْ এটা that, أَزْكَىٰ শুদ্ধতম পন্থা (is) more virtuous, لَكُمْ তোমাদের জন্যে for you, وَأَطْهَرُ ও পবিত্রতম and more purer, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, يَعْلَمُ জানেন knows, وَأَنتُمْ আর তোমরা and you, لَا না (do) not, تَعْلَمُونَ জান know )

 

(233) وَالْوَالِدَاتُ يُرْضِعْنَ أَوْلاَدَهُنَّ حَوْلَيْنِ كَامِلَيْنِ لِمَنْ أَرَادَ أَن يُتِمَّ الرَّضَاعَةَ وَعلَى الْمَوْلُودِ لَهُ رِزْقُهُنَّ وَكِسْوَتُهُنَّ بِالْمَعْرُوفِ لاَ تُكَلَّفُ نَفْسٌ إِلاَّ وُسْعَهَا لاَ تُضَآرَّ وَالِدَةٌ بِوَلَدِهَا وَلاَ مَوْلُودٌ لَّهُ بِوَلَدِهِ وَعَلَى الْوَارِثِ مِثْلُ ذَلِكَ فَإِنْ أَرَادَا فِصَالاً عَن تَرَاضٍ مِّنْهُمَا وَتَشَاوُرٍ فَلاَ جُنَاحَ عَلَيْهِمَا وَإِنْ أَرَدتُّمْ أَن تَسْتَرْضِعُواْ أَوْلاَدَكُمْ فَلاَ جُنَاحَ عَلَيْكُمْ إِذَا سَلَّمْتُم مَّآ آتَيْتُم بِالْمَعْرُوفِ وَاتَّقُواْ اللّهَ وَاعْلَمُواْ أَنَّ اللّهَ بِمَا تَعْمَلُونَ بَصِيرٌ আর সন্তানবতী নারীরা তাদের সন্তানদেরকে পূর্ন দু’বছর দুধ খাওয়াবে, যদি দুধ খাওয়াবার পূর্ণ মেয়াদ সমাপ্ত করতে চায়। আর সন্তানের অধিকারী অর্থাৎ, পিতার উপর হলো সে সমস্ত নারীর খোর-পোষের দায়িত্ব প্রচলিত নিয়ম অনুযায়ী। কাউকে তার সামর্থাতিরিক্ত চাপের সম্মুখীন করা হয় না। আর মাকে তার সন্তানের জন্য ক্ষতিগ্রস্ত করা যাবে না। এবং যার সন্তান তাকেও তার সন্তানের কারণে ক্ষতির সম্মুখীন করা যাবে না। আর ওয়ারিসদের উপরও দায়িত্ব এই। তারপর যদি পিতা-মাতা ইচ্ছা করে, তাহলে দু’বছরের ভিতরেই নিজেদের পারস্পরিক পরামর্শক্রমে দুধ ছাড়িয়ে দিতে পারে, তাতে তাদের কোন পাপ নেই, আর যদি তোমরা কোন ধাত্রীর দ্বারা নিজের সন্তানদেরকে দুধ খাওয়াতে চাও, তাহলে যদি তোমরা সাব্যস্তকৃত প্রচলিত বিনিময় দিয়ে দাও তাতেও কোন পাপ নেই। আর আল্লাহকে ভয় কর এবং জেনে রেখো যে, আল্লাহ তোমাদের যাবতীয় কাজ অত্যন্ত ভাল করেই দেখেন। The mothers shall give such to their offspring for two whole years, if the father desires to complete the term. But he shall bear the cost of their food and clothing on equitable terms. No soul shall have a burden laid on it greater than it can bear. No mother shall be Treated unfairly on account of her child. Nor father on account of his child, an heir shall be chargeable in the same way. If they both decide on weaning, by mutual consent, and after due consultation, there is no blame on them. If ye decide on a foster-mother for your offspring, there is no blame on you, provided ye pay (the mother) what ye offered, on equitable terms. But fear Allah and know that Allah sees well what ye do.

( وَٱلْوَٰلِدَٰتُ এবং মায়েরা And the mothers, يُرْضِعْنَ স্তন্য পান করাবে shall suckle, أَوْلَٰدَهُنَّ তাদের সন্তানদের their children, حَوْلَيْنِ দু’বছর (for) two years, كَامِلَيْنِ পূর্ণ complete, لِمَنْ তার জন্য যে (বাপ) for whoever, أَرَادَ চায় wishes, أَن যে to, يُتِمَّ পূর্ণ করবে complete, ٱلرَّضَاعَةَ স্তন্যপান করানোর সময় the suckling, وَعَلَى এবং (দায়িত্ব তার) উপর And upon, ٱلْمَوْلُودِ যার নবজাতক the father, لَهُۥ জন্য (on) him, رِزْقُهُنَّ তাদের (অর্থাৎ মাদের) জীবিকা (is) their provision, وَكِسْوَتُهُنَّ ও তাদের পোশাকের and their clothing, بِٱلْمَعْرُوفِ ন্যায় সংগত উপায়ে in a fair manner, لَا না Not, تُكَلَّفُ দায়িত্বভার দেওয়া হবে is burdened, نَفْسٌ কাউকে any soul, إِلَّا এছাড়া except, وُسْعَهَا তার সামর্থ্য its capacity, لَا না Not, تُضَآرَّ ক্ষতিগ্রস্ত করা হবে made to suffer, وَٰلِدَةٌۢ মাকে (the) mother, بِوَلَدِهَا তার সন্তানের কারণে because of her child, وَلَا আর না and not, مَوْلُودٌ যার নবজাতক (অর্থাৎ বাপকে) (the) father, لَّهُۥ জন্য (be), بِوَلَدِهِۦ তার সন্তানের কারণে because of his child, وَعَلَى এবং উপর And on, ٱلْوَارِثِ উত্তরাধিকারীর the heirs, مِثْلُ অনুরূপ (is a duty) like, ذَٰلِكَ এটা (অধিকার) that, فَإِنْ অতঃপর যদি Then if, أَرَادَا উভয়ে চায় they both desire, فِصَالًا দুধ ছাড়াতে weaning, عَن মাধ্যমে through, تَرَاضٍ পরস্পর সম্মতির mutual consent, مِّنْهُمَا উভয় পক্ষের of both of them, وَتَشَاوُرٍ ও পরামর্শের ভিত্তিতে and consultation, فَلَا নেই তবে then no, جُنَاحَ কোনো পাপ blame, عَلَيْهِمَا তাদের উভয়ের উপর on both of them, وَإِنْ এবং যদি And if, أَرَدتُّمْ তোমরা চাও you want, أَن যে to, تَسْتَرْضِعُوٓا۟ তোমরা দুধপান করাবে (কোনো ধাত্রী দিয়ে) ask another women to suckle, أَوْلَٰدَكُمْ তোমাদের সন্তানদের your child, فَلَا নেই তবে then (there is) no, جُنَاحَ কোনো পাপ blame, عَلَيْكُمْ তোমাদের উপর on you, إِذَا যখন when, سَلَّمْتُم তোমরা অর্পন কর you pay, مَّآ যা what, ءَاتَيْتُم তোমরা দিতে চেয়েছিলে (is) due (from) you, بِٱلْمَعْرُوفِ সংগত ভাবে in a fair manner, وَٱتَّقُوا۟এবং তোমরা ভয় করো And fear, ٱللَّهَ আল্লাহকে Allah, وَٱعْلَمُوٓا۟ এবং তোমরা জেনে রাখো and know, أَنَّ যে that, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, بِمَا ঐ বিষয় যা of what, تَعْمَلُونَ তোমরা কাজ করছ you do, بَصِيرٌ সবকিছু দেখেন (is) All-Seer )

 

(234) وَالَّذِينَ يُتَوَفَّوْنَ مِنكُمْ وَيَذَرُونَ أَزْوَاجًا يَتَرَبَّصْنَ بِأَنفُسِهِنَّ أَرْبَعَةَ أَشْهُرٍ وَعَشْرًا فَإِذَا بَلَغْنَ أَجَلَهُنَّ فَلاَ جُنَاحَ عَلَيْكُمْ فِيمَا فَعَلْنَ فِي أَنفُسِهِنَّ بِالْمَعْرُوفِ وَاللّهُ بِمَا تَعْمَلُونَ خَبِيرٌ আর তোমাদের মধ্যে যারা মৃত্যুবরণ করবে এবং নিজেদের স্ত্রীদেরকে ছেড়ে যাবে, তখন সে স্ত্রীদের কর্তব্য হলো নিজেকে চার মাস দশ দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করিয়ে রাখা। তারপর যখন ইদ্দত পূর্ণ করে নেবে, তখন নিজের ব্যাপারে নীতি সঙ্গত ব্যবস্থা নিলে কোন পাপ নেই। আর তোমাদের যাবতীয় কাজের ব্যাপারেই আল্লাহর অবগতি রয়েছে। If any of you die and leave widows behind, they shall wait concerning themselves four months and ten days: When they have fulfilled their term, there is no blame on you if they dispose of themselves in a just and reasonable manner. And Allah is well acquainted with what ye do.

( وَٱلَّذِينَ এবং যারা And those who, يُتَوَفَّوْنَ মারা যায় pass away, مِنكُمْ তোমাদের মধ্যেথেকে among you, وَيَذَرُونَ এবং তারা রেখে যায় and leave behind, أَزْوَٰجًا স্ত্রীদেরকে wives, يَتَرَبَّصْنَ তারা অপেক্ষায় রাখবে (অর্থাৎ স্ত্রীরা) (the widows) should wait, بِأَنفُسِهِنَّ তাদের নিজেদেরকে for themselves, أَرْبَعَةَ চার (for) four, أَشْهُرٍ মাস months, وَعَشْرًا ও দশ (দিন পর্যন্ত) and ten (days), فَإِذَا অতঃপর যখন Then when, بَلَغْنَ তারা পৌঁছে they reach, أَجَلَهُنَّ তাদের মেয়াদে their (specified) term, فَلَا নেই তখন then (there is) no, جُنَاحَ কোনো পাপ blame, عَلَيْكُمْ তোমাদের উপর upon you, فِيمَا সেক্ষেত্রে যা for what, فَعَلْنَ তারা করে they do, فِىٓ সম্পর্কে concerning, أَنفُسِهِنَّ তাদের নিজেদের themselves, بِٱلْمَعْرُوفِ ন্যায়সংগত ভাবে in a fair manner, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, بِمَا ঐ বিষয়ে যা of what, تَعْمَلُونَ তোমরা কাজ কর you do, خَبِيرٌ সবিশেষ অবহিত (is) All-Aware )

 

(235) وَلاَ جُنَاحَ عَلَيْكُمْ فِيمَا عَرَّضْتُم بِهِ مِنْ خِطْبَةِ النِّسَاء أَوْ أَكْنَنتُمْ فِي أَنفُسِكُمْ عَلِمَ اللّهُ أَنَّكُمْ سَتَذْكُرُونَهُنَّ وَلَـكِن لاَّ تُوَاعِدُوهُنَّ سِرًّا إِلاَّ أَن تَقُولُواْ قَوْلاً مَّعْرُوفًا وَلاَ تَعْزِمُواْ عُقْدَةَ النِّكَاحِ حَتَّىَ يَبْلُغَ الْكِتَابُ أَجَلَهُ وَاعْلَمُواْ أَنَّ اللّهَ يَعْلَمُ مَا فِي أَنفُسِكُمْ فَاحْذَرُوهُ وَاعْلَمُواْ أَنَّ اللّهَ غَفُورٌ حَلِيمٌ  আর যদি তোমরা আকার ইঙ্গিতে সে নারীর বিয়ের পয়গাম দাও, কিংবা নিজেদের মনে গোপন রাখ, তবে তাতেও তোমাদের কোন পাপ নেই, আল্লাহ জানেন যে, তোমরা অবশ্যই সে নারীদের কথা উল্লেখ করবে। কিন্তু তাদের সাথে বিয়ে করার গোপন প্রতিশ্রুতি দিয়ে রেখো না। অবশ্য শরীয়তের নির্ধারিত প্রথা অনুযায়ী কোন কথা সাব্যস্ত করে নেবে। আর নির্ধারিত ইদ্দত সমাপ্তি পর্যায়ে না যাওয়া অবধি বিয়ে করার কোন ইচ্ছা করো না। আর একথা জেনে রেখো যে, তোমাদের মনে যে কথা রয়েছে, আল্লাহর তা জানা আছে। কাজেই তাঁকে ভয় করতে থাক। আর জেনে রেখো যে, আল্লাহ ক্ষমাকারী ও ধৈর্য্যশীল। There is no blame on you if ye make an offer of betrothal or hold it in your hearts. Allah knows that ye cherish them in your hearts: But do not make a secret contract with them except in terms Honourable, nor resolve on the tie of marriage till the term prescribed is fulfilled. And know that Allah Knoweth what is in your hearts, and take heed of Him; and know that Allah is Oft-forgiving, Most Forbearing.

( وَلَا এবং নেই And (there is) no, جُنَاحَ কোনো পাপ blame, عَلَيْكُمْ তোমাদের উপর upon you, فِيمَا সেক্ষেত্রে যা in what, عَرَّضْتُم তোমরা আভাস-ইঙ্গিতে প্রকাশ কর you hint, بِهِۦ তা [with it], مِنْ বিষয়টি of, خِطْبَةِ বিয়ের প্রস্তাবের marriage proposal, ٱلنِّسَآءِ (বিধবা) নারীদের [to] the women, أَوْ বা or, أَكْنَنتُمْ তোমরা গোপন কর you concealed it, فِىٓ মধ্যে in, أَنفُسِكُمْ তোমাদের মনের yourselves, عَلِمَ জানেন Knows, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, أَنَّكُمْ তোমরা যে that you, سَتَذْكُرُونَهُنَّ তাদেরকে আলোচনা করবে তোমরা will mention them, وَلَٰكِن কিন্তু [and] but, لَّا না (do) not, تُوَاعِدُوهُنَّ তাদেরকে অঙ্গীকার করবে তোমরা promise them (widows), سِرًّا গোপনে secretly, إِلَّآ এছাড়া except, أَن যে that, تَقُولُوا۟ তোমরা বলবে you say, قَوْلًا কথা a saying, مَّعْرُوفًا বিধি মতো honorable, وَلَا এবং না And (do) not, تَعْزِمُوا۟ তোমরা সংকল্প করো resolve (on), عُقْدَةَ বন্ধনের the knot, ٱلنِّكَاحِ বিয়ের (of) marriage, حَتَّىٰ যতক্ষণ না until, يَبْلُغَ পৌঁছে reaches, ٱلْكِتَٰبُ বিধান (অর্থাৎ ইদ্দত) the prescribed term, أَجَلَهُۥ তার নির্দিষ্ট সময়ে its end, وَٱعْلَمُوٓا۟ এবং তোমরা জেনে রেখো And know, أَنَّ যে that, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, يَعْلَمُ জানেন knows, مَا যা (আছে) what, فِىٓ মধ্যে (is) within, أَنفُسِكُمْ তোমাদের মনের yourselves, فَٱحْذَرُوهُ অতএব তাকে তোমরা ভয় করো so beware of Him, وَٱعْلَمُوٓا۟ এবং তোমরা জেনে রেখো And know, أَنَّ যে that, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, غَفُورٌ ক্ষমাশীল (is) Oft-Forgiving, حَلِيمٌ বড় সহনশীল Most Forbearing )

 

(236) لاَّ جُنَاحَ عَلَيْكُمْ إِن طَلَّقْتُمُ النِّسَاء مَا لَمْ تَمَسُّوهُنُّ أَوْ تَفْرِضُواْ لَهُنَّ فَرِيضَةً وَمَتِّعُوهُنَّ عَلَى الْمُوسِعِ قَدَرُهُ وَعَلَى الْمُقْتِرِ قَدْرُهُ مَتَاعًا بِالْمَعْرُوفِ حَقًّا عَلَى الْمُحْسِنِينَ স্ত্রীদেরকে স্পর্শ করার আগে এবং কোন মোহর সাব্যস্ত করার পূর্বেও যদি তালাক দিয়ে দাও, তবে তাতেও তোমাদের কোন পাপ নেই। তবে তাদেরকে কিছু খরচ দেবে। আর সামর্থ্যবানদের জন্য তাদের সামর্থ্য অনুযায়ী এবং কম সামর্থ্যবানদের জন্য তাদের সাধ্য অনুযায়ী। যে খরচ প্রচলিত রয়েছে তা সৎকর্মশীলদের উপর দায়িত্ব। There is no blame on you if ye divorce women before consummation or the fixation of their dower; but bestow on them (A suitable gift), the wealthy according to his means, and the poor according to his means;- A gift of a reasonable amount is due from those who wish to do the right thing.

( لَّا নেই (There is) no, جُنَاحَ কোনো পাপ blame, عَلَيْكُمْ তোমাদের উপর upon you, إِن যদি if, طَلَّقْتُمُ তোমরা তালাক দাও you divorce, ٱلنِّسَآءَ স্ত্রীদেরকে [the] women, مَا যে পর্যন্ত whom, لَمْ না not, تَمَسُّوهُنَّ তাদেরকে স্পর্শ কর you have touched, أَوْ অথবা nor, تَفْرِضُوا۟ তোমরা ধার্য কর (নাই) you specified, لَهُنَّ তাদের জন্য for them, فَرِيضَةً কোনো মোহর an obligation (dower), وَمَتِّعُوهُنَّ এবং তাদেরকে কিছু খরচপত্র দাও And make provision for them, عَلَى উপর upon, ٱلْمُوسِعِ সংগতিসম্পন্ন ব্যক্তি the wealthy, قَدَرُهُۥ তার সাধ্যমত according to his means, وَعَلَى ও উপর and upon, ٱلْمُقْتِرِ বিত্তহীনের the poor, قَدَرُهُۥ তার সাধ্যমত according to his means, مَتَٰعًۢا খরচপত্র দেবে a provision, بِٱلْمَعْرُوفِ ন্যায়সংগত ভাবে in a fair manner, حَقًّا কর্তব্য a duty, عَلَى উপর upon, ٱلْمُحْسِنِينَ সৎকর্মশীল লোকদের the good-doers )

 

(237) وَإِن طَلَّقْتُمُوهُنَّ مِن قَبْلِ أَن تَمَسُّوهُنَّ وَقَدْ فَرَضْتُمْ لَهُنَّ فَرِيضَةً فَنِصْفُ مَا فَرَضْتُمْ إَلاَّ أَن يَعْفُونَ أَوْ يَعْفُوَ الَّذِي بِيَدِهِ عُقْدَةُ النِّكَاحِ وَأَن تَعْفُواْ أَقْرَبُ لِلتَّقْوَى وَلاَ تَنسَوُاْ الْفَضْلَ بَيْنَكُمْ إِنَّ اللّهَ بِمَا تَعْمَلُونَ بَصِيرٌ আর যদি মোহর সাব্যস্ত করার পর স্পর্শ করার পূর্বে তালাক দিয়ে দাও, তাহলে যে, মোহর সাব্যস্ত করা হয়েছে তার অর্ধেক দিয়ে দিতে হবে। অবশ্য যদি নারীরা ক্ষমা করে দেয় কিংবা বিয়ের বন্ধন যার অধিকারে সে (অর্থাৎ, স্বামী) যদি ক্ষমা করে দেয় তবে তা স্বতন্ত্র কথা। আর তোমরা পুরুষরা যদি ক্ষমা কর, তবে তা হবে পরহেযগারীর নিকটবর্তী। আর পারস্পরিক সহানুভূতির কথা বিস্মৃত হয়ো না। নিশ্চয় তোমরা যা কিছু কর আল্লাহ সেসবই অত্যন্ত ভাল করে দেখেন। And if ye divorce them before consummation, but after the fixation of a dower for them, then the half of the dower (Is due to them), unless they remit it or (the man’s half) is remitted by him in whose hands is the marriage tie; and the remission (of the man’s half) is the nearest to righteousness. And do not forget Liberality between yourselves. For Allah sees well all that ye do.

( وَإِن এবং যদি And if, طَلَّقْتُمُوهُنَّ তাদেরকে তোমরা তালাক দিয়ে দাও you divorce them, مِن থেকে from, قَبْلِ এর পূর্বেই before, أَن যে [that], تَمَسُّوهُنَّ তাদেরকে স্পর্শ করবে you (have) touched them, وَقَدْ অথচ নিশ্চয়ই while already, فَرَضْتُمْ তোমরা ধার্য করেছ you have specified, لَهُنَّ তাদের জন্য for them, فَرِيضَةً মোহর an obligation (dower), فَنِصْفُ অর্ধেক তবে then (give) half, مَا যা (of) what, فَرَضْتُمْ তোমরা ধার্য করেছ (মোহর) you have specified, إِلَّآ কিন্তু unless, أَن যে ছাড়া (স্ত্রীরা) [that], يَعْفُونَ তারা ক্ষমা প্রকাশ করে (না নেয়) they (women) forgo (it), أَوْ অথবা or, يَعْفُوَا۟ সে ক্ষমা করে (পূর্ণ দেয়) forgoes, ٱلَّذِى যে (পুরুষ) the one, بِيَدِهِۦ যার হাতের মধ্যে (রয়েছে) in whose hands, عُقْدَةُ বন্ধন (is the) knot, ٱلنِّكَاحِ বিয়ের (তা স্বতন্ত্র কথা) (of) the marriage, وَأَن এবং (এও) যে And that, تَعْفُوٓا۟ তোমরা ক্ষমা করবে you forgo,  أَقْرَبُ (তা) নিকটতর (is) nearer, لِلتَّقْوَىٰ তাকওয়ার ক্ষেত্রে to [the] righteousness, وَلَا এবং না And (do) not, تَنسَوُا۟ তোমরা ভুলে যেয়ো forget, ٱلْفَضْلَ সহৃদয়তা the graciousness, بَيْنَكُمْ তোমাদের মাঝে among you, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, بِمَا ঐ বিষয় যা of what, تَعْمَلُونَ তোমরা কাজ কর you do, بَصِيرٌ খুব দেখেন (is) All-Seer )

 

(238) حَافِظُواْ عَلَى الصَّلَوَاتِ والصَّلاَةِ الْوُسْطَى وَقُومُواْ لِلّهِ قَانِتِينَ সমস্ত নামাযের প্রতি যত্নবান হও, বিশেষ করে মধ্যবর্তী নামাযের ব্যাপারে। আর আল্লাহর সামনে একান্ত আদবের সাথে দাঁড়াও। Guard strictly your (habit of) prayers, especially the Middle Prayer; and stand before Allah in a devout (frame of mind).

( حَٰفِظُوا۟ তোমরা সংরক্ষণ করো Guard strictly, عَلَى প্রতি [on], ٱلصَّلَوَٰتِ সব সালাত গুলোর the prayers, وَٱلصَّلَوٰةِ এবং (বিশেষ করে) সালাত and the prayer -, ٱلْوُسْطَىٰ মধ্যবর্তী (অর্থাৎ আছরের) [the] middle, وَقُومُوا۟ এবং তোমরা দাঁড়িয়ে যাও and stand up, لِلَّهِ আল্লাহর জন্য for Allah, قَٰنِتِينَ একান্ত বিনীত ভাবে devoutly obedient )

 

(239) فَإنْ خِفْتُمْ فَرِجَالاً أَوْ رُكْبَانًا فَإِذَا أَمِنتُمْ فَاذْكُرُواْ اللّهَ كَمَا عَلَّمَكُم مَّا لَمْ تَكُونُواْ تَعْلَمُونَ অতঃপর যদি তোমাদের কারো ব্যাপারে ভয় থাকে, তাহলে পদচারী অবস্থাতেই পড়ে নাও অথবা সওয়ারীর উপরে। তারপর যখন তোমরা নিরাপত্তা পাবে, তখন আল্লাহকে স্মরণ কর, যেভাবে তোমাদের শেখানো হয়েছে, যা তোমরা ইতিপূর্বে জানতে না। If ye fear (an enemy), pray on foot, or riding, (as may be most convenient), but when ye are in security, celebrate Allah.s praises in the manner He has taught you, which ye knew not (before).

( فَإِنْ অতঃপর যদি And if, خِفْتُمْ তোমরা ভয় করো you fear, فَرِجَالًا তবে হেঁটে চলা অবস্থায় then (pray) on foot, أَوْ বা or, رُكْبَانًا আরোহী অবস্থায় (সালাত পড়বে) riding, فَإِذَآ অতঃপর যখন Then when, أَمِنتُمْ তোমরা নিরাপদ হও you are secure, فَٱذْكُرُوا۟ স্মরণ করো তখন then remember, ٱللَّهَ আল্লাহকে Allah, كَمَا যেমন as, عَلَّمَكُم তোমাদের তিনি শিখিয়েছেন He (has) taught you, مَّا যা what, لَمْ না not, تَكُونُوا۟ তোমরা হও you were, تَعْلَمُونَ তোমরা জানতে knowing )

 

(240) وَالَّذِينَ يُتَوَفَّوْنَ مِنكُمْ وَيَذَرُونَ أَزْوَاجًا وَصِيَّةً لِّأَزْوَاجِهِم مَّتَاعًا إِلَى الْحَوْلِ غَيْرَ إِخْرَاجٍ فَإِنْ خَرَجْنَ فَلاَ جُنَاحَ عَلَيْكُمْ فِي مَا فَعَلْنَ فِيَ أَنفُسِهِنَّ مِن مَّعْرُوفٍ وَاللّهُ عَزِيزٌ حَكِيمٌ আর যখন তোমাদের মধ্যে যারা মৃত্যুবরণ করবে তখন স্ত্রীদের ঘর থেকে বের না করে এক বছর পর্যন্ত তাদের খরচের ব্যাপারে ওসিয়ত করে যাবে। অতঃপর যদি সে স্ত্রীরা নিজে থেকে বেরিয়ে যায়, তাহলে সে নারী যদি নিজের ব্যাপারে কোন উত্তম ব্যবস্থা করে, তবে তাতে তোমাদের উপর কোন পাপ নেই। আর আল্লাহ হচ্ছেন পরাক্রমশালী বিজ্ঞতা সম্পন্ন। Those of you who die and leave widows should bequeath for their widows a year’s maintenance and residence; but if they leave (The residence), there is no blame on you for what they do with themselves, provided it is reasonable. And Allah is Exalted in Power, Wise.

( وَٱلَّذِينَ এবং যারা And those who, يُتَوَفَّوْنَ মারা যায় they die, مِنكُم তোমাদের মধ্য হতে among you, وَيَذَرُونَ এবং তারা রেখে যায় and leave behind, أَزْوَٰجًا স্ত্রীদেরকে (their) wives, وَصِيَّةً (তাদের উচিৎ) জোর নির্দেশ করা (should make) a will, لِّأَزْوَٰجِهِم তাদের স্ত্রীদের জন্যে for their wives, مَّتَٰعًا ভরণ পোষণের provision, إِلَى পর্যন্ত for, ٱلْحَوْلِ এক বছর the year, غَيْرَ ছাড়া without, إِخْرَاجٍ বহিষ্কার (ঘর থেকে) driving (them) out, فَإِنْ যদি তবে But if, خَرَجْنَ তারা বের হয় (নিজেরাই) they leave, فَلَا নেই তবে then no, جُنَاحَ কোনো পাপ blame, عَلَيْكُمْ তোমাদের উপর upon you, فِى সেক্ষেত্রে in, مَا যা what, فَعَلْنَ তারা করেছে they do, فِىٓ ব্যাপারে concerning, أَنفُسِهِنَّ তাদের নিজেদের themselves, مِن থেকে [of], مَّعْرُوفٍ ন্যায় সংগত ভাবে honorably, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, عَزِيزٌ পরাক্রমশালী (is) All-Mighty, حَكِيمٌ মহাবিজ্ঞ All-Wise )

 

(241)  وَلِلْمُطَلَّقَاتِ مَتَاعٌ بِالْمَعْرُوفِ حَقًّا عَلَى الْمُتَّقِينَ আর তালাকপ্রাপ্তা নারীদের জন্য প্রচলিত নিয়ম অনুযায়ী খরচ দেয়া পরহেযগারদের উপর কর্তব্য। For divorced women Maintenance (should be provided) on a reasonable (scale). This is a duty on the righteous.

( وَلِلْمُطَلَّقَٰتِ এবং তালাক প্রাপ্তাদের জন্যে And for the divorced women, مَتَٰعٌۢ কিছু ভরণপোষণ দেওয়া (is) a provision, بِٱلْمَعْرُوفِ উপযুক্তভাবে in a fair manner -, حَقًّا কর্তব্য a duty, عَلَى উপর upon, ٱلْمُتَّقِينَ মুত্তাকীদের the righteous )

 

(242) كَذَلِكَ يُبَيِّنُ اللّهُ لَكُمْ آيَاتِهِ لَعَلَّكُمْ تَعْقِلُونَ এভাবেই আল্লাহ তা’আলা তোমাদের জন্য স্বীয় নির্দেশ বর্ণনা করেন যাতে তোমরা তা বুঝতে পার। Thus doth Allah Make clear His Signs to you: In order that ye may understand.

( كَذَٰلِكَ এভাবে Thus, يُبَيِّنُ বর্ণনা করেন makes clear, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, لَكُمْ তোমাদের জন্য for you, ءَايَٰتِهِۦ তাঁর বিধানাবলীকে His Verses, لَعَلَّكُمْ তোমরা যেন so that you may, تَعْقِلُونَ বুঝতে পার use your intellect )

 

(243) أَلَمْ تَرَ إِلَى الَّذِينَ خَرَجُواْ مِن دِيَارِهِمْ وَهُمْ أُلُوفٌ حَذَرَ الْمَوْتِ فَقَالَ لَهُمُ اللّهُ مُوتُواْ ثُمَّ أَحْيَاهُمْ إِنَّ اللّهَ لَذُو فَضْلٍ عَلَى النَّاسِ وَلَـكِنَّ أَكْثَرَ النَّاسِ لاَ يَشْكُرُونَ তুমি কি তাদেরকে দেখনি, যারা মৃত্যুর ভয়ে নিজেদের ঘর ছেড়ে বেরিয়ে গিয়েছিলেন? অথচ তারা ছিল হাজার হাজার। তারপর আল্লাহ তাদেরকে বললেন মরে যাও। তারপর তাদেরকে জীবিত করে দিলেন। নিশ্চয়ই আল্লাহ মানুষের উপর অনুগ্রহকারী। কিন্তু অধিকাংশ লোক শুকরিয়া প্রকাশ করে না। Didst thou not Turn by vision to those who abandoned their homes, though they were thousands (In number), for fear of death? Allah said to them: “Die”: Then He restored them to life. For Allah is full of bounty to mankind, but Most of them are ungrateful.

( أَلَمْ নি কি Did not, تَرَ তুমি দেখ you see, إِلَى প্রতি [to], ٱلَّذِينَ (তাদের) যারা those who, خَرَجُوا۟ বের হয়েছিল went out, مِن থেকে from, دِيَٰرِهِمْ ঘরগুলো তাদের their homes, وَهُمْ অথচ তারা (ছিল) and they, أُلُوفٌ হাজার হাজার (were in) thousands, حَذَرَ ভয়ে (in) fear, ٱلْمَوْتِ মৃত্যুর (of) [the] death?, فَقَالَ অতঃপর বললেন Then said, لَهُمُ তাদের উদ্দেশে to them, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, مُوتُوا۟ তোমরা মরে যাও “Die”, ثُمَّ এরপর then, أَحْيَٰهُمْ তিনি জীবিত করলেন (আবার) তাদেরকে He restored them to life, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, لَذُو (অধিকারী) (is) surely Possessor, فَضْلٍ অনুগ্রহের (of) bounty, عَلَى উপর for, ٱلنَّاسِ মানুষের [the] mankind, وَلَٰكِنَّ কিন্তু [and] but, أَكْثَرَ অধিকাংশ most, ٱلنَّاسِ মানুষ (of) the people, لَا না (are) not, يَشْكُرُونَ তারা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে grateful )

 

(244) وَقَاتِلُواْ فِي سَبِيلِ اللّهِ وَاعْلَمُواْ أَنَّ اللّهَ سَمِيعٌ عَلِيمٌ আল্লাহর পথে লড়াই কর এবং জেনে রাখ, নিঃসন্দেহে আল্লাহ সবকিছু জানেন, সবকিছু শুনেন। Then fight in the cause of Allah, and know that Allah Heareth and knoweth all things.

( وَقَٰتِلُوا۟ এবং যুদ্ধ করো তোমরা And fight, فِى মধ্যে in, سَبِيلِ পথের (the) way, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, وَٱعْلَمُوٓا۟ এবং তোমরা জেনে রেখো and know, أَنَّ যে that, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, سَمِيعٌ সবকিছু শুনেন (is) All-Hearing, عَلِيمٌ সবকিছু দেখেন All-Knowing )

 

(245) مَّن ذَا الَّذِي يُقْرِضُ اللّهَ قَرْضًا حَسَنًا فَيُضَاعِفَهُ لَهُ أَضْعَافًا كَثِيرَةً وَاللّهُ يَقْبِضُ وَيَبْسُطُ وَإِلَيْهِ تُرْجَعُونَ এমন কে আছে যে, আল্লাহকে করজ দেবে, উত্তম করজ; অতঃপর আল্লাহ তাকে দ্বিগুণ-বহুগুণ বৃদ্ধি করে দিবেন। আল্লাহই সংকোচিত করেন এবং তিনিই প্রশস্ততা দান করেন এবং তাঁরই নিকট তোমরা সবাই ফিরে যাবে। Who is he that will loan to Allah a beautiful loan, which Allah will double unto his credit and multiply many times? It is Allah that giveth (you) Want or plenty, and to Him shall be your return.

( مَّن কে Who, ذَا সে (এমন) (is) the one, ٱلَّذِى যে who, يُقْرِضُ ঋণ দেবে will lend, ٱللَّهَ আল্লাহকে (to) Allah, قَرْضًا ঋণ a loan, حَسَنًا উত্তম good, فَيُضَٰعِفَهُۥ তিনি তা বৃদ্ধি এরপর করবেন so (that) He multiplies it, لَهُۥٓ তার জন্য for him, أَضْعَافًا গুণ বৃদ্ধি manifolds, كَثِيرَةً অনেক many, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, يَقْبِضُ সংকুচিত করেন withholds, وَيَبْصُۜطُ ও সম্প্রসারিত করেন and grants abundance, وَإِلَيْهِ এবং তাঁরই দিকে and to Him, تُرْجَعُونَ তোমাদের ফিরিয়ে নেয়া হবে you will be returned )

 

(246) أَلَمْ تَرَ إِلَى الْمَلإِ مِن بَنِي إِسْرَائِيلَ مِن بَعْدِ مُوسَى إِذْ قَالُواْ لِنَبِيٍّ لَّهُمُ ابْعَثْ لَنَا مَلِكًا نُّقَاتِلْ فِي سَبِيلِ اللّهِ قَالَ هَلْ عَسَيْتُمْ إِن كُتِبَ عَلَيْكُمُ الْقِتَالُ أَلاَّ تُقَاتِلُواْ قَالُواْ وَمَا لَنَا أَلاَّ نُقَاتِلَ فِي سَبِيلِ اللّهِ وَقَدْ أُخْرِجْنَا مِن دِيَارِنَا وَأَبْنَآئِنَا فَلَمَّا كُتِبَ عَلَيْهِمُ الْقِتَالُ تَوَلَّوْاْ إِلاَّ قَلِيلاً مِّنْهُمْ وَاللّهُ عَلِيمٌ بِالظَّالِمِينَ মূসার পরে তুমি কি বনী ইসরাঈলের একটি দলকে দেখনি, যখন তারা বলেছে নিজেদের নবীর কাছে যে, আমাদের জন্য একজন বাদশাহ নির্ধারিত করে দিন যাতে আমরা আল্লাহর পথে যুদ্ধ করতে পারি। নবী বললেন, তোমাদের প্রতিও কি এমন ধারণা করা যায় যে, লড়াইর হুকুম যদি হয়, তাহলে তখন তোমরা লড়বে না? তারা বলল, আমাদের কি হয়েছে যে, আমরা আল্লাহর পথে লড়াই করব না। অথচ আমরা বিতাড়িত হয়েছি নিজেদের ঘর-বাড়ী ও সন্তান-সন্ততি থেকে। অতঃপর যখন লড়াইয়ের নির্দেশ হলো, তখন সামান্য কয়েকজন ছাড়া তাদের সবাই ঘুরে দাঁড়ালো। আর আল্লাহ তা’আলা জালেমদের ভাল করেই জানেন। Hast thou not Turned thy vision to the Chiefs of the Children of Israel after (the time of) Moses? they said to a prophet (That was) among them: “Appoint for us a king, that we May fight in the cause of Allah.” He said: “Is it not possible, if ye were commanded to fight, that that ye will not fight?” They said: “How could we refuse to fight in the cause of Allah, seeing that we were turned out of our homes and our families?” but when they were commanded to fight, they turned back, except a small band among them. But Allah Has full knowledge of those who do wrong.

( أَلَمْ নি কি Did not, تَرَ তুমি দেখ you see, إِلَى প্রতি [towards], ٱلْمَلَإِ প্রধানদের the chiefs, مِنۢ মধ্য থেকে of, بَنِىٓ বনী (the) Children, إِسْرَٰٓءِيلَ ইসরাঈলদের (of) Israel, مِنۢ থেকে from, بَعْدِ পর after, مُوسَىٰٓ মূসার Musa, إِذْ যখন when, قَالُوا۟ তারা বলেছিল they said, لِنَبِىٍّ নবীর to a Prophet, لَّهُمُ তাদের জন্য of theirs, ٱبْعَثْ পাঠান “Appoint, لَنَا আমাদের জন্য for us, مَلِكًا একজন রাজা a king, نُّقَٰتِلْ যুদ্ধ করব আমরা (তার নের্তৃত্বে) we may fight, فِى মধ্যে in, سَبِيلِ পথের (the) way, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah?”, قَالَ সে বলল He said, هَلْ যদি “Would, عَسَيْتُمْ তোমরা আশা কর you perhaps, إِن যদি if, كُتِبَ ফরজ করা হয় prescribed, عَلَيْكُمُ তোমাদের উপর upon you, ٱلْقِتَالُ যুদ্ধ [the] fighting, أَلَّا যে না that not, تُقَٰتِلُوا۟ তোমরা যুদ্ধ করবে you fight?”, قَالُوا۟ তারা বলেছিল They said, وَمَا এবং কি “And what, لَنَآ আমাদের হয়েছে for us, أَلَّا যে না that not, نُقَٰتِلَ আমরা যুদ্ধ করব we fight, فِى মধ্যে in, سَبِيلِ পথের (the) way, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah,  وَقَدْ অথচ নিশ্চয়ই while surely, أُخْرِجْنَا আমাদেরকে বের করে দেওয়া হয়েছে we have been driven out, مِن হতে from, دِيَٰرِنَا আমাদের ঘরবাড়ি our homes, وَأَبْنَآئِنَا ও আমাদের সন্তানদের (হতে) and our children?”, فَلَمَّا অতঃপর যখন Yet, when, كُتِبَ ফরজ করা হল was prescribed, عَلَيْهِمُ তাদের উপর upon them, ٱلْقِتَالُ যুদ্ধের the fighting, تَوَلَّوْا۟ তারা পিঠ ফিরাল they turned away, إِلَّا এছাড়া except, قَلِيلًا স্বল্প সংখ্যক a few, مِّنْهُمْ তাদের মধ্য হতে among them, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, عَلِيمٌۢ খুব অবহিত (is) All-Knowing, بِٱلظَّٰلِمِينَ সীমালঙ্ঘনকারী সম্পর্কে of the wrongdoers )

 

(247) وَقَالَ لَهُمْ نَبِيُّهُمْ إِنَّ اللّهَ قَدْ بَعَثَ لَكُمْ طَالُوتَ مَلِكًا قَالُوَاْ أَنَّى يَكُونُ لَهُ الْمُلْكُ عَلَيْنَا وَنَحْنُ أَحَقُّ بِالْمُلْكِ مِنْهُ وَلَمْ يُؤْتَ سَعَةً مِّنَ الْمَالِ قَالَ إِنَّ اللّهَ اصْطَفَاهُ عَلَيْكُمْ وَزَادَهُ بَسْطَةً فِي الْعِلْمِ وَالْجِسْمِ وَاللّهُ يُؤْتِي مُلْكَهُ مَن يَشَاء وَاللّهُ وَاسِعٌ عَلِيمٌ আর তাদেরকে তাদের নবী বললেন, নিশ্চয়ই আল্লাহ তালূতকে তোমাদের জন্য বাদশাহ সাব্যস্ত করেছেন। তারা বলতে লাগল তা কেমন করে হয় যে, তার শাসন চলবে আমাদের উপর। অথচ রাষ্ট্রক্ষমতা পাওয়ার ক্ষেত্রে তার চেয়ে আমাদেরই অধিকার বেশী। আর সে সম্পদের দিক দিয়েও সচ্ছল নয়। নবী বললেন, নিশ্চয় আল্লাহ তোমাদের উপর তাকে পছন্দ করেছেন এবং স্বাস্থ্য ও জ্ঞানের দিক দিয়ে প্রাচুর্য দান করেছেন। বস্তুতঃ আল্লাহ তাকেই রাজ্য দান করেন, যাকে ইচ্ছা। আর আল্লাহ হলেন অনুগ্রহ দানকারী এবং সব বিষয়ে অবগত। Their Prophet said to them: “(Allah) hath appointed Talut as king over you.” They said: “How can he exercise authority over us when we are better fitted than he to exercise authority, and he is not even gifted, with wealth in abundance?” He said: “(Allah) hath Chosen him above you, and hath gifted him abundantly with knowledge and bodily prowess: Allah Granteth His authority to whom He pleaseth. Allah careth for all, and He knoweth all things.”

( وَقَالَ এবং বলেছিল And said, لَهُمْ তাদের উদ্দেশে to them, نَبِيُّهُمْ তাদের নবী their Prophet, إِنَّ নিশ্চয়ই “Indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, قَدْ অবশ্যই (has) surely, بَعَثَ পাঠিয়েছেন raised, لَكُمْ তোমাদের জন্য for you, طَالُوتَ তালুতকে Talut, مَلِكًا রাজা হিসেবে (as) a king”, قَالُوا۟ তারা বলেছিল They said, أَنَّىٰ কিরূপে How, يَكُونُ হবে can be, لَه তার জন্য for him, ٱلْمُلْكُ রাজত্ব the kingship, عَلَيْنَا আমাদের উপর over us, وَنَحْنُ অথচ আমরা while we, أَحَقُّ অধিক যোগ্য (are) more entitled, بِٱلْمُلْكِ রাজত্বের to kingship, مِنْهُ তার চেয়ে than him, وَلَمْ এবং নি and not, يُؤْتَ দেওয়া হয় তাকে he has been given, سَعَةً প্রাচুর্য abundance, مِّنَ মাধ্যমে of, ٱلْمَالِ ধন সম্পদের [the] wealth?” قَالَ সে বলল He said, إِنَّ নিশ্চয়ই “Indeed,  ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, ٱصْطَفَىٰهُ তাকে মনোনীত করেছেন has chosen him, عَلَيْكُمْ তোমাদের উপর over you, وَزَادَهُۥ ও তাকে বেশি দিয়েছেন and increased him, بَسْطَةً প্রসারতা abundantly, فِى মধ্যে in, ٱلْعِلْمِ জ্ঞানের [the] knowledge, وَٱلْجِسْمِ ও শারীরিক শক্তিতে and [the] physique, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, يُؤْتِى দেন gives, مُلْكَهُۥ তাঁর রাজত্ব His kingdom,  مَن যাকে (to) whom, يَشَآءُ তিনি চান He wills, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, وَٰسِعٌ প্রাচুর্যময় (is) All-Encompassing, عَلِيمٌ মহাজ্ঞানী All-Knowing” )

 

(248) وَقَالَ لَهُمْ نِبِيُّهُمْ إِنَّ آيَةَ مُلْكِهِ أَن يَأْتِيَكُمُ التَّابُوتُ فِيهِ سَكِينَةٌ مِّن رَّبِّكُمْ وَبَقِيَّةٌ مِّمَّا تَرَكَ آلُ مُوسَى وَآلُ هَارُونَ تَحْمِلُهُ الْمَلآئِكَةُ إِنَّ فِي ذَلِكَ لآيَةً لَّكُمْ إِن كُنتُم مُّؤْمِنِينَ বনী-ইসরাঈলদেরকে তাদের নবী আরো বললেন, তালূতের নেতৃত্বের চিহ্ন হলো এই যে, তোমাদের কাছে একটা সিন্দুক আসবে তোমাদের পালকর্তার পক্ষ থেকে তোমাদের মনের সন্তুষ্টির নিমিত্তে। আর তাতে থাকবে মূসা, হারুন এবং তাঁদের সন্তানবর্গের পরিত্যক্ত কিছু সামগ্রী। সিন্দুকটিকে বয়ে আনবে ফেরেশতারা। তোমরা যদি ঈমানদার হয়ে থাক, তাহলে এতে তোমাদের জন্য নিশ্চিতই পরিপূর্ণ নিদর্শন রয়েছে। And (further) their Prophet said to them: “A Sign of his authority is that there shall come to you the Ark of the covenant, with (an assurance) therein of security from your Lord, and the relics left by the family of Moses and the family of Aaron, carried by angels. In this is a symbol for you if ye indeed have faith.”

( وَقَالَ এবং বলল And said, لَهُمْ তাদের উদ্দেশে to them, نَبِيُّهُمْ তাদের নবী their Prophet, إِنَّ নিশ্চয়ই “Indeed, ءَايَةَ নিদর্শন (হবে) a sign, مُلْكِهِۦٓ তার রাজত্বের (of) his kingship, أَن (এই) যে (is) that, يَأْتِيَكُمُ তোমাদের কাছে আসবে will come to you,  ٱلتَّابُوتُ সেই সিন্ধুক the ark, فِيهِ যার মধ্যে (আছে) in it, سَكِينَةٌ প্রশান্তি (is) a tranquility,  مِّن পক্ষ হতে from, رَّبِّكُمْ তোমাদের রবের your Lord, وَبَقِيَّةٌ ও অবশিষ্ট and a remnant, مِّمَّا তা হতে যা of what, تَرَكَ ছেড়ে গেছে (was) left, ءَالُ বংশধর (by the) family, مُوسَىٰ মূসার (of) Musa, وَءَالُ ও বংশধর and family, هَٰرُونَ হারুনের (of) Harun, تَحْمِلُهُ তা বহন করে চলছে will carry it, ٱلْمَلَٰٓئِكَةُ ফেরেশতারা the Angels, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, فِى মধ্যে (রয়েছে) in, ذَٰلِكَ এর that, لَءَايَةً অবশ্যই নিদর্শন (is) surely a sign, لَّكُمْ তোমাদের জন্য for you, إِن যদি if, كُنتُم তোমরা হও you are, مُّؤْمِنِينَ মু’মিন believers” )

 

(249) فَلَمَّا فَصَلَ طَالُوتُ بِالْجُنُودِ قَالَ إِنَّ اللّهَ مُبْتَلِيكُم بِنَهَرٍ فَمَن شَرِبَ مِنْهُ فَلَيْسَ مِنِّي وَمَن لَّمْ يَطْعَمْهُ فَإِنَّهُ مِنِّي إِلاَّ مَنِ اغْتَرَفَ غُرْفَةً بِيَدِهِ فَشَرِبُواْ مِنْهُ إِلاَّ قَلِيلاً مِّنْهُمْ فَلَمَّا جَاوَزَهُ هُوَ وَالَّذِينَ آمَنُواْ مَعَهُ قَالُواْ لاَ طَاقَةَ لَنَا الْيَوْمَ بِجَالُوتَ وَجُنودِهِ قَالَ الَّذِينَ يَظُنُّونَ أَنَّهُم مُّلاَقُو اللّهِ كَم مِّن فِئَةٍ قَلِيلَةٍ غَلَبَتْ فِئَةً كَثِيرَةً بِإِذْنِ اللّهِ وَاللّهُ مَعَ الصَّابِرِينَ অতঃপর তালূত যখন সৈন্য-সামন্ত নিয়ে বেরুল, তখন বলল, নিশ্চয় আল্লাহ তোমাদিগকে পরীক্ষা করবেন একটি নদীর মাধ্যমে। সুতরাং যে লোক সেই নদীর পানি পান করবে সে আমার নয়। আর যে, লোক তার স্বাদ গ্রহণ করলো না, নিশ্চয়ই সে আমার লোক। কিন্তু যে লোক হাতের আঁজলা ভরে সামান্য খেয়ে নেবে তার দোষঅবশ্য তেমন গুরুতর হবে না। অতঃপর সবাই পান করল সে পানি, সামান্য কয়েকজন ছাড়া। পরে তালূত যখন তা পার হলো এবং তার সাথে ছিল মাত্র কয়েকজন ঈমানদার, তখন তারা বলতে লাগল, আজকের দিনে জালূত এবং তার সেনাবাহিনীর সাথে যুদ্ধ করার শক্তি আমাদের নেই, যাদের ধারণা ছিল যে, আল্লাহর সামনে তাদের একদিন উপস্থিত হতে হবে, তারা বার বার বলতে লাগল, সামান্য দলই বিরাট দলের মোকাবেলায় জয়ী হয়েছে আল্লাহর হুকুমে। আর যারা ধৈর্য্যশীল আল্লাহ তাদের সাথে রয়েছেন। When Talut set forth with the armies, he said: “(Allah) will test you at the stream: if any drinks of its water, He goes not with my army: Only those who taste not of it go with me: A mere sip out of the hand is excused.” but they all drank of it, except a few. When they crossed the river,- He and the faithful ones with him,- they said: “This day We cannot cope with Goliath and his forces.” but those who were convinced that they must meet Allah, said: “How oft, by Allah.s will, Hath a small force vanquished a big one? Allah is with those who steadfastly persevere.”

( فَلَمَّا যখন অতঃপর Then when, فَصَلَ রওনা হল set out, طَالُوتُ তালুত Talut, بِٱلْجُنُودِ সৈন্যদের নিয়ে with the forces, قَالَ বলল he said, إِنَّ নিশ্চয়ই “Indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, مُبْتَلِيكُم তোমাদের পরীক্ষা করবেন will test you, بِنَهَرٍ একটা নদী দিয়ে with a river, فَمَن যে অতঃপর So whoever, شَرِبَ পান করবে drinks, مِنْهُ তা থেকে from it, فَلَيْسَ সে নয় তখন then he is not, مِنِّى আমার দলে from me, وَمَن এবং যে and whoever, لَّمْ না (does) not, يَطْعَمْهُ তার স্বাদ নেবে taste it, فَإِنَّهُۥ নিশ্চয়ই তবে সে then indeed, he, مِنِّىٓ আমার দলভুক্ত (থাকবে) (is) from me, إِلَّا কিন্তু except, مَنِ যে whoever, ٱغْتَرَفَ আঁজলা ভরে নেবে (পানি) takes, غُرْفَةًۢ এক আঁজলা (in the) hollow, بِيَدِهِۦ তার হাত দিয়ে (সেটা ভিন্ন) (of) his hand”, فَشَرِبُوا۟ তারা অতঃপর পান করল Then they drank, مِنْهُ তা থেকে from it, إِلَّا ছাড়া except, قَلِيلًا স্বল্প সংখ্যক a few, مِّنْهُمْ তাদের মধ্য হতে of them, فَلَمَّا অতঃপর যখন Then when, جَاوَزَهُۥ তা অতিক্রম করল he crossed it, هُوَ সে he, وَٱلَّذِينَ ও যারা and those who, ءَامَنُوا۟ ঈমান এনেছিল believed, مَعَهُۥ তার সাথে with him, قَالُوا۟ তারা বলেছিল they said, لَا নেই “No, طَاقَةَ  শক্তি strength, لَنَا আমাদের কাছে for us, ٱلْيَوْمَ আজ today, بِجَالُوتَ জালুতের সাথে against Jalut, وَجُنُودِهِۦ ও তার সৈন্যদের (সাথে যুদ্ধের) and his troops”, قَالَ বলল Said, ٱلَّذِينَ যারা those who, يَظُنُّونَ মনে করত were certain, أَنَّهُم তারা যে that they, مُّلَٰقُوا۟ সাক্ষাৎকারী (would) meet, ٱللَّهِ আল্লাহর সাথে Allah, كَم কত “How many, مِّن থেকে of, فِئَةٍ দল (রয়েছে) a company, قَلِيلَةٍ ছোট ছোট small, غَلَبَتْ বিজয়ী হয়েছে (যারা) overcame, فِئَةً দলের (উপর) a company, كَثِيرَةًۢ বড় বড় large, بِإِذْنِ অনুমতিক্রমে by (the) permission, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, مَعَ (সাথে আছেন (is) with, ٱلصَّٰبِرِينَ ধৈর্যশীল the patient ones” )

 

(250) وَلَمَّا بَرَزُواْ لِجَالُوتَ وَجُنُودِهِ قَالُواْ رَبَّنَا أَفْرِغْ عَلَيْنَا صَبْرًا وَثَبِّتْ أَقْدَامَنَا وَانصُرْنَا عَلَى الْقَوْمِ الْكَافِرِينَ আর যখন তালূত ও তার সেনাবাহিনী শত্রুর সম্মুখীন হল, তখন বলল, হে আমাদের পালনকর্তা, আমাদের মনে ধৈর্য্য সৃষ্টি করে দাও এবং আমাদেরকে দৃঢ়পদ রাখ-আর আমাদের সাহায্য কর সে কাফের জাতির বিরুদ্ধে। When they advanced to meet Goliath and his forces, they prayed: “Our Lord! Pour out constancy on us and make our steps firm: Help us against those that reject faith.”

( وَلَمَّا এবং যখন And when, بَرَزُوا۟ তারা সম্মুখীন হল they went forth, لِجَالُوتَ জালুতের বিরুদ্ধে to (face) Jalut, وَجُنُودِهِۦ ও তার সৈন্যদের (বিরুদ্ধে) and his troops, قَالُوا۟ বলেছিল তারা they said, رَبَّنَآ হে আমাদের রব “Our Lord!, أَفْرِغْ ঢেলে দাও(দান করো) Pour, عَلَيْنَا আমাদের ওপর on us, صَبْرًا ধৈর্য patience, وَثَبِّتْ ও দৃঢ় করো and make firm, أَقْدَامَنَا আমাদের পাগুলোকে our feet, وَٱنصُرْنَا এবং আমাদেরকে সাহায্য করো and help us, عَلَى বিরুদ্ধে against, ٱلْقَوْمِ জাতির the people, ٱلْكَٰفِرِينَ কাফির (who are) disbelieving” )

 

(251) فَهَزَمُوهُم بِإِذْنِ اللّهِ وَقَتَلَ دَاوُدُ جَالُوتَ وَآتَاهُ اللّهُ الْمُلْكَ وَالْحِكْمَةَ وَعَلَّمَهُ مِمَّا يَشَاء وَلَوْلاَ دَفْعُ اللّهِ النَّاسَ بَعْضَهُمْ بِبَعْضٍ لَّفَسَدَتِ الأَرْضُ وَلَـكِنَّ اللّهَ ذُو فَضْلٍ عَلَى الْعَالَمِينَ তারপর ঈমানদাররা আল্লাহর হুকুমে জালূতের বাহিনীকে পরাজিত করে দিল এবং দাউদ জালূতকে হত্যা করল। আর আল্লাহ দাউদকে দান করলেন রাজ্য ও অভিজ্ঞতা। আর তাকে যা চাইলেন শিখালেন। আল্লাহ যদি একজনকে অপরজনের দ্বারা প্রতিহত না করতেন, তাহলে গোটা দুনিয়া বিধ্বস্ত হয়ে যেতো। কিন্তু বিশ্ববাসীর প্রতি আল্লাহ একান্তই দয়ালু, করুণাময়। By Allah.s will they routed them; and David slew Goliath; and Allah gave him power and wisdom and taught him whatever (else) He willed. And did not Allah Check one set of people by means of another, the earth would indeed be full of mischief: But Allah is full of bounty to all the worlds.

( فَهَزَمُوهُم তারা অতঃপর পরাজিত করল তাদেরকে So they defeated them, بِإِذْنِ অনুমতিক্রমে by (the) permission, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, وَقَتَلَ এবং হত্যা করল and killed, دَاوُۥدُ দাঊদ Dawood, جَالُوتَ জালুতকে Jalut, وَءَاتَىٰهُ এবং তাকে দিয়ে দিয়েছিলেন and gave him, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, ٱلْمُلْكَ রাজত্ব the kingdom, وَٱلْحِكْمَةَ ও প্রজ্ঞা and the wisdom, وَعَلَّمَهُۥ ও তাকে শিক্ষা দিয়েছিলেন and taught him, مِمَّا তা থেকে (বিভিন্ন জিনিসের) যা that which, يَشَآءُ তিনি চেয়েছেন He willed, وَلَوْلَا এবং যদি না And if not, دَفْعُ প্রতিহত (করা হত) (for the) repelling, ٱللَّهِ আল্লাহর (পক্ষ হতে) (by) Allah, ٱلنَّاسَ মানুষের [the] people, بَعْضَهُم তাদের কাউকে some of them, بِبَعْضٍ (অন্য) কাউকে দিয়ে with others, لَّفَسَدَتِ (তাহলে) অবশ্যই বিপর্যস্ত হয়ে যেত certainly (would have) corrupted, ٱلْأَرْضُ পৃথিবী the Earth, وَلَٰكِنَّ কিন্তু [and] but, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, ذُو (অধিকারী) (is) Possessor, فَضْلٍ (অনুগ্রহের) (of) bounty, عَلَى উপর to, ٱلْعَٰلَمِينَ বিশ্বজগতের the worlds )

 

(252) تِلْكَ آيَاتُ اللّهِ نَتْلُوهَا عَلَيْكَ بِالْحَقِّ وَإِنَّكَ لَمِنَ الْمُرْسَلِينَ এগুলো হলো আল্লাহর নিদর্শন, যা আমরা তোমাদেরকে যথাযথভাবে শুনিয়ে থাকি। আর আপনি নিশ্চিতই আমার রসূলগণের অন্তর্ভুক্ত। These are the Signs of Allah. we rehearse them to thee in truth: verily Thou art one of the apostles.

( تِلْكَ এই These, ءَايَٰتُ নিদর্শনাদি (are the) Verses, ٱللَّهِ আল্লাহর (of) Allah, نَتْلُوهَا তা তিলাওয়াত করছি আমরা We recite them, عَلَيْكَ তোমার কাছে to you, بِٱلْحَقِّ যথাযথভাবে in [the] truth, وَإِنَّكَ এবং তুমি নিশ্চয়ই And indeed you, لَمِنَ অবশ্যই অর্ন্তভুক্ত (are) surely of, ٱلْمُرْسَلِينَ রাসূলদের the Messengers )

 

 

আইডিসির সাথে যোগ দিয়ে উভয় জাহানের জন্য ভালো কিছু করুন।

 

আইডিসি এবং আইডিসি ফাউন্ডেশনের ব্যপারে বিস্তারিত জানতে  লিংক০১ ও লিংক০২ ভিজিট করুন।

আইডিসি  মাদরাসার ব্যপারে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন। 

আপনি আইডিসি  মাদরাসার একজন স্থায়ী সদস্য /পার্টনার হতে চাইলে এই লিংক দেখুন.

আইডিসি এতীমখানা ও গোরাবা ফান্ডে দান করে  দুনিয়া এবং আখিরাতে সফলতা অর্জন করুন।

কুরআন হাদিসের আলোকে বিভিন্ন কঠিন রোগের চিকিৎসা করাতেআইডিসি ‘র সাথে যোগাযোগ করুন।

ইসলামিক বিষয়ে জানতে এবং জানাতে এই গ্রুপে জয়েন করুন।

Islami Dawah Center Cover photo

ইসলামী দাওয়াহ সেন্টারকে সচল রাখতে সাহায্য করুন!

 

ইসলামী দাওয়াহ সেন্টার ১টি অলাভজনক দাওয়াহ প্রতিষ্ঠান, এই প্রতিষ্ঠানের ইসলামিক ব্লগটি বর্তমানে ২০,০০০+ মানুষ প্রতিমাসে পড়ে, দিন দিন আরো অনেক বেশি বেড়ে যাবে, ইংশাআল্লাহ।

বর্তমানে মাদরাসা এবং ব্লগ প্রজেক্টের বিভিন্ন খাতে (ওয়েবসাইট হোস্টিং, CDN,কনটেন্ট রাইটিং, প্রুফ রিডিং, ব্লগ পোস্টিং, ডিজাইন এবং মার্কেটিং) মাসে গড়ে ৫০,০০০+ টাকা খরচ হয়, যা আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জিং। সেকারনে, এই বিশাল ধর্মীয় কাজকে সামনে এগিয়ে নিতে সর্বপ্রথম আল্লাহর কাছে আপনাদের দোয়া এবং আপনাদের সহযোগিতা প্রয়োজন, এমন কিছু ভাই ও বোন ( ৩১৩ জন ) দরকার, যারা আইডিসিকে নির্দিষ্ট অংকের সাহায্য করবেন, তাহলে এই পথ চলা অনেক সহজ হয়ে যাবে, ইংশাআল্লাহ।

যারা এককালিন, মাসিক অথবা বাৎসরিক সাহায্য করবেন, তারা আইডিসির মুল টিমের অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবেন, ইংশাআল্লাহ।

আইডিসির ঠিকানাঃ খঃ ৬৫/৫, শাহজাদপুর, গুলশান, ঢাকা -১২১২, মোবাইলঃ +88 01609 820 094, +88 01716 988 953 ( নগদ/বিকাশ পার্সোনাল )

ইমেলঃ info@islamidawahcenter.com, info@idcmadrasah.com, ওয়েব: www.islamidawahcenter.com, www.idcmadrasah.com সার্বিক তত্ত্বাবধানেঃ হাঃ মুফতি মাহবুব ওসমানী ( এম. এ. ইন ইংলিশ )