Surah Yusuf সূরা ইউসুফ ও সূরা ইউসুফের ফযিলত

sura-yusuf

 

بِسْمِ اللّهِ الرَّحْمـَنِ الرَّحِيمِ শুরু করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম করুণাময়, অতি দয়ালু।

 

(1)  الر تِلْكَ آيَاتُ الْكِتَابِ الْمُبِينِ আলিফ-লা-ম-রা; এগুলো সুস্পষ্ট গ্রন্থের আয়াত। A.L.R. These are the symbols (or Verses) of the perspicuous Book.

( الٓر আলিফ লাম-রা Alif Laam Ra, تِلْكَ এই These, ءَايَٰتُ আয়াতগুলো (are the) Verses, ٱلْكِتَٰبِ (এমন) কিতাবের (of) the Book, ٱلْمُبِينِ (যা) সুস্পষ্ট [the] clear )

 

(2)  إِنَّا أَنزَلْنَاهُ قُرْآنًا عَرَبِيًّا لَّعَلَّكُمْ تَعْقِلُونَ আমি একে আরবী ভাষায় কোরআন রূপে অবতীর্ণ করেছি, যাতে তোমরা বুঝতে পার। We have sent it down as an Arabic Qur’an, in order that ye may learn wisdom.

( إِنَّآ নিশ্চয়ই আমরা Indeed, We, أَنزَلْنَٰهُ তা আমরা অবতীর্ণ করেছি We have sent it down, قُرْءَٰنًا কুরআন (বানিয়ে) (as) a Quran in Arabic, عَرَبِيًّا আরবী (ভাষায়) (as) a Quran in Arabic, لَّعَلَّكُمْ তোমরা যাতে so that you may, تَعْقِلُونَ বুঝতে পারো understand )

 

(3) نَحْنُ نَقُصُّ عَلَيْكَ أَحْسَنَ الْقَصَصِ بِمَا أَوْحَيْنَا إِلَيْكَ هَـذَا الْقُرْآنَ وَإِن كُنتَ مِن قَبْلِهِ لَمِنَ الْغَافِلِينَ আমি তোমার নিকট উত্তম কাহিনী বর্ণনা করেছি, যেমতে আমি এ কোরআন তোমার নিকট অবতীর্ণ করেছি। তুমি এর আগে অবশ্যই এ ব্যাপারে অনবহিতদের অন্তর্ভূক্ত ছিলে। We do relate unto thee the most beautiful of stories, in that We reveal to thee this (portion of the) Qur’an: before this, thou too was among those who knew it not.

( نَحْنُ আমরা We, نَقُصُّ বর্ণনা করছি relate, عَلَيْكَ তোমার কাছে to you, أَحْسَنَ অতি উত্তম the best, ٱلْقَصَصِ কাহিনীসমূহ of the narrations, بِمَآ মাধ্যমে যা in what, أَوْحَيْنَآ আমরা ওহী করেছি We have revealed, إِلَيْكَ তোমার প্রতি to you, هَٰذَا এই (of) this, ٱلْقُرْءَانَ কুর’আন the Quran, وَإِن যদিও নিশ্চয়ই although, كُنتَ তুমি ছিলে you were, مِن থেকে before it, قَبْلِهِۦ পূর্ব এর before it, لَمِنَ অবশ্যই অন্তর্ভুক্ত surely among, ٱلْغَٰفِلِينَ অনবহিতদের the unaware )

 

(4) إِذْ قَالَ يُوسُفُ لِأَبِيهِ يَا أَبتِ إِنِّي رَأَيْتُ أَحَدَ عَشَرَ كَوْكَبًا وَالشَّمْسَ وَالْقَمَرَ رَأَيْتُهُمْ لِي سَاجِدِينَ যখন ইউসুফ পিতাকে বললঃ পিতা, আমি স্বপ্নে দেখেছি এগারটি নক্ষত্রকে। সুর্যকে এবং চন্দ্রকে। আমি তাদেরকে আমার উদ্দেশে সেজদা করতে দেখেছি। Behold! Joseph said to his father: “O my father! I did see eleven stars and the sun and the moon: I saw them prostrate themselves to me!”

( إِذْ যখন (স্মরণ করো) When, قَالَ বলেছিলো said, يُوسُفُ ইউসুফ Yusuf, لِأَبِيهِ তার পিতাকে to his father, يَٰٓأَبَتِ “হে আমার পিতা “O my father!, إِنِّى নিশ্চয়ই আমি Indeed, I, رَأَيْتُ (স্বপ্নে) দেখেছি I saw, أَحَدَ এগারো eleven, عَشَرَ এগারো eleven, كَوْكَبًا তারাকে star(s), وَٱلشَّمْسَ এবং সূর্যকে and the sun, وَٱلْقَمَرَ এবং চাঁদকে and the moon, رَأَيْتُهُمْ তাদের আমি দেখেছি I saw them, لِى আমাকে to me, سَٰجِدِينَ (তারা) সিজদাকারী” prostrating” )

 

(5) قَالَ يَا بُنَيَّ لاَ تَقْصُصْ رُؤْيَاكَ عَلَى إِخْوَتِكَ فَيَكِيدُواْ لَكَ كَيْدًا إِنَّ الشَّيْطَانَ لِلإِنسَانِ عَدُوٌّ مُّبِينٌ তিনি বললেনঃ বৎস, তোমার ভাইদের সামনে এ স্বপ্ন বর্ণনা করো না। তাহলে তারা তোমার বিরুদ্ধে চক্রান্ত করবে। নিশ্চয় শয়তান মানুষের প্রকাশ্য। Said (the father): “My (dear) little son! relate not thy vision to thy brothers, lest they concoct a plot against thee: for Satan is to man an avowed enemy!

( قَالَ সে বললো He said, يَٰبُنَىَّ “হে আমার পুত্র “O my son!, لَا না (Do) not, تَقْصُصْ বর্ণনা করো relate, رُءْيَاكَ তোমার স্বপ্ন your vision, عَلَىٰٓ কাছে to, إِخْوَتِكَ তোমার ভাইদের your brothers, فَيَكِيدُوا۟ তাহ’লে তারা চক্রান্ত করবে lest they plan, لَكَ তোমার বিরুদ্ধে against you, كَيْدًا  (বড়) চক্রান্ত a plot, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱلشَّيْطَٰنَ শয়তান the Shaitaan, لِلْإِنسَٰنِ মানুষের জন্যে (is) to man, عَدُوٌّ শত্রু an enemy, مُّبِينٌ প্রকাশ্য open )

 

(6) وَكَذَلِكَ يَجْتَبِيكَ رَبُّكَ وَيُعَلِّمُكَ مِن تَأْوِيلِ الأَحَادِيثِ وَيُتِمُّ نِعْمَتَهُ عَلَيْكَ وَعَلَى آلِ يَعْقُوبَ كَمَا أَتَمَّهَا عَلَى أَبَوَيْكَ مِن قَبْلُ إِبْرَاهِيمَ وَإِسْحَقَ إِنَّ رَبَّكَ عَلِيمٌ حَكِيمٌ এমনিভাবে তোমার পালনকর্তা তোমাকে মনোনীত করবেন এবং তোমাকে বাণীসমূহের নিগুঢ় তত্ত্ব শিক্ষা দেবেন এবং পূর্ণ করবেন স্বীয় অনুগ্রহ তোমার প্রতি ও ইয়াকুব পরিবার-পরিজনের প্রতি; যেমন ইতিপূর্বে তোমার পিতৃপুরুষ ইব্রাহীম ও ইসহাকের প্রতি পূর্ণ করেছেন। নিশ্চয় তোমার পালনকর্তা অত্যন্ত জ্ঞানী, প্রজ্ঞাময়। “Thus will thy Lord choose thee and teach thee the interpretation of stories (and events) and perfect His favour to thee and to the posterity of Jacob – even as He perfected it to thy fathers Abraham and Isaac aforetime! for Allah is full of knowledge and wisdom.”

( وَكَذَٰلِكَ এবং এভাবেই (হবে) And thus, يَجْتَبِيكَ তোমাকে মনোনীত করবেন will choose you, رَبُّكَ তোমার রব your Lord, وَيُعَلِّمُكَ ও তোমাকে শিখাবেন and will teach you, مِن থেকে of, تَأْوِيلِ ব্যাখ্যা (the) interpretation, ٱلْأَحَادِيثِ স্বপ্নের (of) the narratives, وَيُتِمُّ পূর্ণ করবেন and complete, نِعْمَتَهُۥ তাঁর অনুগ্রহ His Favor, عَلَيْكَ তোমার উপর on you, وَعَلَىٰٓ এবং উপর and on, ءَالِ বংশধরদের (the) family, يَعْقُوبَ ইয়াকুবের (of) Yaqub, كَمَآ যেমন as, أَتَمَّهَا তা পূর্ণ করেছিলেন He completed it, عَلَىٰٓ উপর on, أَبَوَيْكَ তোমার পিতৃ-পুরুষের your two forefathers, مِن থেকে before, قَبْلُ পূর্ব before, إِبْرَٰهِيمَ (যেমন) ইবরাহীমের Ibrahim, وَإِسْحَٰقَ ও ইসহাকের (উপর) and Ishaq, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, رَبَّكَ তোমার রব your Lord, عَلِيمٌ সর্বজ্ঞ is All-Knower, حَكِيمٌ প্রজ্ঞাময়” All-Wise” )

 

(7 )لَّقَدْ كَانَ فِي يُوسُفَ وَإِخْوَتِهِ آيَاتٌ لِّلسَّائِلِينَ অবশ্য ইউসুফ ও তাঁর ভাইদের কাহিনীতে জিজ্ঞাসুদের জন্যে নিদর্শনাবলী রয়েছে। Verily in Joseph and his brethren are signs (or symbols) for seekers (after Truth).

( لَّقَدْ নিশ্চয়ই Certainly, كَانَ ছিলো were, فِى মধ্যে in, يُوسُفَ  ইউসুফের (কাহিনীর) Yusuf, وَإِخْوَتِهِۦٓ ও তার ভাইদের and his brothers, ءَايَٰتٌ নিদর্শনসমূহ signs, لِّلسَّآئِلِينَ জিজ্ঞাসাকারীদের জন্যে for those who ask )

 

(8) إِذْ قَالُواْ لَيُوسُفُ وَأَخُوهُ أَحَبُّ إِلَى أَبِينَا مِنَّا وَنَحْنُ عُصْبَةٌ إِنَّ أَبَانَا لَفِي ضَلاَلٍ مُّبِينٍ যখন তারা বললঃ অবশ্যই ইউসুফ ও তাঁর ভাই আমাদের পিতার কাছে আমাদের চাইতে অধিক প্রিয় অথচ আমরা একটা সংহত শক্তি বিশেষ। নিশ্চয় আমাদের পিতা স্পষ্ট ভ্রান্তিতে রয়েছেন। They said: “Truly Joseph and his brother are loved more by our father than we: But we are a goodly body! really our father is obviously wandering (in his mind)!

( إِذْ যখন (স্মরণ করো) When, قَالُوا۟ (তারা ভাইয়েরা) বলেছিলো they said, لَيُوسُفُ “অবশ্যই ইউসুফ “Surely Yusuf, وَأَخُوهُ ও তার ভাই and his brother, أَحَبُّ অধিক প্রিয় (are) more beloved, إِلَىٰٓ কাছে to, أَبِينَا আমাদের পিতার our father, مِنَّا আমাদের চেয়ে than we, وَنَحْنُ অথচ আমরা while we, عُصْبَةٌ একটি ঐক্যবদ্ধ দল (are) a group, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, أَبَانَا আমাদের পিতা our father, لَفِى অবশ্যই মধ্যে (is) surely in, ضَلَٰلٍ বিভ্রান্তির an error, مُّبِينٍ প্রকাশ্য clear )

 

(9) اقْتُلُواْ يُوسُفَ أَوِ اطْرَحُوهُ أَرْضًا يَخْلُ لَكُمْ وَجْهُ أَبِيكُمْ وَتَكُونُواْ مِن بَعْدِهِ قَوْمًا صَالِحِينَ হত্যা কর ইউসুফকে কিংবা ফেলে আস তাকে অন্য কোন স্থানে। এতে শুধু তোমাদের প্রতিই তোমাদের পিতার মনোযোগ নিবিষ্ট হবে এবং এরপর তোমরা যোগ্য বিবেচিত হয়ে থাকবে। “Slay ye Joseph or cast him out to some (unknown) land, that so the favour of your father may be given to you alone: (there will be time enough) for you to be righteous after that!”

( ٱقْتُلُوا۟ তোমরা হত্যা করো Kill, يُوسُفَ ইউসুফকে Yusuf, أَوِ বা or, ٱطْرَحُوهُ তাকে ফেলে আসো cast him, أَرْضًا কোন স্থানে (to) a land, يَخْلُ নিবিষ্ট হবে so will be free, لَكُمْ তোমাদের দিকে for you, وَجْهُ দৃষ্টি (the) face, أَبِيكُمْ তোমাদের পিতার (of) your father, وَتَكُونُوا۟ ও তোমরা হয়ে যাবে and you will be, مِنۢ থেকে after that, بَعْدِهِۦ এরপর after that, قَوْمًا লোক a people, صَٰلِحِينَ সৎকর্মশীল” righteous” )

 

(10) قَالَ قَآئِلٌ مَّنْهُمْ لاَ تَقْتُلُواْ يُوسُفَ وَأَلْقُوهُ فِي غَيَابَةِ الْجُبِّ يَلْتَقِطْهُ بَعْضُ السَّيَّارَةِ إِن كُنتُمْ فَاعِلِينَ তাদের মধ্য থেকে একজন বলল, তোমরা ইউসুফ কে হত্যা করো না, বরং ফেলে দাও তাকে অন্ধকূপে যাতে কোন পথিক তাকে উঠিয়ে নিয়ে যায়, যদি তোমাদের কিছু করতেই হয়। Said one of them: “Slay not Joseph, but if ye must do something, throw him down to the bottom of the well: he will be picked up by some caravan of travellers.”

( قَالَ বললো Said, قَآئِلٌ এক প্রবক্তা a speaker, مِّنْهُمْ তাদের মধ্য হ’তে among them,  لَا “না “(Do) not, تَقْتُلُوا۟ তোমরা হত্যা করো kill, يُوسُفَ ইউসুফকে Yusuf, وَأَلْقُوهُ বরং তাকে নিক্ষেপ করো but throw him, فِى মধ্যে in, غَيَٰبَتِ (অন্ধকার) গভীরে the bottom, ٱلْجُبِّ কূপের (of) the well, يَلْتَقِطْهُ তাকে তুলে নিবে will pick him, بَعْضُ কেউ some, ٱلسَّيَّارَةِ পথযাত্রীদলের [the] caravan, إِن যদি if, كُنتُمْ তোমরা হও you are, فَٰعِلِينَ কর্মসম্পাদনকারী” doing” )

 

(11) قَالُواْ يَا أَبَانَا مَا لَكَ لاَ تَأْمَنَّا عَلَى يُوسُفَ وَإِنَّا لَهُ لَنَاصِحُونَ তারা বললঃ পিতাঃ ব্যাপার কি, আপনি ইউসুফের ব্যাপারে আমাদেরকে বিশ্বাস করেন না ? আমরা তো তার হিতাকাংখী। They said: “O our father! why dost thou not trust us with Joseph,- seeing we are indeed his sincere well-wishers?

( قَالُوا۟ তারা বললো They said, يَٰٓأَبَانَا “হে আমাদের পিতা “O our father!, مَا কি Why, لَكَ আপনার হয়েছে (do) you, لَا না not, تَأْمَ۫نَّا আমাদের বিশ্বাস করেন trust us, عَلَىٰ ব্যাপারে with, يُوسُفَ ইউসুফের Yusuf, وَإِنَّا অথচ নিশ্চয়ই আমরা while indeed we, لَهُۥ জন্যে তার (are) for him, لَنَٰصِحُونَ অবশ্যই (সবাই) হিতাকাঙ্ক্ষী surely well-wishers?)

 

(12) أَرْسِلْهُ مَعَنَا غَدًا يَرْتَعْ وَيَلْعَبْ وَإِنَّا لَهُ لَحَافِظُونَ আগামীকাল তাকে আমাদের সাথে প্রেরণ করুন-তৃপ্তিসহ খাবে এবং খেলাধুলা করবে এবং আমরা অবশ্যই তার রক্ষণাবেক্ষন করব। “Send him with us tomorrow to enjoy himself and play, and we shall take every care of him.”

( أَرْسِلْهُ তাকে পাঠান Send him, مَعَنَا আমাদের সাথে with us, غَدًا আগামীকাল tomorrow, يَرْتَعْ সে ফল খাবে (to) enjoy, وَيَلْعَبْ ও খেলবে and play, وَإِنَّا এবং নিশ্চয়ই আমরা And indeed, we, لَهُۥ তার জন্যে” for him”, لَحَٰفِظُونَ অবশ্যই (সবাই) সংরক্ষক” (will) surely (be) guardians” )

 

(13) قَالَ إِنِّي لَيَحْزُنُنِي أَن تَذْهَبُواْ بِهِ وَأَخَافُ أَن يَأْكُلَهُ الذِّئْبُ وَأَنتُمْ عَنْهُ غَافِلُونَ তিনি বললেনঃ আমার দুশ্চিন্তা হয় যে, তোমরা তাকে নিয়ে যাবে এবং আমি আশঙ্কা করি যে, ব্যাঘ্র তাঁকে খেয়ে ফেলবে এবং তোমরা তার দিক থেকে গাফেল থাকবে। (Jacob) said: “Really it saddens me that ye should take him away: I fear lest the wolf should devour him while ye attend not to him.”

( قَالَ সে বললো He said, إِنِّى “নিশ্চয়ই আমার “Indeed, [I], لَيَحْزُنُنِىٓ  আমার অবশ্যই চিন্তা লাগে it surely saddens me, أَن যে that, تَذْهَبُوا۟ তোমরা যাবে you should take him, بِهِۦ নিয়ে তাকে you should take him, وَأَخَافُ এবং আমি ভয় করি and I fear, أَن যে that, يَأْكُلَهُ তাকে খেয়ে ফেলবে would eat him, ٱلذِّئْبُ নেকড়ে বাঘ a wolf, وَأَنتُمْ এ অবস্থায় যে তোমরা while you, عَنْهُ তার থেকে of him, غَٰفِلُونَ অমনোযোগী হয়ে যাবে” (are) unaware” )

 

(14) قَالُواْ لَئِنْ أَكَلَهُ الذِّئْبُ وَنَحْنُ عُصْبَةٌ إِنَّا إِذًا لَّخَاسِرُونَ তারা বললঃ আমরা একটি ভারী দল থাকা সত্ত্বেও যদি ব্যাঘ্র তাকে খেয়ে ফেলে, তবে আমরা সবই হারালাম। They said: “If the wolf were to devour him while we are (so large) a party, then should we indeed (first) have perished ourselves!”

( قَالُوا۟ তারা বললো They said, لَئِنْ “অবশ্য যদি “If, أَكَلَهُ তাকে খায় eats him, ٱلذِّئْبُ নেকড়ে বাঘ the wolf, وَنَحْنُ এ অবস্থায় যে আমরা while we, عُصْبَةٌ একটি ঐক্যবদ্ধ দল (are) a group, إِنَّآ নিশ্চয়ই আমরা indeed we, إِذًا তাহ’লে then, لَّخَٰسِرُونَ অবশ্যই ক্ষতিগ্রস্ত হবো” surely (would be) losers” )

 

(15) فَلَمَّا ذَهَبُواْ بِهِ وَأَجْمَعُواْ أَن يَجْعَلُوهُ فِي غَيَابَةِ الْجُبِّ وَأَوْحَيْنَآ إِلَيْهِ لَتُنَبِّئَنَّهُم بِأَمْرِهِمْ هَـذَا وَهُمْ لاَ يَشْعُرُونَ অতঃপর তারা যখন তাকে নিয়ে চলল এবং অন্ধকূপে নিক্ষেপ করতে একমত হল এবং আমি তাকে ইঙ্গিত করলাম যে, তুমি তাদেরকে তাদের এ কাজের কথা বলবে এমতাবস্থায় যে, তারা তোমাকে চিনবে না। So they did take him away, and they all agreed to throw him down to the bottom of the well: and We put into his heart (this Message): ‘Of a surety thou shalt (one day) tell them the truth of this their affair while they know (thee) not’

( فَلَمَّا অতঃপর যখন So when, ذَهَبُوا۟ তারা গেলো they took him, بِهِۦ নিয়ে তাকে they took him, وَأَجْمَعُوٓا۟ এবং তারা একমত হলো and agreed, أَن যে that, يَجْعَلُوهُ তাকে তারা ফেলে দিবে they put him, فِى মধ্যে in, غَيَٰبَتِ (অন্ধকার) গভীরে (the) bottom, ٱلْجُبِّ কূপের (of) the well, وَأَوْحَيْنَآ এ অবস্থায় আমরা ওহী করলাম But We inspired, إِلَيْهِ তার কাছে to him, لَتُنَبِّئَنَّهُم “তাদের তুমি নিশ্চয়ই এক সময় জানিয়ে দিবে “Surely, you will inform them, بِأَمْرِهِمْ সম্পর্কে তাদের কাজ about this affair, هَٰذَا এই about this affair, وَهُمْ (এখন) অথচ তারা while they, لَا না (do) not, يَشْعُرُونَ তারা অনুভব করছে” perceive” )

 

(16) وَجَاؤُواْ أَبَاهُمْ عِشَاء يَبْكُونَ তারা রাতের বেলায় কাঁদতে কাঁদতে পিতার কাছে এল। Then they came to their father in the early part of the night, weeping.

( وَجَآءُوٓ এবং তারা আসলো And they came, أَبَاهُمْ তাদের পিতার কাছে (to) their father, عِشَآءً সন্ধ্যাকালে early at night, يَبْكُونَ কাঁদতে কাঁদতে weeping )

 

(17) قَالُواْ يَا أَبَانَا إِنَّا ذَهَبْنَا نَسْتَبِقُ وَتَرَكْنَا يُوسُفَ عِندَ مَتَاعِنَا فَأَكَلَهُ الذِّئْبُ وَمَا أَنتَ بِمُؤْمِنٍ لِّنَا وَلَوْ كُنَّا صَادِقِينَ তারা বললঃ পিতাঃ আমরা দৌড় প্রতিযোগিতা করতে গিয়েছিলাম এবং ইউসুফকে আসবাব-পত্রের কাছে রেখে গিয়েছিলাম। অতঃপর তাকে বাঘে খেয়ে ফেলেছে। আপনি তো আমাদেরকে বিশ্বাস করবেন না, যদিও আমরা সত্যবাদী। They said: “O our father! We went racing with one another, and left Joseph with our things; and the wolf devoured him…. But thou wilt never believe us even though we tell the truth.”

( قَالُوا۟ তারা বললো They said, يَٰٓأَبَانَآ “হে আমাদের পিতা “O our father!, إِنَّا নিশ্চয়ই আমরা Indeed we, ذَهَبْنَا আমরা গিয়েছিলাম [we] went, نَسْتَبِقُ দৌড়ের পাল্লা দিচ্ছিলাম racing each other, وَتَرَكْنَا ও আমরা রেখে গিয়েছিলাম and we left, يُوسُفَ ইউসুফকে Yusuf, عِندَ কাছে with, مَتَٰعِنَا আমাদের মালপত্রের our possessions, فَأَكَلَهُ তাকে তখন খেয়ে ফেলে and ate him, ٱلذِّئْبُ নেকড়ে বাঘ the wolf, وَمَآ অথচ নন But not, أَنتَ আপনি you, بِمُؤْمِنٍ বিশ্বাসকারী (will) believe, لَّنَا আমাদেরকে us, وَلَوْ যদিও even if, كُنَّا আমরা হই we are, صَٰدِقِينَ (সবাই) সত্যবাদী” truthful” )

 

(18) وَجَآؤُوا عَلَى قَمِيصِهِ بِدَمٍ كَذِبٍ قَالَ بَلْ سَوَّلَتْ لَكُمْ أَنفُسُكُمْ أَمْرًا فَصَبْرٌ جَمِيلٌ وَاللّهُ الْمُسْتَعَانُ عَلَى مَا تَصِفُونَ এবং তারা তার জামায় কৃত্রিম রক্ত লাগিয়ে আনল। বললেনঃ এটা কখনই নয়; বরং তোমাদের মন তোমাদেরকে একটা কথা সাজিয়ে দিয়েছে। সুতরাং এখন ছবর করাই শ্রেয়। তোমরা যা বর্ণনা করছ, সে বিষয়ে একমাত্র আল্লাহই আমার সাহায্য স্থল। They stained his shirt with false blood. He said: “Nay, but your minds have made up a tale (that may pass) with you, (for me) patience is most fitting: Against that which ye assert, it is Allah (alone) Whose help can be sought”.

( وَجَآءُو এবং তারা আসলো And they brought, عَلَىٰ উপর upon, قَمِيصِهِۦ তার জামার his shirt, بِدَمٍ নিয়ে রক্ত (লাগিয়ে) with false blood, كَذِبٍ মিথ্যা with false blood, قَالَ সে বললো He said, بَلْ “বরং “Nay, سَوَّلَتْ সাজিয়ে দিয়েছে has enticed you, لَكُمْ তোমাদেরকে has enticed you, أَنفُسُكُمْ তোমাদের মন your souls, أَمْرًا এ কাজ (to) a matter, فَصَبْرٌ অতএব ধৈর্য ধরাই so patience, جَمِيلٌ উত্তম (is) beautiful, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহই And Allah, ٱلْمُسْتَعَانُ সাহায্যস্থল (is) the One sought for help, عَلَىٰ এক্ষেত্রে against, مَا যা what, تَصِفُونَ তোমরা বর্ণনা করছো” you describe” )

 

(19) وَجَاءتْ سَيَّارَةٌ فَأَرْسَلُواْ وَارِدَهُمْ فَأَدْلَى دَلْوَهُ قَالَ يَا بُشْرَى هَـذَا غُلاَمٌ وَأَسَرُّوهُ بِضَاعَةً وَاللّهُ عَلِيمٌ بِمَا يَعْمَلُونَ এবং একটি কাফেলা এল। অতঃপর তাদের পানি সংগ্রাহককে প্রেরণ করল। সে বালতি ফেলল। বললঃ কি আনন্দের কথা। এ তো একটি কিশোর তারা তাকে পন্যদ্রব্য গণ্য করে গোপন করে ফেলল। আল্লাহ খুব জানেন যা কিছু তারা করেছিল। Then there came a caravan of travellers: they sent their water-carrier (for water), and he let down his bucket (into the well)…He said: “Ah there! Good news! Here is a (fine) young man!” So they concealed him as a treasure! But Allah knoweth well all that they do!

( وَجَآءَتْ এবং আসলো And there came, سَيَّارَةٌ এক যাত্রীদল a caravan, فَأَرْسَلُوا۟ অতঃপর তারা পাঠালো and they sent, وَارِدَهُمْ তাদের পানি সংগ্রাহককে their water drawer, فَأَدْلَىٰ সে তখন নামিয়ে দিলো then he let down, دَلْوَهُۥ তার বালতি his bucket, قَالَ সে বললো He said, يَٰبُشْرَىٰ “কি সুখবর! “O good news!, هَٰذَا এযে This, غُلَٰمٌ একটি ছেলে” (is) a boy”, وَأَسَرُّوهُ এবং তাকে লুকালো And they hid him, بِضَٰعَةً পণ্যদ্রব্য হিসেবে (as) a merchandise, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, عَلِيمٌۢ খুবই অবহিত (is) All- Knower, بِمَا বিষয়ে যা of what, يَعْمَلُونَ তারা কাজ করছিলো they do )

 

(20) وَشَرَوْهُ بِثَمَنٍ بَخْسٍ دَرَاهِمَ مَعْدُودَةٍ وَكَانُواْ فِيهِ مِنَ الزَّاهِدِينَ ওরা তাকে কম মূল্যে বিক্রি করে দিল গনাগুণতি কয়েক দেরহাম এবং তাঁর ব্যাপারে নিরাসক্ত ছিল। The (Brethren) sold him for a miserable price, for a few dirhams counted out: in such low estimation did they hold him!

( وَشَرَوْهُ এবং তাকে তারা বিক্রি করে দিলো And they sold him, بِثَمَنٍۭ দাম দিয়ে for a price, بَخْسٍ সামান্য very low, دَرَٰهِمَ দিরহাম dirhams, مَعْدُودَةٍ কয়েকটি মাত্র few, وَكَانُوا۟ এবং তারা ছিলো and they were, فِيهِ তার (দামের) ব্যাপারে about him, مِنَ অন্তর্ভুক্ত of)

 

(21) وَقَالَ الَّذِي اشْتَرَاهُ مِن مِّصْرَ لاِمْرَأَتِهِ أَكْرِمِي مَثْوَاهُ عَسَى أَن يَنفَعَنَا أَوْ نَتَّخِذَهُ وَلَدًا وَكَذَلِكَ مَكَّنِّا لِيُوسُفَ فِي الأَرْضِ وَلِنُعَلِّمَهُ مِن تَأْوِيلِ الأَحَادِيثِ وَاللّهُ غَالِبٌ عَلَى أَمْرِهِ وَلَـكِنَّ أَكْثَرَ النَّاسِ لاَ يَعْلَمُونَ মিসরে যে ব্যক্তি তাকে ক্রয় করল, সে তার স্ত্রীকে বললঃ একে সম্মানে রাখ। সম্ভবতঃ সে আমাদের কাছে আসবে অথবা আমরা তাকে পুত্ররূপে গ্রহণ করে নেব। এমনিভাবে আমি ইউসুফকে এদেশে প্রতিষ্ঠিত করলাম এবং এ জন্যে যে তাকে বাক্যাদির পূর্ণ মর্ম অনুধাবনের পদ্ধতি বিষয়ে শিক্ষা দেই। আল্লাহ নিজ কাজে প্রবল থাকেন, কিন্তু অধিকাংশ লোক তা জানে না। The man in Egypt who bought him, said to his wife: “Make his stay (among us) honourable: may be he will bring us much good, or we shall adopt him as a son.” Thus did We establish Joseph in the land, that We might teach him the interpretation of stories (and events). And Allah hath full power and control over His affairs; but most among mankind know it not.

( وَقَالَ এবং বললো And said, ٱلَّذِى যে the one who, ٱشْتَرَىٰهُ তাকে কিনেছিলো bought him, مِن থেকে of, مِّصْرَ মিশর Egypt, لِٱمْرَأَتِهِۦٓ তার স্ত্রীকে to his wife, أَكْرِمِى “সম্মানজনক ব্যবস্থা করো “Make comfortable, مَثْوَىٰهُ তার থাকার his stay, عَسَىٰٓ আশা করা যায় Perhaps, أَن যে that, يَنفَعَنَآ আমাদের সে উপকারে আসবে (he) will benefit us, أَوْ অথবা or, نَتَّخِذَهُۥ তাকে আমরা গ্রহণ করবো we will take him, وَلَدًا পুত্র হিসাবে” (as) a son”, وَكَذَٰلِكَ এবং এভাবে And thus, مَكَّنَّا আমরা প্রতিষ্ঠিত করলাম We established, لِيُوسُفَ ইউসুফকে Yusuf, فِى মধ্যে in, ٱلْأَرْضِ (সে) দেশের the land, وَلِنُعَلِّمَهُۥ এবং আমরা যেন তাকে শিক্ষা দিতে পারি that We might teach him, مِن থেকে (the) interpretation of, تَأْوِيلِ ব্যখ্যা (the) interpretation of, ٱلْأَحَادِيثِ স্বপ্নের the events, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহ And Allah, غَالِبٌ অপ্রতিহত (is) Predominant, عَلَىٰٓ ক্ষেত্রে over, أَمْرِهِۦ তাঁর কাজের His affairs, وَلَٰكِنَّ কিন্তু but, أَكْثَرَ অধিকাংশ most, ٱلنَّاسِ মানুষ (of) the people, لَا না (do) not, يَعْلَمُونَ তারা জানে know)

 

(22) وَلَمَّا بَلَغَ أَشُدَّهُ آتَيْنَاهُ حُكْمًا وَعِلْمًا وَكَذَلِكَ نَجْزِي الْمُحْسِنِينَ যখন সে পূর্ণ যৌবনে পৌছে গেল, তখন তাকে প্রজ্ঞা ও ব্যুৎপত্তি দান করলাম। এমননিভাবে আমি সৎকর্মপরায়ণদেরকে প্রতিদান দেই। When Joseph attained His full manhood, We gave him power and knowledge: thus do We reward those who do right.

( وَلَمَّا এবং যখন And when, بَلَغَ সে পৌঁছলো he reached, أَشُدَّهُۥٓ তার যৌবনে his maturity, ءَاتَيْنَٰهُ তাকে আমরা দিলাম We gave him, حُكْمًا প্রজ্ঞা wisdom, وَعِلْمًا ও জ্ঞান and knowledge, وَكَذَٰلِكَ এবং এভাবে And thus, نَجْزِى প্রতিফল দিই আমরা We reward, ٱلْمُحْسِنِينَ সৎকর্মশীললোকদেরকে the good-doers )

 

(23) وَرَاوَدَتْهُ الَّتِي هُوَ فِي بَيْتِهَا عَن نَّفْسِهِ وَغَلَّقَتِ الأَبْوَابَ وَقَالَتْ هَيْتَ لَكَ قَالَ مَعَاذَ اللّهِ إِنَّهُ رَبِّي أَحْسَنَ مَثْوَايَ إِنَّهُ لاَ يُفْلِحُ الظَّالِمُونَ আর সে যে মহিলার ঘরে ছিল, ঐ মহিলা তাকে ফুসলাতে লাগল এবং দরজাসমূহ বন্ধ করে দিল। সে মহিলা বললঃ শুন! তোমাকে বলছি, এদিকে আস, সে বললঃ আল্লাহ রক্ষা করুন; তোমার স্বামী আমার মালিক। তিনি আমাকে সযত্নে থাকতে দিয়েছেন। নিশ্চয় সীমা লংঘনকারীগণ সফল হয় না। But she in whose house he was, sought to seduce him from his (true) self: she fastened the doors, and said: “Now come, thou (dear one)!” He said: “(Allah) forbid! truly (thy husband) is my lord! he made my sojourn agreeable! truly to no good come those who do wrong!”

( وَرَٰوَدَتْهُ এবং তাকে ফুসলিয়েছিলো And sought to seduce him, ٱلَّتِى (সেই মহিলা) যার she who, هُوَ সে (ছিলো) he (was), فِى মধ্যে in, بَيْتِهَا তার ঘরের her house, عَن প্রতি from, نَّفْسِهِۦ তার নিজের (আত্মসংবরণ) his self, وَغَلَّقَتِ এবং বন্ধ করলো (মহিলাটি) And she closed, ٱلْأَبْوَٰبَ দরজাগুলো the doors, وَقَالَتْ এবং বললো and she said, هَيْتَ “চলে এসো “Come on, لَكَ তোমাকে বলছি” you”, قَالَ সে বললো He said, مَعَاذَ “আশ্রয় চাই “I seek refuge in Allah, ٱللَّهِ “আল্লাহর “I seek refuge in Allah,  إِنَّهُۥ নিশ্চয়ই তিনি Indeed, he, رَبِّىٓ আমার রব (is) my lord, أَحْسَنَ উত্তম ব্যবস্হা করেছেন (who has) made good, مَثْوَاىَ আমার বসবাসের my stay, إِنَّهُۥ নিশ্চয়ই Indeed, لَا না not, يُفْلِحُ সফল হয় will succeed, ٱلظَّٰلِمُونَ সীমালঙ্ঘনকারীরা” the wrongdoers” )

 

(24) وَلَقَدْ هَمَّتْ بِهِ وَهَمَّ بِهَا لَوْلا أَن رَّأَى بُرْهَانَ رَبِّهِ كَذَلِكَ لِنَصْرِفَ عَنْهُ السُّوءَ وَالْفَحْشَاء إِنَّهُ مِنْ عِبَادِنَا الْمُخْلَصِينَ নিশ্চয় মহিলা তার বিষয়ে চিন্তা করেছিল এবং সেও মহিলার বিষয়ে চিন্তা করত। যদি না সে স্বীয় পালনকর্তার মহিমা অবলোকন করত। এমনিবাবে হয়েছে, যাতে আমি তার কাছ থেকে মন্দ বিষয় ও নিলজ্জ বিষয় সরিয়ে দেই। নিশ্চয় সে আমার মনোনীত বান্দাদের একজন। And (with passion) did she desire him, and he would have desired her, but that he saw the evidence of his Lord: thus (did We order) that We might turn away from him (all) evil and shameful deeds: for he was one of Our servants, sincere and purified.

( وَلَقَدْ এবং নিশ্চয়ই And certainly, هَمَّتْ আসক্ত হয়েছিলো (সে মহিলা) she did desire, بِهِۦ প্রতি তার him, وَهَمَّ এবং সেও আসক্ত হতো and he would have desired, بِهَا প্রতি তার her, لَوْلَآ যদি না if not, أَن যে that, رَّءَا সে দেখতো he saw, بُرْهَٰنَ নিদর্শন the proof, رَبِّهِۦ তার রবের (of) his Lord, كَذَٰلِكَ এভাবে (ঘটলো) Thus, لِنَصْرِفَ যেন আমরা ফিরিয়ে রাখি that We might avert, عَنْهُ তার থেকে from him, ٱلسُّوٓءَ মন্দ the evil, وَٱلْفَحْشَآءَ ও অশ্লীলতা and the immorality, إِنَّهُۥ নিশ্চয়ই সে (ছিলো) Indeed he, مِنْ অন্তর্ভুক্ত (was) of, عِبَادِنَا আমাদের দাসদের Our slaves, ٱلْمُخْلَصِينَ (যারা ছিলো) বিশুদ্ধ চিত্ত the sincere )

 

(25) وَاسُتَبَقَا الْبَابَ وَقَدَّتْ قَمِيصَهُ مِن دُبُرٍ وَأَلْفَيَا سَيِّدَهَا لَدَى الْبَابِ قَالَتْ مَا جَزَاء مَنْ أَرَادَ بِأَهْلِكَ سُوَءًا إِلاَّ أَن يُسْجَنَ أَوْ عَذَابٌ أَلِيمٌ তারা উভয়ে ছুটে দরজার দিকে গেল এবং মহিলা ইউসুফের জামা পিছন দিক থেকে ছিঁড়ে ফেলল। উভয়ে মহিলার স্বামীকে দরজার কাছে পেল। মহিলা বললঃ যে ব্যক্তি তোমার পরিজনের সাথে কুকর্মের ইচ্ছা করে, তাকে কারাগারে পাঠানো অথবা অন্য কোন যন্ত্রণাদায়ক শাস্তি দেয়া ছাড়া তার আর কি শাস্তি হতে পারে? So they both raced each other to the door, and she tore his shirt from the back: they both found her lord near the door. She said: “What is the (fitting) punishment for one who formed an evil design against thy wife, but prison or a grievous chastisement?”

( وَٱسْتَبَقَا এবং উভয়ে দৌঁড়ে গেলো And they both raced, ٱلْبَابَ দরজার দিকে (to) the door, وَقَدَّتْ এবং (রমণী) সে ছিঁড়ে ফেললো and she tore, قَمِيصَهُۥ তার জামা his shirt, مِن থেকে from, دُبُرٍ পিছন the back, وَأَلْفَيَا এবং উভয়ে পেলো and they both found, سَيِّدَهَا তার স্বামীকে her husband, لَدَا কাছে at, ٱلْبَابِ দরজার the door, قَالَتْ (রমনী) সে বললো She said, مَا “কি “What, جَزَآءُ শাস্তি (হ’তে পারে) (is) the recompense, مَنْ যে (of one) who, أَرَادَ কামনা করে intended, بِأَهْلِكَ সাথে তোমার পরিবারের for your wife, سُوٓءًا কুকর্ম evil, إِلَّآ এ ছাড়া (কি অন্য কিছু) except, أَن যে that, يُسْجَنَ বন্দী করা হবে he be imprisoned, أَوْ বা or, عَذَابٌ কোন শাস্তি a punishment, أَلِيمٌ নিদারুণ” painful?” )

 

(26) قَالَ هِيَ رَاوَدَتْنِي عَن نَّفْسِي وَشَهِدَ شَاهِدٌ مِّنْ أَهْلِهَا إِن كَانَ قَمِيصُهُ قُدَّ مِن قُبُلٍ فَصَدَقَتْ وَهُوَ مِنَ الكَاذِبِينَ ইউসুফ (আঃ) বললেন, সেই আমাকে আত্মসংবরণ না করতে ফুসলিয়েছে। মহিলার পরিবারে জনৈক সাক্ষী দিল যে, যদি তার জামা সামনের দিক থেকে ছিন্ন থাকে, তবে মহিলা সত্যবাদিনী এবং সে মিথ্যাবাদি। He said: “It was she that sought to seduce me – from my (true) self.” And one of her household saw (this) and bore witness, (thus):- “If it be that his shirt is rent from the front, then is her tale true, and he is a liar!

( قَالَ (ইউসুফ) বললো He said, هِىَ “সে (মহিলা) “She, رَٰوَدَتْنِى আমাকে ফুসলিয়েছিলো sought to seduce me, عَن হ’তে about, نَّفْسِى আমার নিজের (আত্মসংবরণ)” myself”, وَشَهِدَ এবং সাক্ষ্য দেয় And testified, شَاهِدٌ এক সাক্ষ্যদাতা a witness, مِّنْ মধ্য হ’তে of, أَهْلِهَآ তার পরিবারের her family, إِن “যদি “If, كَانَ হয় [is], قَمِيصُهُۥ তার জামা his shirt, قُدَّ ছেঁড়া (is) torn, مِن থেকে from, قُبُلٍ সামনের দিক the front, فَصَدَقَتْ তবে সে (রমনী) সত্য বলেছে then she has spoken the truth, وَهُوَ এবং সে (ইউসুফ) and he, مِنَ অন্তর্ভুক্ত (is) of, ٱلْكَٰذِبِينَ মিথ্যাবাদীদের the liars )

 

(27) وَإِنْ كَانَ قَمِيصُهُ قُدَّ مِن دُبُرٍ فَكَذَبَتْ وَهُوَ مِن الصَّادِقِينَ এবং যদি তার জামা পেছনের দিক থেকে ছিন্ন থাকে, তবে মহিলা মিথ্যাবাদিনী এবং সে সত্যবাদী। “But if it be that his shirt is torn from the back, then is she the liar, and he is telling the truth!”

( وَإِن আর যদি But if, كَانَ হয় [is], قَمِيصُهُۥ তার জামা his shirt, قُدَّ ছেঁড়া (is) torn, مِن থেকে from, دُبُرٍ পিছনের দিক (the) back, فَكَذَبَتْ তবে সে (রমনী) মিথ্যা বলেছে then she has lied, وَهُوَ এবং সে (ইউসুফ) and he, مِنَ অন্তর্ভুক্ত (is) of, ٱلصَّٰدِقِينَ সত্যবাদীদের” the truthful” )

 

(28) فَلَمَّا رَأَى قَمِيصَهُ قُدَّ مِن دُبُرٍ قَالَ إِنَّهُ مِن كَيْدِكُنَّ إِنَّ كَيْدَكُنَّ عَظِيمٌ অতঃপর গৃহস্বামী যখন দেখল যে, তার জামা পেছন দিক থেকে ছিন্ন, তখন সে বলল, নিশ্চয় এটা তোমাদের ছলনা। নিঃসন্দেহে তোমাদের ছলনা খুবই মারাত্নক। So when he saw his shirt,- that it was torn at the back,- (her husband) said: “Behold! It is a snare of you women! truly, mighty is your snare!

( فَلَمَّا অতঃপর যখন So when, رَءَا দেখলো he saw, قَمِيصَهُۥ তার জামা his shirt, قُدَّ ছেঁড়া torn, مِن হ’তে from, دُبُرٍ পিছন দিক (the) back, قَالَ গৃহস্বামী বললো he said, إِنَّهُۥ “তা নিশ্চয়ই “Indeed it, مِن অন্তর্ভুক্ত (is) of, كَيْدِكُنَّ তোমাদের (অর্থাৎ নারীদের) ছলনা your plot, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, كَيْدَكُنَّ তোমাদের ছলনা your plot, عَظِيمٌ ভয়ানক (is) great )

 

(29) يُوسُفُ أَعْرِضْ عَنْ هَـذَا وَاسْتَغْفِرِي لِذَنبِكِ إِنَّكِ كُنتِ مِنَ الْخَاطِئِينَ ইউসুফ এ প্রসঙগ ছাড়! আর হে নারী, এ পাপের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা কর নিঃসন্দেহে তুমি-ই পাপাচারিনী। “O Joseph, pass this over! (O wife), ask forgiveness for thy sin, for truly thou hast been at fault!”

( يُوسُفُ (হে) ইউসুফ Yusuf, أَعْرِضْ উপেক্ষা করো turn away, عَنْ হ’তে from, هَٰذَا এই (ব্যাপার) this, وَٱسْتَغْفِرِى এবং (হে মহিলা) ক্ষমা চাও And ask forgiveness )

 

 

IDC Partner

 

(30) وَقَالَ نِسْوَةٌ فِي الْمَدِينَةِ امْرَأَةُ الْعَزِيزِ تُرَاوِدُ فَتَاهَا عَن نَّفْسِهِ قَدْ شَغَفَهَا حُبًّا إِنَّا لَنَرَاهَا فِي ضَلاَلٍ مُّبِينٍ নগরে মহিলারা বলাবলি করতে লাগল যে, আযীযের স্ত্রী স্বীয় গোলামকে কুমতলব চরিতার্থ করার জন্য ফুসলায়। সে তার প্রেমে উম্মত্ত হয়ে গেছে। আমরা তো তাকে প্রকাশ্য ভ্রান্তিতে দেখতে পাচ্ছি। Ladies said in the City: “The wife of the (great) ‘Aziz is seeking to seduce her slave from his (true) self: Truly hath he inspired her with violent love: we see she is evidently going astray.”

( وَقَالَ এবং বললো And said, نِسْوَةٌ মহিলারা women, فِى মধ্যে in, ٱلْمَدِينَةِ শহরের the city, ٱمْرَأَتُ “(যে) স্ত্রী “The wife of, ٱلْعَزِيزِ আযীযের Aziz, تُرَٰوِدُ ফুসলাচ্ছে (is) seeking to seduce, فَتَىٰهَا তার যুবক (দাস)-কে her slave boy, عَن হ’তে about, نَّفْسِهِۦ তার নিজের (আত্মসংবরণ) himself;, قَدْ  নিশ্চয়ই indeed, شَغَفَهَا তাকে উন্মাদ করেছে he has impassioned her, حُبًّا প্রেমে (with) love, إِنَّا নিশ্চয়ই আমরা Indeed we, لَنَرَىٰهَا অবশ্যই তাকে আমরা দেখছি [we] surely see her, فِى মধ্যে in, ضَلَٰلٍ বিভ্রান্তির an error, مُّبِينٍ সুস্পষ্ট” clear” )

 

(31) فَلَمَّا سَمِعَتْ بِمَكْرِهِنَّ أَرْسَلَتْ إِلَيْهِنَّ وَأَعْتَدَتْ لَهُنَّ مُتَّكَأً وَآتَتْ كُلَّ وَاحِدَةٍ مِّنْهُنَّ سِكِّينًا وَقَالَتِ اخْرُجْ عَلَيْهِنَّ فَلَمَّا رَأَيْنَهُ أَكْبَرْنَهُ وَقَطَّعْنَ أَيْدِيَهُنَّ وَقُلْنَ حَاشَ لِلّهِ مَا هَـذَا بَشَرًا إِنْ هَـذَا إِلاَّ مَلَكٌ كَرِيمٌ যখন সে তাদের চক্রান্ত শুনল, তখন তাদেরকে ডেকে পাঠাল এবং তাদের জন্যে একটি ভোজ সভার আয়োজন করল। সে তাদের প্রত্যেককে একটি ছুরি দিয়ে বললঃ ইউসুফ এদের সামনে চলে এস। যখন তারা তাকে দেখল, হতভম্ব হয়ে গেল এবং আপন হাত কেটে ফেলল। তারা বললঃ কখনই নয় এ ব্যক্তি মানব নয়। এ তো কোন মহান ফেরেশতা। When she heard of their malicious talk, she sent for them and prepared a banquet for them: she gave each of them a knife: and she said (to Joseph), “Come out before them.” When they saw him, they did extol him, and (in their amazement) cut their hands: they said, “(Allah) preserve us! no mortal is this! this is none other than a noble angel!”

( فَلَمَّا অতঃপর যখন So when, سَمِعَتْ (মহিলা) শুনলো she heard, بِمَكْرِهِنَّ সম্বন্ধে তাদের ষড়যন্ত্রেরর কথা of their scheming, أَرْسَلَتْ মহিলা (লোক) প্রেরণ করলো she sent, إِلَيْهِنَّ তাদের কাছে for them, وَأَعْتَدَتْ ও প্রস্তুত করলো and she prepared, لَهُنَّ তাদের জন্যে for them, مُتَّكَـًٔا (হেলান দিয়ে) বসার আসন a banquet, وَءَاتَتْ ও দিলো and she gave, كُلَّ ব্যক্তিকে each, وَٰحِدَةٍ প্রত্যেক one, مِّنْهُنَّ তাদের মধ্যকার of them, سِكِّينًا একটি করে ছুরি (ফল কেটে খেতে) a knife, وَقَالَتِ এবং বললো (ইউসুফকে) and she said, ٱخْرُجْ “বের হও “Come out, عَلَيْهِنَّ সামনে তাদের” before them”, فَلَمَّا অতঃপর যখন Then when, رَأَيْنَهُۥٓ তাকে তারা দেখলো they saw him, أَكْبَرْنَهُۥ তারা অভিভূত হলো they greatly admired him, وَقَطَّعْنَ ও তারা কেটে ফেললো and cut, أَيْدِيَهُنَّ (ফলের পরিবর্তে) তাদের হাত their hands, وَقُلْنَ ও তারা বললো they said, حَٰشَ “মহিমা “Forbid, لِلَّهِ জন্যে আল্লাহর Allah, مَا নয় not, هَٰذَا এতো (is) this, بَشَرًا মানুষ a man, إِنْ নয় not, هَٰذَآ এতো (is) this, إِلَّا এ ছাড়া but, مَلَكٌ ফেরেশতা an angel, كَرِيمٌ সম্মানিত” noble” )

 

(32) قَالَتْ فَذَلِكُنَّ الَّذِي لُمْتُنَّنِي فِيهِ وَلَقَدْ رَاوَدتُّهُ عَن نَّفْسِهِ فَاسَتَعْصَمَ وَلَئِن لَّمْ يَفْعَلْ مَا آمُرُهُ لَيُسْجَنَنَّ وَلَيَكُونًا مِّنَ الصَّاغِرِينَ মহিলা বললঃ এ ঐ ব্যক্তি, যার জন্যে তোমরা আমাকে ভৎর্সনা করছিলে। আমি ওরই মন জয় করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু সে নিজেকে নিবৃত্ত রেখেছে। আর আমি যা আদেশ দেই, সে যদি তা না করে, তবে অবশ্যই সে কারাগারে প্রেরিত হবে এবং লাঞ্চিত হবে। She said: “There before you is the man about whom ye did blame me! I did seek to seduce him from his (true) self but he did firmly save himself guiltless!….and now, if he doth not my bidding, he shall certainly be cast into prison, and (what is more) be of the company of the vilest!”

( قَالَتْ সে বললো She said, فَذَٰلِكُنَّ “অতঃপর এ-ই সে “That, ٱلَّذِى যার (যুবক) (is) the one, لُمْتُنَّنِى আমাকে তোমরা নিন্দা করেছো you blamed me, فِيهِ ব্যাপারে about him, وَلَقَدْ এবং নিশ্চয়ই And certainly, رَاوَدتُّهۥ তাকে আমি ফুসলিয়েছি I sought to seduce him, عَن হ’তে [from], نَّفْسِهِۦ তার নিজের (আত্মসংবরণ) [himself], فَٱسْتَعْصَمَ তবুও সে নিজেকে পবিত্র রেখেছে but he saved himself, وَلَئِن এবং অবশ্যই যদি and if, لَّمْ না not, يَفْعَلْ সে করে he does, مَآ তা যা what, ءَامُرُهُۥ তাকে নির্দেশ দিই আমি I order him, لَيُسْجَنَنَّ অবশ্যই সে কারারুদ্ধ হবে surely he will be imprisoned, وَلَيَكُونًا এবং অবশ্যই সে হবে and certainly will be, مِّنَ অন্তর্ভুক্ত of, ٱلصَّٰغِرِينَ লাঞ্ছিতদের those who are disgraced )

 

(33) قَالَ رَبِّ السِّجْنُ أَحَبُّ إِلَيَّ مِمَّا يَدْعُونَنِي إِلَيْهِ وَإِلاَّ تَصْرِفْ عَنِّي كَيْدَهُنَّ أَصْبُ إِلَيْهِنَّ وَأَكُن مِّنَ الْجَاهِلِينَ ইউসুফ বললঃ হে পালনকর্তা তারা আমাকে যে কাজের দিকে আহবান করে, তার চাইতে আমি কারাগারই পছন্দ করি। যদি আপনি তাদের চক্রান্ত আমার উপর থেকে প্রতিহত না করেন, তবে আমি তাদের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়ব এবং অজ্ঞদের অন্তর্ভূক্ত হয়ে যাব। He said: “O my Lord! the prison is more to my liking than that to which they invite me: Unless Thou turn away their snare from me, I should (in my youthful folly) feel inclined towards them and join the ranks of the ignorant.”

( قَالَ (ইউসুফ) বললো He said, رَبِّ “হে আমার রব “My Lord, ٱلسِّجْنُ কারাগারই the prison, أَحَبُّ অধিক প্রিয় (is) dearer, إِلَىَّ আমার কাছে to me, مِمَّا তা হ’তে than what, يَدْعُونَنِىٓ আমাকে তারা ডাকছে they invite me, إِلَيْهِ যার দিকে to it, وَإِلَّا এবং যদি না (হে রব) And unless, تَصْرِفْ তুমি ফিরাও You turn away, عَنِّى আমার থেকে from me, كَيْدَهُنَّ তাদের ছলনা (তাহ’লে হয়তো) their plot, أَصْبُ আকৃষ্ট হয়ে পড়বো আমি I might incline, إِلَيْهِنَّ তাদের দিকে towards them, وَأَكُن এবং আমি হবো and [I] be, مِّنَ অন্তর্ভুক্ত of, ٱلْجَٰهِلِينَ অজ্ঞদের” the ignorant” )

 

(34) فَاسْتَجَابَ لَهُ رَبُّهُ فَصَرَفَ عَنْهُ كَيْدَهُنَّ إِنَّهُ هُوَ السَّمِيعُ الْعَلِيمُ অতঃপর তার পালনকর্তা তার দোয়া কবুল করে নিলেন। অতঃপর তাদের চক্রান্ত প্রতিহত করলেন। নিশ্চয় তিনি সর্বশ্রোতা ও সর্বজ্ঞ। So his Lord hearkened to him (in his prayer), and turned away from him their snare: Verily He heareth and knoweth (all things).

( فَٱسْتَجَابَ অতঃপর সাড়া দিলেন So responded, لَهُۥ তার জন্যে to him, رَبُّهُۥ তার রব his Lord, فَصَرَفَ অতঃপর ফিরালেন and turned away, عَنْهُ তার থেকে from him, كَيْدَهُنَّ তাদের ছলনা their plot, إِنَّهُۥ নিশ্চয়ই তিনি Indeed [He], هُوَ তিনিই He, ٱلسَّمِيعُ সব কিছু শুনেন (is) All-Hearer, ٱلْعَلِيمُ সব কিছু জানেন All-Knower )

 

(35) ثُمَّ بَدَا لَهُم مِّن بَعْدِ مَا رَأَوُاْ الآيَاتِ لَيَسْجُنُنَّهُ حَتَّى حِينٍ অতঃপর এসব নিদর্শন দেখার পর তারা তাকে কিছুদিন কারাগারে রাখা সমীচীন মনে করল। Then it occurred to the men, after they had seen the signs, (that it was best) to imprison him for a time.

( ثُمَّ এরপর Then, بَدَا প্রকাশ পেলো (it) appeared, لَهُم তাদের কাছে to them, مِّنۢ থেকে after, بَعْدِ এরপর after, مَا যা কিছু [what], رَأَوُا۟ তারা দেখেছিলো they had seen, ٱلْءَايَٰتِ নিদর্শনগুলো (তবুও ভাবলো) the signs, لَيَسْجُنُنَّهُۥ অবশ্যই তাকে কারারুদ্ধ করা হবে surely they should imprison him, حَتَّىٰ পর্যন্ত until, حِينٍ কিছু সময় a time )

 

(36) وَدَخَلَ مَعَهُ السِّجْنَ فَتَيَانَ قَالَ أَحَدُهُمَآ إِنِّي أَرَانِي أَعْصِرُ خَمْرًا وَقَالَ الآخَرُ إِنِّي أَرَانِي أَحْمِلُ فَوْقَ رَأْسِي خُبْزًا تَأْكُلُ الطَّيْرُ مِنْهُ نَبِّئْنَا بِتَأْوِيلِهِ إِنَّا نَرَاكَ مِنَ الْمُحْسِنِينَ তাঁর সাথে কারাগারে দুজন যুবক প্রবেশ করল। তাদের একজন বললঃ আমি স্বপ্নে দেখলাম যে, আমি মদ নিঙড়াচ্ছি। অপরজন বললঃ আমি দেখলাম যে, নিজ মাথায় রুটি বহন করছি। তা থেকে পাখী ঠুকরিয়ে খাচ্ছে। আমাদের কে এর ব্যাখ্যা বলুন। আমরা আপনাকে সৎকর্মশীল দেখতে পাচ্ছি। Now with him there came into the prison two young men. Said one of them: “I see myself (in a dream) pressing wine.” said the other: “I see myself (in a dream) carrying bread on my head, and birds are eating, thereof.” “Tell us” (they said) “The truth and meaning thereof: for we see thou art one that doth good (to all).”

( وَدَخَلَ এবং (কারাবাসকালে) (একবার) প্রবেশ করলো And entered, مَعَهُ সঙ্গে তার with him, ٱلسِّجْنَ কারাগারে (in) the prison, فَتَيَانِ দু’জন যুবক two young men, قَالَ (ইউসুফকে) বললো Said, أَحَدُهُمَآ তাদের দু’জনার একজন one of them, إِنِّىٓ “নিশ্চয়ই আমি “Indeed I, أَرَىٰنِىٓ স্বপ্নে দেখেছি [I] see myself, أَعْصِرُ নিংড়ে বের করছি আমি pressing, خَمْرًا মদ” wine”, وَقَالَ এবং বললো And said, ٱلْءَاخَرُ অপরজন the other,  إِنِّىٓ “নিশ্চয়ই আমি “Indeed I, أَرَىٰنِىٓ স্বপ্নে দেখেছি [I] see myself, أَحْمِلُ বহন করছি [I am] carrying, فَوْقَ উপর over, رَأْسِى আমার মাথার my head, خُبْزًا রুটি bread, تَأْكُلُ খাচ্ছে (were) eating, ٱلطَّيْرُ পাখি the birds, مِنْهُ তা থেকে from it, نَبِّئْنَا বলে দিন আমাদেরকে Inform us, بِتَأْوِيلِهِۦٓ সম্পর্কে তার ব্যাখ্যা of its interpretation;, إِنَّا নিশ্চয়ই আমরা indeed we, نَرَىٰكَ আপনাকে দেখছি আমরা [we] see you, مِنَ অন্তর্ভুক্ত of, ٱلْمُحْسِنِينَ সৎকর্মশীলদের” the good-doers” )

 

(37) قَالَ لاَ يَأْتِيكُمَا طَعَامٌ تُرْزَقَانِهِ إِلاَّ نَبَّأْتُكُمَا بِتَأْوِيلِهِ قَبْلَ أَن يَأْتِيكُمَا ذَلِكُمَا مِمَّا عَلَّمَنِي رَبِّي إِنِّي تَرَكْتُ مِلَّةَ قَوْمٍ لاَّ يُؤْمِنُونَ بِاللّهِ وَهُم بِالآخِرَةِ هُمْ كَافِرُونَ তিনি বললেনঃ তোমাদেরকে প্রত্যহ যে খাদ্য দেয়া হয়, তা তোমাদের কাছে আসার আগেই আমি তার ব্যাখ্যা বলে দেব। এ জ্ঞান আমার পালনকর্তা আমাকে শিক্ষা দিয়েছেন। আমি ঐসব লোকের ধর্ম পরিত্যাগ করেছি যারা আল্লাহর প্রতি বিশ্বাস স্থাপন করে না এবং পরকালে অবিশ্বাসী। He said: “Before any food comes (in due course) to feed either of you, I will surely reveal to you the truth and meaning of this ere it befall you: that is part of the (duty) which my Lord hath taught me. I have (I assure you) abandoned the ways of a people that believe not in Allah and that (even) deny the Hereafter.

( قَالَ সে বললো He said, لَا “না “Not, يَأْتِيكُمَا তোমাদের দু’জনের কাছে আসবে (will) come to both of you, طَعَامٌ খাবার food, تُرْزَقَانِهِۦٓ যা দু’জনকে খাদ্য দেয়া হয় you are provided with, إِلَّا এছাড়া যে but, نَبَّأْتُكُمَا তোমাদের দু’জনকে আমি বলে দিবো I will inform both of you, بِتَأْوِيلِهِۦ সম্পর্কে তার ব্যখ্যা of its interpretation, قَبْلَ পূর্বেই before, أَن যে [that], يَأْتِيَكُمَا তোমাদের দু’জনের কাছে আসবে [it] comes to both of you, ذَٰلِكُمَا এটা তোমাদের (বলবো) That, مِمَّا তা হ’তে যা (is) of what, عَلَّمَنِى আমাকে শিখিয়েছেন has taught me,  رَبِّىٓ আমার রব my Lord,  إِنِّى নিশ্চয়ই আমি Indeed I, تَرَكْتُ আমি বর্জন করেছি [I] abandon, مِلَّةَ ধর্মসমাজ (the) religion,  قَوْمٍ ঐ জাতির (of) a people, لَّا না not, يُؤْمِنُونَ (যারা) ঈমান আনে they believe, بِٱللَّهِ উপর আল্লাহর in Allah, وَهُم এবং তারা and they, بِٱلْءَاخِرَةِ উপর আখিরাতের in the Hereafter, هُمْ তারাই [they], كَٰفِرُونَ অস্বীকারকারী (are) disbelievers )

 

(38) وَاتَّبَعْتُ مِلَّةَ آبَآئِـي إِبْرَاهِيمَ وَإِسْحَقَ وَيَعْقُوبَ مَا كَانَ لَنَا أَن نُّشْرِكَ بِاللّهِ مِن شَيْءٍ ذَلِكَ مِن فَضْلِ اللّهِ عَلَيْنَا وَعَلَى النَّاسِ وَلَـكِنَّ أَكْثَرَ النَّاسِ لاَ يَشْكُرُونَ আমি আপন পিতৃপুরুষ ইব্রাহীম, ইসহাক ও ইয়াকুবের ধর্ম অনুসরণ করছি। আমাদের জন্য শোভা পায় না যে, কোন বস্তুকে আল্লাহর অংশীদার করি। এটা আমাদের প্রতি এবং অন্য সব লোকের প্রতি আল্লাহর অনুগ্রহ। কিন্ত অধিকাংশ লোক অনুগ্রহ স্বীকার করে না। “And I follow the ways of my fathers,- Abraham, Isaac, and Jacob; and never could we attribute any partners whatever to Allah. that (comes) of the grace of Allah to us and to mankind: yet most men are not grateful.

( وَٱتَّبَعْتُ এবং আমি অনুসরণ করেছি And I follow, مِلَّةَ আদর্শ (the) religion, ءَابَآءِىٓ আমার পিতৃ-পুরুষদের (of) my forefathers, إِبْرَٰهِيمَ (যেমন) ইবরাহীম Ibrahim, وَإِسْحَٰقَ ও ইসহাক and Ishaq, وَيَعْقُوبَ ও ইয়াকুবের and Yaqub, مَا নয় Not, كَانَ সমীচীন was, لَنَآ জন্যে আমাদের for us, أَن যে that, نُّشْرِكَ আমরা শরীক করবো we associate, بِٱللَّهِ সাথে আল্লাহর with Allah, مِن কোন any, شَىْءٍ কিছুরই thing, ذَٰلِكَ এটা That, مِن অন্যতম (is) from, فَضْلِ অনুগ্রহ (the) Grace, ٱللَّهِ আল্লাহ্‌র (of) Allah,عَلَيْنَا আমাদের উপর upon us, وَعَلَى এবং উপর and upon, ٱلنَّاسِ মানুষের the mankind, وَلَٰكِنَّ কিন্তু but, أَكْثَرَ অধিকাংশ most, ٱلنَّاسِ মানুষ (of) the men, لَا না (are) not, يَشْكُرُونَ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে grateful )

 

(39) يَا صَاحِبَيِ السِّجْنِ أَأَرْبَابٌ مُّتَفَرِّقُونَ خَيْرٌ أَمِ اللّهُ الْوَاحِدُ الْقَهَّارُ হে কারাগারের সঙ্গীরা! পৃথক পৃথক অনেক উপাস্য ভাল, না পরাক্রমশালী এক আল্লাহ? “O my two companions of the prison! (I ask you): are many lords differing among themselves better, or the One Allah, Supreme and Irresistible?

( يَٰصَىٰحِبَىِ হে সঙ্গী দু’জন O my two companions, ٱلسِّجْنِ কারাগারের (of) the prison!, ءَأَرْبَابٌ কি বহু রব Are lords, مُّتَفَرِّقُونَ পৃথক পৃথক separate, خَيْرٌ উত্তম better, أَمِ না কি or, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, ٱلْوَٰحِدُ এক (উত্তম রব) the One, ٱلْقَهَّارُ (যিনি) মহাপরাক্রমশালী the Irresistible? )

 

(40) مَا تَعْبُدُونَ مِن دُونِهِ إِلاَّ أَسْمَاء سَمَّيْتُمُوهَا أَنتُمْ وَآبَآؤُكُم مَّا أَنزَلَ اللّهُ بِهَا مِن سُلْطَانٍ إِنِ الْحُكْمُ إِلاَّ لِلّهِ أَمَرَ أَلاَّ تَعْبُدُواْ إِلاَّ إِيَّاهُ ذَلِكَ الدِّينُ الْقَيِّمُ وَلَـكِنَّ أَكْثَرَ النَّاسِ لاَ يَعْلَمُونَ তোমরা আল্লাহকে ছেড়ে নিছক কতগুলো নামের এবাদত কর, সেগুলো তোমরা এবং তোমাদের বাপ-দাদারা সাব্যস্ত করে নিয়েছে। আল্লাহ এদের কোন প্রমাণ অবতীর্ণ করেননি। আল্লাহ ছাড়া কারও বিধান দেবার ক্ষমতা নেই। তিনি আদেশ দিয়েছেন যে, তিনি ব্যতীত অন্য কারও এবাদত করো না। এটাই সরল পথ। কিন্তু অধিকাংশ লোক তা জানে না। “If not Him, ye worship nothing but names which ye have named,- ye and your fathers,- for which Allah hath sent down no authority: the command is for none but Allah. He hath commanded that ye worship none but Him: that is the right religion, but most men understand not.

( مَا না Not, تَعْبُدُونَ তোমরা উপাসনা করছো you worship, مِن ছেড়ে besides Him, دُونِهِۦٓ তাকে besides Him, إِلَّآ এ ছাড়া but, أَسْمَآءً (কিছু) নামের names, سَمَّيْتُمُوهَآ যার তোমরা নামকরণ করেছো which you have named them, أَنتُمْ তোমরা you,  وَءَابَآؤُكُم ও তোমাদের পিতৃ-পুরুষেরা and your forefathers, مَّآ না not, أَنزَلَ পাঠিয়েছেন (has) sent down, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, بِهَا সে সম্বন্ধে for it, مِن কোন any, سُلْطَٰنٍ প্রমাণ authority, إِنِ নেই (কারও) Not, ٱلْحُكْمُ বিধান দেয়ার অধিকার (is) the command, إِلَّا ছাড়া but, لِلَّهِ আল্লাহ for Allah, أَمَرَ তিনি আদেশ দিয়েছেন He has commanded, أَلَّا যে না that not, تَعْبُدُوٓا۟ তোমরা ইবাদত করো you worship, إِلَّآ ছাড়া but, إِيَّاهُ শুধু (তাঁরই) Him Alone, ذَٰلِكَ এটা That, ٱلدِّينُ ধর্ম (is) the religion, ٱلْقَيِّمُ সঠিক the right, وَلَٰكِنَّ কিন্তু but, أَكْثَرَ অধিকাংশ most, ٱلنَّاسِ মানুষ [the] men, لَا না (do) not, يَعْلَمُونَ জানে know )

 

(41) يَا صَاحِبَيِ السِّجْنِ أَمَّا أَحَدُكُمَا فَيَسْقِي رَبَّهُ خَمْرًا وَأَمَّا الآخَرُ فَيُصْلَبُ فَتَأْكُلُ الطَّيْرُ مِن رَّأْسِهِ قُضِيَ الأَمْرُ الَّذِي فِيهِ تَسْتَفْتِيَانِ হে কারাগারের সঙ্গীরা! তোমাদের একজন আপন প্রভুকে মদ্যপান করাবে এবং দ্বিতীয়জন, তাকে শুলে চড়ানো হবে। অতঃপর তার মস্তক থেকে পাখী আহার করবে। তোমরা যে, বিষয়ে জানার আগ্রহী তার সিদ্ধান্ত হয়ে গেছে। “O my two companions of the prison! As to one of you, he will pour out the wine for his lord to drink: as for the other, he will hang from the cross, and the birds will eat from off his head. (so) hath been decreed that matter whereof ye twain do enquire”…

( يَٰصَىٰحِبَىِ হে সঙ্গী দু’জন O my two companions, ٱلسِّجْنِ কারাগারের (of) the prison!, أَمَّآ (ব্যখ্যা হলো) এ প্রসঙ্গে As for, أَحَدُكُمَا তোমরা দু’জনের মধ্যে একজনের one of you, فَيَسْقِى সে পান করাবে he will give drink, رَبَّهُۥ তার প্রভুকে (to) his master, خَمْرًا মদ wine, وَأَمَّا আর (ব্যাখ্যা) এ প্রসঙ্গে and as for, ٱلْءَاخَرُ অন্যজনের the other, فَيُصْلَبُ সে শূলবিদ্ধ হবে he will be crucified, فَتَأْكُلُ এরপর খাবে and will eat, ٱلطَّيْرُ পাখি the birds, مِن থেকে from, رَّأْسِهِۦ তার মাথা his head, قُضِىَ সিদ্ধান্ত হয়ে গেছে Has been decreed, ٱلْأَمْرُ বিষয়ের the matter, ٱلَّذِى এমন about which, فِيهِ যা সম্বন্ধে about which, تَسْتَفْتِيَانِ তোমরা দু’জনে জানতে চেয়েছো” you both inquire” )

 

(42)  وَقَالَ لِلَّذِي ظَنَّ أَنَّهُ نَاجٍ مِّنْهُمَا اذْكُرْنِي عِندَ رَبِّكَ فَأَنسَاهُ الشَّيْطَانُ ذِكْرَ رَبِّهِ فَلَبِثَ فِي السِّجْنِ بِضْعَ سِنِينَ যে ব্যক্তি সম্পর্কে ধারণা ছিল যে, সে মুক্তি পাবে, তাকে ইউসুফ বলে দিলঃ আপন প্রভুর কাছে আমার আলোচনা করবে। অতঃপর শয়তান তাকে প্রভুর কাছে আলোচনার কথা ভুলিয়ে দিল। ফলে তাঁকে কয়েক বছর কারাগারে থাকতে হল। And of the two, to that one whom he consider about to be saved, he said: “Mention me to thy lord.” But Satan made him forget to mention him to his lord: and (Joseph) lingered in prison a few (more) years.

( وَقَالَ এবং (ইউসুফ) বললো And he said, لِلَّذِى (তাকে) যার ব্যাপারে to the one whom, ظَنَّ সে ভেবেছিলো he thought, أَنَّهُۥ যে সে that he,  نَاجٍ মুক্তি পাবে (would be) saved, مِّنْهُمَا তাদের দু’জনের মধ্য হ’তে of both of them, ٱذْكُرْنِى “আমার কথা উল্লেখ করবে “Mention me, عِندَ কাছে to, رَبِّكَ তোমার প্রভুর” your master”, فَأَنسَىٰهُ অতঃপর তাকে ভুলিয়েছিলো But made him forget, ٱلشَّيْطَٰنُ শয়তান the Shaitaan, ذِكْرَ উল্লেখ করতে (the) mention, رَبِّهِۦ তার প্রভুর কাছে (to) his master, فَلَبِثَ অতঃপর সে রয়ে গেলো so he remained, فِى মধ্যে in, ٱلسِّجْنِ কারাগারের the prison,  بِضْعَ কয়েক several, سِنِينَ বছর (পর্যন্ত) years,

 

(43) وَقَالَ الْمَلِكُ إِنِّي أَرَى سَبْعَ بَقَرَاتٍ سِمَانٍ يَأْكُلُهُنَّ سَبْعٌ عِجَافٌ وَسَبْعَ سُنبُلاَتٍ خُضْرٍ وَأُخَرَ يَابِسَاتٍ يَا أَيُّهَا الْمَلأُ أَفْتُونِي فِي رُؤْيَايَ إِن كُنتُمْ لِلرُّؤْيَا تَعْبُرُونَ বাদশাহ বললঃ আমি স্বপ্নে দেখলাম, সাতটি মোটাতাজা গাভী-এদেরকে সাতটি শীর্ণ গাভী খেয়ে যাচ্ছে এবং সাতটি সবুজ শীষ ও অন্যগুলো শুষ্ক। হে পরিষদবর্গ! তোমরা আমাকে আমার স্বপ্নের ব্যাখ্যা বল, যদি তোমরা স্বপ্নের ব্যাখ্যায় পারদর্শী হয়ে থাক। The king (of Egypt) said: “I do see (in a vision) seven fat kine, whom seven lean ones devour, and seven green ears of corn, and seven (others) withered. O ye chiefs! Expound to me my vision if it be that ye can interpret visions.”

( وَقَالَ এবং বললো And said, ٱلْمَلِكُ রাজা the king, إِنِّىٓ “নিশ্চয়ই আমি “Indeed I, أَرَىٰ (স্বপ্নে) দেখেছি [I] have seen, سَبْعَ সাতটি seven,  بَقَرَٰتٍ গাভী cows, سِمَانٍ মোটাসোটা fat, يَأْكُلُهُنَّ খাচ্ছে তাদের eating them, سَبْعٌ সাতটি seven, عِجَافٌ শুঁটকো (গাভী) lean ones, وَسَبْعَ এবং সাতটি and seven, سُنۢبُلَٰتٍ শীষ ears (of corn), خُضْرٍ সবুজ green, وَأُخَرَ এবং (অন্য) সাতটি and other, يَابِسَٰتٍ শুকনো dry, يَٰٓأَيُّهَا হে O, ٱلْمَلَأُ প্রধানগণ chiefs!, أَفْتُونِى আমাকে অভিমত দাও Explain to me, فِى ব্যপারে about, رُءْيَٰىَ আমার স্বপ্নের my vision, إِن যদি if, كُنتُمْ তোমরা হও (এমন যে) you can, لِلرُّءْيَا ব্যাপারে আমার স্বপ্নের of visions, تَعْبُرُونَ তোমরা ব্যাখ্যা করতে পারো” interpret” )

 

(44) قَالُواْ أَضْغَاثُ أَحْلاَمٍ وَمَا نَحْنُ بِتَأْوِيلِ الأَحْلاَمِ بِعَالِمِينَ তারা বললঃ এটা কল্পনাপ্রসূত স্বপ্ন। এরূপ স্বপ্নের ব্যাখ্যা আমাদের জানা নেই। They said: “A confused medley of dreams: and we are not skilled in the interpretation of dreams.”

( قَالُوٓا۟ তারা বলেছিলো They said, أَضْغَٰثُ “অর্থহীন “Confused, أَحْلَٰمٍ স্বপ্ন dreams, وَمَا এবং নই and not, نَحْنُ আমরা we, بِتَأْوِيلِ সম্বন্ধে ব্যাখ্যা (are) in the interpretation, ٱلْأَحْلَٰمِ স্বপ্নের (of) the dreams, بِعَٰلِمِينَ অভিজ্ঞ” learned”,

 

(45)  وَقَالَ الَّذِي نَجَا مِنْهُمَا وَادَّكَرَ بَعْدَ أُمَّةٍ أَنَاْ أُنَبِّئُكُم بِتَأْوِيلِهِ فَأَرْسِلُونِ দু’জন কারারুদ্ধের মধ্য থেকে যে ব্যক্তি মুক্তি পেয়েছিল এবং দীর্ঘকাল পর স্মরণ হলে, সে বলল, আমি তোমাদেরকে এর ব্যাখ্যা বলছি। তোমরা আমাকে প্রেরণ কর। But the man who had been released, one of the two (who had been in prison) and who now bethought him after (so long) a space of time, said: “I will tell you the truth of its interpretation: send ye me (therefore).”

( وَقَالَ এবং বললো But said, ٱلَّذِى যে the one who, نَجَا মুক্তি পেয়েছিলো was saved, مِنْهُمَا তাদের দু’জনের মধ্য হ’তে of the two,  وَٱدَّكَرَ এবং স্মরণ হলো (ইউসুফের কথা) and remembered, بَعْدَ পরে after, أُمَّةٍ দীর্ঘকাল a period, أَنَا۠ “(সে বললো) আমি “I,  أُنَبِّئُكُم তোমাদেরকে জানাবো [I] will inform you, بِتَأْوِيلِهِۦ সম্বন্ধে তার ব্যখ্যা of its interpretation, فَأَرْسِلُونِ অতএব আমাকে তোমরা পাঠাও (কারাগারে) so send me forth )

 

(46) يُوسُفُ أَيُّهَا الصِّدِّيقُ أَفْتِنَا فِي سَبْعِ بَقَرَاتٍ سِمَانٍ يَأْكُلُهُنَّ سَبْعٌ عِجَافٌ وَسَبْعِ سُنبُلاَتٍ خُضْرٍ وَأُخَرَ يَابِسَاتٍ لَّعَلِّي أَرْجِعُ إِلَى النَّاسِ لَعَلَّهُمْ يَعْلَمُونَ সে তথায় পৌঁছে বললঃ হে ইউসুফ! হে সত্যবাদী! সাতটি মোটাতাজা গাভী-তাদেরকে খাচ্ছে সাতটি শীর্ণ গাভী এবং সাতটি সবুজ শীর্ষ ও অন্যগুলো শুষ্ক; আপনি আমাদেরকে এ স্বপ্ন সম্পর্কে পথনির্দেশ প্রদান করুনঃ যাতে আমি তাদের কাছে ফিরে গিয়ে তাদের অবগত করাতে পারি। “O Joseph!” (he said) “O man of truth! Expound to us (the dream) of seven fat kine whom seven lean ones devour, and of seven green ears of corn and (seven) others withered: that I may return to the people, and that they may understand.”

( يُوسُفُ (সেখানে পৌঁছে বললো) ইউসুফ Yusuf, أَيُّهَا হে O, ٱلصِّدِّيقُ সত্যবাদী the truthful one!, أَفْتِنَا আমাদের অভিমত দাও Explain to us, فِى (স্বপ্নের) ব্যাপারে about, سَبْعِ (এমন যে) সাতটি (the) seven, بَقَرَٰتٍ গাভী cows, سِمَانٍ মোটাসোটা fat, يَأْكُلُهُنَّ তাদের খাচ্ছে eating them, سَبْعٌ সাতটি (গাভী) seven, عِجَافٌ শুঁটকো lean ones, وَسَبْعِ এবং সাতটি and seven, سُنۢبُلَٰتٍ শীষ ears (of corn), خُضْرٍ সবুজ সতেজ green, وَأُخَرَ এবং অন্য and other, يَابِسَٰتٍ (সাতটি) শুকনো dry, لَّعَلِّىٓ আমি যাতে that I may, أَرْجِعُ ফিরে যাই return, إِلَى  কাছে to, ٱلنَّاسِ লোকদের the people, لَعَلَّهُمْ তারা যাতে so that they may, يَعْلَمُونَ জানতে পারে (এর ব্যাখা)” know”)

 

(47) قَالَ تَزْرَعُونَ سَبْعَ سِنِينَ دَأَبًا فَمَا حَصَدتُّمْ فَذَرُوهُ فِي سُنبُلِهِ إِلاَّ قَلِيلاً مِّمَّا تَأْكُلُونَ বললঃ তোমরা সাত বছর উত্তম রূপে চাষাবাদ করবে। অতঃপর যা কাটবে, তার মধ্যে যে সামান্য পরিমাণ তোমরা খাবে তা ছাড়া অবশিষ্ট শস্য শীষ সমেত রেখে দেবে। (Joseph) said: “For seven years shall ye diligently sow as is your wont: and the harvests that ye reap, ye shall leave them in the ear,- except a little, of which ye shall eat.

( قَالَ (ইউসুফ) বললো He said, تَزْرَعُونَ “তোমরা চাষ করবে “You will sow, سَبْعَ সাত (for) seven, سِنِينَ বছর years, دَأَبًا একটানা as usual, فَمَا অতঃপর যা and that which, حَصَدتُّمْ তোমরা ফসল কাটবে you reap, فَذَرُوهُ তখন তা তোমরা রেখে দিবে so leave it, فِى মধ্যে in, سُنۢبُلِهِۦٓ এর শীষগুলোর its ears, إِلَّا ছাড়া except, قَلِيلًا সামান্য (পরিমাণ) a little, مِّمَّا তা হ’তে যা from which, تَأْكُلُونَতোমরা খাবে you (will) eat )

 

(48) ثُمَّ يَأْتِي مِن بَعْدِ ذَلِكَ سَبْعٌ شِدَادٌ يَأْكُلْنَ مَا قَدَّمْتُمْ لَهُنَّ إِلاَّ قَلِيلاً مِّمَّا تُحْصِنُونَ এবং এরপরে আসবে দূর্ভিক্ষের সাত বছর; তোমরা এ দিনের জন্যে যা রেখেছিলে, তা খেয়ে যাবে, কিন্তু অল্প পরিমাণ ব্যতীত, যা তোমরা তুলে রাখবে। “Then will come after that (period) seven dreadful (years), which will devour what ye shall have laid by in advance for them,- (all) except a little which ye shall have (specially) guarded.

( ثُمَّ এরপর Then, يَأْتِى আসবে will come, مِنۢ থেকে after, بَعْدِ পর after, ذَٰلِكَ এর that, سَبْعٌ সাত (বছর) seven, شِدَادٌ কঠিন (দুর্ভিক্ষের) hard (years), يَأْكُلْنَ (যখন) তারা খাবে (which will) consume, مَا যা what, قَدَّمْتُمْ তোমরা জমিয়ে রেখেছো you advanced, لَهُنَّ তাদের জন্যে for them, إِلَّا ছাড়া except, قَلِيلًا সামান্য (পরিমাণ) a little, مِّمَّا তা হ’তে যা of what, تُحْصِنُونَ তোমরা বাঁচিয়ে রাখবে you (will) store )

 

(49) ثُمَّ يَأْتِي مِن بَعْدِ ذَلِكَ عَامٌ فِيهِ يُغَاثُ النَّاسُ وَفِيهِ يَعْصِرُونَ এর পরেই আসবে একবছর-এতে মানুষের উপর বৃষ্টি বর্ষিত হবে এবং এতে তারা রস নিঙড়াবে। “Then will come after that (period) a year in which the people will have abundant water, and in which they will press (wine and oil).”

( ثُمَّ তারপর Then, يَأْتِى আসবে will come, مِنۢ থেকে after, بَعْدِ পর after, ذَٰلِكَ এর that, عَامٌ এক বছর a year, فِيهِ তার মধ্যে in it, يُغَاثُ প্রচুর বৃষ্টি হবে will be given abundant rain, ٱلنَّاسُ মানুষের জন্যে the people, وَفِيهِ এবং তার মধ্যে and in it, يَعْصِرُونَ তারা ফলের রস নিংড়াবে” they will press” )

 

(50) وَقَالَ الْمَلِكُ ائْتُونِي بِهِ فَلَمَّا جَاءهُ الرَّسُولُ قَالَ ارْجِعْ إِلَى رَبِّكَ فَاسْأَلْهُ مَا بَالُ النِّسْوَةِ اللاَّتِي قَطَّعْنَ أَيْدِيَهُنَّ إِنَّ رَبِّي بِكَيْدِهِنَّ عَلِيمٌ বাদশাহ বললঃ ফিরে যাও তোমাদের প্রভুর কাছে এবং জিজ্ঞেস কর তাকে ঐ মহিলার স্বরূপ কি, যারা স্বীয় হস্ত কর্তন করেছিল! আমার পালনকর্তা তো তাদের ছলনা সবই জানেন। So the king said: “Bring ye him unto me.” But when the messenger came to him, (Joseph) said: “Go thou back to thy lord, and ask him, ‘What is the state of mind of the ladies who cut their hands’? For my Lord is certainly well aware of their snare.”

( وَقَالَ এবং (এসব শুনে) বললো And said, ٱلْمَلِكُ রাজা the king, ٱئْتُونِى “আমার কাছে আসো” “Bring him to me”, بِهِۦ “নিয়ে তাকে” “Bring him to me”, فَلَمَّا অতঃপর যখন But when, جَآءَهُ তার কাছে আসলো came to him, ٱلرَّسُولُ দূত the messenger, قَالَ (ইউসুফ) বললো he said, ٱرْجِعْ “তুমি ফিরে যাও “Return, إِلَىٰ কাছে to, رَبِّكَ তোমার প্রভুর your lord, فَسْـَٔلْهُ অতঃপর তাকে জিজ্ঞেস করো and ask him, مَا কি (ছিলো) what, بَالُ অবস্থা (is the) case,  ٱلنِّسْوَةِ মহিলাদের (of) the women, ٱلَّٰتِى যারা who, قَطَّعْنَ কেটে ফেলেছিলো cut, أَيْدِيَهُنَّ তাদের হাতগুলো their hands, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, رَبِّى আমার রব my Lord, بِكَيْدِهِنَّ সম্বন্ধে তাদের ছলনা of their plot, عَلِيمٌ খুব অবহিত” (is) All-Knower” )

 

(51) قَالَ مَا خَطْبُكُنَّ إِذْ رَاوَدتُّنَّ يُوسُفَ عَن نَّفْسِهِ قُلْنَ حَاشَ لِلّهِ مَا عَلِمْنَا عَلَيْهِ مِن سُوءٍ قَالَتِ امْرَأَةُ الْعَزِيزِ الآنَ حَصْحَصَ الْحَقُّ أَنَاْ رَاوَدتُّهُ عَن نَّفْسِهِ وَإِنَّهُ لَمِنَ الصَّادِقِينَ বাদশাহ মহিলাদেরকে বললেনঃ তোমাদের হাল-হাকিকত কি, যখন তোমরা ইউসুফকে আত্মসংবরণ থেকে ফুসলিয়েছিলে? তারা বললঃ আল্লাহ মহান, আমরা তার সম্পর্কে মন্দ কিছু জানি না। আযীয-পত্মি বললঃ এখন সত্য কথা প্রকাশ হয়ে গেছে। আমিই তাকে আত্মসংবরণ থেকে ফুসলিয়েছিলাম এবং সে সত্যবাদী। (The king) said (to the ladies): “What was your affair when ye did seek to seduce Joseph from his (true) self?” The ladies said: “(Allah) preserve us! no evil know we against him!” Said the ‘Aziz’s wife: “Now is the truth manifest (to all): it was I who sought to seduce him from his (true) self: He is indeed of those who are (ever) true (and virtuous).

( قَالَ (বাদশাহ) বললো He said, مَا “কি (ছিলো) “What, خَطْبُكُنَّ হয়েছিলো তোমাদের (was) your affair, إِذْ যখন when, رَٰوَدتُّنَّ তোমরা ফুসলিয়েছিলে you sought to seduce, يُوسُفَ ইউসুফকে Yusuf, عَن হ’তে from, نَّفْسِهِۦ তার নিজের (আত্মসংবরণ)” himself?”, قُلْنَ তারা বললো They said, حَٰشَ “পবিত্রতা “Allah forbid!, لِلَّهِ “জন্যে আল্লাহর “Allah forbid!, مَا না Not, عَلِمْنَا আমরা জানি we know,  عَلَيْهِ মধ্যে তার about him, مِن কোন প্রকার any, سُوٓءٍ দোষ” evil”, قَالَتِ বললো Said, ٱمْرَأَتُ স্ত্রী (the) wife, ٱلْعَزِيزِ আযীযের (of) Aziz, ٱلْـَٰٔنَ “এখন “Now, حَصْحَصَ প্রকাশ পেলো (is) manifest, ٱلْحَقُّ সত্য the truth, أَنَا۠ আমি I, رَٰوَدتُّهُۥ তাকে ফুসলিয়েছিলাম sought to seduce him, عَن হ’তে from, نَّفْسِهِۦ তার নিজের (আত্মসংবরণ) himself, وَإِنَّهُۥ এবং নিশ্চয়ই সে and indeed, he, لَمِنَ অবশ্যই অন্তর্ভুক্ত (is) surely of, ٱلصَّٰدِقِينَ সত্যবাদীদের the truthful )

 

(52) ذَلِكَ لِيَعْلَمَ أَنِّي لَمْ أَخُنْهُ بِالْغَيْبِ وَأَنَّ اللّهَ لاَ يَهْدِي كَيْدَ الْخَائِنِينَ ইউসুফ বললেনঃ এটা এজন্য, যাতে আযীয জেনে নেয় যে, আমি গোপনে তার সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করিনি। আরও এই যে, আল্লাহ বিশ্বাসঘাতকদের প্রতারণাকে এগুতে দেন না। “This (say I), in order that He may know that I have never been false to him in his absence, and that Allah will never guide the snare of the false ones.

( ذَٰلِكَ এটা (এজন্যে) That, لِيَعْلَمَ যেন সে জানে (আযীয) he may know, أَنِّى যে আমি that I, لَمْ নি not, أَخُنْهُ তার আমি বিশ্বাসঘাতকতা করি [I] betray him, بِٱلْغَيْبِ (তার) অনুপস্থিতিতে in secret, وَأَنَّ এবং নিশ্চয়ই and that, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, لَا না (does) not, يَهْدِى সফল করেন guide, كَيْدَ ষড়যন্ত্র (the) plan, ٱلْخَآئِنِينَ বিশ্বাসঘাতকদের” (of) the betrayers” )

 

(53)  وَمَا أُبَرِّىءُ نَفْسِي إِنَّ النَّفْسَ لأَمَّارَةٌ بِالسُّوءِ إِلاَّ مَا رَحِمَ رَبِّيَ إِنَّ رَبِّي غَفُورٌ رَّحِيمٌ আমি নিজেকে নির্দোষ বলি না। নিশ্চয় মানুষের মন মন্দ কর্মপ্রবণ কিন্তু সে নয়-আমার পালনকর্তা যার প্রতি অনুগ্রহ করেন। নিশ্চয় আমার পালনকর্তা ক্ষমাশীল, দয়ালু। “Nor do I absolve my own self (of blame): the (human) soul is certainly prone to evil, unless my Lord do bestow His Mercy: but surely my Lord is Oft- forgiving, Most Merciful.”

( وَمَآ “এবং না “And not, أُبَرِّئُ নির্দোষ মনে করি I absolve, نَفْسِىٓ নিজেকে myself, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱلنَّفْسَ মন (নফস) the soul, لَأَمَّارَةٌۢ অবশ্যই নির্দেশ দিয়েই থাকে (is) a certain enjoiner, بِٱلسُّوٓءِ মন্দের দিকে of evil, إِلَّا তবে unless, مَا যাকে [that], رَحِمَ অনুগ্রহ করেন bestows Mercy, رَبِّىٓ আমার রব (সেটা ভিন্ন কথা) my Lord, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, رَبِّى আমার রব my Lord, غَفُورٌ ক্ষমাশীল (is) Oft-Forgiving, رَّحِيمٌ পরম দয়ালু” Most Merciful” )

 

(54) وَقَالَ الْمَلِكُ ائْتُونِي بِهِ أَسْتَخْلِصْهُ لِنَفْسِي فَلَمَّا كَلَّمَهُ قَالَ إِنَّكَ الْيَوْمَ لَدَيْنَا مِكِينٌ أَمِينٌ বাদশাহ বললঃ তাকে আমার কাছে নিয়ে এসো। আমি তাকে নিজের বিশ্বস্ত সহচর করে রাখব। অতঃপর যখন তার সাথে মতবিনিময় করল, তখন বললঃ নিশ্চয়ই আপনি আমার কাছে আজ থেকে বিশ্বস্ত হিসাবে মর্যাদার স্থান লাভ করেছেন। So the king said: “Bring him unto me; I will take him specially to serve about my own person.” Therefore when he had spoken to him, he said: “Be assured this day, thou art, before our own presence, with rank firmly established, and fidelity fully proved!

( وَقَالَ এবং বলল And said, ٱلْمَلِكُ রাজা the king, ٱئْتُونِى “আমার কাছে আসো “Bring him to me, بِهِۦٓ “নিয়ে তাকে “Bring him to me, أَسْتَخْلِصْهُ তাকে বিশেষভাবে আমি গ্রহণ করবো I will select him, لِنَفْسِى আমার নিজের জন্যে” for myself”, فَلَمَّا অতঃপর যখন Then when,كَلَّمَهُۥ তার সাথে কথা বললো he spoke to him, قَالَ (রাজা) বললো he said,  إِنَّكَ “তুমি নিশ্চয়ই “Indeed, you, ٱلْيَوْمَ আজ (are) today, لَدَيْنَا আমাদের কাছে with us, مَكِينٌ মর্যাদাশালী firmly established, أَمِينٌ বিশ্বস্ত” (and) trusted” )

 

(55) قَالَ اجْعَلْنِي عَلَى خَزَآئِنِ الأَرْضِ إِنِّي حَفِيظٌ عَلِيمٌ ইউসুফ বললঃ আমাকে দেশের ধন-ভান্ডারে নিযুক্ত করুন। আমি বিশ্বস্ত রক্ষক ও অধিক জ্ঞানবান। (Joseph) said: “Set me over the store-houses of the land: I will indeed guard them, as one that knows (their importance).”

( قَالَ সে বললো He said, ٱجْعَلْنِى “আমাকে নিযুক্ত করুন “Appoint me, عَلَىٰ উপর over, خَزَآئِنِ ধনভান্ডারের (দায়িত্বের) (the) treasuries, ٱلْأَرْضِ দেশের (of) the land, إِنِّى নিশ্চয়ই আমি Indeed I, حَفِيظٌ বিশ্বস্তরক্ষক (will be) a guardian, عَلِيمٌ সুবিজ্ঞ” knowing” )

 

(56) وَكَذَلِكَ مَكَّنِّا لِيُوسُفَ فِي الأَرْضِ يَتَبَوَّأُ مِنْهَا حَيْثُ يَشَاء نُصِيبُ بِرَحْمَتِنَا مَن نَّشَاء وَلاَ نُضِيعُ أَجْرَ الْمُحْسِنِينَ এমনিভাবে আমি ইউসুফকে সে দেশের বুকে প্রতিষ্ঠা দান করেছি। সে তথায় যেখানে ইচ্ছা স্থান করে নিতে পারত। আমি স্বীয় রহমত যাকে ইচ্ছা পৌছে দেই এবং আমি পূণ্যবানদের প্রতিদান বিনষ্ট করি না। Thus did We give established power to Joseph in the land, to take possession therein as, when, or where he pleased. We bestow of our Mercy on whom We please, and We suffer not, to be lost, the reward of those who do good.

( وَكَذَٰلِكَ এবং এভাবে And thus, مَكَّنَّا আমরা প্রতিষ্ঠিত করি We established, لِيُوسُفَ ইউসুফকে [to] Yusuf, فِى মধ্যে in, ٱلْأَرْضِ (সে) দেশের the land, يَتَبَوَّأُ সে বসবাস করতো to settle, مِنْهَا তার মধ্যে therein, حَيْثُ যেখানে where ever, يَشَآءُ সে চাইতো he willed, نُصِيبُ ধন্য করি আমরা We bestow, بِرَحْمَتِنَا দিয়ে আমাদের দয়া Our Mercy, مَن যাকে (on) whom, نَّشَآءُ আমরা চাই We will, وَلَا এবং না And not, نُضِيعُ নষ্ট করি আমরা We let go waste, أَجْرَ কর্মফল (the) reward, ٱلْمُحْسِنِينَ সৎকর্মশীলদের (of) the good-doers )

 

(57) وَلَأَجْرُ الآخِرَةِ خَيْرٌ لِّلَّذِينَ آمَنُواْ وَكَانُواْ يَتَّقُونَ এবং ঐ লোকদের জন্য পরকালে প্রতিদান উত্তম যারা ঈমান এনেছে ও সতর্কতা অবলম্বন করে। But verily the reward of the Hereafter is the best, for those who believe, and are constant in righteousness.

( وَلَأَجْرُ এবং অবশ্যই পুরস্কার (রয়েছে) And surely (the) reward, ٱلْءَاخِرَةِ আখিরাতের (of) the Hereafter, خَيْرٌ উত্তম (is) better, لِّلَّذِينَ (তাদের) জন্য যারা for those who, ءَامَنُوا۟ ঈমান এনেছে believe, وَكَانُوا۟ ও তারা  and are, يَتَّقُونَ ভয় করে চলতো God conscious )

 

(58) وَجَاء إِخْوَةُ يُوسُفَ فَدَخَلُواْ عَلَيْهِ فَعَرَفَهُمْ وَهُمْ لَهُ مُنكِرُونَ ইউসুফের ভ্রাতারা আগমন করল, অতঃপর তার কাছে উপস্থিত হল। সে তাদেরকে চিনল এবং তারা তাকে চিনল না। Then came Joseph’s brethren: they entered his presence, and he knew them, but they knew him not.

( وَجَآءَ এবং আসলো And came, إِخْوَةُ ভাইয়েরা (the) brothers, يُوسُفَ ইউসুফের (of) Yusuf, فَدَخَلُوا۟ অতঃপর তারা প্রবেশ করলো and they entered, عَلَيْهِ তার কাছে upon him, فَعَرَفَهُمْ অতঃপর তাদেরকে সে চিনলো and he recognized them, وَهُمْ অথচ তারা (ছিলো) but they, لَهُۥ তার সম্পর্কে knew him not, مُنكِرُونَ অপরিচিত-অজ্ঞাত knew him not )

 

(59) وَلَمَّا جَهَّزَهُم بِجَهَازِهِمْ قَالَ ائْتُونِي بِأَخٍ لَّكُم مِّنْ أَبِيكُمْ أَلاَ تَرَوْنَ أَنِّي أُوفِي الْكَيْلَ وَأَنَاْ خَيْرُ الْمُنزِلِينَ এবং সে যখন তাদেরকে তাদের রসদ প্রস্তুত করে দিল, তখন সে বললঃ তোমাদের বৈমাত্রেয় ভাইকে আমার কাছে নিয়ে এসো। তোমরা কি দেখ না যে, আমি পুরা মাপ দেই এবং মেহমানদেরকে উত্তম সমাদার করি? And when he had furnished them forth with provisions (suitable) for them, he said: “Bring unto me a brother ye have, of the same father as yourselves, (but a different mother): see ye not that I pay out full measure, and that I do provide the best hospitality?

( وَلَمَّا এবং যখন And when, جَهَّزَهُم তাদের প্রস্তুত করলো he had furnished them, بِجَهَازِهِمْ দিয়ে তাদের খাদ্যসামগ্রী with their supplies, قَالَ সে বললো he said, ٱئْتُونِى “আমার কাছে আসবে তোমরা “Bring to me, بِأَخٍ নিয়ে ভাইকে a brother, لَّكُم তোমাদের of yours, مِّنْ দিক থেকে from, أَبِيكُمْ তোমাদের বাপের (অর্থাৎ বৈমাত্রেয় ভাই) your father, أَلَا না কি Do not, تَرَوْنَ তোমরা দেখো you see, أَنِّىٓ যে আমি that I, أُوفِى পুরোপুরি দিই [I] give full, ٱلْكَيْلَ মাপ [the] measure, وَأَنَا۠ এবং আমি and that I am, خَيْرُ উত্তম (the) best, ٱلْمُنزِلِينَ অতিথি সমাদরকারী (of) the hosts? )

 

(60) فَإِن لَّمْ تَأْتُونِي بِهِ فَلاَ كَيْلَ لَكُمْ عِندِي وَلاَ تَقْرَبُونِ অতঃপর যদি তাকে আমার কাছে না আন, তবে আমার কাছে তোমাদের কোন বরাদ্ধ নেই এবং তোমরা আমার কাছে আসতে পারবে না। “Now if ye bring him not to me, ye shall have no measure (of corn) from me, nor shall ye (even) come near me.”

( فَإِن অতঃপর যদি But if, لَّمْ না not, تَأْتُونِى তোমরা আসো আমার কাছে you bring him to me, بِهِۦ নিয়ে তাকে you bring him to me, فَلَا তবে নেই then (there will be) no, كَيْلَ মাপ (বরাদ্দ) measure, لَكُمْ জন্যে তোমাদের for you, عِندِى আমার কাছে from me, وَلَا এবং না and not, تَقْرَبُونِ তোমরা আমার কাছে আসবে” you will come near me” )

 

(61) قَالُواْ سَنُرَاوِدُ عَنْهُ أَبَاهُ وَإِنَّا لَفَاعِلُونَ তারা বললঃ আমরা তার সম্পর্কে তার পিতাকে সম্মত করার চেষ্টা করব এবং আমাদেরকে একাজ করতেই হবে। They said: “We shall certainly seek to get our wish about him from his father: Indeed we shall do it.”

( قَالُوا۟ তারা বললো They said, سَنُرَٰوِدُ “আমরা শীঘ্রই রাজি করাবো “We will try to get permission, عَنْهُ তার সম্পর্কে for him, أَبَاهُ তার পিতাকে (from) his father, وَإِنَّا এবং নিশ্চয়ই আমরা and indeed we, لَفَٰعِلُونَ অবশ্যই করবো” surely will do” )

 

(62)  وَقَالَ لِفِتْيَانِهِ اجْعَلُواْ بِضَاعَتَهُمْ فِي رِحَالِهِمْ لَعَلَّهُمْ يَعْرِفُونَهَا إِذَا انقَلَبُواْ إِلَى أَهْلِهِمْ لَعَلَّهُمْ يَرْجِعُونَ এবং সে ভৃত্যদেরকে বললঃ তাদের পণ্যমূল্য তাদের রসদ-পত্রের মধ্যে রেখে দাও-সম্ভবতঃ তারা গৃহে পৌঁছে তা বুঝতে পারবে, সম্ভবতঃ তারা পুনর্বার আসবে। And (Joseph) told his servants to put their stock-in-trade (with which they had bartered) into their saddle-bags, so they should know it only when they returned to their people, in order that they might come back.

( وَقَالَ এবং (ইউসুফ) বললো And he said, لِفِتْيَٰنِهِ তার চাকরদেরকে to his servants, ٱجْعَلُوا۟ “তোমরা রেখে দাও “Put, بِضَٰعَتَهُمْ তাদের পণ্য (দাম) their merchandise, فِى মধ্যে in, رِحَالِهِمْ তাদের মালপত্রের their saddlebags, لَعَلَّهُمْ তারা যাতে so that they, يَعْرِفُونَهَآ তা জানতে পারে may recognize it, إِذَا যখন when, ٱنقَلَبُوٓا۟ তারা ফিরবে they go back, إِلَىٰٓ কাছে to, أَهْلِهِمْ তার পরিবারের their people, لَعَلَّهُمْ তারা সম্ভবত so that they may, يَرْجِعُونَ ফিরে আসবে (আবার)” return” )

 

(63) فَلَمَّا رَجِعُوا إِلَى أَبِيهِمْ قَالُواْ يَا أَبَانَا مُنِعَ مِنَّا الْكَيْلُ فَأَرْسِلْ مَعَنَا أَخَانَا نَكْتَلْ وَإِنَّا لَهُ لَحَافِظُونَ তারা যখন তাদের পিতার কাছে ফিরে এল তখন বললঃ হে আমাদের পিতা, আমাদের জন্যে খাদ্য শস্যের বরাদ্দ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। অতএব আপনি আমাদের ভাইকে আমাদের সাথে প্রেরণ করুন; যাতে আমরা খাদ্য শস্যের বরাদ্দ আনতে পারি এবং আমরা অবশ্যই তার পুরোপুরি হেফাযত করব। Now when they returned to their father, they said: “O our father! No more measure of grain shall we get (unless we take our brother): So send our brother with us, that we may get our measure; and we will indeed take every care of him.”

( فَلَمَّا অতঃপর যখন So when, رَجَعُوٓا۟ তারা ফিরে গেলো they returned, إِلَىٰٓ কাছে to, أَبِيهِمْ তার পিতার their father, قَالُوا۟ তারা বললো they said, يَٰٓأَبَانَا “হে আমাদের পিতা “O our father!, مُنِعَ বন্ধ করা হয়েছে Has been denied, مِنَّا আমাদের থেকে to us, ٱلْكَيْلُ মাপ (অর্থাৎ বরাদ্দ) the measure, فَأَرْسِلْ অতএব পাঠান so send, مَعَنَآ আমাদের সাথে with us, أَخَانَا আমাদের ভাইকে (যেন) our brother, نَكْتَلْ বরাদ্দ পাই (পূর্ণ) (that) we will get measure, وَإِنَّا এবং নিশ্চয়ই আমরা And indeed we, لَهُۥ তার জন্যে for him, لَحَٰفِظُونَ অবশ্যই (হবো) রক্ষাকারী” (will) surely (be) guardians” )

 

(64) قَالَ هَلْ آمَنُكُمْ عَلَيْهِ إِلاَّ كَمَا أَمِنتُكُمْ عَلَى أَخِيهِ مِن قَبْلُ فَاللّهُ خَيْرٌ حَافِظًا وَهُوَ أَرْحَمُ الرَّاحِمِينَ বললেন, আমি তার সম্পর্কে তোমাদেরকে কি সেরূপ বিশ্বাস করব, যেমন ইতিপূর্বে তার ভাই সম্পর্কে বিশ্বাস করেছিলাম? অতএব আল্লাহ উত্তম হেফাযতকারী এবং তিনিই সর্বাধিক দয়ালু। He said: “Shall I trust you with him with any result other than when I trusted you with his brother aforetime? But Allah is the best to take care (of him), and He is the Most Merciful of those who show mercy!”

( قَالَ সে বললো He said, هَلْ “কি “Should, ءَامَنُكُمْ তোমাদের আমি বিশ্বাস করবো I entrust you, عَلَيْهِ তার ব্যাপারে with him, إِلَّا এ ছাড়া except, كَمَآ যেমন as, أَمِنتُكُمْ আমি বিশ্বাস করেছিলাম তোমাদেরকে I entrusted you, عَلَىٰٓ ব্যাপারে with, أَخِيهِ তার ভাইয়ের his brother, مِن থেকে before?, قَبْلُ পূর্ব before?, فَٱللَّهُ তবে আল্লাহই But Allah, خَيْرٌ উত্তম (is) the best, حَٰفِظًا রক্ষণাবেক্ষণকারী Guardian, وَهُوَ এবং তিনিই and He, أَرْحَمُ শ্রেষ্ঠ দয়ালু (is the) Most Merciful, ٱلرَّٰحِمِينَ দয়াশীলদের (মধ্যে)” (of) the merciful” )

 

(65) وَلَمَّا فَتَحُواْ مَتَاعَهُمْ وَجَدُواْ بِضَاعَتَهُمْ رُدَّتْ إِلَيْهِمْ قَالُواْ يَا أَبَانَا مَا نَبْغِي هَـذِهِ بِضَاعَتُنَا رُدَّتْ إِلَيْنَا وَنَمِيرُ أَهْلَنَا وَنَحْفَظُ أَخَانَا وَنَزْدَادُ كَيْلَ بَعِيرٍ ذَلِكَ كَيْلٌ يَسِيرٌ এবং যখন তারা আসবাবপত্র খুলল, তখন দেখতে পেল যে, তাদেরকে তাদের পন্যমুল্য ফেরত দেয়া হয়েছে। তারা বললঃ হে আমাদের পিতা, আমরা আর কি চাইতে পারি। এই আমাদের প্রদত্ত পন্যমূল্য, আমাদেরকে ফেরত দেয়া হয়েছে। এখন আমরা আবার আমাদের পরিবারবর্গের জন্যে রসদ আনব এবং আমাদের ভাইয়ের দেখাশোনা করব এবং এক এক উটের বরাদ্দ খাদ্যশস্য আমরা অতিরিক্ত আনব। ঐ বরাদ্দ সহজ। Then when they opened their baggage, they found their stock-in-trade had been returned to them. They said: “O our father! What (more) can we desire? this our stock-in-trade has been returned to us: so we shall get (more) food for our family; We shall take care of our brother; and add (at the same time) a full camel’s load (of grain to our provisions). This is but a small quantity.

( وَلَمَّا এবং যখন And when, فَتَحُوا۟ তারা খুললো they opened, مَتَٰعَهُمْ তাদের মালপত্র their baggage, وَجَدُوا۟ তারা পেলো they found, بِضَٰعَتَهُمْ তাদের পণ্যমূল্য their merchandise, رُدَّتْ ফেরত দেয়া হয়েছে returned, إِلَيْهِمْ তাদের প্রতি to them, قَالُوا۟ তারা বললো They said, يَٰٓأَبَانَا “হে আমাদের পিতা “O our father!, مَا কি What, نَبْغِى আশা করি আমরা (could) we desire?, هَٰذِهِۦ এই যে This, بِضَٰعَتُنَا আমাদের পণ্যমূল্য (is) our merchandise, رُدَّتْ ফেরত দেয়া হয়েছে returned, إِلَيْنَا আমাদের প্রতি to us, وَنَمِيرُ এবং আমরা খাদ্য এনে দিবো And we will get provision, أَهْلَنَا আমাদের পরিবারকে (for) our family, وَنَحْفَظُ আমরা দেখাশুনা করবো and we will protect, أَخَانَا আমাদের ভাইকে our brother, وَنَزْدَادُ ও অতিরিক্ত আনবো আমরা and get an increase, كَيْلَ পরিমাণ (বরাদ্দ) measure, بَعِيرٍ এক উটবোঝাই (of) a camel’s (load), ذَٰلِكَ ঐ That, كَيْلٌ পরিমাপ (is) a measurement, يَسِيرٌ সহজ” easy” )

 

(66) قَالَ لَنْ أُرْسِلَهُ مَعَكُمْ حَتَّى تُؤْتُونِ مَوْثِقًا مِّنَ اللّهِ لَتَأْتُنَّنِي بِهِ إِلاَّ أَن يُحَاطَ بِكُمْ فَلَمَّا آتَوْهُ مَوْثِقَهُمْ قَالَ اللّهُ عَلَى مَا نَقُولُ وَكِيلٌ বললেন, তাকে ততক্ষণ তোমাদের সাথে পাঠাব না, যতক্ষণ তোমরা আমাকে আল্লাহর নামে অঙ্গীকার না দাও যে, তাকে অবশ্যই আমার কাছে পৌঁছে দেবে; কিন্তু যদি তোমরা সবাই একান্তই অসহায় না হয়ে যাও। অতঃপর যখন সবাই তাঁকে অঙ্গীকার দিল, তখন তিনি বললেনঃ আমাদের মধ্যে যা কথাবার্তা হলো সে ব্যাপারে আল্লাহই মধ্যস্থ রইলেন। (Jacob) said: “Never will I send him with you until ye swear a solemn oath to me, in Allah.s name, that ye will be sure to bring him back to me unless ye are yourselves hemmed in (and made powerless). And when they had sworn their solemn oath, he said: “Over all that we say, be Allah the witness and guardian!”

( قَالَ সে বললো He said, لَنْ “কখনও না “Never, أُرْسِلَهُۥ তাকে আমি পাঠাবো will I send him, مَعَكُمْ তোমাদের সাথে with you, حَتَّىٰ যতক্ষণ না until, تُؤْتُونِ তোমরা দিবে আমাকে you give to me, مَوْثِقًا প্রতিশ্রুতি a promise, مِّنَ নামে by, ٱللَّهِ আল্লাহ্‌র Allah, لَتَأْتُنَّنِى অবশ্যই আমার কাছে আসবে তোমরা that surely you will bring him to me, بِهِۦٓ নিয়ে তাকে that surely you will bring him to me, إِلَّآ তবে unless, أَن যদি that, يُحَاطَ পরিবেষ্টিত করা হয় (সেটা ভিন্ন কথা)” you are surrounded”, بِكُمْ তোমাদেরকে” you are surrounded”, فَلَمَّآ অতঃপর যখন And when, ءَاتَوْهُ তাকে দিলো they had given him, مَوْثِقَهُمْ তাদের প্রতিশ্রুতি their promise, قَالَ (ইয়াকুব) বললো he said, ٱللَّهُ “আল্লাহর “Allah, عَلَىٰ উপর (ভরসা) over, مَا যা what, نَقُولُ আমরা বলছি we say, وَكِيلٌ তিনিই কর্মবিধায়ক” (is) a Guardian” )

 

(67) وَقَالَ يَا بَنِيَّ لاَ تَدْخُلُواْ مِن بَابٍ وَاحِدٍ وَادْخُلُواْ مِنْ أَبْوَابٍ مُّتَفَرِّقَةٍ وَمَا أُغْنِي عَنكُم مِّنَ اللّهِ مِن شَيْءٍ إِنِ الْحُكْمُ إِلاَّ لِلّهِ عَلَيْهِ تَوَكَّلْتُ وَعَلَيْهِ فَلْيَتَوَكَّلِ الْمُتَوَكِّلُونَ ইয়াকুব বললেনঃ হে আমার বৎসগণ! সবাই একই প্রবেশদ্বার দিয়ে যেয়ো না, বরং পৃথক পৃথক দরজা দিয়ে প্রবেশ করো। আল্লাহর কোন বিধান থেকে আমি তোমাদেরকে রক্ষা করতে পারি না। নির্দেশ আল্লাহরই চলে। তাঁরই উপর আমি ভরসা করি এবং তাঁরই উপর ভরসা করা উচিত ভরসাকারীদের। Further he said: “O my sons! enter not all by one gate: enter ye by different gates. Not that I can profit you aught against Allah (with my advice): None can command except Allah. On Him do I put my trust: and let all that trust put their trust on Him.”

( وَقَالَ এবং সে বললো And he said, يَٰبَنِىَّ “হে আমার ছেলেরা “O my sons!, لَا না (Do) not, تَدْخُلُوا۟ তোমরা প্রবেশ করো enter, مِنۢ দিয়ে from, بَابٍ দরজা one gate, وَٰحِدٍ একটা one gate, وَٱدْخُلُوا۟ বরং তোমরা প্রবেশ করো but enter, مِنْ দিয়ে from, أَبْوَٰبٍ দরজা gates, مُّتَفَرِّقَةٍ ভিন্ন ভিন্ন different, وَمَآ এবং না And not, أُغْنِى আমি কাজে আসবো I can avail, عَنكُم তোমাদের জন্যে you, مِّنَ থেকে against, ٱللَّهِ আল্লাহ Allah, مِن কোন any, شَىْءٍ কিছুই thing, إِنِ নেই Not, ٱلْحُكْمُ বিধান দেয়ার অধিকার (is) the decision, إِلَّا ছাড়া except, لِلَّهِ আল্লাহ with Allah, عَلَيْهِ তাঁরই উপর upon Him, تَوَكَّلْتُ আমি নির্ভর করছি I put my trust, وَعَلَيْهِ এবং তাঁরই উপর and upon Him, فَلْيَتَوَكَّلِ নির্ভর করা উচিত let put (their) trust, ٱلْمُتَوَكِّلُونَ ভরসাকারীদের” the ones who put trust”)

 

(68) وَلَمَّا دَخَلُواْ مِنْ حَيْثُ أَمَرَهُمْ أَبُوهُم مَّا كَانَ يُغْنِي عَنْهُم مِّنَ اللّهِ مِن شَيْءٍ إِلاَّ حَاجَةً فِي نَفْسِ يَعْقُوبَ قَضَاهَا وَإِنَّهُ لَذُو عِلْمٍ لِّمَا عَلَّمْنَاهُ وَلَـكِنَّ أَكْثَرَ النَّاسِ لاَ يَعْلَمُونَ তারা যখন পিতার কথামত প্রবেশ করল, তখন আল্লাহর বিধানের বিরুদ্ধে তা তাদের বাঁচাতে পারল না। কিন্তু ইয়াকুবের সিদ্ধান্তে তাঁর মনের একটি বাসনা ছিল, যা তিনি পূর্ণ করেছেন। এবং তিনি তো আমার শেখানো বিষয় অবগত ছিলেন। কিন্তু অনেক মানুষ অবগত নয়। And when they entered in the manner their father had enjoined, it did not profit them in the least against (the plan of) Allah. It was but a necessity of Jacob’s soul, which he discharged. For he was, by our instruction, full of knowledge (and experience): but most men know not.

( وَلَمَّا এবং যখন And when, دَخَلُوا۟ তারা প্রবেশ করলো they entered, مِنْ দিয়ে from, حَيْثُ যেখান where, أَمَرَهُمْ তাদের নির্দেশ দিয়েছিল ordered them, أَبُوهُم তাদের পিতা their father, مَّا না not, كَانَ (হল) it, يُغْنِى কাজে আসল avail(ed), عَنْهُم তাদের জন্যে them, مِّنَ হ’তে against, ٱللَّهِ আল্লাহ্‌ Allah, مِن কোন any, شَىْءٍ কিছুই thing, إِلَّا ছাড়া যে but, حَاجَةً অভিপ্রায় (ছিলো) (it was) a need, فِى মধ্যে of, نَفْسِ মনের Yaqub’s soul, يَعْقُوبَ ইয়াকুবের Yaqub’s soul, قَضَىٰهَا যা সে পূর্ণ করেছিলো which he carried out, وَإِنَّهُۥ এবং সে নিশ্চয়ই And indeed, he, لَذُو অবশ্যই সম্পন্ন (was) a possessor, عِلْمٍ জ্ঞান (ছিলো) (of) knowledge, لِّمَا ঐ বিষয়ে যা because, عَلَّمْنَٰهُ তাকে আমরা শিখিয়েছিলাম We had taught him, وَلَٰكِنَّ কিন্তু but, أَكْثَرَ অধিকাংশ most, ٱلنَّاسِ মানুষ (of) the people, لَا না (do) not, يَعْلَمُونَ তারা জ্ঞান রাখে know)

 

(69) وَلَمَّا دَخَلُواْ عَلَى يُوسُفَ آوَى إِلَيْهِ أَخَاهُ قَالَ إِنِّي أَنَاْ أَخُوكَ فَلاَ تَبْتَئِسْ بِمَا كَانُواْ يَعْمَلُونَ যখন তারা ইউসুফের কাছে উপস্থিত হল, তখন সে আপন ভ্রাতাকে নিজের কাছে রাখল। বললঃ নিশ্চই আমি তোমার সহোদর। অতএব তাদের কৃতকর্মের জন্যে দুঃখ করো না। Now when they came into Joseph’s presence, he received his (full) brother to stay with him. He said (to him): “Behold! I am thy (own) brother; so grieve not at aught of their doings.”

( وَلَمَّا এবং যখন And when, دَخَلُوا۟ তারা প্রবেশ করলো they entered, عَلَىٰ কাছে upon, يُوسُفَ ইউসুফের Yusuf, ءَاوَىٰٓ সে আশ্রয় দিলো he took, إِلَيْهِ তার কাছে to himself, أَخَاهُ তার ভাইকে his brother, قَالَ সে বললো He said, إِنِّىٓ “আমি নিশ্চয়ই “Indeed I, أَنَا۠ আমি [I] am, أَخُوكَ তোমার ভাই (ইউসুফ) your brother, فَلَا সুতরাং না so (do) not, تَبْتَئِسْ দুঃখ করো grieve, بِمَا ঐ সম্বন্ধে যা for what, كَانُوا۟ তারা ছিলো they used (to),  يَعْمَلُونَ তারা কাজ করতে” do”)

 

(70) فَلَمَّا جَهَّزَهُم بِجَهَازِهِمْ جَعَلَ السِّقَايَةَ فِي رَحْلِ أَخِيهِ ثُمَّ أَذَّنَ مُؤَذِّنٌ أَيَّتُهَا الْعِيرُ إِنَّكُمْ لَسَارِقُونَ অতঃপর যখন ইউসুফ তাদের রসদপত্র প্রস্তুত করে দিল, তখন পানপাত্র আপন ভাইয়ের রসদের মধ্যে রেখে দিল। অতঃপর একজন ঘোষক ডেকে বললঃ হে কাফেলার লোকজন, তোমরা অবশ্যই চোর। At length when he had furnished them forth with provisions (suitable) for them, he put the drinking cup into his brother’s saddle-bag. Then shouted out a crier: “O ye (in) the caravan! behold! ye are thieves, without doubt!”

( فَلَمَّا অতঃপর যখন So when, جَهَّزَهُم তাদেরকে সে প্রস্তুত করলো he had furnished them, بِجَهَازِهِمْ সহ তাদের খাদ্য সামগ্রী with their supplies, جَعَلَ সে রেখে দিলো he put, ٱلسِّقَايَةَ (নিজের) পানপাত্র the drinking cup, فِى মধ্যে in, رَحْلِ মালপত্রের the bag, أَخِيهِ তার ভাইয়ের (of) his brother, ثُمَّ এরপর Then, أَذَّنَ ঘোষণা দিলো called out, مُؤَذِّنٌ এক ঘোষক an announcer, أَيَّتُهَا “হে “O you, ٱلْعِيرُ যাত্রীদল (in) the caravan!, إِنَّكُمْ নিশ্চয়ই তোমরা Indeed you, لَسَٰرِقُونَ অবশ্যই চোর” surely (are) thieves” )

 

(71) قَالُواْ وَأَقْبَلُواْ عَلَيْهِم مَّاذَا تَفْقِدُونَ তারা ওদের দিকে মুখ করে বললঃ তোমাদের কি হারিয়েছে? They said, turning towards them: “What is it that ye miss?”

( قَالُوا۟ তারা বললো They said, وَأَقْبَلُوا۟ এবং এগিয়ে এলো turning towards, عَلَيْهِم দিকে তাদের them, مَّاذَا “কি “What (is it), تَفْقِدُونَ তোমরা হারিয়েছো” you miss?” )

 

(72) قَالُواْ نَفْقِدُ صُوَاعَ الْمَلِكِ وَلِمَن جَاء بِهِ حِمْلُ بَعِيرٍ وَأَنَاْ بِهِ زَعِيمٌ তারা বললঃ আমরা বাদশাহর পানপাত্র হারিয়েছি এবং যে কেউ এটা এনে দেবে সে এক উটের বোঝা পরিমাণ মাল পাবে এবং আমি এর যামিন। They said: “We miss the great beaker of the king; for him who produces it, is (the reward of) a camel load; I will be bound by it.”

( قَالُوا۟ তারা বললো They said, نَفْقِدُ “আমরা হারিয়েছি “We are missing, صُوَاعَ পানপাত্র (the) cup, ٱلْمَلِكِ রাজার (of) the king, وَلِمَن এবং যে কেউ And for (one) who, جَآءَ আসবে brings, بِهِۦ নিয়ে তা (সে খাদ্য পাবে) it, حِمْلُ বোঝা পরিমাণ (is) a load, بَعِيرٍ এক উটের (of) a camel, وَأَنَا۠ এবং আমি and I, بِهِۦ এ সম্বন্ধে for it, زَعِيمٌ মুখপাত্র” (is) responsible” )

 

(73) قَالُواْ تَاللّهِ لَقَدْ عَلِمْتُم مَّا جِئْنَا لِنُفْسِدَ فِي الأَرْضِ وَمَا كُنَّا سَارِقِينَ তারা বললঃ আল্লাহর কসম, তোমরা তো জান, আমরা অনর্থ ঘটাতে এদেশে আসিনি এবং আমরা কখনও চোর ছিলাম না। (The brothers) said: “By Allah. well ye know that we came not to make mischief in the land, and we are no thieves!”

( قَالُوا۟ তারা বললো They said, تَٱللَّهِ “শপথ আল্লাহর “By Allah, لَقَدْ নিশ্চয়ই certainly, عَلِمْتُم তোমরা জেনেছো (যে) you know, مَّا না not, جِئْنَا আমরা এসেছি we came, لِنُفْسِدَ জন্যে আমরা খারাপ কাজ করার that we cause corruption, فِى মধ্যে in, ٱلْأَرْضِ এ দেশের the land, وَمَا এবং নই and not, كُنَّا আমরা we are, سَٰرِقِينَ চোর” thieves” )

 

(74) قَالُواْ فَمَا جَزَآؤُهُ إِن كُنتُمْ كَاذِبِينَ তারা বললঃ যদি তোমরা মিথ্যাবাদী হও, তবে যে, চুরি করেছে তার কি শাস্তি? (The Egyptians) said: “What then shall be the penalty of this, if ye are (proved) to have lied?”

( قَالُوا۟ তারা বললো They said, فَمَا “তবে কি “Then what, جَزَٰٓؤُهُۥٓ তার শাস্তি (will be the) recompense (of) it, إِن যদি if, كُنتُمْ তোমরা হও you are,  كَٰذِبِينَ মিথ্যাবাদী” liars”)

 

(75) قَالُواْ جَزَآؤُهُ مَن وُجِدَ فِي رَحْلِهِ فَهُوَ جَزَاؤُهُ كَذَلِكَ نَجْزِي الظَّالِمِينَ তারা বললঃ এর শাস্তি এই যে, যার রসদপত্র থেকে তা পাওয়া যাবে, এর প্রতিদানে সে দাসত্বে যাবে। আমরা যালেমদেরকে এভাবেই শাস্তি দেই। They said: “The penalty should be that he in whose saddle-bag it is found, should be held (as bondman) to atone for the (crime). Thus it is we punish the wrong- doers!”

( قَالُوا۟ তারা বললো They said, جَزَٰٓؤُهُۥ “তার শাস্তি “Its recompense, مَن যার (is that one) who, وُجِدَ পাওয়া যাবে it is found, فِى মধ্যে in, رَحْلِهِۦ তার মালপত্রের his bag, فَهُوَ অতঃপর সেই then he, جَزَٰٓؤُهُۥ তার বিনিময় হবে (will be) his recompense, كَذَٰلِكَ এভাবে Thus,  نَجْزِى প্রতিদান দিই আমরা (do) we recompense, ٱلظَّٰلِمِينَ সীমালঙ্ঘনকারীদেরকে” the wrongdoers” )

 

(76) فَبَدَأَ بِأَوْعِيَتِهِمْ قَبْلَ وِعَاء أَخِيهِ ثُمَّ اسْتَخْرَجَهَا مِن وِعَاء أَخِيهِ كَذَلِكَ كِدْنَا لِيُوسُفَ مَا كَانَ لِيَأْخُذَ أَخَاهُ فِي دِينِ الْمَلِكِ إِلاَّ أَن يَشَاء اللّهُ نَرْفَعُ دَرَجَاتٍ مِّن نَّشَاء وَفَوْقَ كُلِّ ذِي عِلْمٍ عَلِيمٌ অতঃপর ইউসুফ আপন ভাইদের থলের পূর্বে তাদের থলে তল্লাশী শুরু করলেন। অবশেষে সেই পাত্র আপন ভাইয়ের থলের মধ্য থেকে বের করলেন। এমনিভাবে আমি ইউসুফকে কৌশল শিক্ষা দিয়েছিলাম। সে বাদশাহর আইনে আপন ভাইকে কখনও দাসত্বে দিতে পারত না, কিুæ আল্লাহ যদি ইচ্ছা করেন। আমি যাকে ইচ্ছা, মর্যাদায় উন্নীত করি এবং প্রত্যেক জ্ঞানীর উপরে আছে অধিকতর এক জ্ঞানীজন। So he began (the search) with their baggage, before (he came to) the baggage of his brother: at length he brought it out of his brother’s baggage. Thus did We plan for Joseph. He could not take his brother by the law of the king except that Allah willed it (so). We raise to degrees (of wisdom) whom We please: but over all endued with knowledge is one, the All-Knowing. 

( فَبَدَأَ অতঃপর (তল্লাশি) সে শুরু করলো So he began, بِأَوْعِيَتِهِمْ তাদের পাত্রের with their bags, قَبْلَ পূর্বে before, وِعَآءِ পাত্রের (the) bag, أَخِيهِ তার ভাইয়ের (of) his brother, ثُمَّ এরপর then, ٱسْتَخْرَجَهَا তা সে বের করলো he brought it out, مِن হ’তে from, وِعَآءِ পাত্রের (the) bag, أَخِيهِ তার ভাইয়ের (of) his brother, كَذَٰلِكَ এভাবে Thus, كِدْنَا আমরা কৌশল করেছিলাম (did) We plan, لِيُوسُفَ ইউসুফের জন্যে for Yusuf, مَا না He could not, كَانَ শোভা পেতো He could not, لِيَأْخُذَ যে সে ধরে রাখবে take, أَخَاهُ তার ভাইকে his brother, فِى অনুযায়ী by, دِينِ আইন the law, ٱلْمَلِكِ রাজার (of) the king, إِلَّآ তবে except, أَن যদি that, يَشَآءَ ইচ্ছে করেন Allah willed, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah willed, نَرْفَعُ আমরা উন্নীত করি We raise, دَرَجَٰتٍ মর্যাদা (in) degrees, مَّن যাকে whom, نَّشَآءُ ইচ্ছে করি আমরা We will, وَفَوْقَ এবং উপরে but over, كُلِّ (তাদের) প্রত্যেক every, ذِى সম্পন্নের possessor, عِلْمٍ জ্ঞান (আছেন) (of) knowledge, عَلِيمٌ একজন মহাজ্ঞানী (is) the All-Knower)

 

(77) قَالُواْ إِن يَسْرِقْ فَقَدْ سَرَقَ أَخٌ لَّهُ مِن قَبْلُ فَأَسَرَّهَا يُوسُفُ فِي نَفْسِهِ وَلَمْ يُبْدِهَا لَهُمْ قَالَ أَنتُمْ شَرٌّ مَّكَانًا وَاللّهُ أَعْلَمْ بِمَا تَصِفُونَ তারা বলতে লাগলঃ যদি সে চুরি করে থাকে, তবে তার এক ভাইও ইতিপূর্বে চুরি করেছিল। তখন ইউসুফ প্রকৃত ব্যাপার নিজের মনে রাখলেন এবং তাদেরকে জানালেন না। মনে মনে বললেনঃ তোমরা লোক হিসাবে নিতান্ত মন্দ এবং আল্লাহ খুব জ্ঞাত রয়েছেন, যা তোমরা বর্ণনা করছ; They said: “If he steals, there was a brother of his who did steal before (him).” But these things did Joseph keep locked in his heart, revealing not the secrets to them. He (simply) said (to himself): “Ye are the worse situated; and Allah knoweth best the truth of what ye assert!”

( قَالُوٓا۟ তারা বললো They said, إِن “যদি “If, يَسْرِقْ সে চুরি করে থাকে he steals, فَقَدْ তবে নিশ্চয়ই (আশ্চর্য নয়) then verily, سَرَقَ চুরি করেছিলো stole, أَخٌ ভাই a brother, لَّهُۥ তার (অর্থাৎ ইউসুফ) of his, مِن থেকেই” before”, قَبْلُ আগে” before”, فَأَسَرَّهَا অতঃপর রাখলো তা গোপন But Yusuf kept it secret, يُوسُفُ ইউসুফ But Yusuf kept it secret,  فِى মধ্যে within, نَفْسِهِۦ তার নিজের himself, وَلَمْ এবং না and (did) not, يُبْدِهَا তা প্রকাশ করলো reveal it, لَهُمْ তাদের কাছে to them, قَالَ সে বললো (মনে মনে) He said, أَنتُمْ “তোমরা (লোক) “You, شَرٌّ খারাপ (are the) worse, مَّكَانًا অবস্থার (প্রকৃতির) (in) position, وَٱللَّهُ এবং আল্লাহই and Allah, أَعْلَمُ খুব অবহিত knows best, بِمَا ঐ সম্বন্ধে যা of what, تَصِفُونَ তোমরা বর্ণনা করছো” you describe” )

 

(78) قَالُواْ يَا أَيُّهَا الْعَزِيزُ إِنَّ لَهُ أَبًا شَيْخًا كَبِيرًا فَخُذْ أَحَدَنَا مَكَانَهُ إِنَّا نَرَاكَ مِنَ الْمُحْسِنِينَ  তারা বলতে লাগলঃ হে আযীয, তার পিতা আছেন, যিনি খুবই বৃদ্ধ বয়স্ক। সুতরাং আপনি আমাদের একজনকে তার বদলে রেখে দিন। আমরা আপনাকে অনুগ্রহশীল ব্যক্তিদের একজন দেখতে পাচ্ছি। They said: “O exalted one! Behold! he has a father, aged and venerable, (who will grieve for him); so take one of us in his place; for we see that thou art (gracious) in doing good.”

( قَالُوا۟ তারা বললো They said, يَٰٓأَيُّهَا “হে “O, ٱلْعَزِيزُ আজীজ Aziz!, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, لَهُۥٓ তার আছে he has, أَبًا পিতা a father, شَيْخًا বৃদ্ধ old, كَبِيرًا অতিশয় [great], فَخُذْ অতএব ধরে রাখুন so take, أَحَدَنَا আমাদের একজনকে one of us, مَكَانَهُۥٓ তার জায়গায় (in) his place, إِنَّا নিশ্চয়ই আমরা Indeed we, نَرَىٰكَ আপনাকে দেখছি [we] see you, مِنَ অন্তর্ভুক্ত of, ٱلْمُحْسِنِينَ মহানুভবদের” the good-doers” )

 

(79) قَالَ مَعَاذَ اللّهِ أَن نَّأْخُذَ إِلاَّ مَن وَجَدْنَا مَتَاعَنَا عِندَهُ إِنَّـآ إِذًا لَّظَالِمُونَ তিনি বললেনঃ যার কাছে আমরা আমাদের মাল পেয়েছি, তাকে ছাড়া আর কাউকে গ্রেফতার করা থেকে আল্লাহ আমাদের রক্ষা করুন। তা হলে তো আমরা নিশ্চিতই অন্যায়কারী হয়ে যাব। He said: “(Allah) forbid that we take other than him with whom we found our property: indeed (if we did so), we should be acting wrongfully.

( قَالَ সে বললো He said, مَعَاذَ “আশ্রয় “Allah forbid, ٱللَّهِ “আল্লাহ্‌র “Allah forbid, أَن যে that, نَّأْخُذَ ধরবো আমরা we take, إِلَّا ছাড়া except, مَن যাকে (one) who, وَجَدْنَا আমরা পেয়েছি we found, مَتَٰعَنَا আমাদের সামগ্রী our possession, عِندَهُۥٓ তার কাছে with him, إِنَّآ নিশ্চয়ই আমরা Indeed, we, إِذًا তখন (হবো) then, لَّظَٰلِمُونَ অবশ্যই সীমালঙ্ঘনকারীদের (অন্তর্ভুক্ত)” surely (would be) wrongdoers”)

(80) فَلَمَّا اسْتَيْأَسُواْ مِنْهُ خَلَصُواْ نَجِيًّا قَالَ كَبِيرُهُمْ أَلَمْ تَعْلَمُواْ أَنَّ أَبَاكُمْ قَدْ أَخَذَ عَلَيْكُم مَّوْثِقًا مِّنَ اللّهِ وَمِن قَبْلُ مَا فَرَّطتُمْ فِي يُوسُفَ فَلَنْ أَبْرَحَ الأَرْضَ حَتَّىَ يَأْذَنَ لِي أَبِي أَوْ يَحْكُمَ اللّهُ لِي وَهُوَ خَيْرُ الْحَاكِمِينَ অতঃপর যখন তারা তাঁর কাছ থেকে নিরাশ হয়ে গেল, তখন পরামর্শের জন্যে এখানে বসল। তাদের জ্যেষ্ঠ ভাই বললঃ তোমরা কি জান না যে, পিতা তোমাদের কাছ থেকে আল্লাহর নামে অঙ্গীকার নিয়েছেন এবং পূর্বে ইউসুফের ব্যাপারেও তোমরা অন্যায় করেছো? অতএব আমি তো কিছুতেই এদেশ ত্যাগ করব না, যে পর্যন্ত না পিতা আমাকে আদেশ দেন অথবা আল্লাহ আমার পক্ষে কোন ব্যবস্থা করে দেন। তিনিই সর্বোত্তম ব্যবস্থাপক। Now when they saw no hope of his (yielding), they held a conference in private. The leader among them said: “Know ye not that your father did take an oath from you in Allah.s name, and how, before this, ye did fail in your duty with Joseph? Therefore will I not leave this land until my father permits me, or Allah commands me; and He is the best to command.

( فَلَمَّا অতঃপর যখন So when, ٱسْتَيْـَٔسُوا۟ তারা নিরাশ হলো they despaired, مِنْهُ তার থেকে of him, خَلَصُوا۟ নির্জনে গিয়ে বসলো they secluded themselves, نَجِيًّا পরামর্শে (in) private consultation, قَالَ বললো Said, كَبِيرُهُمْ তাদের বড়জন the eldest among them, أَلَمْ “না কি “Do not, تَعْلَمُوٓا۟ তোমরা জেনেছো you know, أَنَّ যে that, أَبَاكُمْ তোমাদের পিতা your father, قَدْ নিশ্চয়ই has taken, أَخَذَ নিয়েছেন has taken, عَلَيْكُم তোমাদের হ’তে upon you, مَّوْثِقًا প্রতিশ্রুতি a promise, مِّنَ নামে by, ٱللَّهِ আল্লাহর Allah, وَمِن এবং থেকেই and before, قَبْلُ পূর্ব and before, مَا কি that, فَرَّطتُمْ তোমরা অন্যায় করেছো you failed, فِى ব্যাপারে concerning, يُوسُفَ ইউসুফের Yusuf?, فَلَنْ অতএব কখনও না So never, أَبْرَحَ ছেড়ে যাবো আমি will I leave, ٱلْأَرْضَ এ দেশ the land, حَتَّىٰ যতক্ষণ না until, يَأْذَنَ অনুমতি দিবেন permits, لِىٓ আমাকে me, أَبِىٓ আমার পিতা my father, أَوْ বা or, يَحْكُمَ মীমাংসা করবেন Allah decides, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah decides, لِى আমার জন্যে (অন্য কিছু) for me, وَهُوَ এবং তিনিই and He, خَيْرُ শ্রেষ্ঠ (is) the Best, ٱلْحَٰكِمِينَ বিচারকদের (of) the judges)

 

(81) ارْجِعُواْ إِلَى أَبِيكُمْ فَقُولُواْ يَا أَبَانَا إِنَّ ابْنَكَ سَرَقَ وَمَا شَهِدْنَا إِلاَّ بِمَا عَلِمْنَا وَمَا كُنَّا لِلْغَيْبِ حَافِظِينَ তোমরা তোমাদের পিতার কাছে ফিরে যাও এবং বলঃ পিতা আপনার ছেলে চুরি করেছে। আমরা তাই বলে দিলাম, যা আমাদের জানা ছিল এবং অদৃশ্য বিষয়ের প্রতি আমাদের লক্ষ্য ছিল না। “Turn ye back to your father, and say, ‘O our father! behold! thy son committed theft! we bear witness only to what we know, and we could not well guard against the unseen!

( ٱرْجِعُوٓا۟ তোমরা ফিরে যাও Return, إِلَىٰٓ কাছে to, أَبِيكُمْ তোমাদের পিতার your father, فَقُولُوا۟ অতঃপর তোমরা বলো and say, يَٰٓأَبَانَآ হে আমাদের পিতা O our father!, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱبْنَكَ আপনার ছেলে your son, سَرَقَ চুরি করেছে has stolen, وَمَا এবং না and not, شَهِدْنَآ আমরা সাক্ষ্য দিচ্ছি we testify, إِلَّا এ ছাড়া except, بِمَا ঐ সম্বন্ধে যা of what, عَلِمْنَا আমরা জেনেছি we knew, وَمَا এবং না And not, كُنَّا আমরা ছিলাম we were, لِلْغَيْبِ ব্যাপারে অদৃশ্যের of the unseen, حَٰفِظِينَ সংরক্ষক (অর্থাৎ অবহিত) guardians )

 

(82) وَاسْأَلِ الْقَرْيَةَ الَّتِي كُنَّا فِيهَا وَالْعِيْرَ الَّتِي أَقْبَلْنَا فِيهَا وَإِنَّا لَصَادِقُونَ জিজ্ঞেস করুন ঐ জনপদের লোকদেরকে যেখানে আমরা ছিলাম এবং ঐ কাফেলাকে, যাদের সাথে আমরা এসেছি। নিশ্চিতই আমরা সত্য বলছি। “‘Ask at the town where we have been and the caravan in which we returned, and (you will find) we are indeed telling the truth.'”

( وَسْـَٔلِ এবং জিজ্ঞেস করুন And ask, ٱلْقَرْيَةَ জনপদের অধিবাসীদের the town, ٱلَّتِى যে (জনপদে) where, كُنَّا আমরা ছিলাম we were, فِيهَا তার মধ্যে [in it], وَٱلْعِيرَ ও যাত্রীদলকে and the caravan, ٱلَّتِىٓ সেই (কাফেলার) which, أَقْبَلْنَا আমরা এসেছি we returned, فِيهَا যার সাথে [in it], وَإِنَّا এবং নিশ্চয়ই আমরা And indeed we, لَصَٰدِقُونَ অবশ্যই সত্যবাদী surely (are) truthful )

 

(83) قَالَ بَلْ سَوَّلَتْ لَكُمْ أَنفُسُكُمْ أَمْرًا فَصَبْرٌ جَمِيلٌ عَسَى اللّهُ أَن يَأْتِيَنِي بِهِمْ جَمِيعًا إِنَّهُ هُوَ الْعَلِيمُ الْحَكِيمُ তিনি বললেনঃ কিছুই না, তোমরা মনগড়া একটি কথা নিয়েই এসেছ। এখন ধৈর্য্যধারণই উত্তম। সম্ভবতঃ আল্লাহ তাদের সবাইকে একসঙ্গে আমার কাছে নিয়ে আসবেন তিনি সুবিজ্ঞ, প্রজ্ঞাময়। Jacob said: “Nay, but ye have yourselves contrived a story (good enough) for you. So patience is most fitting (for me). Maybe Allah will bring them (back) all to me (in the end). For He is indeed full of knowledge and wisdom.”

( قَالَ (ইয়াকুব) বললো He said, بَلْ “বরং “Nay, سَوَّلَتْ সাজিয়ে দিয়েছে have enticed, لَكُمْ তোমাদের জন্যে you, أَنفُسُكُمْ তোমাদের মন (অর্থাৎ প্রবৃত্তি) your souls, أَمْرًا এ কাজ something, فَصَبْرٌ অতএব ধৈর্যই so patience, جَمِيلٌ উত্তম (is) beautiful, عَسَى হয়তো Perhaps, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah, أَن যে will bring them to me, يَأْتِيَنِى আমার কাছে আনবেন will bring them to me, بِهِمْ নিয়ে তাদেরকে will bring them to me, جَمِيعًا একত্রে all, إِنَّهُۥ নিশ্চয়ই তিনি Indeed, He, هُوَ তিনিই He, ٱلْعَلِيمُ সর্বজ্ঞ (is) the All-Knower, ٱلْحَكِيمُ প্রজ্ঞাময়” All-Wise” )

 

(84) وَتَوَلَّى عَنْهُمْ وَقَالَ يَا أَسَفَى عَلَى يُوسُفَ وَابْيَضَّتْ عَيْنَاهُ مِنَ الْحُزْنِ فَهُوَ كَظِيمٌ এবং তাদের দিক থেকে তিনি মুখ ফিরিয়ে নিলেন এবং বললেনঃ হায় আফসোস ইউসুফের জন্যে। এবং দুঃখে তাঁর চক্ষুদ্বয় সাদা হয়ে গেল। এবং অসহনীয় মনস্তাপে তিনি ছিলেন ক্লিষ্ট। And he turned away from them, and said: “How great is my grief for Joseph!” And his eyes became white with sorrow, and he fell into silent melancholy.

( وَتَوَلَّىٰ এবং মুখ ফিরালো সে And he turned away, عَنْهُمْ তাদের থেকে from them, وَقَالَ এবং বললো and said, يَٰٓأَسَفَىٰ “হায় আফসোস “Alas my grief, عَلَىٰ জন্যে over,  يُوسُفَ ইউসুফের” Yusuf!”, وَٱبْيَضَّتْ এবং সাদা হয়ে গেল And became white, عَيْنَاهُ তার দু’চোখ his eyes, مِنَ কারণে from, ٱلْحُزْنِ শোকের the grief, فَهُوَ অতঃপর সে (হয়ে গেলো) and he (was), كَظِيمٌ বিষাদপূর্ণ a suppressor)

 

(85) قَالُواْ تَالله تَفْتَأُ تَذْكُرُ يُوسُفَ حَتَّى تَكُونَ حَرَضًا أَوْ تَكُونَ مِنَ الْهَالِكِينَ তারা বলতে লাগলঃ আল্লাহর কসম আপনি তো ইউসুফের স্মরণ থেকে নিবৃত হবেন না, যে পর্যন্ত মরণপন্ন না হয়ে যান কিংবা মৃতবরণ না করেন They said: “By Allah. (never) wilt thou cease to remember Joseph until thou reach the last extremity of illness, or until thou die!”

( قَالُوا۟ তারা বললো They said, تَٱللَّهِ “শপথ আল্লাহর “By Allah, تَفْتَؤُا۟ আপনি ক্ষান্ত হবেন (না) you will not cease, تَذْكُرُ স্মরণ করতে remembering, يُوسُفَ ইউসুফকে Yusuf, حَتَّىٰ যতক্ষণ না until, تَكُونَ হবেন আপনি you become, حَرَضًا মৃতপ্রায় fatally ill, أَوْ অথবা or, تَكُونَ হবেন আপনি become, مِنَ অন্তর্ভুক্ত of, ٱلْهَٰلِكِينَ জীবন ধ্বংসকারীদের” those who perish”)

 

(86) قَالَ إِنَّمَا أَشْكُو بَثِّي وَحُزْنِي إِلَى اللّهِ وَأَعْلَمُ مِنَ اللّهِ مَا لاَ تَعْلَمُونَ তিনি বললেনঃ আমি তো আমার দুঃখ ও অস্থিরতা আল্লাহর সমীপেই নিবেদন করছি এবং আল্লাহর পক্ষ থেকে আমি যা জানি, তা তোমরা জান না। He said: “I only complain of my distraction and anguish to Allah, and I know from Allah that which ye know not…

( قَالُوا۟ তারা বললো They said, تَٱللَّهِ “শপথ আল্লাহর “By Allah, تَفْتَؤُا۟ আপনি ক্ষান্ত হবেন (না) you will not cease, تَذْكُرُ স্মরণ করতে remembering, يُوسُفَ ইউসুফকে Yusuf, حَتَّىٰ যতক্ষণ না until, تَكُونَ হবেন আপনি you become, حَرَضًا মৃতপ্রায় fatally ill, أَوْ অথবা or, تَكُونَ হবেন আপনি become, مِنَ অন্তর্ভুক্ত of, ٱلْهَٰلِكِينَ জীবন ধ্বংসকারীদের” those who perish”)

 

(87) يَا بَنِيَّ اذْهَبُواْ فَتَحَسَّسُواْ مِن يُوسُفَ وَأَخِيهِ وَلاَ تَيْأَسُواْ مِن رَّوْحِ اللّهِ إِنَّهُ لاَ يَيْأَسُ مِن رَّوْحِ اللّهِ إِلاَّ الْقَوْمُ الْكَافِرُونَ বৎসগণ! যাও, ইউসুফ ও তার ভাইকে তালাশ কর এবং আল্লাহর রহমত থেকে নিরাশ হয়ো না। নিশ্চয় আল্লাহর রহমত থেকে কাফের সম্প্রদায়, ব্যতীত অন্য কেউ নিরাশ হয় না। “O my sons! go ye and enquire about Joseph and his brother, and never give up hope of Allah.s Soothing Mercy: truly no one despairs of Allah’s Soothing Mercy, except those who have no faith.”

( يَٰبَنِىَّ হে আমার ছেলেরা O my sons!, ٱذْهَبُوا۟ তোমরা যাও Go, فَتَحَسَّسُوا۟ অতঃপর তোমরা খোঁজ করো and inquire, مِن এর about, يُوسُفَ ইউসুফ Yusuf, وَأَخِيهِ এবং তার ভাইকে and his brother, وَلَا এবং না and not, تَا۟يْـَٔسُوا۟ তোমরা নিরাশ হয়ো despair, مِن থেকে of, رَّوْحِ অনুগ্রহ (the) Mercy of Allah, ٱللَّهِ আল্লাহর (the) Mercy of Allah, إِنَّهُۥ নিশ্চয়ই কেউ Indeed, لَا না none, يَا۟يْـَٔسُ নিরাশ হয় despairs, مِن হ’তে of, رَّوْحِ অনুগ্রহ (the) Mercy of Allah, ٱللَّهِ আল্লাহর (the) Mercy of Allah, إِلَّا এছাড়া except, ٱلْقَوْمُ সম্প্রদায় the people, ٱلْكَٰفِرُونَ কাফির” the disbelievers” )

 

(88) فَلَمَّا دَخَلُواْ عَلَيْهِ قَالُواْ يَا أَيُّهَا الْعَزِيزُ مَسَّنَا وَأَهْلَنَا الضُّرُّ وَجِئْنَا بِبِضَاعَةٍ مُّزْجَاةٍ فَأَوْفِ لَنَا الْكَيْلَ وَتَصَدَّقْ عَلَيْنَآ إِنَّ اللّهَ يَجْزِي الْمُتَصَدِّقِينَ অতঃপর যখন তারা ইউসুফের কাছে পৌঁছল তখন বললঃ হে আযীয, আমরা ও আমাদের পরিবারবর্গ কষ্টের সম্মুখীন হয়ে পড়েছি এবং আমরা অপর্যাপ্ত পুঁজি নিয়ে এসেছি। অতএব আপনি আমাদের পুরোপুরি বরাদ্দ দিন এবং আমাদের কে দান করুন। আল্লাহ দাতাদেরকে প্রতিদান দিয়ে থাকেন। Then, when they came (back) into (Joseph’s) presence they said: “O exalted one! distress has seized us and our family: we have (now) brought but scanty capital: so pay us full measure, (we pray thee), and treat it as charity to us: for Allah doth reward the charitable.”

( فَلَمَّا অতঃপর যখন So when, دَخَلُوا۟ তারা প্রবেশ করলো they entered, عَلَيْهِ তার কাছে upon him, قَالُوا۟ তারা বললো they said, يَٰٓأَيُّهَا “হে “O Aziz!, ٱلْعَزِيزُ “আযীয “O Aziz!, مَسَّنَا আমাদের স্পর্শ করেছে Has touched us, وَأَهْلَنَا এবং আমাদের পরিবারেরও and our family, ٱلضُّرُّ বিপদ the adversity, وَجِئْنَا এবং আমরা এসেছি and we have come, بِبِضَٰعَةٍ (পুঁজি হিসেবে) নিয়ে পণ্য with goods, مُّزْجَىٰةٍ অল্প পরিমাণ (of) little value, فَأَوْفِ অতএব পূর্ণ দিন but pay (in) full, لَنَا আমাদেরকে to us, ٱلْكَيْلَ মাপ (অর্থাৎ বরাদ্দ) the measure, وَتَصَدَّقْ এবং দান করুন and be charitable, عَلَيْنَآ আমাদের to us, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ Allah, يَجْزِى প্রতিদান দেন rewards, ٱلْمُتَصَدِّقِينَ দানকারীদেরকে” the charitable” )

 

(89) قَالَ هَلْ عَلِمْتُم مَّا فَعَلْتُم بِيُوسُفَ وَأَخِيهِ إِذْ أَنتُمْ جَاهِلُونَ ইউসুফ বললেনঃ তোমাদের জানা আছে কি, যা তোমরা ইউসুফ ও তার ভাইয়ের সাথে করেছ, যখন তোমরা অপরিণামদর্শী ছিলে? He said: “Know ye how ye dealt with Joseph and his brother, not knowing (what ye were doing)?”

( قَالَ ইউসুফ (বললো) He said, هَلْ “কি “Do, عَلِمْتُم তোমরা জানো you know, مَّا যা what, فَعَلْتُم তোমরা করেছো you did, بِيُوسُفَ ইউসুফের সাথে with Yusuf, وَأَخِيهِ ও তার ভাইয়ের (সাথে) and his brother, إِذْ যখন when, أَنتُمْ তোমরা ছিলে you were, جَٰهِلُونَ অজ্ঞ” ignorant?”)

 

(90) قَالُواْ أَإِنَّكَ لَأَنتَ يُوسُفُ قَالَ أَنَاْ يُوسُفُ وَهَـذَا أَخِي قَدْ مَنَّ اللّهُ عَلَيْنَا إِنَّهُ مَن يَتَّقِ وَيِصْبِرْ فَإِنَّ اللّهَ لاَ يُضِيعُ أَجْرَ الْمُحْسِنِينَ তারা বলল, তবে কি তুমিই ইউসুফ! বললেনঃ আমিই ইউসুফ এবং এ হল আমার সহোদর ভাই। আল্লাহ আমাদের প্রতি অনুগ্রহ করেছেন। নিশ্চয় যে তাকওয়া অবলম্বন করে এবং সবর করে, আল্লাহ এহেন সৎকর্মশীলদের প্রতিদান বিনষ্ট করেন না। They said: “Art thou indeed Joseph?” He said, “I am Joseph, and this is my brother: Allah has indeed been gracious to us (all): behold, he that is righteous and patient,- never will Allah suffer the reward to be lost, of those who do right.”

( قَالُوٓا۟ তারা বললো They said, أَءِنَّكَ “তুমি কি নিশ্চয়ই “Are you indeed, لَأَنتَ অবশ্যই তুমি [surely you], يُوسُفُ ইউসুফ” Yusuf?”, قَالَ সে বললো He said, أَنَا۠ “আমিই “I am, يُوسُفُ ইউসুফ Yusuf, وَهَٰذَآ ও এই and this, أَخِى আমার ভাই (is) my brother, قَدْ নিশ্চয়ই Indeed, مَنَّ অনুগ্রহ করেছেন Allah has been gracious, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah has been gracious, عَلَيْنَآ আমাদের উপর to us, إِنَّهُۥ নিশ্চয়ই (তা এমন) Indeed, he, مَن যে who, يَتَّقِ তাকওয়া অবলম্বন করে fears Allah, وَيَصْبِرْ ও ধৈর্য ধরে and (is) patient, فَإِنَّ সে ক্ষেত্রে নিশ্চয়ই then indeed, ٱللَّهَ আল্লাহ্‌ Allah, لَا না (does) not, يُضِيعُ নষ্ট করেন let go waste, أَجْرَ শ্রম ফল (the) reward, ٱلْمُحْسِنِينَ সৎকর্মশীলদের” (of) the good-doers”)

 

(91)  قَالُواْ تَاللّهِ لَقَدْ آثَرَكَ اللّهُ عَلَيْنَا وَإِن كُنَّا لَخَاطِئِينَ তারা বললঃ আল্লাহর কসম, আমাদের চাইতে আল্লাহ তোমাকে পছন্দ করেছেন এবং আমরা অবশ্যই অপরাধী ছিলাম। They said: “By Allah. indeed has Allah preferred thee above us, and we certainly have been guilty of sin!”

( قَالُوا۟ তারা বললো They said, تَٱللَّهِ “শপথ আল্লাহর “By Allah, لَقَدْ নিশ্চয়ই certainly, ءَاثَرَكَ তোমাকে প্রাধান্য দিয়েছেন Allah has preferred you, ٱللَّهُ আল্লাহ Allah has preferred you, عَلَيْنَا আমাদের উপর over us, وَإِن এবং নিশ্চয়ই and indeed, كُنَّا আমরা ছিলাম we have been, لَخَٰطِـِٔينَ অবশ্যই অপরাধী” sinners”)

 

(92) قَالَ لاَ تَثْرَيبَ عَلَيْكُمُ الْيَوْمَ يَغْفِرُ اللّهُ لَكُمْ وَهُوَ أَرْحَمُ الرَّاحِمِينَ বললেন, আজ তোমাদের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ নেই। আল্লাহ তোমাদের কে ক্ষমা করুন। তিনি সব মেহেরবানদের চাইতে অধিক মেহেরবান। He said: “This day let no reproach be (cast) on you: Allah will forgive you, and He is the Most Merciful of those who show mercy!

( قَالَ সে বললো He said, لَا “নেই “No, تَثْرِيبَ অভিযোগ blame, عَلَيْكُمُ বিরুদ্ধে তোমাদের upon you, ٱلْيَوْمَ আজ today, يَغْفِرُ মাফ করুন Allah will forgive, ٱللَّهُ আল্লাহ্‌ Allah will forgive, لَكُمْ তোমাদেরকে you, وَهُوَ এবং তিনিই and He, أَرْحَمُ শ্রেষ্ঠ দয়ালু (is) the Most Merciful, ٱلرَّٰحِمِينَ (সব) দয়াকারীদের (চেয়েও) (of) those who show mercy)

 

(93) اذْهَبُواْ بِقَمِيصِي هَـذَا فَأَلْقُوهُ عَلَى وَجْهِ أَبِي يَأْتِ بَصِيرًا وَأْتُونِي بِأَهْلِكُمْ أَجْمَعِينَ তোমরা আমার এ জামাটি নিয়ে যাও। এটি আমার পিতার মুখমন্ডলের উপর রেখে দিও, এতে তাঁর দৃষ্টি শক্তি ফিরে আসবে। আর তোমাদের পরিবারবর্গের সবাইকে আমার কাছে নিয়ে এস। “Go with this my shirt, and cast it over the face of my father: he will come to see (clearly). Then come ye (here) to me together with all your family.”

( ٱذْهَبُوا۟ তোমরা যাও Go, بِقَمِيصِى নিয়ে আমার জামা with this shirt of mine, هَٰذَا এই with this shirt of mine, فَأَلْقُوهُ অতঃপর তা রেখে দাও and cast it, عَلَىٰ উপর over, وَجْهِ মুখের (the) face, أَبِى আমার পিতার (of) my father, يَأْتِ ফিরে আসবে he will regain sight, بَصِيرًا (তার) দৃষ্টিশক্তি he will regain sight, وَأْتُونِى ও আমার কাছে নিয়ে আসো And bring to me, بِأَهْلِكُمْ তোমাদের পরিবারের your family, أَجْمَعِينَ সকলকেই” all together”)

 

(94) وَلَمَّا فَصَلَتِ الْعِيرُ قَالَ أَبُوهُمْ إِنِّي لَأَجِدُ رِيحَ يُوسُفَ لَوْلاَ أَن تُفَنِّدُونِ যখন কাফেলা রওয়ানা হল, তখন তাদের পিতা বললেনঃ যদি তোমরা আমাকে অপ্রকৃতিস্থ না বল, তবে বলিঃ আমি নিশ্চিতরূপেই ইউসুফের গন্ধ পাচ্ছি। When the caravan left (Egypt), their father said: “I do indeed scent the presence of Joseph: Nay, think me not a dotard.”

( وَلَمَّا এবং যখন And when, فَصَلَتِ বেরিয়ে পড়লো departed, ٱلْعِيرُ যাত্রীদল the caravan, قَالَ বললো their father said, أَبُوهُمْ তাদের পিতা their father said, إِنِّى “নিশ্চয়ই আমি “Indeed, I, لَأَجِدُ অবশ্যই পাচ্ছি [I] find, رِيحَ ঘ্রাণ (the) smell, يُوسُفَ ইউসুফের (of) Yusuf, لَوْلَآ যদি না if not, أَن যে that, تُفَنِّدُونِ আমাকে তোমরা অপ্রকৃতিস্থ মনে করো” you think me weakened in mind” )

 

(95) قَالُواْ تَاللّهِ إِنَّكَ لَفِي ضَلاَلِكَ الْقَدِيمِ লোকেরা বললঃ আল্লাহর কসম, আপনি তো সেই পুরানো ভ্রান্তিতেই পড়ে আছেন। They said: “By Allah. truly thou art in thine old wandering mind.”

( قَالُوا۟ (লোকেরা) বললো They said, تَٱللَّهِ “আল্লাহর শপথ “By Allah, إِنَّكَ আপনি নিশ্চয় (রয়েছেন) indeed you, لَفِى অবশ্যই মধ্যে surely (are) in, ضَلَٰلِكَ আপনার ভুলের your error, ٱلْقَدِيمِ পুরনো” old”)

 

(96) فَلَمَّا أَن جَاء الْبَشِيرُ أَلْقَاهُ عَلَى وَجْهِهِ فَارْتَدَّ بَصِيرًا قَالَ أَلَمْ أَقُل لَّكُمْ إِنِّي أَعْلَمُ مِنَ اللّهِ مَا لاَ تَعْلَمُونَ অতঃপর যখন সুসংবাদদাতা পৌঁছল, সে জামাটি তাঁর মুখে রাখল। অমনি তিনি দৃষ্টি শক্তি ফিরে পেলেন। বললেনঃ আমি কি তোমাদেরকে বলিনি যে, আমি আল্লাহর পক্ষ থেকে যা জানি তোমরা তা জান না? Then when the bearer of the good news came, He cast (the shirt) over his face, and he forthwith regained clear sight. He said: “Did I not say to you, ‘I know from Allah that which ye know not?'”

( فَلَمَّآ অতঃপর যখন Then when, أَن যে [that], جَآءَ আসলো arrived, ٱلْبَشِيرُ সুসংবাদদাতা the bearer of glad tidings, أَلْقَىٰهُ তা (অর্থাৎ জামা) রাখলো he cast it, عَلَىٰ উপর over, وَجْهِهِۦ তার মুখের his face, فَٱرْتَدَّ তখন সে ফিরে পেলো then returned (his) sight, بَصِيرًا দৃষ্টিশক্তি then returned (his) sight, قَالَ (ইয়াকুব) বললো He said, أَلَمْ “নি কি “Did not, أَقُل আমি বলি I say, لَّكُمْ তোমাদেরকে to you, إِنِّىٓ নিশ্চয়ই আমি indeed, I, أَعْلَمُ জানি (এমন কিছু) [I] know, مِنَ পক্ষ হ’তে from, ٱللَّهِ আল্লাহ্‌র Allah, مَا যা what, لَا না not, تَعْلَمُونَ তোমরা জানো” you know?” )

 

(97) قَالُواْ يَا أَبَانَا اسْتَغْفِرْ لَنَا ذُنُوبَنَا إِنَّا كُنَّا خَاطِئِينَ তারা বললঃ পিতা আমাদের অপরাধ ক্ষমা করান। নিশ্চয় আমরা অপরাধী ছিলাম। They said: “O our father! ask for us forgiveness for our sins, for we were truly at fault.”

( قَالُوا۟ তারা বললো They said, يَٰٓأَبَانَا “হে আমাদের পিতা “O our father!, ٱسْتَغْفِرْ ক্ষমাপ্রার্থনা করুন Ask forgiveness, لَنَا আমাদের জন্যে for us, ذُنُوبَنَآ আমাদের পাপসমূহের (of) our sins, إِنَّا নিশ্চয়ই আমরা Indeed we, كُنَّا ছিলাম have been, خَٰطِـِٔينَ অপরাধী” sinners”)

 

(98) قَالَ سَوْفَ أَسْتَغْفِرُ لَكُمْ رَبِّيَ إِنَّهُ هُوَ الْغَفُورُ الرَّحِيمُ বললেন, সত্বরই আমি পালনকর্তার কাছে তোমাদের জন্য ক্ষমা চাইব। নিশ্চয় তিনি ক্ষমাশীল, দয়ালূ। He said: “Soon will I ask my Lord for forgiveness for you: for he is indeed Oft-Forgiving, Most Merciful.”

( قَالَ সে বললো He said, سَوْفَ “শীঘ্রই, “Soon أَسْتَغْفِرُ আমি ক্ষমা প্রার্থনা করবো I will ask forgiveness, لَكُمْ তোমাদের জন্যে for you, رَبِّىٓ আমার রবের কাছে (from) my Lord, إِنَّهُۥ নিশ্চয়ই তিনি Indeed He, هُوَ তিনিই He, ٱلْغَفُورُ ক্ষমাশীল (is) the Oft-Forgiving, ٱلرَّحِيمُ পরম দয়ালু” the Most Merciful”)

 

(99) فَلَمَّا دَخَلُواْ عَلَى يُوسُفَ آوَى إِلَيْهِ أَبَوَيْهِ وَقَالَ ادْخُلُواْ مِصْرَ إِن شَاء اللّهُ آمِنِينَ অতঃপর যখন তারা ইউসুফের কাছে পৌঁছল, তখন ইউসুফ পিতা-মাতাকে নিজের কাছে জায়গা দিলেন এবং বললেনঃ আল্লাহ চাহেন তো শান্তি চিত্তে মিসরে প্রবেশ করুন। Then when they entered the presence of Joseph, he provided a home for his parents with himself, and said: “Enter ye Egypt (all) in safety if it please Allah.”

( فَلَمَّا অতঃপর যখন Then when, دَخَلُوا۟ তারা উপস্থিত হলো they entered, عَلَىٰ নিকট upon, يُوسُفَ ইউসুফের Yusuf, ءَاوَىٰٓ সে জায়গা দিলো he took, إِلَيْهِ তার কাছে to himself, أَبَوَيْهِ তার পিতা-মাতাকে his parents, وَقَالَ এবং সে বললো and said, ٱدْخُلُوا۟ “আপনারা প্রবেশ করুন “Enter, مِصْرَ মিশরে Egypt, إِن যদি if, شَآءَ চান Allah wills, ٱللَّهُ আল্লাহ্‌ Allah wills, ءَامِنِينَ নিরাপদ (থাকবেন)” safe” )

 

(100) وَرَفَعَ أَبَوَيْهِ عَلَى الْعَرْشِ وَخَرُّواْ لَهُ سُجَّدًا وَقَالَ يَا أَبَتِ هَـذَا تَأْوِيلُ رُؤْيَايَ مِن قَبْلُ قَدْ جَعَلَهَا رَبِّي حَقًّا وَقَدْ أَحْسَنَ بَي إِذْ أَخْرَجَنِي مِنَ السِّجْنِ وَجَاء بِكُم مِّنَ الْبَدْوِ مِن بَعْدِ أَن نَّزغَ الشَّيْطَانُ بَيْنِي وَبَيْنَ إِخْوَتِي إِنَّ رَبِّي لَطِيفٌ لِّمَا يَشَاء إِنَّهُ هُوَ الْعَلِيمُ الْحَكِيمُ এবং তিনি পিতা-মাতাকে সিংহাসনের উপর বসালেন এবং তারা সবাই তাঁর সামনে সেজদাবনত হল। তিনি বললেনঃ পিতা এ হচ্ছে আমার ইতিপূর্বেকার স্বপ্নের বর্ণনা আমার পালনকর্তা একে সত্যে পরিণত করেছেন এবং তিনি আমার প্রতি অনুগ্রহ করেছেন। আমাকে জেল থেকে বের করেছেন এবং আপনাদেরকে গ্রাম থেকে নিয়ে এসেছেন, শয়তান আমার ও আমার ভাইদের মধ্যে কলহ সৃষ্টি করে দেয়ার পর। আমার পালনকর্তা যা চান, কৌশলে সম্পন্ন করেন। নিশ্চয় তিনি বিজ্ঞ, প্রজ্ঞাময়। And he raised his parents high on the throne (of dignity), and they fell down in prostration, (all) before him. He said: “O my father! this is the fulfillment of my vision of old! Allah hath made it come true! He was indeed good to me when He took me out of prison and brought you (all here) out of the desert, (even) after Satan had sown enmity between me and my brothers. Verily my Lord understandeth best the mysteries of all that He planned to do, for verily He is full of knowledge and wisdom.

( وَرَفَعَ এবং চড়ালেন And he raised, أَبَوَيْهِ তার পিতা-মাতাকে his parents, عَلَى উপর upon, ٱلْعَرْشِ সিংহাসনের the throne, وَخَرُّوا۟ এবং তারা ঝুঁকে পড়লো and they fell down, لَهُۥ তার দিকে to him, سُجَّدًا সিজদায় (অর্থাৎ নত হয়ে) prostrate, وَقَالَ এবং সে বললো And he said, يَٰٓأَبَتِ “হে আমার পিতা “O my father!, هَٰذَا এটা This, تَأْوِيلُ ব্যখ্যা (is the) interpretation, رُءْيَٰىَ আমার স্বপ্নের (of) my dream, مِن থেকে (of) before, قَبْلُ পূর্ব (of) before, قَدْ নিশ্চয়ই Verily, جَعَلَهَا তা পরিণত করেছেন has made it, رَبِّى আমার রব my Lord, حَقًّا সত্য TRUE, وَقَدْ এবং নিশ্চয়ই And indeed, أَحْسَنَ অনুুগ্রহ করেছেন He was good, بِىٓ আমার উপর (আমার রব) to me, إِذْ যখন when, أَخْرَجَنِى আমাকে তিনি বের করেছেন He took me out, مِنَ থেকে of, ٱلسِّجْنِ কারাগার the prison, وَجَآءَ এবং নিয়ে এনেছেন and brought, بِكُم আপনাদেরকে you, مِّنَ থেকে from, ٱلْبَدْوِ মরুভূমি the bedouin life, مِنۢ থেকে after, بَعْدِ পর after, أَن যে [that], نَّزَغَ বিরোধ সৃষ্টি করেছে had caused discord, ٱلشَّيْطَٰنُ শয়তান the Shaitaan, بَيْنِى আমার মাঝে between me, وَبَيْنَ ও মাঝে and between, إِخْوَتِىٓ আমার ভাইদের my brothers, إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed, رَبِّى আমার রব my Lord, لَطِيفٌ সুক্ষ্মদর্শী (is) Most Subtle, لِّمَا তার যা to what, يَشَآءُ তিনি চান He wills, إِنَّهُۥ নিশ্চয়ই তিনি Indeed, He, هُوَ তিনিই He, ٱلْعَلِيمُ মহাবিজ্ঞ (is) the All-Knower, ٱلْحَكِيمُ প্রজ্ঞাময় the All-Wise )

 

(101) رَبِّ قَدْ آتَيْتَنِي مِنَ الْمُلْكِ وَعَلَّمْتَنِي مِن تَأْوِيلِ الأَحَادِيثِ فَاطِرَ السَّمَاوَاتِ وَالأَرْضِ أَنتَ وَلِيِّي فِي الدُّنُيَا وَالآخِرَةِ تَوَفَّنِي مُسْلِمًا وَأَلْحِقْنِي بِالصَّالِحِينَ হে পালনকর্তা আপনি আমাকে রাষ্ট্রক্ষমতাও দান করেছেন এবং আমাকে বিভিন্ন তাৎপর্য সহ ব্যাখ্যা করার বিদ্যা শিখিয়ে দিয়েছেন। হে নভোমন্ডল ও ভূ-মন্ডলের স্রষ্টা, আপনিই আমার কার্যনির্বাহী ইহকাল ও পরকালে। আমাকে ইসলামের উপর মৃত্যুদান করুন এবং আমাকে স্বজনদের সাথে মিলিত করুন। “O my Lord! Thou hast indeed bestowed on me some power, and taught me something of the interpretation of dreams and events,- O Thou Creator of the heavens and the earth! Thou art my Protector in this world and in the Hereafter. Take Thou my soul (at death) as one submitting to Thy will (as a Muslim), and unite me with the righteous.”

( رَبِّ হে আমার রব My Lord, قَدْ নিশ্চয়ই indeed, ءَاتَيْتَنِى আমাকে দিয়েছো ‍তুমি you have given me, مِنَ কিছু of, ٱلْمُلْكِ রাষ্ট্রক্ষমতার the sovereignty, وَعَلَّمْتَنِى ও আমাকে তুমি শিখিয়েছো and taught me, مِن করা of, تَأْوِيلِ ব্যাখ্যা the interpretation, ٱلْأَحَادِيثِ স্বপ্নের of the events, فَاطِرَ (তুমিই) স্রষ্টা Creator, ٱلسَّمَٰوَٰتِ আকাশের (of) the heavens, وَٱلْأَرْضِ ও পৃথিবীর and the earth, أَنتَ তুমিই You, وَلِىِّۦ আমার অভিভাবক (are) my Protector, فِى মধ্যে in, ٱلدُّنْيَا পৃথিবীর the world, وَٱلْءَاخِرَةِ এবং আখিরাতেও and the Hereafter, تَوَفَّنِى আমাকে মৃত্যু দিও Cause me to die, مُسْلِمًا মুসলিম হিসেবে (as) a Muslim, وَأَلْحِقْنِى ও আমাকে মিলিত করো and join me, بِٱلصَّٰلِحِينَ সাথে ভালো লোকদের” with the righteous”)

 

(102) ذَلِكَ مِنْ أَنبَاء الْغَيْبِ نُوحِيهِ إِلَيْكَ وَمَا كُنتَ لَدَيْهِمْ إِذْ أَجْمَعُواْ أَمْرَهُمْ وَهُمْ يَمْكُرُونَ এগুলো অদৃশ্যের খবর, আমি আপনার কাছে প্রেরণ করি। আপনি তাদের কাছে ছিলেন না, যখন তারা স্বীয় কাজ সাব্যস্ত করছিল এবং চক্রান্ত করছিল। Such is one of the stories of what happened unseen, which We reveal by inspiration unto thee; nor wast thou (present) with them then when they concerted their plans together in the process of weaving their plots.

( ذَٰلِكَ (হে নাবী) এটা That, مِنْ একটি (is) from, أَنۢبَآءِ সংবাদ সমূহের the news, ٱلْغَيْبِ অদৃশ্যের (of) the unseen, نُوحِيهِ তা আমরা ওহী করছি which We reveal, إِلَيْكَ তোমার প্রতি to you, وَمَا এবং না And not, كُنتَ তুমি ছিলে you were, لَدَيْهِمْ তাদের সঙ্গে with them, إِذْ যখন when, أَجْمَعُوٓا۟ তারা একজোট হয়েছিলো they put together, أَمْرَهُمْ তাদের কাজে their plan, وَهُمْ এমতাবস্হায় যে তারা while they, يَمْكُرُونَ ষড়যন্ত্র করছিলো (were) plotting )

 

(103) وَمَا أَكْثَرُ النَّاسِ وَلَوْ حَرَصْتَ بِمُؤْمِنِينَ আপনি যতই চান, অধিকাংশ লোক বিশ্বাসকারী নয়। Yet no faith will the greater part of mankind have, however ardently thou dost desire it.

( وَمَآ এবং নয় And not, أَكْثَرُ অধিকাংশ most, ٱلنَّاسِ মানুষ (of) the mankind, وَلَوْ এবং যদিও even though, حَرَصْتَ তুমি আকাঙ্ক্ষা করো you desire, بِمُؤْمِنِينَ বিশ্বাসী (হবে) (will be) believers )

(104) وَمَا تَسْأَلُهُمْ عَلَيْهِ مِنْ أَجْرٍ إِنْ هُوَ إِلاَّ ذِكْرٌ لِّلْعَالَمِينَ আপনি এর জন্যে তাদের কাছে কোন বিনিময় চান না। এটা তো সারা বিশ্বের জন্যে উপদেশ বৈ নয়। And no reward dost thou ask of them for this: it is no less than a message for all creatures.

( وَمَا এবং না And not, تَسْـَٔلُهُمْ তাদের কাছে তুমি চাচ্ছো you ask them, عَلَيْهِ এ জন্যে for it, مِنْ কোন any, أَجْرٍ পারিশ্রমিক reward, إِنْ নয় Not, هُوَ তা (is) it, إِلَّا ছাড়া but, ذِكْرٌ উপদেশ a reminder, لِّلْعَٰلَمِينَ বিশ্বজগতের জন্যে to the worlds )

 

(105) وَكَأَيِّن مِّن آيَةٍ فِي السَّمَاوَاتِ وَالأَرْضِ يَمُرُّونَ عَلَيْهَا وَهُمْ عَنْهَا مُعْرِضُونَ অনেক নিদর্শন রয়েছে নভোমন্ডলে ও ভু-মন্ডলে যেগুলোর উপর দিয়ে তারা পথ অতিক্রম করে এবং তারা এসবের দিকে মনোনিবেশ করে না। And how many Signs in the heavens and the earth do they pass by? Yet they turn (their faces) away from them!

( وَكَأَيِّن এবং কতইনা And how many, مِّنْ থেকে of, ءَايَةٍ নিদর্শন (রয়েছে) a Sign, فِى মধ্যে in, ٱلسَّمَٰوَٰتِ আকাশের the heavens, وَٱلْأَرْضِ এবং পৃথিবীর and the earth, يَمُرُّونَ তারা অতিক্রম করে they pass, عَلَيْهَا তার উপর (দিয়ে) over it, وَهُمْ অথচ তারা while they, عَنْهَا তা থেকে (are) from them, مُعْرِضُونَ উপেক্ষাকারী the ones who turn away)

(106) وَمَا يُؤْمِنُ أَكْثَرُهُمْ بِاللّهِ إِلاَّ وَهُم مُّشْرِكُونَ অনেক মানুষ আল্লাহর প্রতি বিশ্বাস স্থাপন করে, কিন্তু সাথে সাথে শিরকও করে। And most of them believe not in Allah without associating (other as partners) with Him!

( وَمَا এবং না And not, يُؤْمِنُ বিশ্বাস করে believe, أَكْثَرُهُم তাদের অধিকাংশ most of them, بِٱللَّهِ উপর আল্লাহর in Allah, إِلَّا ছাড়া যে except, وَهُم তখন তারা (বিশ্বাস করলেও) while they, مُّشْرِكُونَ শিরক করে associate partners with Him )

 

(107) أَفَأَمِنُواْ أَن تَأْتِيَهُمْ غَاشِيَةٌ مِّنْ عَذَابِ اللّهِ أَوْ تَأْتِيَهُمُ السَّاعَةُ بَغْتَةً وَهُمْ لاَ يَشْعُرُونَ তারা কি নির্ভীক হয়ে গেছে এ বিষয়ে যে, আল্লাহর আযাবের কোন বিপদ তাদেরকে আবৃত করে ফেলবে অথবা তাদের কাছে হঠাৎ কেয়ামত এসে যাবে, অথচ তারা টেরও পাবে না? Do they then feel secure from the coming against them of the covering veil of the wrath of Allah,- or of the coming against them of the (final) Hour all of a sudden while they perceive not?

( أَفَأَمِنُوٓا۟ তবে কি তারা নিরাপদ হয়েছে Do they then feel secure, أَن যে (against) that,  تَأْتِيَهُمْ তাদের উপর আসবে comes to them, غَٰشِيَةٌ আচ্ছন্নকারী an overwhelming, مِّنْ কোন [of], عَذَابِ শাস্তি punishment, ٱللَّهِ আল্লাহ্‌র (of) Allah, أَوْ অথবা or, تَأْتِيَهُمُ তাদের উপর আসবে comes to them, ٱلسَّاعَةُ ক্বিয়ামাত the Hour, بَغْتَةً হঠাৎ করে suddenly, وَهُمْ এমতাবস্হায় যে তারা while they, لَا না (do) not, يَشْعُرُونَ টেরও পাবে perceive?)

 

(108) قُلْ هَـذِهِ سَبِيلِي أَدْعُو إِلَى اللّهِ عَلَى بَصِيرَةٍ أَنَاْ وَمَنِ اتَّبَعَنِي وَسُبْحَانَ اللّهِ وَمَا أَنَاْ مِنَ الْمُشْرِكِينَ বলে দিনঃ এই আমার পথ। আমি আল্লাহর দিকে বুঝে সুঝে দাওয়াত দেই আমি এবং আমার অনুসারীরা। আল্লাহ পবিত্র। আমি অংশীবাদীদের অন্তর্ভুক্ত নই। Say thou: “This is my way: I do invite unto Allah,- on evidence clear as the seeing with one’s eyes,- I and whoever follows me. Glory to Allah. and never will I join gods with Allah.”

( قُلْ (হে নাবী) বলো Say, هَٰذِهِۦ “এই “This, سَبِيلِىٓ আমার পথ (is) my way;, أَدْعُوٓا۟ ডাকি আমি I invite, إِلَى দিকে to, ٱللَّهِ আল্লাহ্‌র Allah, عَلَىٰ ভিত্তিতে with, بَصِيرَةٍ জ্ঞানের insight, أَنَا۠ আমি I, وَمَنِ এবং যে and whoever, ٱتَّبَعَنِى আমার অনুসরণ করে follows me, وَسُبْحَٰنَ এবং মহান পবিত্র And Glory be, ٱللَّهِ আল্লাহ্‌ (to) Allah, وَمَآ এবং নই and not, أَنَا۠ আমি I am, مِنَ অন্তর্ভুক্ত of, ٱلْمُشْرِكِينَ মুশরিকদের” the polytheists” )

 

(109) وَمَا أَرْسَلْنَا مِن قَبْلِكَ إِلاَّ رِجَالاً نُّوحِي إِلَيْهِم مِّنْ أَهْلِ الْقُرَى أَفَلَمْ يَسِيرُواْ فِي الأَرْضِ فَيَنظُرُواْ كَيْفَ كَانَ عَاقِبَةُ الَّذِينَ مِن قَبْلِهِمْ وَلَدَارُ الآخِرَةِ خَيْرٌ لِّلَّذِينَ اتَّقَواْ أَفَلاَ تَعْقِلُونَ আপনার পূর্বে আমি যতজনকে রসূল করে পাঠিয়েছি, তারা সবাই পুরুষই ছিল জনপদবাসীদের মধ্য থেকে। আমি তাঁদের কাছে ওহী প্রেরণ করতাম। তারা কি দেশ-বিদেশ ভ্রমণ করে না, যাতে দেখে নিত কিরূপ পরিণতি হয়েছে তাদের যারা পূর্বে ছিল ? সংযমকারীদের জন্যে পরকালের আবাসই উত্তম। তারা কি এখনও বোঝে না? Nor did We send before thee (as apostles) any but men, whom we did inspire,- (men) living in human habitations. Do they not travel through the earth, and see what was the end of those before them? But the home of the hereafter is best, for those who do right. Will ye not then understand?

( وَمَآ এবং না And not, أَرْسَلْنَا  আমরা পাঠিয়েছি We sent, مِن থেকে before you, قَبْلِكَ আগে তোমার (রাসূলদেরকে) before you, إِلَّا ছাড়া but, رِجَالًا পুরুষদেরকে men, نُّوحِىٓ আমরা ওহী করেছি We revealed, إِلَيْهِم তাদের প্রতি to them, مِّنْ মধ্য থেকে from (among), أَهْلِ অধিবাসীদের (the) people, ٱلْقُرَىٰٓ জনপদের (of) the townships, أَفَلَمْ নি তবে কি So have not, يَسِيرُوا۟ তারা ভ্রমণ করে they traveled, فِى মধ্যে in, ٱلْأَرْضِ পৃথিবীর the earth, فَيَنظُرُوا۟ অতঃপর তারা দেখেনি and seen, كَيْفَ কেমন how, كَانَ ছিলো was, عَٰقِبَةُ পরিণতি (তাদের) (the) end, ٱلَّذِينَ যারা (ছিলো) (of) those who, مِن থেকে (were) before them?, قَبْلِهِمْ পূর্ব তাদের (were) before them?, وَلَدَارُ এবং অবশ্যই ঘর And surely the home, ٱلْءَاخِرَةِ পরকালের (of) the Hereafter, خَيْرٌ উত্তম (is) best, لِّلَّذِينَ তাদের জন্যে (যারা) for those who, ٱتَّقَوْا۟ ভয় করে চলে fear Allah, أَفَلَا তবে কি না Then will not, تَعْقِلُونَ  তোমরা বুঝবে you use reason? )

 

(110) حَتَّى إِذَا اسْتَيْأَسَ الرُّسُلُ وَظَنُّواْ أَنَّهُمْ قَدْ كُذِبُواْ جَاءهُمْ نَصْرُنَا فَنُجِّيَ مَن نَّشَاء وَلاَ يُرَدُّ بَأْسُنَا عَنِ الْقَوْمِ الْمُجْرِمِينَ এমনকি যখন পয়গম্বরগণ নৈরাশ্যে পতিত হয়ে যেতেন, এমনকি এরূপ ধারণা করতে শুরু করতেন যে, তাদের অনুমান বুঝি মিথ্যায় পরিণত হওয়ার উপক্রম হয়েছিল, তখন তাদের কাছে আমার সাহায্য পৌছে। অতঃপর আমি যাদের চেয়েছি তারা উদ্ধার পেয়েছে। আমার শাস্তি অপরাধী সম্প্রদায় থেকে প্রতিহত হয় না। (Respite will be granted) until, when the apostles give up hope (of their people) and (come to) think that they were treated as liars, there reaches them Our help, and those whom We will are delivered into safety. But never will be warded off our punishment from those who are in sin.

( حَتَّىٰٓ এমনকি Until, إِذَا যখন when, ٱسْتَيْـَٔسَ নিরাশ হলো gave up hope, ٱلرُّسُلُ রাসূলরা the Messengers, وَظَنُّوٓا۟ এবং (লোকেরা) ভাবলো and thought, أَنَّهُمْ যে তাদেরকে that they, قَدْ নিশ্চয়ই certainly, كُذِبُوا۟ তাদেরকে মিথ্যা আশ্বাস দেয়া হয়েছে were denied, جَآءَهُمْ তাদের (রাসূলদের) কাছে আসলো then came to them, نَصْرُنَا আমাদের সাহায্য Our help, فَنُجِّىَ অতঃপর উদ্ধার করা হলো and was saved, مَن যাদেরকে whom, نَّشَآءُ আমরা চেয়েছি We willed, وَلَا এবং না And not, يُرَدُّ প্রতিরোধ করা হয় (can) be repelled, بَأْسُنَا আমাদের শাস্তি Our punishment, عَنِ হ’তে from, ٱلْقَوْمِ সম্প্রদায় the people, ٱلْمُجْرِمِينَ অপরাধী (who are) criminals )

 

(111) لَقَدْ كَانَ فِي قَصَصِهِمْ عِبْرَةٌ لِّأُوْلِي الأَلْبَابِ مَا كَانَ حَدِيثًا يُفْتَرَى وَلَـكِن تَصْدِيقَ الَّذِي بَيْنَ يَدَيْهِ وَتَفْصِيلَ كُلَّ شَيْءٍ وَهُدًى وَرَحْمَةً لِّقَوْمٍ يُؤْمِنُونَ তাদের কাহিনীতে বুদ্ধিমানদের জন্য রয়েছে প্রচুর শিক্ষণীয় বিষয়, এটা কোন মনগড়া কথা নয়, কিন্তু যারা বিশ্বাস স্থাপন করে তাদের জন্যে পূর্বেকার কালামের সমর্থন এবং প্রত্যেক বস্তুর বিবরণ রহমত ও হেদায়েত। There is, in their stories, instruction for men endued with understanding. It is not a tale invented, but a confirmation of what went before it,- a detailed exposition of all things, and a guide and a mercy to any such as believe.

( لَقَدْ নিশ্চয়ই Verily, كَانَ রয়েছে (there) is, فِى মধ্যে in, قَصَصِهِمْ তাদের কাহিনীগুলোর their stories, عِبْرَةٌ শিক্ষা a lesson, لِّأُو۟لِى জন্যে সম্পন্নদের for men, ٱلْأَلْبَٰبِ জ্ঞানবুদ্ধি (of) understanding, مَا না Not, كَانَ ছিলো (it) is, حَدِيثًا এ কথা a narration, يُفْتَرَىٰ মনগড়া invented, وَلَٰكِن কিন্তু but, تَصْدِيقَ সত্যায়নকারী a confirmation, ٱلَّذِى যা (of that) which, بَيْنَ বিদ্যমান (was) before it, يَدَيْهِ তার সামনে (was) before it, وَتَفْصِيلَ এবং বিশদ ব্যাখ্যা and a detailed explanation, كُلِّ সব (of) all, شَىْءٍ কিছুর things, وَهُدًى এবং দিশা and a guidance, وَرَحْمَةً ও অনুগ্রহ and mercy, لِّقَوْمٍ লোকদের জন্যে for a people, يُؤْمِنُونَ (যারা) ঈমান আনে who believe )

 

আইডিসির সাথে যোগ  দিয়ে উভয় জাহানের জন্য   ভালো কিছু করুন।

 

আইডিসি এবং আইডিসি ফাউন্ডেশনের ব্যপারে বিস্তারিত জানতে  লিংক০১ ও লিংক০২ ভিজিট করুন।

আইডিসি  মাদরাসার ব্যপারে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন। 

আপনি আইডিসি  মাদরাসার একজন স্থায়ী সদস্য /পার্টনার হতে চাইলে এই লিংক দেখুন.

আইডিসি এতীমখানা ও গোরাবা ফান্ডে দান করে  দুনিয়া এবং আখিরাতে সফলতা অর্জন করুন।

কুরআন হাদিসের আলোকে বিভিন্ন কঠিন রোগের চিকিৎসা করাতেআইডিসি ‘র সাথে যোগাযোগ করুন।

ইসলামিক বিষয়ে জানতে এবং জানাতে এই গ্রুপে জয়েন করুন।

Islami Dawah Center Cover photo

ইসলামী দাওয়াহ সেন্টারকে সচল রাখতে সাহায্য করুন!

ইসলামী দাওয়াহ সেন্টার ১টি অলাভজনক দাওয়াহ প্রতিষ্ঠান, এই প্রতিষ্ঠানের ইসলামিক ব্লগটি বর্তমানে ২০,০০০+ মানুষ প্রতিমাসে পড়ে, দিন দিন আরো অনেক বেশি বেড়ে যাবে, ইংশাআল্লাহ।

বর্তমানে মাদরাসা এবং ব্লগ প্রজেক্টের বিভিন্ন খাতে (ওয়েবসাইট হোস্টিং, CDN,কনটেন্ট রাইটিং, প্রুফ রিডিং, ব্লগ পোস্টিং, ডিজাইন এবং মার্কেটিং) মাসে গড়ে ৫০,০০০+ টাকা খরচ হয়, যা আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জিং। সেকারনে, এই বিশাল ধর্মীয় কাজকে সামনে এগিয়ে নিতে সর্বপ্রথম আল্লাহর কাছে আপনাদের দোয়া এবং আপনাদের সহযোগিতা প্রয়োজন, এমন কিছু ভাই ও বোন ( ৩১৩ জন ) দরকার, যারা আইডিসিকে নির্দিষ্ট অংকের সাহায্য করবেন, তাহলে এই পথ চলা অনেক সহজ হয়ে যাবে, ইংশাআল্লাহ। যারা এককালিন, মাসিক অথবা বাৎসরিক সাহায্য করবেন, তারা আইডিসির মুল টিমের অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবেন, ইংশাআল্লাহ।

আইডিসির ঠিকানাঃ খঃ ৬৫/৫, শাহজাদপুর, গুলশান, ঢাকা -১২১২, মোবাইলঃ +88 01609 820 094, +88 01716 988 953 ( নগদ/বিকাশ পার্সোনাল ) ইমেলঃ info@islamidawahcenter.com, info@idcmadrasah.com, ওয়েব: www.islamidawahcenter.com, www.idcmadrasah.com সার্বিক তত্ত্বাবধানেঃ হাঃ মুফতি মাহবুব ওসমানী ( এম. এ. ইন ইংলিশ )