একাধিক বিয়েকে গালমন্দ বা দুশ্চরিত্র বলে মন্তব্য কারিদের ঈমান হুমকির মুখে!

যারা একাধিক বিয়ে করাকে গালমন্দ বা দুশ্চরিত্র বলে মন্তব্য করেন, তাদের ঈমান হুমকির মুখে। একাধিক বিয়ের বৈধতা স্বয়ং আল্লাহ তা’আলা দিয়েছেন। [ সূরা নিসাঃ৪]
বিয়ের মৌলিক উদ্দেশ্য মূলত দুইটাঃ-
১। বৈধভাবে শারীরিক চাহিদা পূরণের মাধ্যমে নিজের ঈমান-আমল হেফাজত করা।
২। বংশধারা বিস্তারের মাধ্যমে আখেরাতে মুক্তি ও জান্নাতে পদন্নোতির সুযোগ তৈরি করা।
এক বিয়াইত্তাদের ক্ষেত্রে এই উভয় উদ্দেশ্যই কোনো না কোনোভাবে বিঘ্নিত হবেই। কিভাবে?
বিবাহের প্রথম উদ্দেশ্য শারীরিক চাহিদা পূরণঃ
তো একজন নারীর মাসে ৪-৯ দিন মাসিক চলে। বাচ্চা হলে ২০-৪০ দিন চলে নেফাস। এ সময়গুলোতে স্ত্রীর কাছে যাওয়া নিষেধ। আছে প্রেগ্ন্যাসির ব্যাপার। ডাক্তাররা প্রেগ্ন্যাসির প্রথম তিন মাস এবং শেষ দুই মাস শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন থেকে নিরুৎসাহিত করেন। কিন্তু একজন পুরুষের না মাসিক আছে, না নেফাস, আর না প্রেগ্ন্যাসি! আচ্ছা কোনো সুস্থ সবল পুরুষের জন্য এত লম্বা টাইম শারীরিক চাহিদা পূরণ না করে থাকা কি খুব সহজ?
বিবাহের দ্বিতীয় উদ্দেশ্য হলঃ
অধিক সন্তান লাভ করা। এবং এ ব্যাপারে নবীজির অসংখ্য উৎসাহব্যঞ্জক বাক্য রয়েছে৷ কিন্তু বর্তমান এ সিজারের যুগে একজন নারী কয়টা বাচ্চা নিতে আগ্রহী?
তাছাড়া বিধবা বা বিপত্নীকদের কি কোনো ব্যাচেলর বিয়ে করবে? তাহলে বিধবা/বিপত্নীকদের এখন উপায়? আপনার ঘরের পাশে কোনো বিধবা নারী থাকলে গিয়ে একটু খুজ নিয়েন, দুশ্চরিত্র লোকগুলা কিরূপ ডিস্টার্ব করে! বছরে বছরে বিধবাদের যাকাত দেয়ার চেয়ে, অসহায় বানিয়ে রাখার চেয়ে একটা স্বামী যোগায় দেয়া হাজারগুণ ভালো।
এখন শুরু হয়েছে আরেক ফাজলামো, দ্বিতীয় বিয়ের জন্য নাকি প্রথম স্ত্রীর অনুমতি লাগবে! অনুমতি না নেয়াটা নাকি তাকে ধোকা দেয়া! তাহলে এমন কথিক ‘ধোকা’ তো (আল্লাহর পানাহ) নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আয়েশাকে অন্তত ৭-৯ বার দিয়েছেন। কোনো বিবাহের জন্য তিনি আয়েশা রা এর অনুমতি নেন নাই। আচ্ছা, আপনাদের কি মনে হয়, কোনো প্রথমা স্বেচ্ছায় এই অনুমতি দিবে? আরে ভাই, এই অনুমতির লেঞ্জুর লাগাইছে বলেই তো স্বামী-স্ত্রী একে অন্যকে খুন করে দ্বিতীয় বিয়েতে পা বাড়াচ্ছে। অনুমতির প্যারা না থাকলে অন্তত জীবনটা বাঁচত! তবে হ্যা, একাধিক বিয়ের নামে গোপনে গোপনে মধু খাওয়া লোকদের আমি ঘৃণা করি। এদের চরিত্র নিয়েও আমার সন্দেহ আছে।
উল্লেখ্য- একাধিক বিয়ে বৈধ। শরীয়ত-সিদ্ধ। তাই এটা নিয়ে ব্যাঙ্গ করা যাবে না। যদি কেউ ব্যাঙ্গ করে, তার ঈমান থাকবে না। তবে হ্যা, কেবলমাত্র ইনসাফপূর্ণ ব্যক্তিদের জন্য একাধিক বিয়ে বৈধ। অন্যথায় মুস্তাহাব মানতে গিয়ে জালিম হয়ে জাহান্নামে যেতে হবে।
শেষকথাঃ
নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর বৈবাহিক জীবনের দুইটি পার্ট।
১। এক স্ত্রী নিয়েই সংসার। যেমন খাদীজা রা. এর জীবিতাবস্থায় তিনি আর কোনো বিয়ে করেননি কেবল খাদীজা রা. এর খুশির জন্য। এ সংসারে নবীজির কেটে যায় ২৫ বছর।
২। একাধিক স্ত্রী নিয়ে সংসার। খাদীজা রা. এর ইন্তিকালের পর ১০ টি বিয়ে করেন। এ পার্টটি ছিল প্রায় ১৪ বছরের।
যার যেটা ভালো লাগে, সে সেটাই গ্রহণ করুক।

আইডিসির সাথে যোগ দিয়ে উভয় জাহানের জন্য ভালো কিছু করুন!

 

আইডিসি এবং আইডিসি ফাউন্ডেশনের ব্যপারে  জানতে  লিংক০১ ও লিংক০২ ভিজিট করুন।

আইডিসি  মাদরাসার ব্যপারে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন। 

আপনি আইডিসি  মাদরাসার একজন স্থায়ী সদস্য /পার্টনার হতে চাইলে এই লিংক দেখুন.

আইডিসি এতীমখানা ও গোরাবা ফান্ডে দান করে  দুনিয়া এবং আখিরাতে সফলতা অর্জন করুন।

কুরআন হাদিসের আলোকে বিভিন্ন কঠিন রোগের চিকিৎসা করাতেআইডিসি ‘র সাথে যোগাযোগ করুন।

ইসলামিক বিষয়ে জানতে এবং জানাতে এই গ্রুপে জয়েন করুন।

 

Islami Dawah Center Cover photo

 

ইসলামী দাওয়াহ সেন্টারকে সচল রাখতে সাহায্য করুন!

 

ইসলামী দাওয়াহ সেন্টার ১টি অলাভজনক দাওয়াহ প্রতিষ্ঠান, এই প্রতিষ্ঠানের ইসলামিক ব্লগটি বর্তমানে ২০,০০০+ মানুষ প্রতিমাসে পড়ে, দিন দিন আরো অনেক বেশি বেড়ে যাবে, ইংশাআল্লাহ।

বর্তমানে মাদরাসা এবং ব্লগ প্রজেক্টের বিভিন্ন খাতে (ওয়েবসাইট হোস্টিং, CDN,কনটেন্ট রাইটিং, প্রুফ রিডিং, ব্লগ পোস্টিং, ডিজাইন এবং মার্কেটিং) মাসে গড়ে ৫০,০০০+ টাকা খরচ হয়, যা আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জিং। সেকারনে, এই বিশাল ধর্মীয় কাজকে সামনে এগিয়ে নিতে সর্বপ্রথম আল্লাহর কাছে আপনাদের দোয়া এবং আপনাদের সহযোগিতা প্রয়োজন, এমন কিছু ভাই ও বোন ( ৩১৩ জন ) দরকার, যারা আইডিসিকে নির্দিষ্ট অংকের সাহায্য করবেন, তাহলে এই পথ চলা অনেক সহজ হয়ে যাবে, ইংশাআল্লাহ।

যারা এককালিন, মাসিক অথবা বাৎসরিক সাহায্য করবেন, তারা আইডিসির মুল টিমের অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবেন, ইংশাআল্লাহ।

আইডিসির ঠিকানাঃ খঃ ৬৫/৫, শাহজাদপুর, গুলশান, ঢাকা -১২১২, মোবাইলঃ +88 01609 820 094, +88 01716 988 953 ( নগদ/বিকাশ পার্সোনাল )

ইমেলঃ info@islamidawahcenter.com, info@idcmadrasah.com, ওয়েব: www.islamidawahcenter.com, www.idcmadrasah.com সার্বিক তত্ত্বাবধানেঃ হাঃ মুফতি মাহবুব ওসমানী ( এম. এ. ইন ইংলিশ )