Surah Infitar সূরা আল ইনফিতার ও সূরা আল ইনফিতার এর ফযিলত

بِسْمِ اللّهِ الرَّحْمـَنِ الرَّحِيمِ শুরু করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম করুণাময়, অতি দয়ালু।

(1)  إِذَا السَّمَاء انفَطَرَتْ যখন আকাশ বিদীর্ণ হবে, When the Sky is cleft asunder;

(  إِذَا যখন When,  ٱلسَّمَآءُ আকাশ the sky, ٱنفَطَرَتْ ফেটে যাবে (is) cleft asunder )

 

(2)  وَإِذَا الْكَوَاكِبُ انتَثَرَتْ যখন নক্ষত্রসমূহ ঝরে পড়বে, When the Stars are scattered;

(  وَإِذَا এবং যখন And when,  ٱلْكَوَاكِبُ তারাগুলো the stars,  ٱنتَثَرَتْ বিক্ষিপ্ত হবে scatter )

 

(3)  وَإِذَا الْبِحَارُ فُجِّرَتْ যখন সমুদ্রকে উত্তাল করে তোলা হবে, When the Oceans are suffered to burst forth;

(  وَإِذَا এবং যখন And when,  ٱلْبِحَارُ সাগরগুলো the seas,  فُجِّرَتْ উথলে উঠবে are made to gush forth ) 

 

(4)  وَإِذَا الْقُبُورُ بُعْثِرَتْ এবং যখন কবরসমূহ উম্মোচিত হবে, And when the Graves are turned upside down;-

(  وَإِذَا এবং যখন And when,  ٱلْقُبُورُ কবরগুলো the graves,  بُعْثِرَتْ উন্মোচিত হবে are overturned ) 

 

(5)  عَلِمَتْ نَفْسٌ مَّا قَدَّمَتْ وَأَخَّرَتْ তখন প্রত্যেকে জেনে নিবে সে কি অগ্রে প্রেরণ করেছে এবং কি পশ্চাতে ছেড়ে এসেছে। (Then) shall each soul know what it hath sent forward and (what it hath) kept back.

(  عَلِمَتْ জানবে Will know,  نَفْسٌ প্রত্যেক ব্যক্তি a soul,  مَّا যা what, قَدَّمَتْ সে আগে পাঠিয়েছে it has sent forth,  وَأَخَّرَتْ এবং পিছনে ছেড়েছে and left behind )

 

(6)  يَا أَيُّهَا الْإِنسَانُ مَا غَرَّكَ بِرَبِّكَ الْكَرِيمِ হে মানুষ, কিসে তোমাকে তোমার মহামহিম পালনকর্তা সম্পর্কে বিভ্রান্ত করল? O man! What has seduced thee from thy Lord Most Beneficent?-

(  يَٰٓأَيُّهَا হে O,  ٱلْإِنسَٰنُ মানুষ man!,  مَا কিসে What,  غَرَّكَ তোমাকে ধোঁকা দিয়েছে has deceived you,  بِرَبِّكَ তোমার রবের ব্যাপারে concerning your Lord,  ٱلْكَرِيمِ মহান the Most Noble

 

(7 ) الَّذِي خَلَقَكَ فَسَوَّاكَ فَعَدَلَكَ যিনি তোমাকে সৃষ্টি করেছেন, অতঃপর তোমাকে সুবিন্যস্ত করেছেন এবং সুষম করেছেন। Him Who created thee. Fashioned thee in due proportion, and gave thee a just bias;

(  ٱلَّذِى যিনি Who, خَلَقَكَ তোমাকে সৃষ্টি করেছেন created you,  فَسَوَّىٰكَ অতঃপর তোমাকে সুঠাম করেছেন then fashioned you,  فَعَدَلَكَ অতঃপর তোমাকে সুসামঞ্জস্য করেছেন then balanced you? )

 

(8)  فِي أَيِّ صُورَةٍ مَّا شَاء رَكَّبَكَ যিনি তোমাকে তাঁর ইচ্ছামত আকৃতিতে গঠন করেছেন। In whatever Form He wills, does He put thee together.

(  فِىٓ  মধ্যে  In, أَىِّ যে whatever,  صُورَةٍ আকৃতিতে form, مَّا (যা) যেমন that,  شَآءَ তিনি চেয়েছেন He willed,  رَكَّبَكَ তোমাকে গঠন করেছেন He assembled you ) 

 

(9)  كَلَّا بَلْ تُكَذِّبُونَ بِالدِّينِ কখনও বিভ্রান্ত হয়ো না; বরং তোমরা দান-প্রতিদানকে মিথ্যা মনে কর। Day! nit ye do reject Right and Judgment!

(  كَلَّا কখনও নয় Nay!,  بَلْ বরং But,  تُكَذِّبُونَ তোমারা মিথ্যা মনে করছ you deny,  بِٱلدِّينِ শেষ বিচারকে the Judgment ) 

 

(10)  وَإِنَّ عَلَيْكُمْ لَحَافِظِينَ অবশ্যই তোমাদের উপর তত্ত্বাবধায়ক নিযুক্ত আছে। But verily over you (are appointed angels) to protect you,-

(  وَإِنَّ এবং নিশ্চয়ই And indeed,  عَلَيْكُمْ তোমাদের উপর over you,  لَحَٰفِظِينَ সংরক্ষক দল অবশ্যই (আছে) (are) surely guardians ) 

 

(11)  كِرَامًا كَاتِبِينَ সম্মানিত আমল লেখকবৃন্দ। Kind and honorable,- Writing down (your deeds):

(  كِرَامًا সম্মানিত Noble,  كَٰتِبِينَ লেখকবৃন্দ recording ) 

 

(12)  يَعْلَمُونَ مَا تَفْعَلُونَ তারা জানে যা তোমরা কর। They know (and understand) all that ye do.

(  يَعْلَمُونَ তারা জানে They know,  مَا যা whatever,  تَفْعَلُونَ তোমরা কর you do ) 

 

(13)  إِنَّ الْأَبْرَارَ لَفِي نَعِيمٍ সৎকর্মশীলগণ থাকবে জান্নাতে। As for the Righteous, they will be in bliss;

( إِنَّ নিশ্চয়ই Indeed,  ٱلْأَبْرَارَ সৎ ব্যক্তিরা the righteous, لَفِى অবশ্যই মধ্যে(থাকবে) (will be) surely in,  نَعِيمٍ স্বাচ্ছন্দ্যে (সুখে-শান্তিতে) bliss )

 

(14)  وَإِنَّ الْفُجَّارَ لَفِي جَحِيمٍ এবং দুষ্কর্মীরা থাকবে জাহান্নামে; And the Wicked – they will be in the Fire,

(  وَإِنَّ এবং নিশ্চয়ই And indeed,  ٱلْفُجَّارَ পাপাচারীরা the wicked,  لَفِى অবশ্যই মধ্যে (যাবে) (will be) surely in,  جَحِيمٍ দোজখের Hellfire ) 

 

(15)  يَصْلَوْنَهَا يَوْمَ الدِّينِ তারা বিচার দিবসে তথায় প্রবেশ করবে। Which they will enter on the Day of Judgment,

(  يَصْلَوْنَهَا সেখানে তারা প্রবেশ করবে They will burn (in) it,  يَوْمَ দিনে (on the) Day,  ٱلدِّينِ বিচার (of) the Judgment )

 

(16)  وَمَا هُمْ عَنْهَا بِغَائِبِينَ তারা সেখান থেকে পৃথক হবে না। And they will not be able to keep away therefrom.

(  وَمَا এবং না And not,  هُمْ তারা they,  عَنْهَا তা থেকে from it, بِغَآئِبِينَ অনুপস্থিত (থাকতে সক্ষম হবে) (will be) absent ) 

 

(17)  وَمَا أَدْرَاكَ مَا يَوْمُ الدِّينِ আপনি জানেন, বিচার দিবস কি? And what will explain to thee what the Day of Judgment is?

(  وَمَآ এবং কিসে And what,  أَدْرَىٰكَ তোমাকে জানাবে can make you know, مَا কি (সেই) what,  يَوْمُ দিন (is the) Day, ٱلدِّينِ বিচারের (of) the Judgment? ) 

 

(18)  ثُمَّ مَا أَدْرَاكَ مَا يَوْمُ الدِّينِ অতঃপর আপনি জানেন, বিচার দিবস কি? Again, what will explain to thee what the Day of Judgment is?

(  ثُمَّ অতঃপর  Then,  مَآ কিসে what,  أَدْرَىٰكَ তোমাকে জানাবে can make you know,  مَا কি সেই what,  يَوْمُ দিন (is the) Day,  ٱلدِّينِ বিচারের (of) the Judgment? ) 

 

(19)  يَوْمَ لَا تَمْلِكُ نَفْسٌ لِّنَفْسٍ شَيْئًا وَالْأَمْرُ يَوْمَئِذٍ لِلَّهِ যেদিন কেউ কারও কোন উপকার করতে পারবে না এবং সেদিন সব কতৃêত্ব হবে আল্লাহর। (It will be) the Day when no soul shall have power (to do) aught for another: For the command, that Day, will be (wholly) with Allah.  

(  يَوْمَ সেদিন (The) Day,  لَا না not, تَمْلِكُ সক্ষম হবে will have power,  نَفْسٌ কেউ a soul,  لِّنَفْسٍ কারও জন্যে for a soul,  شَيْـًٔا কিছু (করতে) anything, وَٱلْأَمْرُ এবং কর্তৃত্ব and the Command,  يَوْمَئِذٍ সেদিন (হবে কেবল) that Day,  لِّلَّهِ আল্লাহর জন্যে (will be) with Allah ) 

 

 

 

আইডিসির সাথে যোগ দিয়ে উভয় জাহানের জন্য ভালো কিছু করুন!

 

আইডিসি এবং আইডিসি ফাউন্ডেশনের ব্যপারে  জানতে  লিংক০১ ও লিংক০২ ভিজিট করুন।

আইডিসি  মাদরাসার ব্যপারে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন। 

আপনি আইডিসি  মাদরাসার একজন স্থায়ী সদস্য /পার্টনার হতে চাইলে এই লিংক দেখুন.

আইডিসি এতীমখানা ও গোরাবা ফান্ডে দান করে  দুনিয়া এবং আখিরাতে সফলতা অর্জন করুন।

কুরআন হাদিসের আলোকে বিভিন্ন কঠিন রোগের চিকিৎসা করাতেআইডিসি ‘র সাথে যোগাযোগ করুন।

ইসলামিক বিষয়ে জানতে এবং জানাতে এই গ্রুপে জয়েন করুন।